চুলে তেল দেওয়ার সময় যে ৫টি কাজ একদমই করা উচিত নয়!

চুলে তেল দেওয়ার সময় যে ৫টি কাজ করবেন না!

4-2 (1)

চুলের যত্ন নেওয়ার কথা বলতে গেলে আমি প্রথমেই বলবো চুলে তেল দেয়ার কথা। হ্যাঁ, এটা প্রথমেই বলার কারণ হলো চুলে তেল ম্যাসাজ করার ফলে চুল পরিপূর্ণ পুষ্টি পায় এবং চুল হয় কোমল ও ঝরঝরে। আমরা চুলের যে ট্রিটমেন্ট-ই করাই না কেন, চুলে তেল দেওয়াটা কিন্তু অপরিহার্য। যাই হোক, চুলের যত্নে তেলের ভূমিকা তো আপনারা সবাই জানেন। কিন্তু অনেকেই অভিযোগ করেন যে তেল দেওয়ার পর চুল পড়া বেড়ে যাচ্ছে! কেন এমনটা হয়? আজকে বলবো, চুলে তেল দেয়ার সময় আমরা যে কমন ভুলগুলো করে থাকি এবং সেজন্য চুলের উপকারের চেয়ে অপকার বেশি হয়ে যায় সে বিষয়ে। তাহলে চলুন দেখে নেওয়া যাক এমন ৫টি বিষয় যা চুলে তেল ম্যাসাজের সময় করা উচিত নয়।

চুলে তেল দেওয়ার সময় যে ভুল করবেন না

১. তেল অতিরিক্ত গরম করা  

হালকা গরম তেল চুলের জন্যে উপকারী এটা ঠিক কিন্তু চুলে তেল ম্যাসাজ করার আগে সেই তেল সরাসরি চুলার উপর বসিয়ে দেয়া ঠিক নয়। এতে তেলের গুণাগুণ পুরোপুরিভাবে বজায় থাকে না। আপনি চাইলে একটি বাটিতে তেল নিয়ে সেটি গরম পানির উপর বসিয়ে গরম করে নিতে পারেন অথবা মাইক্রোওয়েভ ওভেনে  মাত্র ২০ সেকেন্ড এর মতো রেখে গরম করে নিতে পারেন। এতে তেলও কুসুম গরম হয়ে যাবে আর তেলের পুষ্টিগুণও পুরোপুরি বজায় থাকবে।

২. অতিরিক্ত জোরে ম্যাসাজ করা  

মাথার ত্বকে ম্যাসাজ করলে ব্লাড সার্কুলেশন ভালো হয় এবং এটা স্ক্যাল্প ও চুলের জন্য উপকারী। এটি চুলের বৃদ্ধি তরান্বিত করে। কিন্তু তেল দেওয়ার সময় আমরা অনেকেই জোরে জোরে ম্যাসাজ করে ফেলি যা ঠিক নয়। এতে চুলে জট লাগার সম্ভাবনা বেড়ে যায় যার ফলে চুল পড়ার পরিমাণ বেড়ে যেতে পারে। এছাড়াও চুলের গোড়া নরম হয়ে যায় জোরে জোরে ম্যাসেজ করার ফলে। তাই তেল দেওয়ার সময় আলতো হাতে ম্যাসাজ করা উচিত।

৩. চুল না আঁচড়ে তেল দেওয়া

বেশির ভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায়, চুলে তেল দেওয়ার আগে আমরা চুল আঁচড়ে নেই না। জড়ানো বা জট লাগা চুল নিয়েই আমরা তেল দিতে বসে যাই এবং তেল দেওয়া শেষে একবারে আঁচড়ানোর কথা ভাবি। এভাবে তেল দেওয়ার ফলে জট লাগানো বা জড়ানো চুলে আরো বেশি করে প্যাচ লেগে যায় এবং তেল দেওয়ার পরে বেশি পরিমাণে চুল পড়তে দেখা যায়। এটা করা কিন্তু মোটেও ঠিক নয়!

৪. খুব টাইট করে চুল বাধা 

আমরা অনেকে এই কাজটা করি, দেখা যায় তেল দেওয়ার পর চুল আঁচড়ে খুব টাইট করে বেধে রাখি বা উঁচু করে চুল বেধে ঘুমাতে যাই যা একদমই ঠিক নয়। অতিরিক্ত টাইট করে চুল বাধার ফলে চুলের গোড়া খুব সহজেই নরম হয়ে যায় এবং চুল ঝরে পড়ার ও ভেঙে যাওয়ার প্রবণতা বেড়ে যায়। তাই তেল ম্যাসাজ করার পর অতিরিক্ত টাইট করে চুল বাধা ঠিক নয়।

৫. লং টাইম চুলে তেল দিয়ে রাখা 

লং টাইম চুলে তেল দিয়ে রাখা

চুলের জন্য তেল অপরিহার্য এটা যেমন ঠিক তেমনি চুলে অতিরিক্ত তেল দেওয়াটাও চুলের জন্য ক্ষতিকর। হ্যাঁ, ঠিকই বলছি, সপ্তাহে ২/৩ বারের বেশি তেল দেওয়াটা ঠিক নয়। লং টাইম অয়েল থাকলে তা স্ক্যাল্পের পোরস ক্লগড করে দেয়। চুলে তেল দিয়ে ১ ঘন্টা পর শ্যাম্পু করে ফেলাই বেটার। চুলে অতিরিক্ত তেল দেওয়ার ফলে শ্যাম্পুও বেশি দরকার হয়, যার ফলে ওভার ওয়াশ করতে হয়। মাইল্ড শ্যাম্পুগুলোতে এই এক্সেস অয়েল ক্লিন হতে চায় না। আর হার্শ শ্যাম্পু ডেইলি ইউজের ফলে চুল তার স্বাভাবিক ময়েশ্চার ও কোমলতা হারিয়ে ফেলে। এছাড়াও অতিরিক্ত তৈলাক্ত চুলে ধুলাবালি দ্রুত জমে তাই চুলের ক্ষতিও হয় বেশি। এই জন্য সবার উচিত পরিমিত পরিমাণে তেল ও শ্যাম্পু ইউজ করা। এতে চুলের স্বাভাবিক সৌন্দর্য বজায় থাকবে।

উপরে উল্লেখিত ভুলগুলো আমরা কম বেশি সবাই এতদিন করে এসেছি বা আসছি । তাই আজ থেকেই ভুলগুলো শুধরে ফেলুন আর যত্ন নিন আপনার চুলের। খুব বেশি কিছু না, সপ্তাহে ২/৩ দিন তেল ম্যাসাজ করুন তারপর ১ ঘন্টা পর শ্যাম্পু করুন। আরেকটু ভালো হয় যদি সপ্তাহে একদিন চুলে কোনো প্যাক ইউজ করেন। তাহলেই আপনার চুল থাকবে সিল্কি ও শাইনি। আপনি চাইলে আপনার পছন্দমতো নারকেল তেল কিনতে পারেন অনলাইনে শপ.সাজগোজ.কম থেকে। আবার সাজগোজের ৪টি শপ- যমুনা ফিউচার পার্ক, বেইলি রোডের ক্যাপিটাল সিরাজ সেন্টার, উত্তরার পদ্মনগর (জমজম টাওয়ারের বিপরীতে) ও সীমান্ত সম্ভার থেকেও বেছে নিতে পারেন আপনার পছন্দের প্রোডাক্টটি।

 

ছবি- সাজগোজ

116 I like it
14 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...