প্রতিবার শাওয়ারে উজ্জ্বল, সতেজ ও সুবাসিত ত্বক কীভাবে পাবেন?

প্রতিবার শাওয়ারে উজ্জ্বল, সতেজ ও সুবাসিত ত্বক কীভাবে পাবেন?

প্রতিবার শাওয়ারে উজ্জ্বল, সতেজ ও সুবাসিত ত্বক কীভাবে পাবেন তা দেখাচ্ছে একজন

কর্মব্যস্তময় দিনের শেষে রিফ্রেশিং শাওয়ারই পারে সব ক্লান্তি দূর করতে। আর যদি চান আপনার দিন শুরু হোক ফ্রেশনেসের সাথে, তাহলেও কিন্তু সকালে শাওয়ার নেওয়াটা মাস্ট! ফেইসে যত্নে আমরা কত রকমের প্রোডাক্ট ইউজ করি, কিন্তু শরীরের ত্বকের যত্ন নেওয়ার বেলাতেই যত অবহেলা। কিছু না হোক, গোসলের সময় শরীরের ত্বক প্রোপারলি ক্লিন করা খুবই প্রয়োজন। প্রতিবার শাওয়ারে উজ্জ্বল ত্বক পাওয়া কি সম্ভব?

আচ্ছা, গোসলের সময় ত্বক পরিষ্কার করতে কী ব্যবহার করা হয়? গোসলের পর স্কিন ডার্ক আর নিষ্প্রাণ লাগে কি? শাওয়ারের সময় এমন একটি প্রোডাক্ট চায় যেটা ত্বক পরিস্কার করবে, সেই সাথে ত্বককে উজ্জ্বল, সতেজ ও সুবাসিত রাখবে। আজকে আমি আমার রিসেন্ট ফেবারিট শাওয়ার জেল নিয়ে রিভিউ শেয়ার করবো, সেটি হচ্ছে রাজকন্যা হোয়াইট গ্লো শাওয়ার জেল। প্রতিবার শাওয়ারে যারা শরীরের ত্বকের ডার্কনেস দূর করে গ্লোয়িং স্কিন পেতে চান এবং রিজেনেবল প্রাইসে ভালোমানের শাওয়ার জেল খুঁজছেন, আজকের আর্টিকেলটি তাদের জন্য হেল্পফুল হবে আশা করি।

শাওয়ার জেল কেন ইউজ করবো?

সাবান দিয়েই তো ভালো পরিষ্কার হচ্ছে, তাহলে শাওয়ার জেল কেন ইউজ করবো? এই প্রশ্নটা অনেকের মনেই হয়তো ঘুরপাক খাচ্ছে। শাওয়ার জেল আপনার ত্বকে কীভাবে বেনিফিট দিতে পারে, সেটা দেখে নিন তাহলে।

rajkonna shower gel with loofah

১) সাবান আর শাওয়ার জেল দুটোর কাজই কিন্তু সেইম, কিন্তু পার্থক্যটা ফর্মুলেশনে আর উপাদানে। ত্বকে জমে থাকা ধুলোময়লা, জার্ম, পল্যুশন এগুলো রিমুভ করতে শাওয়ার জেল জেন্টলি কাজ করে।

২) অনেকেরই মুখের তুলনায় হাত ও বডির ত্বক কালো হয়ে যায়। তাই এমন একটি প্রোডাক্ট চায় যেটা ত্বক পরিষ্কারের সাথে সাথে স্কিনে হেলদি গ্লো এনে দেবে। টিনেজ থেকে শুরু করে সবার জন্যই শাওয়ার জেল খুব ভালো একটি অপশন।

৩) শাওয়ার জেল ত্বককে উজ্জ্বল ও কোমল রাখার পাশাপাশি স্কিনকে সুবাসিত রাখে। সেই সাথে প্রতিবার শাওয়ারে আপনাকে রিফ্রেশিং ফিল দেয়। আর শাওয়ার জেল দিয়ে লুফাতে ফেনা তৈরি করে গোসল করতে কিন্তু লাক্সারি ফিলিংস পাওয়া যায়, যেটা অনেকেই প্রিফার করেন।

