পারফেক্ট মেয়োনিজ-এর রেসিপি!

পারফেক্ট মেয়োনেজ রেসিপি!

মেয়োনিজ-এর রেসিপি - shajgoj.com

ফাস্টফুডের সাথে মেয়োনেজ ছাড়া যেন চলেই না। বিকালে চায়ের আড্ডাতে ফ্রেঞ্চ ফ্রাই বা স্যান্ডউইচ আছে, কিন্তু কীসের যেন একটা কমতি! ঠিক, মেয়োনেজ থাকলে নাস্তার টেবিল একদম পরিপূর্ণ হতো, তাই না? কিন্তু বাইরে থেকে কেনা এক বোতল মেয়োনেজের দাম তো অনেক, আবার মান নিয়েও মনে প্রশ্ন থেকে যায়। অনেক বাসায় সকালের নাস্তাতে টোস্ট বা পাউরুটির সাথে মাখিয়ে খেতে মেয়োনেজ ব্যবহার করা হয়। আবার আমার মতো অনেকেই আছে যারা শুধু শুধুই মেয়োনেজ খেতে পছন্দ করে। কিন্তু বাসায় তৈরি করতে গেলে অনেক সময় ঠিকমতো হয় না বা ফেটে যায়, আবার কখনো তেল বেশি হয়ে যায়। চলুন জেনে নেই পারফেক্ট মেয়োনিজ-এর রেসিপি তৈরির পদ্ধতি।

পারফেক্ট মেয়োনেজ তৈরির রেসিপি

উপকরণ

ডিম– ১টি
• সাদা সরিষার গুঁড়ো- ১/২চা চামচ
• সাদা গোলমরিচের গুঁড়ো- ১/২চা চামচ
• লেবুর রস- ১টেবিল চামচ
চিনি– ১/৪চা চামচ
• লবণ- সামান্য
• তেল- ৩ বা ৪কাপ

পারফেক্ট মেয়োনিজ-এর রেসিপি প্রস্তুত প্রণালী

১) প্রথমে ডিমের কুসুম এবং সাদা অংশ আলাদা করে নিন। আলাদাভাবে বিটার দিয়ে ফাটিয়ে নিতে হবে।

২) এবার দুটো মিশ্রণকে একসাথে করে এর মধ্যে সাদা সরিষার গুঁড়ো, সাদা গোলমরিচের গুঁড়ো, লেবুর রস, সামান্য লবণ ও চিনি মিশিয়ে বিট করে নিন।

৩) তারপর মিক্স করে রাখা উপকরণগুলো একটি ব্লেন্ডারে নিন। ধীর গতিতে ব্লেন্ডার চলবে এবং উপর থেকে অল্প অল্প করে তেল ঢালতে হবে।

৪) কিছুক্ষণ পর পর তেল দিতে হবে, একবারে সবটুকু দিয়ে দিলে কিন্তু মেয়োনেজ জমবে না।

৫) মিশ্রণটি ঘন হয়ে জমে গেলে সাথে সাথে ব্লেন্ডার বন্ধ করে দিন। ব্যস, ২ মিনিটেই কিন্তু রেডি হয়ে গেল!

সাবধানতা

১) মেয়োনেজ বানানোর সময় ফ্রিজে রাখা ডিম সরাসরি ব্যবহার করবেন না। ডিম ফ্রিজ থেকে বের করে আগে রুম টেম্পারেচারে নিয়ে আসতে হবে।

২) তেলের পরিমাণ নির্ভর করে ডিমের সাইজের উপর। ব্লেন্ডারে যখনই মিশ্রণটি একদম ঘন হয়ে যাবে, তখনই বুঝবেন যে আর তেল দিতে হবে না।

৩) যদি বানানোর সময় মেয়োনেজ ফেটে যায়, তাহলে আরেকটা ডিম ফাটিয়ে নিয়ে  ব্লেন্ড করতে থাকুন। এতে মিশ্রণটি জমে যাবে।

৪) স্বাদের ভিন্নতা আনার জন্য ধনেপাতা, রসুন, পুদিনা পাতা বা পছন্দমতো উপকরণ দিতে পারেন।

৫) এটা  ২-৩ দিন পর্যন্ত ফ্রিজে সংরক্ষণ করতে পারবেন। ১ সপ্তাহের জন্য করতে চাইলে লেবুর রসের পরিবর্তে ভিনেগার দিতে পারেন।

তাহলে জানা হয়ে গেল ঘরে কিভাবে সহজেই পারফেক্ট মেয়োনিজ-এর রেসিপি বানিয়ে নেওয়া যায়। এই মেয়োনেজ তৈরি করে ফ্রেশ অবস্থায় খেয়ে নেওয়াই ভালো, তাতে ব্যাকটেরিয়া তৈরি হবার সুযোগ থাকে না। বারবিকিউ চিকেন, স্যান্ডউইচ, বার্গার, শর্মা বা যে কোন ফাস্টফুড আইটেমের সাথে দারুণ মানিয়ে যাবে এটি। তাহলে স্বাদ ও মান নিয়ে আর কোনো আপোষ নয়, বাসায়ই বানিয়ে নিন রেস্টুরেন্টের মতো মজাদার মেয়োনেজ।

 

ছবি- সংগৃহীত: সাজগোজ; স্ট্যান্ডার্ডমিডিয়া.কো.কে

50 I like it
9 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...