শীতের দিনে শুষ্ক ঠোঁটে লিপস্টিক দেয়ার পূর্ববর্তী যত্ন কেমন হবে? শীতের দিনে শুষ্ক ঠোঁটে লিপস্টিক দেয়ার পূর্ববর্তী যত্ন কেমন হবে?

শীতের দিনে শুষ্ক ঠোঁটে লিপস্টিক দেয়ার পূর্ববর্তী যত্ন কেমন হবে?

লিখেছেন - মাহবুবা মিমি  ডিসেম্বর ১, ২০১৯

আজকাল ম্যাট লিপস্টিকের যুগ। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ম্যাট লিপস্টিক ঠোঁটে থাকার কারণে এমনিতেই ঠোঁট বেশ ড্রাই হয়ে যায়। আর এখনতো শীত চলে এসেছে। সকাল বেলাতেই দেখা যায় ঠোঁট বেশ টানটান হয়ে আছে। আর শুষ্ক ফেটে যাওয়া ঠোঁটে লিপস্টিক বা লিপগ্লস কোন কিছুই মানায় না। তাহলে পুরো শীতের মৌসুম জুড়ে কিভাবে শুষ্ক ঠোঁটে লিপস্টিক অ্যাপ্লাই করবেন এবার তাই জেনে নেই!

শীতের দিনে শুষ্ক ঠোঁটে লিপস্টিক অ্যাপ্লাই করার টিপস

শুষ্ক ঠোঁটে লিপস্টিক অ্যাপ্লাই করার জন্য কিছু টিপস ফলো করতে পারেন। লিপস্টিক অ্যাপ্লাই করার জন্য আপনার যা যা লাগবে-

১. এক মগ হালকা গরম পানি

২. বেবি টুথ ব্রাশ বা নরম সুতি কাপড়

৩. যেকোনো ভালো কোল্ড ক্রিম 

৪. লিপ বাম

৫. কটন বাড বা কটন বল

৬. ফাউন্ডেশন

৭. পছন্দসই লিপলাইনার এবং লিপস্টিক

যেভাবে শুষ্ক ঠোঁটে লিপস্টিক অ্যাপ্লাই করবেন

১. এক মগ গরম পানিতে টুথব্রাশ অথবা সুতি কাপড়টি ভিজিয়ে রাখুন। কখনোই নতুন টুথব্রাশ ব্যবহার করবেন না। পুরনো টুথব্রাশ ভালোভাবে পরিস্কার করে নিয়ে তবেই ব্যবহার করবেন। কাপড় ব্যবহার করলে পুরনো গামছা বা সুতি ওড়নার কাপড় ব্যবহার করতে পারেন।

শুষ্ক ঠোঁটে লিপস্টিক অ্যাপ্লাইয়ের আগে ব্রাশ দিয়ে ঘষা - shajgoj.com

২. এবার এই টুথব্রাশ বা কাপড়টি দিয়ে ঠোঁট প্রথমে ভিজিয়ে নিয়ে হালকাভাবে সার্কুলার মোশনে ম্যাসাজ করুন। এতে আস্তে আস্তে ঠোঁটের উপর জমে থাকা শুকনো চামড়া উঠে যাবে। সময় নিয়ে ম্যাসাজ করুন। ঘষাঘষি করবেন না। এতে করে পরে লিপস্টিক লাগানোর সময় ঠোঁট জ্বালা পোড়া করবে।

শুষ্ক ঠোঁটে লিপস্টিকের উপর লিপগ্লস অ্যাপ্লাই - shajgoj.com

৩. এরপরে ঠোঁট মুছে নিয়ে কোল্ড ক্রিম লাগিয়ে নিন পুরু করে। পাঁচ মিনিট রেখে কটন বল দিয়ে মুছে নিন। এবার একটা লিপ বাম লাগিয়ে নিলেই আপনার ঠোঁট লিপস্টিক লাগানোর জন্য রেডি। যেহেতু শীতে আমরা একটু ক্রিমি টেক্সচারের লিপস্টিক বা লিপ গ্লস লাগাতে পছন্দ করি, তাই লিপ গ্লস যাতে ছড়িয়ে না যায় সেজন্য লিপস্টিক লাগানোর আগে, লিপব্রাশ দিয়ে হালকা করে একটু ফাউন্ডেশন  লাগিয়ে নিন। এরপরে  ফাউন্ডেশন ঠিকভাবে বসে গেলে প্রথমে লিপ লাইনার দিয়ে ঠোঁট একে এর ভেতরে লিপস্টিক লাগিয়ে নিন। বাড়তি হিসেবে হালকা একটু গ্লস লাগাতে পারেন, তবে সেটা যদি রাতের অনুষ্ঠান হয় তবেই।

এইতো গেল লিপস্টিক দেয়ার আগে কিভাবে ঠোঁট প্রিপেয়ার করবেন সেই আলাপ, কিন্তু আপনি যদি একটু নিয়মিত যত্ন নেন,তাহলে কিন্তু আপনার ঠোঁট পুরো শীতকাল জুড়েই থাকবে নরম এবং কোমল।

শুষ্ক ঠোঁটের যত্নে কিছু স্ক্রাবার

শুষ্ক ঠোঁটকে মসৃণ ও কোমল করতে নিয়মিত স্ক্রাবার ব্যবহার করা উচিত। চলুন তবে শুষ্ক ঠোঁটের যত্নে কিছু ঘরোয়া স্ক্রাবার জেনে নেই!

