পারফেক্ট আইব্রো পেতে কার্যকরী ৪টি টিপস ও ট্রিকস জেনে নিন!

পারফেক্ট আইব্রো পেতে কার্যকরী ৪টি টিপস ও ট্রিকস জেনে নিন!

পারফেক্ট আইব্রো - shajgoj.com

খুব সুন্দর করে নিজেকে সাজিয়েছেন, কিন্তু ভ্রু জোড়া ঠিকঠাক নেই বা ভ্রুর আকৃতি মুখের সঙ্গে মানানসই হচ্ছে না! তাহলে ওভারঅল লুকটা কেমন লাগবে, ভাবুন তো? শুধু চেহারার নয়, চোখের সৌন্দর্যের অনেকটাই নির্ভর করে আইব্রোর উপর। নিজেকে পরিপাটি রাখতে ছোটখাটো বিষয়কেও অবহেলা করা যায় না। হালের ফ্যাশনে অনেকটাই জায়গা করে নিয়েছে মোটা ভ্রু। আসলে যখন যেটার ট্রেন্ড থাকে আর কী! ট্রেন্ড যেমনই হোক, মুখমণ্ডলের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ ভ্রুই হলো সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। পারফেক্ট আইব্রো পেতে কী কী করা যায়, এটা নিয়ে অনেকেই কনফ্যুশনে থাকেন। চলুন তাহলে জেনে নেই, সুন্দর আইব্রো পাওয়ার জন্য কার্যকরী ৪টি টিপস ও ট্রিকস সম্পর্কে!

পারফেক্ট আইব্রো নিয়ে যত কথা 

পারফেক্ট আইব্রো পেতে আগে বুঝতে হবে আপনার ফেইসের আকৃতি কেমন। আইব্রো ঠিকমতো শেইপে আছে কি না, ভ্রু ঠিকমতো আঁকা হয়েছে কি না, মেকআপের সময় এই বিষয়গুলো অনেক বড় ভূমিকা পালন করে থাকে। তাহলে, দেড়ি না করে দরকারি টিপস ও ট্রিকসগুলো জেনে নেওয়া যাক।

১) ভ্রুর শেইপ ঠিক রাখুন

আমরা সবাই কিন্তু প্রাকৃতিকভাবে ঘন ও সুন্দর ভ্রু নিয়ে জন্মগ্রহণ করি না। বাড়িতে বসে টুইজার দিয়ে আইব্রোর শেইপ ঠিক করে নিবেন। আশেপাশের ছোট ছোট লোমের জন্য ভ্রুর আকৃতি ঠিক থাকে না। অনেকেই ভ্রু প্লাক করতে পার্লারে যান, তারা সুতার মাধ্যমে বিশেষ কৌশলে ভ্রু তুলে দেয়। কিন্তু অনেক সময় সেটা নিজের মনের মতো হয় না আর ভ্রুর শেইপও নষ্ট হয়ে যায়। পারফেক্ট আইব্রো পেতে বাসাতে কিভাবে প্লাক করে নিতে পারেন সে সম্পর্কে জেনে নিন।

ভ্রুর শেইপ ঠিক রাখুন - shajgoj.com

১. আপনার আইব্রোর চারপাশের ত্বককে নরম করা প্রয়োজন। গরম পানির ভাপ নিতে পারেন যাতে পোর ওপেন হয়। এতে লোম তোলাটা অনেকটাই ব্যথামুক্ত হয়।

২. আপনার আইব্রোর হেয়ার যেই ডিরেকশনে বাড়ে, সেটা চিহ্নিত করুন। কেননা সেই দিক দিয়ে টুইজ করলে বা ভ্রু তুললে আপনারই সুবিধা হবে। নাকের যেখান থেকে ভ্রু শুরু, সে বরাবর একটি দাগ টানবেন। দুই ভ্রুর মাঝের অংশের লোমগুলো তুলে নিন।

৩. এলোমেলো হয়ে গজানো হেয়ারের গোঁড়ায় টুইজারের আগা রাখুন এবং চাপ দিয়ে টেনে তুলে ফেলুন। স্পুলি বা চিরুনি দিয়ে ব্রাশ করে নিন ভ্রুর চুলগুলো।