রাজকন্যা ব্র্যান্ড সম্পর্কে কিছু কথা আগে শেয়ার করি

শুরুতেই বলেছিলাম আজকে আমি আমার রিসেন্ট ফেবারিট শাওয়ার জেল নিয়ে এক্সপেরিয়েন্স শেয়ার করবো। তার আগে এই ব্র্যান্ডটি সম্পর্কে আপনাদের একটু ধারনা দেই। রাজকন্যা বাংলাদেশী অরগানিক ব্র্যান্ড, ইতিমধ্যে এটা আমরা অনেকেই জানি। প্রতিটি প্রোডাক্টেই প্রাকৃতিক উপাদানের অসাধারণ ব্লেন্ডিং আছে, যেটা স্পেসিফিক স্কিন ও হেয়ার প্রবলেমের সল্যুশনে দারুন কাজ করে। কাঁচামাল প্রক্রিয়াজাত থেকে শুরু করে প্রোডাক্ট প্যাকেজিং, প্রতিটি ধাপেই যেন ন্যাচারাল ইনগ্রেডিয়েন্টগুলোর গুণাবলি অক্ষুণ্ণ থাকে, সেদিকে লক্ষ্য রাখা হয়। আর বেস্ট পার্ট হচ্ছে এই ব্র্যান্ডের প্রোডাক্টগুলোতে ক্ষতিকর উপাদান যেমন প্যারাবেন, অ্যালকোহল বা কোনো নন-হালাল উপাদান নেই। আর দেশীয় ব্র্যান্ড হওয়াতে দামটাও কিন্তু হাতের নাগালে!

রাজকন্যা হোয়াইট গ্লো শাওয়ার জেল রিভিউ (Rajkonna White Glow Shower Gel)

এবার আসি মেইন টপিকে। অনেকেই এই শাওয়ার জেলটার রিভিউ জানতে চাচ্ছিলেন। বডির স্কিনকে প্রোপারলি ক্লিনিংয়ের পাশাপাশি ময়েশ্চারাইজড রাখতে আর রিফ্রেশিং ফিল পেতে এটি এখন আমার হলি গ্রেইল প্রোডাক্ট! প্রতিবার শাওয়ারে যাদের স্কিন ডার্ক, নিষ্প্রাণ ও খসখসে হয়ে যায়, তাদের জন্য এটি কিন্তু মাস্ট হ্যাভ। যারা গ্লোয়িং ত্বক পেতে চায়, তাদের জন্য এটি দারুন কাজ করবে। যেকোনো প্রোডাক্ট পারচেজ করার আগে আমি সেটার ইনগ্রেডিয়েন্টগুলোর উপর একটু স্টাডি করি, মানে চেক করি যে আমার স্কিনের জন্য উপাদানগুলো কতটুকু বেনিফিসিয়াল। রাজকন্যা শাওয়ার জেলটির উপাদানগুলো একনজরে দেখে নেই চলুন।

এই শাওয়ার জেল-এর মেইন ইনগ্রেডিয়েন্টস

১) আমন্ড মিল্ক
  • ভিটামিন-ই এবং অ্যান্টি অক্সিডেন্টে ভরপুর আমন্ড মিল্ক, যেটা স্কিনের নারিশমেন্ট দারুন কার্যকরী।
  • গ্লোয়িং স্কিন পেতে ভিটামিন-ই প্রত্যক্ষভাবে ভূমিকা রাখে। অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ফ্রি-র‍্যাডিকেলস থেকে ত্বককে সুরক্ষা দেয়, আর স্কিনকে হেলদি করে তোলে।
  • আমন্ড মিল্ক জেন্টলি ত্বককে পরিষ্কার করে, সেই সাথে ত্বকে দেয় সিল্কি স্মুথ ফিনিশিং। সেনসিটিভ স্কিনেও কোনো ধরনের ইরিটেশন ফিল হয় না।
২) ক্যারট সিড অয়েল
  • এতে আছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন-এ, ভিটামিন-সি এবং ভিটামিন-ই। আমরা অনেকেই জানি যে ভিটামিন-সি ত্বককে ব্রাইট করতে হেল্প করে।
  • হেলদি স্কিন সেলস প্রোমোট ও মেনটেইন করতে এই উপাদানটির জুড়ি নেই।
  • আনইভেন স্কিনটোন রিপেয়ারেও বেশ ইফেক্টিভ।
  • ক্যারট সিড অয়েল স্কিনের ড্রাইনেস দূর করে ময়েশ্চার লক করে রাখে।

