হিজাব ব্যবহারে চুল পড়ার সমস্যা বেড়ে যাচ্ছে?

হিজাব ব্যবহারে চুল পড়ার সমস্যা বেড়ে যাচ্ছে?

hijabi-girl-2

হিজাবে পর্দা মেনটেইনের পাশাপাশি মডেস্ট লুকে সৌন্দর্য যেন বেড়ে যায় অনেকখানি। আমরা যারা রেগুলার হিজাব পরে বাইরে বের হই, তাদের জন্য তো চুল পড়া খুবই কমন একটি সমস্যা, তাই না? কিছুতেই যেন হেয়ার ফল প্রবলেম কন্ট্রোলে আসে না! হিজাব পরিধানে লম্বা সময় ধরে চুল কাপড় বা স্কার্ফ দিয়ে কভার করা থাকে, এতে হেয়ার প্রবলেম কিছুটা বেড়ে যেতে পারে। তবে সল্যুশনও আছে! কেন চুল পড়া বাড়ছে, কীভাবে চুলের বাড়তি যত্ন নেওয়া যায়, হিজাব পরিধানের সময় কোন বিষয়গুলো খেয়াল করলে হেয়ার ফল কম হবে সেগুলো জেনে নিলে এই সমস্যা থেকে রিলিফ পাবেন সহজেই। তবে জেনে নেওয়া যাক এখনই।

কেন চুল পড়া বেড়ে যাচ্ছে? 

হিজাব ব্যবহারে চুল পড়া বেড়ে যাওয়ার পেছনে কতগুলো কারণ আছে। চুল পড়ার সমস্যাতে কম বেশি আমরা সবাই ভুক্তভোগী। কিন্তু জানেন তো, প্রতিদিন গড়ে ১০০ টি চুল পড়া স্বাভাবিক! চিরুনিতে চুল দেখলে বা স্কার্ফ খুলে সেখানে কয়েকটা চুল পেলে সেটা নিয়ে টেনশনের কিছু নেই। আগে ভালোভাবে বুঝে নিন আপনার অতিরিক্ত হেয়ার ফল হচ্ছে কি না। চুল বেশি পড়লে তা অবশ্যই উদ্বেগের কারণ। আসুন হিজাব ব্যবহারকারীদের অতিরিক্ত চুল পড়ার কারণ জেনে নিই আগে।

১) যেই ধরণের ফেব্রিক দিয়ে বাতাস চলাচলে সমস্যা হয় আর ঘাম শোষণ করার ক্ষমতা থাকে না, সেই ম্যাটেরিয়ালের হিজাব থেকে কিন্তু অতিরিক্ত চুল পড়তে পারে।

২) খুব বেশি টাইট করে চুল বেঁধে হিজাব পরলে, সেখানে ঘাম থেকে চুলের গোঁড়া নরম হয়ে যায়। এতে চুল ঝরে পড়ে সহজেই। আবার ভেজা চুলে হিজাব পরলেও এই সমস্যাটা হতে পারে।

৩) অপরিচ্ছন্ন হিজাব ও হেয়ার ক্যাপ ব্যবহারের ফলে ব্যাকটেরিয়াঘটিত সংক্রমণ বেড়ে যায়। এর ফলে খুশকি ও চুলকানির সমস্যা দেখা দেয়। এগুলো চুল পড়ার পরোক্ষ কারণ।

৪) রেগুলার চুল পরিষ্কার না করলে হেয়ার ফল তো হবেই! আমাদের স্ক্যাল্প থেকে প্রাকৃতিকভাবে তেল নিঃসৃত হয়। ঘাম, ময়লা আর তেল মিলে মাথার ত্বককে চিটচিটে করে, সেই সাথে ফাঙ্গাল অ্যাটাকের সম্ভাবনা বাড়িয়ে দেয়। চুল ও মাথার ত্বক ঠিকভাবে শ্যাম্পু দিয়ে পরিষ্কার না করলে অতিরিক্ত মাত্রায় চুল পড়ে।

