রূপার গহনার যত্ন | সংরক্ষণ পদ্ধতি ও উজ্জ্বল রাখতে করণীয় কী?

রূপার গহনার যত্ন | সংরক্ষণ পদ্ধতি ও উজ্জ্বল রাখতে করণীয় কী?

রূপার গহনার যত্ন - shajgoj.com

গহনা পছন্দ করে না এমন মেয়ে খুব কমই আছে। বাঙালী নারীর সাজসজ্জার একটা বিরাট অংশ জুড়ে থাকে গহনা। হোক সেটা সোনা, রূপা, হীরা, মুক্তা, পুতি, মাটি অথবা কাঠের। সব ধরনের গহনাতেই মেয়েরা নিজেদের সাজাতে পছন্দ করে। কোন গহনাতেই অরুচি নেই মেয়েদের। শাড়ি, সালোয়ার কামিজ বা ওয়েষ্টার্ণ পোশাক যাই পরা হয় না কেন, সব কিছুর সাথেই মিলিয়ে গহনা পরে মেয়েরা। আমাদের দেশে রূপার আলাদা ঐতিহ্য আর আভিজাত্য অনেক আগে থেকেই ছিল। আগের দিনে রাজা, জমিদাররা তাদের বাড়িতে রূপার থালা-বাসন, ঘটি-বাটি, হুকো এসব ব্যবহার করতেন। রূপা ছিল তখনকার অভিজাত পরিবারগুলোর ঐতিহ্যের একটা অংশ। এছাড়া একটা সময় ছিল গ্রাম বাংলার অনেক বউ-ঝিয়ের পায়েও শোভা পেত রূপার তৈরী নুপুর বা মল। তখন রূপার গহনার যত্ন নিত না এমন কেউ হয়তো ছিল না।

কালের পরিক্রমায় একসময় রূপার ব্যবহার কমে গেলেও বর্তমানে রূপার চাহিদা শীর্ষে। রূপার দাম তুলনামূলক কম হওয়াতে সবাই এখন রূপার দিকেই ঝুঁকেছে। কয়েক বছর আগেও রূপা নির্দিষ্ট কয়েকটা গহনার মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল। কিন্তু এখন রূপা দিয়ে সব রকমের গহনাই বানানো হচ্ছে। সোনার মূল্য আকাশচুম্বি হওয়াতে রূপা দিয়ে সুন্দর সব ডিজাইনের গহনা বানিয়ে তাতে সোনার রঙ করিয়ে নিচ্ছে মেয়েরা। এসব গোল্ড প্লেটেড রূপার গহনা বিয়ের কনেরাও ব্যবহার করছে। যেকোন জুয়েলারিতে গেলেই চোখে পরবে আধুনিকতার ছোঁয়ায় দৃষ্টিনন্দন ডিজাইনের তৈরী রূপার সুন্দর সব গহনা। তবে গোল্ড প্লেটেড গহনা ছাড়াও বাজারে রূপার গহনাই জনপ্রিয়তার শীর্ষ স্থান দখল করে আছে। একসময় রূপার গহনা শুধু রূপার উপর বিভিন্ন কারুকাজ করে ফুটিয়ে তোলা হতো। কিন্তু সময়ের সাথে সাথে বিভিন্ন ডিজাইনের পাথর, মুক্তা, পুতি, কুন্দন ইত্যাদি বসিয়ে রূপার গহনা তৈরী করা হচ্ছে। এসব ডিজাইন খুবই নজরকাড়া। তবে রূপার এতসব সুবিধার মধ্যে কিছু অসুবিধাও আছে। দীর্ঘদিন ব্যবহার করলে বা একটু যত্নের অভাবে রূপা কালো আর অনুজ্জ্বল হয়ে যায়। তাই এর জন্য চাই বাড়তি যত্ন ও সতর্কতা। চলুন জেনে নেই রূপার গহনা সংরক্ষণের পদ্ধতি ও এর যত্নে করণীয় কী সে সম্পর্কে!

রূপার গহনার যত্ন নিয়ে যত কথা

রূপার গহনা সংরক্ষণের ৩টি পদ্ধতি

রূপার গহনা সংরক্ষণে বাক্স - shajgoj.com

১) রূপার গহনা ব্যবহারের পর তা অবশ্যই নরম কাপড় ও টিস্যু দিয়ে মুছে শুকিয়ে বক্সে রাকতে হবে, বক্সে রাখার আগে গহনাগুলোকে টিস্যু দিয়ে মুড়িয়ে রাখতে হবে। কোন গহনাই একটার সাথে আরেকটা জড়িয়ে রাখবেন না, প্রতিটি আলাদা টিস্যু দিয়ে মুড়িয়ে আলাদা আলাদা রাখবেন। এতে গহনা ভালো থাকবে।

২) রূপার গহনা বছরে দুই থেকে তিনবার পলিশ করিয়ে সংরক্ষণ করুন। নয়তো ময়লা জমে রূপার উজ্জ্বলতা নষ্ট হয়ে যাবে। পলিশ করিয়ে নিলে রূপার জেল্লা বাড়ে ও ভালো থাকে।

৩) গহনা পরার আগেই মেকআপ সহ সমস্ত প্রসাধনী যেমন- পারফিউম, লোশন এসব লাগিয়ে নিয়ে তারপর গহনা পরুন। কারণ এগুলো গহনাতে লাগলে দাগ পড়ে যায়।

রূপার গহনা চকচকে ও উজ্জ্বল রাখতে কী কী করণীয়?