১. ১/২ চা চামচ দারচিনি গুঁড়া, হাফ টেবিল চামচ মধু এবং সামান্য অলিভ অয়েল মিশিয়ে ঠোঁটে লাগিয়ে স্ক্রাব করার মতো করে ম্যাসাজ করতে থাকুন। এরপরে পাতলা সুতি কাপড় গরম পানিতে ভিজিয়ে ঠোঁট মুছে ফেলুন। সাথে সাথে লিপ বাম লাগিয়ে নিন!

২. এক টেবিল চামচ মধু, এক টেবিল চামচ ব্রাউন সুগার, দুই তিন ফোঁটা ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েল একসাথে ভালো করে মিশিয়ে নিয়ে ঠোঁটে স্ক্রাব করুন। এরপরে উষ্ণ গরম পানি দিয়ে ঠোঁট ধুয়ে ফেলুন।

শুষ্ক ঠোঁটের যত্নে মধু ও কফির স্ক্রাব - shajgoj.com

৩. এক টেবিল চামচ কফির গুঁড়োর সাথে মিশিয়ে নিন এক টেবিল চামচ মধু। হালকা করে আঙ্গুলের সাহায্যে পুরো ঠোঁটে ম্যাসাজ করে নিন। এরপরে হালকা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৪. একটি গোলাপের পাপড়ি ভালো করে ধুয়ে সামান্য দুধ মিশিয়ে বেটে পেস্টের মতো বানিয়ে নিন। এরপরে ঠোঁটে পুরু করে লাগিয়ে কিছুক্ষন অপেক্ষা করুন। একটু শুকিয়ে আসলে আবার দুধ দিয়ে ভিজিয়ে নিয়ে ঘষে ঘষে তুলে ফেলুন। এটা নিয়মিত করলে ঠোঁট নরমও হবে আবার গোলাপিও হবে।

শুষ্ক ঠোঁটের যত্নে দুধ ও গোলাপের পাপড়ির স্ক্রাব - shajgoj.com

৫. এক টেবিল চামচ মধু, এক টেবিল চামচ নারকেল তেল, দুই টেবিল চামচ ব্রাউন সুগার, হাফ টেবিল চামচ উষ্ণ গরম পানি। প্রথমে তেল আর মধু মিশিয়ে নিন। এরপরে মেশান ব্রাউন সুগার এবং সবশেষে পানি। হালকা হাতে কয়েক মিনিট ধরে ঘষে নিন পুরো ঠোঁটে। এরপর উষ্ণ গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এরপরে লিপ বাম লাগিয়ে নেবেন।

৬. দুই টেবিল চামচ কমলার খোসা গুঁড়ো, দুই টেবিল চামচ ব্রাউন সুগার আর দশ থেকে বারো ফোঁটা বাদাম তেল। একদম মিহি কমলার গুঁড়োর সাথে ব্রাউন সুগার এবং তেল মিশিয়ে ঠোঁটে সার্কুলার মোশনে ম্যাসাজ করতে করতে স্ক্রাব করুন। সপ্তাহে দুই থেকে তিন দিন করতে পারলে, ঠোঁট কোমলতো হবেই পাশাপাশি ঠোঁটের কালচেভাবও দূর হয়ে যাবে।

শুষ্ক ঠোঁটের যত্নে ভ্যাসলিন ও চিনির স্ক্রাব - shajgoj.com

৭. এক চা চামচ ভ্যাসলিন বা ভালো কোন পেট্রোলিয়াম জেলির সাথে এক টেবিল চামচ চিনি মিশিয়ে নিন ভালোভাবে। এরপরে এতে মেশান এক টেবিল চামচ লেবুর রস। এরপরে ঠোঁটে ম্যাসাজ করুন এক মিনিট ধরে। তারপর ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাকটিও ঠোঁট নরম করার পাশাপাশি ঠোঁটের কালচেভাব দূর করবে।

শেষ করবার আগে বলি, ওপরে যে স্ক্রাবগুলোর কথা বলা হল, সেগুলো সবসময় রাতে করাই ভালো। স্ক্রাব দিয়ে ভালোভাবে ম্যাসাজ করে, উষ্ণ গরম পানিতে ঠোঁট মুছে নিয়ে ভালো ব্র্যান্ডের একটা লিপ বাম লাগিয়ে নেবেন। আর সপ্তাহে দুই বারের বেশি স্ক্রাবিং করবেন না। এবং, রোজ সকালে লিপস্টিক লাগানোর আগে কোন একটা লিপবাম অবশ্যই লাগাবেন। আর রাতে ঘুমুবার আগে ভ্যাসলিন লাগাতে ভুলবেন না। এবার তাহলে শুষ্ক ঠোঁটে আর নির্জীব রঙ নয়, কোমল ও নরম ঠোঁটে লিপস্টিক লাগিয়ে ঠোঁট হবে আরও আকর্ষণীয়!

আপনি যদি অথেনটিক লিপস্টিক কোথায় পাবেন তা নিয়ে চিন্তায় থাকেন, তাহলে শপ.সাজগোজ.কম হতে পারে আপনার অনলাইনের নির্ভরযোগ্য স্থান। আর নিজে গিয়ে কিনতে চাইলে সাজগোজের ফিজিক্যাল শপে চলে যেতে পারেন, যার একটি যমুনা ফিউচার পার্ক ও অপরটি সীমান্ত স্কয়ারে অবস্থিত। ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন!

ছবি- সংগৃহীত: সাজগোজ; ইমেজেসবাজার.কম; ডার্ক লিপস টিপস.কম