rajkonna shower gel

প্রতিবার শাওয়ারে উজ্জ্বল ত্বক কীভাবে পাবেন? 

রাজকন্যা হোয়াইট গ্লো শাওয়ার জেলটির মেইন উপাদান এবং এর গুণাবলি সম্পর্কে তো জানলেন। ‘Goodness of nature’ এই কথাটি প্রায়ই আমরা শুনে থাকি। প্রকৃতি থেকে কার্যকরী উপাদান বাছাই করে সেটিই যখন স্কিন কেয়ার প্রোডাক্টে ফর্মুলেটেড করা হয়, তখনই আপনার ত্বক হাইয়েস্ট বেনিফিট পায়। স্কিন ব্রাইটেটিং ও হোয়াইটেনিংয়ের জন্য ক্যারট সিড অয়েল ও আমন্ড মিল্ক দারুন কাজ করে। প্রতিবার শাওয়ারের পরই আপনি ত্বকের হেলদি গ্লো দেখতে পারবেন। খুব জেন্টলি আপনার স্কিনকে ক্লিন ও এক্সফোলিয়েট করার পাশাপাশি ত্বককে উজ্জ্বল করে তোলে। এতে কোনো হার্শ উপাদান বা ক্ষতিকর কেমিক্যাল নেই। তবে এটা ঠিক ন্যাচারাল ইনগ্রেডিয়েন্ট আপনাকে রাতারাতি ফর্সা চকচকে ত্বক দিতে পারবে না! লং টার্ম ইউজের পর সুফল তো আপনি অবশ্যই পাবেন।

রাজকন্যা হোয়াইট গ্লো শাওয়ার জেলটির বিশেষত্ব

মেইন ইনগ্রেডিয়েন্টস ও সেগুলোর উপকারিতা তো জানলাম। আচ্ছা, আর কী কোনো স্পেশালিটি আছে? বাজারে তো কত ধরনের বডি ওয়াশ ও শাওয়ার জেল আছে, তাহলে রাজকন্যা হোয়াইট গ্লো শাওয়ার জেলটি কেন বেছে নিবো? এর বিশেষত্বই বা কী? এই প্রোডাক্টটি কেন আমার এত ভালো লেগেছে, এর বেস্ট পার্ট কী সেগুলোই এখন শেয়ার করতে চাই।

১) প্রথমত বলতে চাই, এর স্মেল খুবই রিফ্রেশিং, একদম মাইল্ড। মিষ্টি এবং হালকা সুগন্ধ আমার পছন্দ। আমার মতো অনেকেই আছেন যাদের কড়া ঘ্রাণ পছন্দ না। বিশেষ করে মাইগ্রেইনের প্রবলেম যাদের আছে, তারা স্মেল নিয়ে বেশ খুঁতখুঁতে হয়ে থাকেন। রাজকন্যা হোয়াইট গ্লো শাওয়ার জেলটির হালকা সুগন্ধ আমার ভীষণ পছন্দের।

২) রাজকন্যা হোয়াইট গ্লো শাওয়ার জেল খুবই কম পরিমাণে লাগে। পাম্প সিস্টেমের সাহায্যে শাওয়ার জেল বের করতে হয়। মাত্র ১/২ পাম্পেই লুফাতে ফেনা তৈরি হবে যা দিয়ে আপনি ফুল বডি ক্লিন করতে পারবেন।

