শীট মাস্ক | ময়েশ্চারাইজড স্কিন পাওয়ার চটজলদি উপায়!

শীট মাস্ক | ময়েশ্চারাইজড স্কিন পাওয়ার চটজলদি উপায়!

শীট মাস্ক অ্যাপ্লাই করে ফেইস থেকে তুলছেন একজন

রেগুলার ময়েশ্চারাইজার তো ব্যবহার করছেন, তারপরও মুখে একটা হেলদি গ্লো আপনি মিস করছেন কি? পার্লারে গিয়ে ট্রিটমেন্ট বা ফেসিয়াল নেয়ার মত সময় নেই, কিন্তু ত্বক একটা ইনস্ট্যান্ট নারিশমেন্ট চায়, কিভাবে চটজলদি গ্লো আনবেন এটা নিয়ে ভাবছেন কি? আমরা সবাই স্কিন নিয়ে কম বেশি এই ধরনের প্রবলেম ফেইস করি। এসময়ে স্কিনটা কেমন যেন রুক্ষ হয়ে যায় আর নিষ্প্রাণ লাগে। ময়েশ্চারাইজড স্কিন পেতে ইজি কোনো সল্যুশন আছে কি? চলুন আজ আমরা জেনে নেই কোরিয়ান বিউটি ট্রেন্ডের একটা ম্যাজিকাল প্রোডাক্ট “শীট মাস্ক” কিভাবে আপনাকে এই সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে। ময়েশ্চারাইজড স্কিন পাওয়ার চটজলদি সমাধান তো এখন হাতের নাগালেই!

শীট মাস্ক আসলে কী? 

কে-বিউটি অথবা কোরিয়ান বিউটি ট্রেন্ড এখন বিউটি ওয়ার্ল্ডে জনপ্রিয়। আর কোরিয়ান স্কিন কেয়ার রুটিনে শীট মাস্ক অ্যাসেনশিয়াল একটি পার্ট। শীট মাস্ক হচ্ছে ফেইস শেপের পাতলা ফেব্রিস্ক বা পেপার যেটা একটি প্যাকেটে পুরোপুরি অ্যাসেন্স অথবা সিরামে ভেজানো থাকে, এক কথায় প্যাকেটজাত ফেসিয়াল মাস্ক বলতে পারেন। এটা-সেটা বাটাবাটি করা, ওটা মুখে মাখা, এরপর ধোয়া এসব ঝামেলায় যারা যেতে চান না, তাদের জন্য বেস্ট প্রোডাক্ট এটি।

শীট মাস্ক হাতে একজন

শীট মাস্ক এর ব্যবহার    

জাস্ট প্যাকেট খুলে মাস্কটি সাবধানে বের করে নিন, হেঁচকা টান দিবেন না যাতে ভেতরের নরম কাপড়/কাগজের মাস্ক ছিঁড়ে যায়। পরিষ্কার মুখে মাস্কটি লাগিয়ে রেখে ১৫-২০ মিনিট পরে সিরাম স্কিনে শুষে নিলে মাস্কটি তুলে ফেলে দিতে হয়। আলতো হাতে কাজটি করতে হবে এবং স্মুদলি যেন মাস্কটা স্কিনে লেগে থাকে সেদিকে একটু খেয়াল রাখলেই হবে। তুলে ফেলার পর মুখ ধোয়ার প্রয়োজন নেই। সিম্পল না? আর এই মাস্ক ব্যবহার করে আপনি যেকোনো কাজ করতে পারবেন তাই আলাদা করে কোন সময় কিন্তু নষ্ট হবে না।

কী আছে এই শীট মাস্কে?       

কী আছে এই মাস্কে এবং আপনার স্কিনে এটা কিভাবে কাজ করবে- নিশ্চয়ই জানতে ইচ্ছা করছে। বিভিন্ন স্কিন প্রবলেমকে টার্গেট করে বা স্কিনের রকমফের ভেদে নানারকম শীট মাস্কের কালেকশন আছে কোরিয়ান স্কিন কেয়ার রেঞ্জে। এটি সাধারণত বায়ো সেলুলোজ (Bio Cellulose) শীট যেটা অ্যাসেন্সটাকে আপনার স্কিনে পাস করে দিতে হেল্প করে।

যে অ্যাসেন্স অথবা সিরামে ভেজানো থাকে এটা মূলত ভিটামিন-ই, গ্লিসারিন, মধু, অ্যালোভেরা, টমেটো, ক্যামেলিয়া, গ্রিন-টি, পার্ল, আঙ্গুরের নির্যাস সমৃদ্ধ। তারা এতে ন্যাচারাল প্রিজারভেটিভ ব্যবহার করে যাতে ব্যাকটেরিয়াল বা ফাঙ্গাল অ্যাটাক না হয়। শীট মাস্ক এমনভাবে প্রস্তুত করা হয় যাতে অ্যাসেন্স অথবা সিরাম সহজেই আপনার স্কিনে শোষিত হয়ে ডিপ লেয়ার পর্যন্ত যায় এবং আপনার ত্বককে হেলদি করে তোলে।

কোথায় পাবো কোরিয়ান শীট মাস্ক?  

