দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখতে সহজলভ্য পাঁচটি খাবার - Shajgoj

দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখতে সহজলভ্য পাঁচটি খাবার

শরীরের সবচেয়ে সংবেদনশীল ও গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গের নাম চোখ। বর্তমান সময়ে আমাদের সবারই কমবেশি চোখের সমস্যা দেখা দিচ্ছে। বড়দের পাশাপাশি ছোটদের জন্যও চোখের সমস্যা এখন খুবই পরিচিত বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। ইদানীং অল্পবয়সী ছেলে-মেয়েদেরও দেখা যায় মোটা লেন্সের চশমা ব্যবহার করতে। তাই চোখ ভালো রাখার উপায় জানতে সবাই বেশ আগ্রহী। আমরা যদি প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় কিছুটা পরিবর্তন আনতে পারি, তাহলে কিন্তু চোখের সমস্যা অনেকটাই এড়ানো সম্ভব হবে। আজকের আলোচনায় আমরা এমন কিছু খাবার নিয়ে জানবো যা আমাদের খুবই পরিচিত এবং দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখতে অনেক বেশি সহায়ক। পাশাপাশি চোখের সৌন্দর্য্য বজায় রাখতেও এ খাবারগুলো ভূমিকা রাখে।

দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখতে যা খাবেন

দেরি না করে চলুন জেনে নেওয়া যাক পাঁচটি এমন খাবার সম্পর্কে, যা আমাদের চোখের সুস্থতা ও সৌন্দর্য্য বজায় রাখবে-

দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখতে সহজলভ্য পাঁচটি খাবার

মাছ

স্ট্রং ও থিক আইল্যাশ প্রতিটা মেয়েই চায়, তাই না? ওমেগা-থ্রি ও প্রোটিন আমাদের চোখের ল্যাশের গ্রোথের জন্য একটি বেস্ট উপাদান। মাছ এমন একটি খাবার যা ওমেগা থ্রি ও প্রোটিনের একটি অন্যতম উৎস। তাছাড়া মাছে রয়েছে হাই প্রোটিন যা আমাদের চোখের দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। তাই যদি চোখের সুস্থতা ও ঘন আইল্যাশের সুন্দর চোখ পেতে চান অবশ্যই আপনার খাদ্যতালিকায় মাছ রাখুন।

বাদাম

হাই প্রোটিন, ফ্যাটি অ্যাসিড ও ফাইবার সমৃদ্ধ বাদামকে পাওয়ারহাউস বললে খুব একটা ভুল হবেনা! বাদামে রয়েছে বিভিন্ন হেলথ বেনিফিটস্। অলরাউন্ডার এই খাবারটিতে রয়েছে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ও ভিটামিন ই যা আমাদের আইল্যাশ ঝরে পড়া রোধ করে এবং ল্যাশ হেলথ মেনটেইন করে। এছাড়াও দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখতে বাদামের জুড়ি মেলা ভার। নিয়মিত বাদাম খেলে আমাদের চোখের বিভিন্ন সমস্যা আমরা সহজেই এড়িয়ে যেতে পারবো। তাই হুটহাট খিদে পেলেই অন্য কোনো খাবারের দিকে না ঝুঁকে বাদাম হতে পারে আমাদের কুইক স্ন্যাকস!

গাজর

নিশ্চয়ই ভাবছেন, গাজর খেয়ে চোখের জন্য কী এমন বেনিফিট পাবেন? ধরুন কোনো এক রাতের বেলা কারেন্ট নেই, আপনার বাসায় ঘুটঘুটে অন্ধকারে যদি আপনি চোখের উপর খুব একটা চাপ না দিয়েই মোমবাতিটা খুঁজে ফেলেন, কেমন হয় তাহলে!! শুনতে একটু বোকা বোকা মনে হলেও এরকমটা কিন্তু আপনি সম্ভব করতেই পারেন প্রতিদিন গাজর খাওয়ার মাধ্যমে। কেননা গাজরে আছে উচ্চ মাত্রার বেটা-ক্যারোটিন, যা মূলত একটি বিশেষ ধরনের ভিটামিন এ। এই ভিটামিন আমাদের চোখের অন্ধকারে দেখতে পাওয়ার ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। তাই অন্ধকারে দেখতে পাবার মত সুপারপাওয়ার পেতে হলে প্রতিদিনের খাবারে গাজর রাখতেই হবে।

দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখতে ডিমের গুরুত্ব

ডিম

দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধির জন্য বেস্ট ফুড নিয়ে বলতে গেলে নির্দ্বিধায় ডিমকে প্রথম সারির একটি খাবার বলা যায়। ডিমে রয়েছে ভিটামিন সি, ই ও লুটেইন নামক একটি রিচ অ্যান্টি অক্সিডেন্ট, যা আমাদের আইসাইটের জন্য ভীষণ উপকারী। ডিমে থাকা প্রোটিন আমাদের চোখের জন্য বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ যা আমাদের আইল্যাশ লেন্থ ধরে রাখতে সাহায্য করে। এছাড়াও ডিম ভিটামিন এ, বি কমপ্লেক্স, জিংক, ফসফরাস ও সেলেনিয়ামের দারুন একটি উৎস যা আমাদের আইল্যাশ স্ট্রং করে এবং নতুন আইল্যাশ গ্রো করতে সাহায্য করে। তাই প্রতিদিনের খাবারে আমাদের এক থেকে দুইটি ডিম খাওয়া উচিত।

মিষ্টি আলু

মিষ্টি আলুতে রয়েছে এমন সব পুষ্টি উপাদান যা আমাদের চোখের জন্য ভীষণ উপকারী। এতে আছে বিভিন্ন ধরণের উপকারী সব খনিজ উপাদান ও ভিটামিন। এই সমস্ত খনিজ উপাদান ও ভিটামিন আমাদের চোখের জন্য খুব উপকারী। মিষ্টি আলুতে রয়েছে ভিটামিন এ যা আমাদের চোখের দৃষ্টি শক্তি বাড়ানোর পাশাপাশি নাইট ব্লাইন্ড বা রাতকানা রোগ থেকে আমাদের চোখকে সুরক্ষা দেয়। এছাড়াও এতে আছে পটাসিয়াম, সেলেনিয়াম, সালফার, কপার ও ম্যাগনেসিয়ামের মতো কিছু খনিজ উপাদান, যা আমাদের দৃষ্টিশক্তি যেমন বাড়ায়, একই সাথে আমাদের চোখের বিভিন্ন অ্যালার্জি জনিত সমস্যার সমাধান করে।

এই ছিলো দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখতে যা খেতে পারেন আজকের আলোচনা! পরিশেষে বলা যায়, নিজের খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তন করলেই আমরা আমাদের চোখের সার্বিক সুস্থতা নিশ্চিত করতে পারি। এই পাঁচটি খাবার আপনার প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় যোগ করলেই পেতে পারেন হেলদি আইসাইট এবং চোখও থাকবে সুন্দর!

লিখেছেন

নূরী শাহারীন

ছবিঃ সাটারস্টক

0 I like it
1 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...

escort bayan adapazarı Eskişehir bayan escort