৫) এগুলোর পাশাপাশি কিছু ইন্টার্নাল বিষয় রয়েছে চুল পড়ার পেছনে। অ্যান্ড্রোজেনিক হরমোন বেড়ে গেলে অস্বাভাবিক হারে চুল পড়ে। যেহেতু শরীরের পুষ্টির ওপর চুলের স্বাস্থ্য নির্ভর করে, তাই পুষ্টির ঘাটতি বা প্রোটিনের অভাবে কিন্তু হেয়ার ফল হয়। সেই সাথে আনহেলদি লাইফস্টাইল, রাত জাগা, অতিরিক্ত মানসিক চাপ ইত্যাদি কারণেও চুল পড়া বেড়ে যায়।

কীভাবে চুল বাঁধা উচিত হিজাবের সাথে?

হিজাবের সাথে চুলে মেসি বান করে নিন কিংবা ঢিলেঢালা করে বেনি করে ক্লিপ দিয়ে আটকিয়ে রাখুন। যদি খুব টেনে চুল বাঁধা হয় বা আঁটসাঁট করে খোঁপা করে লম্বা সময় হিজাব পরা হয়, এতে আপনার হেয়ার ফলিকল ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

চুল পড়া কীভাবে কন্ট্রোলে আনবো?

১) প্রোটিন, আয়রন, ভিটামিনযুক্ত খাবার প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় রাখুন। চুলকে ভেতর থেকে মজবুত করতে পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে। পর্যাপ্ত পানি পান করবেন আর সময়মতো ঘুমাবেন, অর্থাৎ হেলদি লাইফস্টাইল মেনে চলে হবে।

২) বাইরে থেকে ফিরে হিজাব ও হেয়ার ক্যাপ খুলে চুল বাতাসে শুঁকিয়ে নিন, যদি মাথা ঘেমে যায়! এরপর ভালোভাবে চুলে শ্যাম্পু করে ফেলুন। চুল ও স্ক্যাল্প পরিষ্কার রাখতে হবে সবসময়। চুলের প্রয়োজন অনুসারে শ্যাম্পু নির্বাচন করুন।

৩) ভেজা চুল বাঁধবেন না বা চুল ভেজা থাকা অবস্থায় হিজাব পরবেন না। বাতাসে ভালোভাবে চুল শুঁকিয়ে তারপরই হালকা করে চুল বেঁধে নিয়ে হিজাব পরবেন। আর আর্জেন্ট মুহূর্তে তাড়াতাড়ি চুল শুঁকাতে হেয়ারড্রায়ার ইউজ করতে পারেন।

৪) সপ্তাহে ১/২ দিন চুলে অয়েল ম্যাসাজ করুন, এতে চুলের গোঁড়ায় রক্ত সঞ্চালন বাড়বে আর চুল পড়া কমে আসবে। নারকেল তেলের সাথে ক্যাস্টর অয়েল কয়েক ফোঁটা মিক্স করে চুলের গোঁড়ায় মালিশ করতে পারেন। তবে বেশি ঘষাঘষি করা যাবে না, আলতো করে আঙ্গুল দিয়ে স্ক্যাল্প ম্যাসাজ করতে হবে।

৫) হিজাব ব্যবহারে চুল পড়ার সমস্যা কমাতে কিছু বিষয় খেয়াল রাখা উচিত। সুতি, ক্রেপ কিংবা এমন কাপড়ের হিজাব পরুন যাতে ঘাম শোষণের ক্ষমতা থাকে এবং আপনাকে কমফোর্ট দেয়। খুব বেশি আঁটসাঁট করে স্কার্ফ না পেচিঁয়ে লুজ করে হিজাব পরুন, স্পেশালি এই গরমের সময়।