শীট মাস্ক কী তা তো জানা হল, এখন প্রশ্ন হলো কোথায় পাবো অরিজিনাল কোরিয়ান স্কিনকেয়ার প্রোডাক্ট? শপ.সাজগোজে আছে কে-বিউটি ক্যাটাগরি (Category), আছে কোরিয়ার নাম করা ব্র্যান্ডের বিভিন্ন শীট মাস্কের কালেকশন। আপনি অনলাইনে অথেনটিক (Authentic) কোরিয়ান স্কিন কেয়ার প্রোডাক্ট কিনতে পারেন শপ.সাজগোজ.কম থেকে। তাছাড়া, সাজগোজের দু’টি ফিজিক্যাল শপে নিজে গিয়েও কিনতে পারেন, যা যমুনা ফিউচার পার্ক ও সীমান্ত সম্ভারে অবস্থিত। বিভিন্ন শীট মাস্কের প্রপার্টিজ আলাদা, ভেরিয়েন্ট শীট মাস্কের কালেকশন থেকে আপনার পছন্দ অনুযায়ী বেছে নিতে পারবেন।

ফেইসে শীট মাস্ক লাগিয়েছেন একজন মেয়ে

শীট মাস্কের ধরন  

বিভিন্ন ধরনের শীট মাস্ক রয়েছে। ত্বকের ধরন দেখে নিজে পছন্দ করে মাস্ক সিলেক্ট করতে পারেন। আমার পছন্দের কিছু শীট মাস্কের কথা শেয়ার করছি, চাইলে এই শীট মাস্কগুলো আপনিও ট্রাই করতে পারেন।

Innisfree My Real Squeeze Mask– Aloe

অ্যালোভেরা ত্বকের জন্য কতটা উপকারী, সেটা আমরা সবাই কমবেশি জানি। এতে অ্যালো ছাড়াও ক্যামেলিয়া, অর্কিড সহ বিভিন্ন হারবাল নির্যাস থাকে। এই মাস্কটি আপনার টায়ার্ড স্কিনকে উজ্জ্বল ও সুন্দর করে তুলবে নিমিষেই, ঠিক ম্যাজিকের মত। অবাক হচ্ছেন? একবার ব্যবহার করে দেখুন।

Dewy Pearl Eessence Mask  

এই মাস্কটা ময়েশ্চারাইজড ও ফ্রেশ স্কিনের জন্য আপনি বেছে নিতে পারেন। হায়ালুরনিক এসিড (Hyaluronic acid), পার্ল এক্সট্রাক্ট (Pearl Extract), গ্লিসারিন সমৃদ্ধ এই মাস্কটি আমার বেশ পছন্দ হয়েছে। এটি স্কিনের ময়েশ্চার লক করে ড্রাইনেস দূর করে খুব অল্প সময়ে।

Innisfree My Real Squeeze Mask– Rose

গোলাপের এক্সট্রাক্ট সমৃদ্ধ এই মাস্কটি ওয়াটার-টাইপ রিফ্রেশিং মাস্ক যেটা আপনার ত্বককে ভেতর থেকে ময়েশ্চারাইজ করে স্মুদ ফিলিং দিবে। দাম ও আপনার হাতের নাগালে।

Missha Airy Fit Sheet Mask- Green Tea

এটি বেশ লাইট একটা মাস্ক এবং অ্যাপ্লাই করার সাথে সাথে ফ্রেশ লুক দেয়। সব স্কিনে এটি মানিয়ে যায় সুন্দর করে। বাইরে থেকে এসে ঝটপট এই মাস্কটা মুখে লাগিয়ে রাখলে ইনস্ট্যান্ট এটি ময়েশ্চার রিস্টোর করবে। গ্রিন টি স্কিনের জন্য বেশ ভালো এবং সেনসিটিভ ত্বকেও ইজিলি ব্যবহার করা যায়।

এছাড়াও আরও অনেক মাস্ক আছে, আপনি নিজে ইগ্রিডিয়েন্স দেখেও সিলেক্ট করে নিতে পারেন। আপনি চাইলে আপনার পছন্দমতো মাস্ক কিনতে পারেন অনলাইনে শপ.সাজগোজ.কম থেকে।

শীট মাস্ক সপ্তাহে একটা বা দু’টো ব্যবহার করাই যথেষ্ট। তো, যারা ট্রাই করতে চাচ্ছেন এখনই করে ফেলুন নিশ্চিন্তে। শুধু কিছু বিষয় খেয়াল রাখবেন,

  • কোনভাবেই ইউজড মাস্ক দ্বিতীয়বার ব্যবহার করার ট্রাই করবেন না।
  • পরিষ্কার হাতে মাস্কটি ইউজ করবেন, মাস্কটি মুখ থেকে তুলে আস্তে আস্তে ম্যাসাজ করবেন তাতে আপনার ত্বক সিরামটুকু শুষে নেবে।
  • ঠাণ্ডা স্থানে রাখবেন এতে সিরামের গুনাগুন ঠিক থাকে।

ব্যস, এইটুকুই! শীট মাস্ক ব্যবহার করে ইনস্ট্যান্ট একটা সিগ্নিফিকেন্ট চেইঞ্জ দেখতে পারবেন আপনি নিজেই। ময়েশ্চারাইজড স্কিন পাওয়ার চটজলদি সমাধান সম্পর্কে জানা হয়ে গেলো। ব্যস্ত জীবনে এই একটা ছোট প্রোডাক্ট দিয়েই আপনার অল ইন ওয়ান সল্যুশন হয়ে যাবে। তাই আজই ট্রাই করুন এবং আপনার অভিজ্ঞতা আমাদের জানাতে ভুলবেন না। তবে সুস্থ্য সুন্দর ত্বকের জন্য রেগুলার স্কিন কেয়ার করাটা খুবই জরুরী। বেসিক স্কিন কেয়ার রুটিন ফলো করুন, প্রচুর পরিমাণে পানি পান করুন, হেলদি ফুড ডায়েটে রাখুন। আজ এই পর্যন্তই। ভালো থাকবেন।

ছবি-সংগৃহীত: সাটারস্টক

50 I like it
3 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...