মোটা ঠোঁটে লিপস্টিক ব্যবহার কিভাবে করবেন জানেন কি? মোটা ঠোঁটে লিপস্টিক ব্যবহার কিভাবে করবেন জানেন কি?

মোটা ঠোঁটে লিপস্টিক ব্যবহার কিভাবে করবেন জানেন কি?

লিখেছেন - ন্যান্সী জাহান সেপ্টেম্বর ১, ২০১৯

আমরা নিজেদের আকর্ষণীয় করে তুলতে কত ভাবেই না সাজগোজ করে থাকি। বিভিন্ন ধরনের মেকআপে চোখ, মুখকে সাজাই। সব সাজগোজের পর লিপস্টিক দিয়ে ঠোঁটকে রাঙানোর মাধ্যমে মেকআপ শেষ করি। লিপস্টিক হতে হবে পোশাকের সঙ্গে  মানানসই। তার জন্য জানতে হবে আকর্ষণীয় করে ঠোঁট সাজানো বা লিপস্টিক ব্যবহার করার পদ্ধতি। আজকে আমরা আপনাদের জানাবো মোটা ঠোঁটে লিপস্টিক ব্যবহার কিভাবে করবেন!

মোটা ঠোঁটে লিপস্টিক ব্যবহার করার নিয়ম 

গায়ের রঙ ও ঠোঁটের আকার বুঝে লিপস্টিক দেওয়া

সাজগোজ পুরোই অসুন্দর হয়ে যায় যদি না আমরা ঠোঁটের আকার আর গায়ের রঙ না বুঝে লিপস্টিক ব্যবহার করি। আমাদের সবার ঠোঁটের আকারতো আর এক না, কারো মোটা তো কারো পাতলা। একেক ধরনের ঠোঁটের আকার অনুযায়ী একেকভাবে লিপস্টিক দিতে হয়। সেই সাথে লিপস্টিকের রঙটাও বুঝে সিলেক্ট করতে হয়।

ঠোঁটে লিপস্টিক ব্যবহারের পূর্বে রঙ ও আকার বুঝা - shajgoj.com

লিপস্টিকের রঙ নির্বাচন করার সময় দুটি বিষয় মনে রাখা প্রয়োজন। প্রথমত গায়ের রঙ, দ্বিতীয়ত ঠোঁটের আকার। গায়ের রঙ বিষয়টি মনে রাখলেও ঠোঁটের আকার বিষয়টি আমরা তেমন গুরুত্ব দেই না। যাদের ঠোঁট পাতলা তাদের গাঢ় রঙ এড়িয়ে চলা উচিত আর যাদের ঠোঁট মোটা আর ভরাট তাদের উজ্জ্বল রঙ না দেয়াই ভাল।

ঠোঁটের সঠিক যত্ন নেয়ার পদ্ধতি

লিপস্টিক যাই ব্যবহার করি না কেন, ঠোঁট যদি ফাটা বা অমসৃণ থাকে তাহলে লিপস্টিক কোনভাবেই ঠোঁটে বসবে না আর দেখতে ভালো লাগবে না। এজন্য দরকার ঠোঁটের সঠিক যত্ন। ঠোঁটের যত্ন কিভাবে নিতে হয় অনেকেই আমরা জানি না। ত্বকের যেমন যত্ন নিতে হয় ঠোঁটেরও আলাদা যত্ন নেয়া জরুরি। ঠোঁট ফেটে বা মরা চামড়া উঠে ঠোঁট অমসৃণ হয়ে যায়।  নিয়ম করে এক্সফলিয়েট বা স্ক্রাব করা হলে ঠোঁটের মরা চামড়া পরিষ্কার হয়ে যাবে এবং এক্সফলিয়েট শেষে ভালো ময়েশ্চারাইজার বা জেল দিতে হবে। এতে ঠোঁটের রুক্ষতা কেটে যাবে।

ঠোঁটের সঠিক যত্ন নিতে লিপ বাম ব্যবহার - shajgoj.com

ঠোঁট যেন না শুকিয়ে যায়। লিপস্টিক উঠে যাবার প্রধান কারণ হলো এটি। ঠোঁট শুকিয়ে গেলে, ফেটে গেলে লিপস্টিক ঠোঁটে বসে না। তার ফলে কিচ্ছুক্ষণের মধ্যেই উঠে যায়। লিপস্টিক ঠিকভাবে ঠোঁটে বসার জন্য, আগে ঠোঁটকে মসৃণ করতে হয়। তবেই লিপস্টিক ভালোভাবে বসার জায়গাটা পাবে। অমসৃণ ফাটা ঠোঁটে সেটা হয় না। তাই রাতে শোবার আগে রোজ ঠোঁটে লিপবাম লাগান। তাহলে দেখবেন সারাদিন ঠোঁট নরম থাকছে। এক্ষেত্রে একটু ভালো মানের লিপবাম, যাতে ভিটামিন সি, ই, শিয়া বাটার এসব থাকে এবং রোদে যাবার আগে লিপবাম দিয়ে বের হন যাতে এসপিএফ দেওয়া আছে, কারণ রোদ লেগেও ঠোঁটের আর্দ্রতা নষ্ট হয়ে যায়।

মোটা ঠোঁটে লিপস্টিক ব্যবহার

১. মোটা ও ভারী ঠোঁট আসলে অনেক আকর্ষণীয়। এটাকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলতে ডার্ক কালারের লিপস্টিক ব্যবহার না করে লাইট শেডের ব্যবহার করুন।

২. যে শেডের লিপস্টিক ব্যবহার করবেন তার চেয়ে এক শেড ডার্ক কালারের লিপ লাইনার ব্যবহার করবেন।

