ঠোঁটে ডার্ক লিপস্টিক ব্যবহার | ১০টি টিপস আপনার লুকে আনবে পরিবর্তন ঠোঁটে ডার্ক লিপস্টিক ব্যবহার | ১০টি টিপস আপনার লুকে আনবে পরিবর্তন

ঠোঁটে ডার্ক লিপস্টিক ব্যবহার | ১০টি টিপস আপনার লুকে আনবে পরিবর্তন

লিখেছেন - জান্নাতুল মৌ মার্চ ২২, ২০১৮

আমার মতে, ডার্ক লিপস্টিক লাগালেই পুরো লুকে একটা চেঞ্জ চলে আসে। আর কিছুই লাগে না। ইন্সটাগ্রামে যখন মেকআপ আর্টিস্টরা একদম পারফেক্টভাবে লিপস্টিক লাগায়, তা দেখতে কিন্তু অত্যন্ত সুন্দর লাগে। কিন্তু আপনি লিপস্টিক লাগাতে গেলেই ছড়িয়ে যায়, লাইনিং ঠিক হয় না এবং ডার্ক কালারটি সুন্দরভাবে ফুটে ওঠে না। ফলে, আফসোস রয়েই যায়। এছাড়াও অনেকেই আছেন, একটু গাড়ো ধরনের রঙ এর লিপস্টিক ঠোঁটে লাগানোর ইচ্ছে পোষণ করেন ঠিকই, কিন্তু কনফিডেন্স-এর অভাবে ক্যারি করতে পারেন না। তাই এই আর্টিকেলে আপনাকে ঠোঁটে ডার্ক লিপস্টিক ব্যবহার করার কিছু টিপস দেবো যার মাধ্যমে আপনার ঠোঁটেও ডার্ক লিপস্টিক সুন্দরভাবে ফুটে উঠবে এবং সেটি আপনি পারফেক্টলি ক্যারিও করতে পারবেন।

ঠোঁটে ডার্ক লিপস্টিক ব্যবহার করার কিছু টিপস

(১) ডার্ক লিপস্টিক লাগানোর আগে ঠোঁট দুটিকে তৈরী করে নিতে হবে। ঠোঁটে যদি মরা চামড়া, রিংকেল থাকে, তবে কিন্তু লিপস্টিক ভালোভাবে ফুটে উঠবে না এবং দেখতে বাজে দেখাবে। তাই প্রথমেই একটি লিপ স্ক্রাবার দিয়ে ঠোঁট স্ক্রাবিং করে নিতে হবে। ঠোঁটে রিংকেল থাকলে যে কোনো হাইড্রেটিং লিপ প্রাইমার লাগিয়ে নিতে পারেন।

(২) ঠোঁটে পিগমেন্টেশন থাকলে যে কোনো ফাউন্ডেশন বা কন্সিলার অল্প একটু নিয়ে ঠোঁটে লাগিয়ে নিবেন। এতে করে পিগমেন্টেশন ঢাকা পড়ে যাবে এবং লিপস্টিকের কালার পারফেক্টলি ফুটে উঠবে।

(৩) এরপর আসি লিপস্টিক নির্বাচনে। এটা কিন্তু খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটা বিষয়। সব সময় ডার্ক কালারের ক্ষেত্রে এমন লিপস্টিক বেছে নিন যেটি খুবই পিগমেন্টেড। লিকুইড লিপস্টিকগুলো এক্ষেত্রে আপনার বন্ধু হতে পারে। আর কালারের ক্ষেত্রে আপনার মুড অনুযায়ী যে কোনো ডার্ক কালার যেমন, ব্রাউন, বার্গান্ডি, রেড, পার্পল, প্লাম ইত্যাদি কালার বেছে নিন।