৪. আইব্রো লাইন পরিষ্কার এবং সোজা না হওয়া পর্যন্ত ট্রিমিং চালিয়ে যান। দুইটা ভ্রুই যাতে সমান থাকে, সেদিকে খেয়াল রাখবেন।

৫. সবশেষে পরিষ্কার কাপড় দিয়ে মুছে নিয়ে বরফ ঘষে নিন। অনেকের ইচিং ও রেডনেসের প্রবলেম থাকে, সেক্ষেত্রে অ্যালোভেরা জেল লাগিয়ে রাখবেন।

২) চেহারার সঙ্গে মিলিয়ে ভ্রু আঁকুন

আইব্রোর আকৃতি যদি মুখের সঙ্গে মানানসই না হয়, তাহলে পুরো লুকটাই নষ্ট হয়ে যেতে পারে। পারফেক্ট আইব্রো পেতে এই টিপসটা মেনে না চললেই নয়! আপনার মুখের শেইপ যেমনই হোক, সেটা আগে বুঝে নিন এবং সেই অনুযায়ী ভ্রু সাজান। কোন ধরনের ফেইসে কেমন আইব্রো মানানসই, সেটা আমাদের অবশ্যই জানা উচিত।

চেহারার সঙ্গে মিলিয়ে ভ্রু - shajgoj.com

১. রাউন্ড ফেইসের জন্য ভার্টিক্যাল অর্থাৎ উল্লম্ব করে ভ্রুর আকৃতি করুন। গোল মুখের সঙ্গে গোল আকারের ভ্রু একদমই মানানসই নয়। ফ্লাট আইব্রো একদমই ট্রাই করতে যাবেন না। ব্রাউন পেন্সিলের সাহায্যে কোণাটা নির্ধারণ করে তারপরে মাঝখানের গ্যাপগুলো ভরে ফেলুন। মাঝখানের অংশটা খুব বেশি গাঢ় করবেন না।

২. লম্বা মুখে ফ্লাট ও লম্বা শেইপের ভ্রু বেশ ভালো মানায়। তবে বাঁকটি খুব বেশি টেনে আনবেন না। আপনি চাইলে ভ্রু পাতলা রাখতে পারেন কিন্তু বৃত্তাকার শেইপটি এড়িয়ে যেতে হবে।

৩. হার্ট আকৃতির মুখে গোলাকৃতির ভ্রু মানিয়ে যায়। ভ্রুতে একটু ড্রামাটিক ভাবও আনতে পারেন। আসলে এই ধরনের ফেইসে বিভিন্নরকম আইব্রো শেইপ মানায়। শুধু খেয়াল রাখবেন, একেবারে সোজা যেন না দেখায়!

৪. ডায়মন্ড শেইপ হলে একটু খেয়াল করে ভ্রু আঁকবেন। গোলাকৃতি শেইপ রাখতে পারেন। কোনার দিকটা একটু বাঁকা করে ওঠানোর মতো ভ্রু প্লাক করুন। আর পেন্সিলের সাহায্যে কোণাটা শার্প করে নিন। এতে আপনার চোখের সৌন্দর্য অনেকটাই বেড়ে যাবে।

৫. স্কয়ার শেইপের ফেইসে ভ্রুর কোণাটা শার্প ও চিকন রাখতে পারেন। এতে মুখাকৃতির সাথে বেশ সামঞ্জস্যতা আসবে। খুব বেশি মোটা বা পাতলা ভ্রু এড়িয়ে চলুন। সামান্য বৃত্তাকার আকৃতির করে আইব্রো আঁকুন, দেখতে কিন্তু ভালোই লাগবে।

৩) পারফেক্ট আইব্রো পেতে সঠিক মেকআপ টুলস

সুন্দর আইব্রো পেতে শুধুমাত্র থ্রেডিং বা প্লাক করাই যথেষ্ট নয়। আপনাকে অবশ্যই সঠিক প্রোডাক্ট সিলেক্ট করতে হবে যা দিয়ে আপনি সুন্দরভাবে ভ্রু আঁকতে পারবেন। ভ্রু চোখ ও চেহারার মাঝে ভারসাম্য তৈরি করে। যাদের ভ্রু চওড়া তারা চেষ্টা করেন ভ্রুটাকে একটু চিকন করে শেইপে আনতে। আবার যাঁদের ভ্রু চিকন তারা চেষ্টা করেন একটু বাড়িয়ে এঁকে ভ্রুর আকৃতিটা সুন্দর করে নিতে। পারফেক্ট আইব্রো আঁকার কৌশলগুলো দেখে নিন।

