যে অভ্যাস বা সাধারণ ভুলগুলো হয়ে উঠতে পারে আমাদের মৃত্যুর কারণ

যে অভ্যাস বা সাধারণ ভুলগুলো হতে পারে আমাদের মৃত্যুর কারণ

Untitled-1

পিম্পল পপিং বা নখ দিয়ে ব্রণ খোটাখুটি অনেকেরই নিয়মিত অভ্যাস। নখ দিয়ে চেপে ভেতর থেকে শাল না বের করলে তাদের ভালোই লাগেনা। আবার আরেক দল মানুষ আছেন যাদের নাকের লোম ছেড়ার কদর্য অভ্যাস আছে। দেখতে খারাপ লাগে সেটা তো পরের বিষয়। কিন্তু যদি বলি এ অভ্যাসগুলো থেকে খুব সিরিয়াস সমস্যা হতে পারে তবে? স্কিনের ইনফেকশন/ স্কার মারক এগুলো তো আছেই, সমস্যা আরও ভয়ংকর কিছু! যদি বলি এগুলো হতে পারে আমাদের মৃত্যুর কারণ, তবে?

এবার বলা যাক, একটি রিয়েল এক্সপেরিয়েন্স

জ্বী, এমনটাই হয়েছিল বছর তিনেক আগে ইউ.এস.এ তে এক নারীর সাথে। কারণটা কিছুই না, তিনি নখ দিয়ে ভ্রু এর নিচে একটি পিম্পল গেলে দিতে চেয়েছিলেন। ফলশ্রুতিতে কয়েক ঘন্টার মাঝেই তার পুরো মুখে ইনফেকশন ছড়িয়ে পড়ে। তাকে আই.সি.ইউ তে রাখতে হয় এবং ডাক্তারদের ভাষ্যমতে আরও দেরি হলে হয়তো তার ব্রেইনে ইনফেকশন ছড়িয়ে যেত বা তিনি অন্ধ হয়ে যেতেন। তারও আগে এক নারী ব্রণ ভেবে গেলে দিতে গিয়ে স্কিনের অন্য একটি ইনফেকশন ফলিকুলাইটিস এ চাপ দিয়ে প্রায় মরতে বসেছিলেন।

মুখে অনেক গুরুত্বপূর্ণ শিরা, উপশিরা ও ধমনী থাকে তাই পুরো মুখেই না বুঝে খোটাখুটি করার ফল মারাত্মক হতে পারে। তবে এর মাঝেও একটি জায়গা আছে যেখানে রক্তনালী সরাসরি মস্তিষ্কের রক্তনালীর সাথে সম্পর্কযুক্ত। এ জায়গা এতই ভয়ংকর যে এ এলাকাকে মুখের ডেথ ট্রায়াংগেল (Triangle of death of face) বলা হয়। এ জায়গাটি হচ্ছে ঠোঁটের দু’পাশের অংশ বা corner of mouth থেকে নাক পর্যন্ত একটি ত্রিভুজ আকারের জায়গা। এ অংশে পিম্পল বা কোন ইনফেকশন খোটাখুটির ফলে তা স্কিনের ডিপ লেয়ারে চলে গেলে বা কোনভাবে রক্তনালীতে ঢুকে পড়লে খুব সহজেই ব্রেইনের রক্তনালীকে আক্রান্ত করতে পারে। ফলশ্রুতিতে মেনিনজাইটিস এর মতো মারাত্মক প্রাণঘাতী সমস্যাও হতে পারে।

নাকের লোম ছেড়ার প্রবণতা যাদের তাদের জেনে রাখা ভালো যে, এই লোম প্রকৃতিগতভাবে দেহের ভেতর ধুলাবালি, জীবাণু প্রবেশে বাধা দেয়ার জন্যই তৈরি। এগুলো অনেকটা ঝাড়ুর মতই বাড়তি ময়লা, ব্যাকটেরিয়া/ভাইরাস এর মতো নানা প্যাথোজেন পরিষ্কারের কাজ করে। আপনি যখন এই লোম টেনে তুলতে যান তখন হেয়ার ফলিকল এর গোড়ায় ইনজুরি হয় আর রক্ত জমাট বাধে আর এই রক্ত ব্যাকটেরিয়ার জন্য ব্রিডিং গ্রাউন্ড হিসেবে কাজ করে। মুখের রক্তনালীর কোন ভালভ থাকেনা অর্থাৎ ওপর দিকে রক্ত চলাচলে এর কোন বাধা না থাকায় খুব সহজেই এই ব্যাকটেরিয়া রক্তের মাধ্যমে দেহের অন্যান্য অংশে তো বটেই, এমনকি ব্রেইনেও চলে যেতে পারে! তাই পরিণাম কী হতে পারে নিশ্চয়ই বুঝতেই পারছেন।

কিছু সাজেশন

তাই আমার সাজেশন হচ্ছে ব্রণ বা ব্ল্যাকহেডস/হোয়াইট-হেডস খোটাখুটি করবেন না। এতে স্কিন ড্যামেজ তো হয়ই, সাথে আরও ভয়ংকর কিছুও ঘটে যেতে পারে। নাকের লোম বড় হলে সেগুলি ট্রিম করুন। প্লাক করবেন না; নাকের লোম প্লাক করলে বা ছিড়ে ফেললে ধূলোবালি, জীবাণুর প্রতি সেনসিভিটি আরও বেড়ে যায় এবং ধূলোবালিতে এলার্জি, ঘনঘন নাকে সর্দি হওয়ার মতো সমস্যাও এতে বেড়ে যায়। ট্রিম করার জন্য অবশ্যই পরিষ্কার এবং স্টেরিলাইজড যন্ত্র ব্যবহার করুন।
ডা.তাসনিম তামান্না হক,
ডারমাটোলজিস্ট এন্ড ভেনেরিওলজিস্ট।
ছবি- সাটারস্টক
16 I like it
0 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...