(৪) এবার লিপস্টিক লাগানোর পালা। লিকুইড লিপস্টিক ব্যবহার করলে এর সাথে তো ওয়ান্ড আসেই। তবে নরমাল লিপস্টিক লাগাতে চাইলে একটি লিপ ব্রাশ ব্যবহার করবেন। প্রথমে ঠোঁটের আউটলাইন করে নিবেন ওয়ান্ড বা ব্রাশের সাহায্যে। এরপর পুরো ঠোঁটে লিপস্টিক লাগিয়ে নিবেন।

(৫) পুরো ঠোঁটে লিপস্টিক লাগানো হয়ে গেলে, লিপস্টিক এর কালারের সাথে ম্যাচ করে, এমন একটি কালারের লিপলাইনার নিয়ে ঠোঁটে আবারো আউটলাইন করে নিন। লিপস্টিক লাগানোর পরে আবার লিপলাইনার, শুনতে একটু অদ্ভুত লাগলেও এটির মাধ্যমে যদি আপনার লিপস্টিকের লাইনটা এবড়োথেবড়ো হয়ে যায় তবে তার কারেকশন করে ফেলতে পারবেন। যার ফলে আপনার ঠোঁট ডিফাইন একটা লুক পাবে।

(৬) ডার্ক লিপস্টিক ঠোঁটে ম্যাট দেখতেই ভালো লাগে। তাই লিপ গ্লসের ব্যবহার না করাই ভালো। তাছাড়া এটি ছড়িয়ে গিয়ে পুরো লুকটাই নষ্ট করে দিতে পারে। তবে আপনি যদি একান্তই দিতে চান, তবে কোনো থিন কনসিস্টেন্সির লিপগ্লস ঠোঁটের মাঝখানের দিকে লাগাতে পারেন।

(৭) ডার্ক লিপস্টিক লাগালে পুরো মেকআপ লুকটা বোল্ড না রেখে সিম্পল রাখলেই বেশী ভালো লাগবে এবং লিপস্টিক ও সুন্দর ভাবে ফুটে উঠবে। তাই চেষ্টা করুন সবকিছু মিনিমাল রেখে সফট একটা লুক ক্রিয়েট করার।

(৮) ডার্ক লিপস্টিক লাগালে অবশ্যই ফেইস এ ব্রোঞ্জার এবং হাইলাইটার লাগাতে ভুলবেন না। এতে ফেস-এ একটা গ্লো যুক্ত হবে এবং দেখতেও ভালো লাগবে।

(৯) অনেকেই আছেন ডার্ক লিপস্টিক পছন্দ করেন কিন্তু লাগাতে সাহস পান না। তাদের জন্যে আদর্শ বন্ধু হতে পারে অমব্রে লুক। এক্ষেত্রে প্রথমে ডার্ক কালারের একটি লিপস্টিক লাগিয়ে নিয়ে, এর উপরে লাইট একটি কালার লাগাবেন। মনে রাখবেন, লাইট কালারটি পুরো ঠোঁটে লাগাবেন না। শুধুমাত্র ঠোঁটের মাঝের দিকে লাগাবেন। এরপর লিপ ব্রাশ/আঙুলের সাহায্যে দুটি কালার ব্লেন্ড করে নিবেন।

(১০) বাসা থেকে বের হওয়ার আগে আপনার দাঁতগুলো চেক করে নিন। দাঁতে ডার্ক কালারের লিপস্টিক লেগে থাকা দেখতে কিন্তু  হাস্যকর এবং অদ্ভুত লাগে।

এই তো জেনে নিলেন, ডার্ক লিপস্টিক সম্পর্কিত কিছু টিপস। একটি কথা, আপনার ডার্ক লিপস্টিক সম্পর্কে অন্যরা কি ভাবছে এটা নিয়ে একদম চিন্তা করবেন না। আপনার যদি মনে হয় আপনি এটি পড়ে কনফিডেন্ট, তবেই আপনাকে সুন্দর লাগবে।

ছবিঃ সংগৃহীত – বিউটিএন্ডটিপস.কম