পারফেক্ট আইব্রো - shajgoj.com

১. কালো রঙ দিয়ে পুরো ভ্রু আঁকলে ন্যাচারাল লুকটাই হারিয়ে যায়! স্বাভাবিক লুকের জন্য আইব্রো পেন্সিল অথবা আইব্রো পাউডারের শেইড সব সময় চুলের রঙের চেয়ে এক অথবা দুই শেইড হালকা নিন।

২. গর্জিয়াস মেকআপে চুলের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে আইব্রো পেন্সিল নিন। পেন্সিলের ছোট ছোট টানে ভ্রু আঁকুন, যাতে তা আসল ভ্রুর লোমের মতোই স্বাভাবিক দেখা যায়।

৩. যদি আইব্রো পমেড, পাউডার বা আইব্রো জেল নিতে চান, তাহলে আইব্রো ব্রাশ ও স্পুলি ব্রাশ ব্যবহার করতে হবে। ভ্রুর শুরুর দিকটা গাঢ় রেখে শেষের দিকটা হালকা শেডে মিশিয়ে দিন ব্রাশের সাহায্যে।

৪. ভ্রু আঁকতে গিয়ে একটু ছড়িয়ে গেলে পরে তা কনসিলার দিয়ে ঠিক করে ফেলুন। ভ্রুয়ের উপরে ও নিচে ত্বকের তুলনায় এক শেইড হালকা কনসিলার ব্যবহার করুন।

৫. স্পুলি ব্রাশ দিয়ে ভ্রু ঠিক করে নিলে ন্যাচারাল লুক আসবে। পমেড, পাউডার বা জেল যেটাই ব্যবহার করুন না কেন ভালোভাবে ব্লেন্ড করতে ভুলবেন না।

৪) আইব্রোর যত্ন

পারফেক্ট আইব্রো পেতে শুধু সুন্দর করে সাজালেই হবে না, ঠিকমতো যত্নও নিতে হবে। মুখের সঙ্গে ভ্রুর ত্বকও স্ক্রাব করুন। কেননা ওখানেও কিন্তু ডেড সেল জমে! সপ্তাহে একবার অলিভ অয়েল, ক্যাস্টর অয়েল বা পেট্রোলিয়াম জেলি দিয়ে একটু ম্যাসাজ করুন। এতে ভ্রু ঘন হবে। মনে রাখবেন, মাসে একবার টুইজার দিয়ে ভ্রু তোলায় যথেষ্ট। খুব বেশি প্লাক করা হলে লোমকূপের ক্ষতি হতে পারে। আর বাইরে থেকে ফিরে সব মেকআপের সাথে আইব্রো ক্লিন করাটাও ভীষণ জরুরি।

তাহলে জানা হয়ে গেল, পারফেক্ট আইব্রো পাওয়ার সিম্পল আর কার্যকরী টিপস ও ট্রিকস সম্পর্কে! যেহেতু আপনার সৌন্দর্য অনেকখানি নির্ভর করে পরিপাটি ভ্রুযুগলের উপর, তাই এর যত্ন নিতে ভুলবেন না। ভুল আইব্রো পেন্সিলের শেইড পিক করা, ওভার প্লাক করা, কালো করে ভ্রু আঁকা এগুলো আপনার লুককে আর্টিফিসিয়াল করে তোলে। এই ভুলগুলো এড়িয়ে চললেই আপনাকে লাগবে আরও সুন্দর এবং আকর্ষণীয়

চোখ সাজাতে আপনার পছন্দমতো প্রোডাক্ট কিনতে পারেন অনলাইনে শপ.সাজগোজ.কম থেকে। আবার যমুনা ফিউচার পার্ক ও সীমান্ত স্কয়ারে অবস্থিত সাজগোজের দুটি ফিজিক্যাল শপ থেকেও কিনতে পারেন আপনার পছন্দের প্রোডাক্টটি!

 

ছবি- সংগৃহীত: মিএডোরাবিউটি.কম, গুডফোন.কম; সাজগোজ

52 I like it
6 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...