ওজন বাড়াতে শরীরচর্চার গুরুত্ব জানা আছে কি?

ওজন বাড়াতে শরীরচর্চার গুরুত্ব জানা আছে কি?

exercise

স্লিম হওয়ার জন্য ব্যায়াম করতে বলা হয়, কিন্তু ওজন বাড়ানোর জন্যও কি ব্যায়াম করা প্রয়োজন? ওজন বাড়াতে শরীরচর্চার গুরুত্ব সম্পর্কে অনেকেই জানেন না! আপনার লক্ষ্য কিন্তু মোটা হওয়া না, ফিট থাকা এবং সঠিক ওজন গেইন করা, তাই তো? এখনকার সময়ে শারীরিক ফিটনেস নিয়ে সবাই কম বেশি সচেতন। সুস্থ থাকার জন্য হেলদি লাইফস্টাইল মেনে চলা মাস্ট। ওজন ঠিকঠাক রাখা ও শরীরের মেটাবলিজম বাড়াতে শরীরচর্চার গুরুত্ব অপরিসীম। যে যার সুবিধামতো ও শারীরিক কন্ডিশন অনুযায়ী ব্যায়াম, হাঁটা, সুইমিং, দড়ি লাফ, ইয়োগা কিনবা অন্যান্য ফ্রি হ্যান্ড এক্সারসাইজ করে নিতে পারেন। কিন্তু যারা আন্ডারওয়েট বা ওজন বাড়াতে চাচ্ছেন, তাদের জন্য শরীরচর্চার গুরুত্ব ঠিক কতটুকু? এই ব্যাপারে স্বচ্ছ ধারণা থাকা উচিৎ আমাদের সবারই। ওজন বাড়াতে শরীরচর্চা করার প্রয়োজনীয়তা সম্বন্ধে জেনে নেই চলুন!

ওজন বাড়াতে শরীরচর্চা 

ওজন বাড়াতে হলে বেশি বেশি খেলেই হবে, ব্যায়াম করার দরকার কী? জানি, এই কথাটা অনেকেই ভাবছেন। সুস্থ, সবল, রোগমুক্ত শরীর পেতে এবং সঠিক নিয়ম মেনে ওজন বাড়াতে শরীরচর্চার বিকল্প নেই। আপনার লক্ষ্য টোনড আপ বডি শেইপ পাওয়া, যেটাকে ফিট থাকা বলে। আন্ডারওয়েট হলে অনেকরকম সমস্যা হতে পারে, বয়স অনুযায়ী ওজন ঠিকঠাক রাখা তাই খুবই প্রয়োজন। রোগা বা শুকনো শরীর হলে খাবারদাবারে যেমন খেয়াল রাখতে হবে, ঠিক তেমনি শরীরচর্চার দিকেও নিজেকে মটিভেট করতে হবে। কিন্তু কী কী উপকার পাবেন এক্সারসাইজ থেকে, সেটাই আজ আমরা জানবো।

১) পেশী সুগঠিত করতে

আমাদের পেশীর ওজন চর্বির তুলনায় বেশী। পেশীর ওজন বাড়াতে ব্যায়াম করা উচিত। এতে শরীরের ওজনও বৃদ্ধি পাবে। নিয়মিত ব্যায়ামে পেশী হবে সুগঠিত, সে সাথে শরীরও থাকবে ফিট। মেদবহুল শরীর কেউ পেতে চায় না, রাইট? ওজন বাড়াতে শরীরচর্চার ভূমিকা এখানে অনেকটাই, কেননা এটি আপনার শরীরের পেশী সুগঠিত করতে হেল্প করবে।

২) ক্ষুধা মন্দা কাটিয়ে উঠতে

ব্যায়াম করলে ক্ষুধা বাড়বে। তাই সাধারণ ক্ষুধা মন্দা কাটিয়ে উঠে আপনি খেতে পারবেন, খাবারে রুচি বাড়বে। যাদের ওয়েট কম, তাদের কমন সমস্যা এইটা যে অল্প খেলেই পেট ভরে যায় বা খেতে অরুচি লাগে। নিয়মিত শরীরচর্চা করলে এই প্রবলেমটা থেকে রিলিফ পাবেন এবং ক্ষুধাও বাড়বে, যেটা ওজন বাড়াতে আপনাকে অনেকটাই হেল্প করবে।

৩) শারীরিক শক্তি বাড়াতে

‘রোগা পটকা, ‘তালপাতার সেপাই’, ‘হ্যাঙলা’ এসব বলে অ্যাবিউজ করা হয় ওজন কম হলে। আর আশেপাশের সবাই ধরেই নেয় যে তার গায়ে কোনো শক্তি নেই! ওজন কম হলেই যে তার শক্তি কম, এটা সবসময় সঠিক নাও হতে পারে। কিন্তু অনেকেই নিজেদের হালকা পাতলা শরীরটা নিয়ে দুর্ভাবনায় থাকেন এবং শারীরিকভাবে শক্তিশালী হতে চান। সেক্ষেত্রে সঠিক উপায়ে ব্যায়াম বা শরীরচর্চা হতে পারে বেষ্ট সল্যুশন। শরীর ফ্লেক্সিবল রাখতে, বডির স্টামিনা বাড়িয়ে নিজেকে আরও কর্মক্ষম করে তুলতে, শারীরিক শক্তি বাড়াতে এবং চনমনে থাকতে শরীরচর্চা শুরু করে দিন।

৪) মেটাবলিজম ঠিক রাখতে

আপনি যত হালকা পাতলাই হন না কেন, ব্যায়ামে দারুণ উপকৃত হবেন। কেননা এটি মেটাবলিজম ঠিক রাখতে সহায়তা করবে, হজম প্রক্রিয়া স্বাভাবিক করবে। এতে আপনার খাওয়ার রুচি বাড়বে, ঘুম ভালো হবে, সেই সাথে পরিমিত পরিমানে ওয়েট গেইনও হবে। অনেকেই আছেন খাবার ঠিকমতো পরিপাক হয় না, খাবার আগ্রহ কমতে থাকে, এর ফলে ওজনটাও কমে যায়। তাই সুস্বাস্থ্যের জন্য শরীরচর্চার কোনো বিকল্প নেই।

শরীরটা ঠিকঠাক আছে কিনা সেটা বোঝার একটা ভালো উপায় হলো বডি মাস ইনডেক্স বা উচ্চতা ও ওজনের অনুপাতের হিসাব। প্রতিমাসে সেই অনুপাতটা চেক করতে ভুলবেন না। অতিরিক্ত ওজন যেমন স্বাস্থ্যের জন্য বিপদজনক, তেমনি ওজনহীনতাও বিপদ ডেকে আনতে পারে, শারীরিক দিক দিয়ে আপনাকে দুর্বল করে দিতে পারে। তাই একজন এক্সপার্টের সাথে কনসাল্ট করুন, কোন এক্সারসাইজগুলো আপনার জন্য উপযোগী সেটা ঠিক করুন। ঘরে বসে ইয়োগা, টুকটাক ব্যায়াম করতে পারেন, এতে শরীর ও মন দুটোই ভালো থাকবে। তাহলে ওজন বাড়াতে শরীরচর্চার গুরুত্ব এখন জানা হয়ে গেল! আপনারা এখন সাজগোজ থেকে ফিটনেস এক্সেসেরিজও পেয়ে যাচ্ছেন, শপ কিনবা অনলাইন থেকে আপনার প্রয়োজনীয় প্রোডাক্ট কিনতে পারবেন।

ছবি- ইমেজেস বাজার

6 I like it
1 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...