প্রতিবার শাওয়ারে উজ্জ্বল, সতেজ ও সুবাসিত ত্বকের জন্য রাজকন্যা শাওয়ার জেল এর ফেনা ব্যবহার

৩) স্কিনকে একদমই ড্রাই আউট করে না। প্রতিবার শাওয়ারেই গ্লোয়িং আর ফ্রেশ স্কিন পেতে পারেন খুব সহজেই। আর এর মিষ্টি সুবাস স্কিনে বেশ কিছুক্ষণ থাকে।

৪) একই সোপবার বার বার ইউজ করা বা পরিবারের সবাই সেটা ব্যবহার করা অনেকক্ষেত্রে আনহাইজেনিক মনে হতে পারে। রাজকন্যা হোয়াইট গ্লো শাওয়ার জেল পাম্প বোতলে পেয়ে যাবেন, ইউজের সময় কিন্তু হাতের সংস্পর্শে আসে না। জাস্ট যেটুকু ব্যবহার করবেন ততটুকুই পাম্প করবেন। তাই এতে হাইজিন মেনটেইন হয়।

৫) এটি প্যারাবেন ফ্রি। টিনেজাররাও নিশ্চিন্তে ব্যবহার করতে পারবে। সব ধরনের ত্বকেই উপযোগী।

ব্যবহারবিধি

শাওয়ার জেল ব্যবহার করা খুব সহজ, লুফাতে একটু জেল পাম্প করে নিন, ফেনা তৈরি করুন, এরপর ভেজা শরীরে রাব করে নিন। তারপর ভালোভাবে ধুয়ে ফেলুন। প্রতিবার শাওয়ারে বোতল খুলে প্রোডাক্ট ঢালার ঝামেলা নেই। ব্যস! প্রতিবার শাওয়ারে পেয়ে যাবেন উজ্জ্বল ও সুবাসিত ত্বক।

শাওয়ার জেলের ঘনত্ব দেখাচ্ছে একজন

প্যাকেজিং এবং টেক্সচার 

সত্যি বলতে আমি কিন্তু এই শাওয়ার জেলটির প্যাকেজিংয়ে মুগ্ধ! হোয়াইট বোতলে ব্লু ফ্লোরাল ডিজাইন করা, ছবিতেই দেখতে পারছেন। পরিমাণে ৩৩০ মি.লি থাকে, অনেকদিন চলে যাবে এক বোতল। জেল বেইজড শাওয়ার জেল, ট্রান্সপারেন্ট কালারের। দাম অনুযায়ী পরিমাণ কিন্তু বেশ ভালো। আমি ওভারঅল স্যাটিসফায়েড এই প্রোডাক্টটি নিয়ে।

তাহলে জেনে নিলেন, বডির ত্বকের ডার্কনেস ও ডালনেস দূর করে উজ্জ্বল ও কোমল ত্বক পেতে কোন প্রোডাক্টটি আপনাকে স্কিন কেয়ারে ইনক্লুড করতে হবে। তাই গ্লোয়িং ও হেলদি স্কিন পেতে ট্রাই করে ফেলুন রাজকন্যা হোয়াইট গ্লো শাওয়ার জেল আর আপনার এক্সপেরিয়েন্সও আমাদের সাথে শেয়ার করুন। আপনারা চাইলে সাজগোজের দুটি ফিজিক্যাল শপ যার একটি যমুনা ফিউচার পার্ক ও অপরটি সীমান্ত সম্ভারে অবস্থিত, সেখান থেকে কিনতে পারেন আর অনলাইনে কিনতে চাইলে শপ.সাজগোজ.কম থেকে কিনতে পারেন। তাহলে আজ এই পর্যন্তই। ভালো থাকুন, নিজের যত্ন নিন।

ছবি- সাজগোজ

3 I like it
0 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...