৪) টুথপেষ্টের ব্যবহার

রূপার গহনা সংরক্ষণে টুথপেষ্টের ব্যবহার - shajgoj.com

রূপার গহনার যত্ন নিতে একটি পরিষ্কার ব্রাশে সাদা পেষ্ট লাগিয়ে গহনাগুলোকে হালকাভাবে ঘষুন কয়েক মিনিট। এবার ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে শুকিয়ে নিন। দেখবেন রূপার কালোভাব কমে গিয়ে চকচকে হয়ে গেছে।

৫) লেবু ও লবণের ব্যবহার

রূপার গহনা চকচকে করতে লেবুর জুড়ি নেই। একটি লেবু কেটে তার মধ্যে লবণ লাগিয়ে নিয়ে রূপারগুলোকে ঘষতে থাকুন। এই পদ্ধতি খুব সহজে রূপা পরিষ্কার করতে সাহায্য করে।

৬) ডিটারজেন্ট পাউডার

রূপার গহনা সংরক্ষণে ডিটারজেন্ট পাউডার - shajgoj.com

রূপার গহনা পরিষ্কার করার আরেকটি সহজ উপায় হলো ডিটারজেন্ট পাউডার। একটি অ্যালুমিনিয়ামের পাত্রে গরম পানি ও ডিটারজেন্ট গুড়ো মিশিয়ে ফেনা তুলে গহনাগুলো ১০-১৫ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন। তারপর ব্রাশ দিয়ে ঘষে পরিষ্কার করুন। রূপার গহনার যত্ন নিতে এটি সবচেয়ে সহজলভ্য জিনিস।

৭) কন্ডিশনারের ব্যবহার

চুলের কন্ডিশনার গহনাতে লাগিয়ে ব্রাশ করলেও রূপার চকচকে ভাব চলে আসে। তাহলে শুধু চুলের যত্নে কন্ডিশনার না ব্যবহার করে সিলভারের যত্নও নিন এটির সাহায্যে।

৮) ভিনেগার ও বেকিং সোডার ব্যবহার

অর্ধেক কাপ সাদা ভিনেগারের সাথে দুই টেবিল চামচ বেকিং সোডা মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণে গহনাগুলো ২ থেকে ৩ ঘন্টা রেখে দিন। এরপর ঠাণ্ডা পানিতে ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন কেমন ঝকঝক করছে আপনার গহনা!

৯) অলিভ ওয়েল ও লেবুর রসের মিশ্রণ

এক টেবিল চামচ লেবুর রসের সাথে আধা কাপ লেবুর রস মিশিয়ে গহনাগুলো ভিজিয়ে রাখুন। তারপর একটা ব্রাশ দিয়ে ঘষে নিন। এবার গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

১০) বেকিং সোডা ও গরম পানির ব্যবহার

রূপার গহনা সংরক্ষণে বেকিং সোডা - shajgoj.com

একটি পাত্রে ফয়েল পেপার বিছিয়ে রেখে তার মধ্যে গরম পানি ও এক বা দুই চামচ বেকিং সোডা মিশিয়ে গহনাগুলোকে ৫ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন। এবার গহনাগুলোকে ব্রাশ দিয়ে ঘষে ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন কেমন চকচকে হয়ে গেছে আপনার গহনা।

সতর্কতা

অনেক রূপার গহনায় পাথর, মুক্তা বা অন্যান্য ধাতু লাগানো থাকে। সেগুলো পরিষ্কারের আগে ভালো করে খেয়াল রাখবেন যেন পড়ে না যায়। এক্ষেত্রে খুবই সতর্কতার সাথে গহনাগুলো পরিষ্কার করতে হবে।

আশা করি উপরোল্লিখিত টিপসগুলো অনুসরণ করা হলেই আপনার রূপার গহনা সবসময় চকচকে ও সুন্দর থাকবে।

ছবি- সংগৃহীত: সাজগোজ; হ্যাপি.কো.ইউকে; বিডি জার্নাল; লিলব্লুবু.কম; রিডার্স ডাইজেস্ট.সিএ

0 I like it
0 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...