লিপস্টিক দেয়ার আগে ডার্ক কালারের লিপ লাইনার ব্যবহার - shajgoj.com

৩. ঠোঁটের স্বাভাবিক আকার অনুযায়ী উপরের ঠোঁটের মাঝখান থেকে বাইরের দিকে আউট লাইন টানুন। পরে ঠোঁটের মাঝখান থেকে লিপস্টিক লাগানো শুরু করুন। এবার বর্ডার লাইনের সাথে লিপস্টিক ভালোভাবে ব্লেন্ড করুন।

৪. লিপস্টিক লাগানোর আগে ঠোঁটের বর্ডার লাইনসহ পুরা ঠোঁটে সামান্য ফাউন্ডেশন লাগিয়ে নিন। এতে ঠোঁট আঁকতে সুবিধা হবে।

৫. লিপ গ্লস এড়িয়ে চলুন। তার বদলে ম্যাট লিপস্টিক ব্যবহার করুন। ভালোভাবে ছড়িয়ে দিতে ব্যবহার করুন লিপ ব্রাশ।

প্রাইমার 

ঠোঁটে লিপস্টিক লাগানোর পূর্বে প্রাইমার ব্যবহার - shajgoj.com

অনেক সময় দেখা যায় লিপস্টিক ঠোঁটে বেশি সময় থাকে না। কিচ্ছুক্ষণ পরই উঠে যায়। তাই সাথে করে সবসময় লিপস্টিক নিয়ে যেতে হয় আমাদের। এ সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পেতে ঠোঁটে লিপস্টিক দেওয়ার আগে প্রাইমার লাগিয়ে নিলে লিপস্টিক সুন্দরমতো বসবে এবং দীর্ঘস্থায়ী হবে।

দোকানে নানা রকম লিপ প্রাইমার কিনতে পাওয়া যায়। আর একান্তই লিপ প্রাইমার না পেলে, লিপ লাইনারই ব্যবহার করুন। লিপ লাইনার দিয়ে আউটলাইন করে পুরো ঠোঁটটা লিপ লাইনার দিয়ে ভরিয়ে দিন। এর ওপর লিপস্টিক দিন। আর অবশ্যই লিপস্টিক লাগানোর পর জিভ দেওয়া বন্ধ করুন। একটু ভালো ব্র্যান্ডের লিপস্টিক ব্যবহার করুন।

এক্সফলিয়েট

এক্সফলিয়েট বা স্ক্রাবিং করা হলে ঠোঁটের মরা চামড়া উঠে যাবে। ঠোঁটে এক্সফলিয়েট করতে হয় কোমল ভাবে। আঙ্গুলের সাহায্যে অথবা নরম ব্রাশ দিয়ে হালকাভাবে ঘষে স্ক্রাবিং করুন। বাজারে যেসব এক্সফলিয়েট পাওয়া যায় তা বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই সকলের জন্য কম বেশি উপযোগী। এছাড়া ঘরোয়া উপায়েও এক্সফলিয়েট তৈরী করা যায়।

১. ডালের গুড়া

ডালের গুড়ার সাথে একটু গোলাপ জল মধু মিশিয়ে, মিশ্রণটি ঠোঁটে নিয়ে আঙ্গুল দিয়ে আলতো করে ঘষতে হবে। এতে মরা চামড়া উঠে যাবে।

২. চালের গুড়া

ঠোঁটের যত্নে চালের গুড়া - shajgoj.com

৩. চিনির ব্যবহার

চিনির সাথে জলপাই তেল অথবা মধু মিশিয়ে ঠোঁটে ঘষলে মরা চামড়া উঠে যায়।

৪. ওটমিলের গুড়া

ঠোঁটের যত্নে ওটমিল গুড়ো - shajgoj.com

ওটমিলের গুড়া ও মধুর পেস্ট তৈরী করেও ঠোঁটে স্ক্রাব করা যায়।

ময়েশ্চারাইজার

ঠোঁটের নাজুক ত্বকের জন্য সবচেয়ে জরুরি হচ্ছে ময়েশ্চারাইজিং। নিয়মিত ঠোঁট ময়েশ্চারাইজ করতে হবে। দিনের বেলায় ভালো মানের লিপবাম অথবা ময়েশ্চারাইজার-সমৃদ্ধ লিপস্টিক ব্যবহার করুন। রাতে ঘুমানোর আগে পুরু করে পেট্রোলিয়াম জেলির প্রলেপ দিন ঠোঁটে। ঠোঁট বেশি শুষ্ক হলে প্রথমে গোলাপজলের সঙ্গে গ্লিসারিন মিশিয়ে ঠোঁটে লাগান। শুকিয়ে গেলে পেট্রোলিয়াম জেলি বা লিপবাম দিয়ে ঘুমাতে যান।

আপনি চাইলে আপনার পছন্দমতো লিপস্টিক কিনতে পারেন অনলাইনে শপ.সাজগোজ.কম থেকে। আবার যমুনা ফিউচার পার্ক ও সীমান্ত স্কয়ার এ অবস্থিত সাজগোজের দুটি ফিজিক্যাল শপ থেকেও কিনতে পারেন আপনার পছন্দের লিপস্টিকটি!

তবে একটি কথা না বললেই নয়। প্রতিদিন লিপস্টিক না দিয়ে একটু বিরতি দেওয়াই ভালো। এতে ঠোঁট তার নিজস্বতা ধরে রাখতে পারে। জেনে নিলেনতো মোটা ঠোঁটে লিপস্টিক ব্যবহার এর উপায়। নিজের যত্ন নিন ভালো থাকুন।

 

ছবি- সংগৃহীত: সাজগোজ; ইমেজেসবাজার.কম