হিজাব ব্যবহারে চুল পড়া কমাতে সঠিক শ্যাম্পু নির্বাচন

যেহেতু রেগুলার চুল পরিষ্কার করতে শ্যাম্পু ব্যবহার করতেই হচ্ছে, তাই শ্যাম্পুটা হতে হবে চুলের জন্য মানানসই। হিজাবিদের হেয়ার প্রবলেমগুলোকে টার্গেট করে বাজারে নানা রকম শ্যাম্পু এখন পাওয়া যায়। তবে এমন শ্যাম্পু সিলেক্ট করুন যেটা আপনার স্ক্যাল্পকে সুরক্ষা দেবে ও চুলকে সতেজ রাখবে। চুলের স্বাস্থ্য রক্ষায় আমি বেছে নিয়েছি ক্লিয়ার হিজাব পিওর শ্যাম্পু। এতে আছে নিউট্রিয়াম টেন আর প্রয়োজনীয় মিনারেলস, যা চুলকে দীর্ঘসময় পর্যন্ত খুশকিমুক্ত রাখে আর স্ক্যাল্পের ঘাম, ময়লা, চিটচিটে ভাব দূর করে নিমিষেই। ক্লিয়ার হিজাব পিওর শ্যাম্পু নিয়ে আমার এক্সস্পেরিয়েন্সটা শেয়ার করে ফেলি তাহলে। আমার মত যারা রেগুলার হিজাব পরেন এবং চুলের সমস্যা নিয়ে টেনশনে আছেন, তাদের জন্য এই রিভিউটি হেল্পফুল হবে আশা করি।

ক্লিয়ার হিজাব পিওর শ্যাম্পু ও আমার এক্সপেরিয়েন্স

এই গরমে লং টাইম হিজাব পরার কারনে চুলের গোঁড়ায় ঘাম, চুল পড়া ও খুশকির সমস্যা ফেইস করছিলাম, তো ক্লিয়ারের এই শ্যাম্পুটির ইনগ্রেডিয়েন্স লিস্ট দেখে ও এক ফ্রেন্ডের সাজেশনে ইউজ করা শুরু করলাম। হিজাবিদের অতিরিক্ত চুল পড়ার মেইন কারণ হচ্ছে অপরিচ্ছন্ন স্ক্যাল্প, মাথার ত্বক ঘমে যাওয়া ও সেটা থেকে খুশকি, ইচিনেস আরও কত কী! তো আমি এমন শ্যাম্পুই খুঁজছিলাম যেটা আমাকে এই সমস্যা থেকে পরিত্রাণ দেবে, সেই সাথে রিফ্রেশিং ফিল দেয় দিনভর। রেগুলার শাওয়ার টাইমে ক্লিয়ার হিজাব পিওর শ্যাম্পু আমার হলি গ্রেইল প্রোডাক্ট! আমি খুবই স্যাটিসফাইড এটা ইউজ করে। আমার চুল পড়া বেশ কন্ট্রোলে এসেছে, মাথার ত্বকের চিটচিটেভাব, খুশকি এগুলো নেই বললেই চলে।

তো, আজ আমরা জেনে নিলাম চুল পড়ার কারণ ও পরিত্রাণের উপায়গুলো আর হিজাবিদের জন্য কার্যকরী একটি প্রোডাক্টের সাজেশনও জানা হয়ে গেল। হিজাবের সাথেও চুল থাকুক সুস্থ ও সুন্দর। স্কিন ও হেয়ার কেয়ারের জন্য অথেক্টিক প্রোডাক্ট আপনারা চাইলে সাজগোজের দুটি ফিজিক্যাল শপ ভিজিট করতে পারেন, যার একটি যমুনা ফিউচার পার্ক ও অপরটি সীমান্ত স্কয়ারে অবস্থিত। আর অনলাইনে কিনতে চাইলে শপ.সাজগোজ.কম থেকে কিনতে পারেন। সবাই ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন, সুন্দর থাকবেন। তাহলে আজ এই পর্যন্তই। ভালো থাকবেন।

ছবি- সাজগোজ, সাটারস্টক

9 I like it
1 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...