গাজর ও নারকেলের হালুয়া | মজাদার মিষ্টি আইটেম বানানো হবে ঘরেই

গাজর ও নারকেলের হালুয়া

হালুয়া খেতে তো সবাই পছন্দ করেন। আর যদি গাজরের হালুয়া হয় তাহলে তো কথাই নেই। নাম শুনেই জিভে জল এসে যায় তাই না? আমার তো তাই হয়। আমাদের প্রত্যেকের বাড়িতে বিশেষ কোনো দিন, যেমনঃ শব-ই বরাত, শব-ই কদর, ঈদ, দাওয়াত বা এমনিতেও এই হালুয়া তৈরি হয়। চলুন আজকে এই গাজর ও নারকেলের হালুয়া বানানোর সহজ একটি রেসিপি দেখে নেই।

গাজর ও নারকেলের হালুয়া বানানোর নিয়ম

উপকরণ

  • গাজর- ১ কেজি
  • নারকেল কোরানো- ১ কাপ
  • দুধ- ২ কাপ
  • চিনি- ১ কাপ
  • ঘি- ৪ টেবিল চামচ
  • মাওয়া/খয়া- ১/২ কাপ
  • এলাচ গুঁড়া- ১/৪ চা চামচ
  • কাজু ও পেস্তা বাদাম কুঁচি- ১ কাপ

প্রণালী

১) প্রথমেই গাজর ছিলে ভেজিটেবল গ্রেটার দিয়ে একদম মিহি কুঁচি করে নিন। ভেজিটেবল গ্রেটার না থাকলে পেঁয়াজ গ্রেট করার টুল দিয়েও করে নিতে পারেন।

২) এবার চুলোয় একটি বড় প্যান বসিয়ে তাতে দুধ দিয়ে দিন। দুধের মধ্যে এবার গাজর আর নারকেল দিয়ে দিন। ভালো করে মিশিয়ে নিন ও দুধ বলক ওঠা পর্যন্ত অপেক্ষা করুন।

৩) দুধ বলক ওঠার পর একটি ঢাকনা দিয়ে ঢেকে রেখে দিন ২০ মিনিটের জন্য। চুলার আঁচ মিডিয়াম রাখুন। এ সময়ের মধ্যে গাজর সেদ্ধ হয়ে যাবে। মাঝে মাঝে ঢাকনা তুলে নেড়ে দিতে হবে।

৪) ২০ মিনিট পর ঢাকনা তুলে আরও কিছুক্ষণ নেড়েচেড়ে নিন যেন সব দুধ টেনে যায়। এরপর চিনি দিয়ে দিন। চিনি গলার পর তা থেকেও পানি বের হবে, নেড়েচেড়ে আবার পানি শুকিয়ে নিন। হালুয়া রান্নার একটাই মূলত কাজ, যা হলো অনবরত নাড়তে থাকা।

৫) এখন এতে ঘি দিয়ে দিন। চুলার আঁচ মিডিয়াম হাই হিট-এ রেখে ঘিয়ের মধ্যে হালুয়াটা ভালোমতো মিশিয়ে নিন।

৬) এরপর দিয়ে দিন মাওয়া/খয়া। এলাচ গুঁড়ো দিন। সব একসাথে কিছুক্ষণ নেড়ে ভালমতো মিশে গেলে এরপর বাদাম দিয়ে দিন। আপনারা চাইলে কিসমিসও দিতে পারেন। সব ভালোমতো নেড়েচেড়ে দিন।

ব্যস! খুব সহজেই হয়ে গেল মজাদার গাজর ও নারকেলের হালুয়া তৈরি।

0 I like it
3 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...