কীভাবে ৫টি কার্যকরী উপায়ে মশার উপদ্রব থেকে পরিত্রাণ পাবেন?

মশার উপদ্রব | পরিত্রাণ পেতে ৫টি কার্যকরী উপায় জানা আছে তো?

12345

মশার উপদ্রবে কমবেশি আমরা সবাই অতিষ্ট। বাসাবাড়িতে আমাদের প্রত্যেকেরই যেন নিত্যদিনের সঙ্গী এটি। এই বিরক্তিকর পতঙ্গটির উপদ্রব যেমন অস্বস্তিকর, তেমনিই ঝুঁকি বাঁড়ায় রোগ জীবাণুর সংক্রমণেরও। একটু অসাবধানতা বা অসতর্কতার কারণে আমাদের স্বাস্থ্যও এতে চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে। মশার উপদ্রব কিন্তু আজকে থেকে না! যুগ যুগ ধরেই আমরা এই যন্ত্রণা থেকে মোকাবেলার চেষ্টা করে আসছি। যদিও এখন মার্কেটে রয়েছে এই উপদ্রব নিরাময়ের নানা রকম ব্যবস্থা। কিন্তু না বুঝে প্রোডাক্টস ব্যবহার করার ফলে তা কিন্তু আমাদের শারীরিক ঝুঁকি বহুগুণে বাড়িয়ে দিতে পারে। তাহলে কীভাবে পাবেন এই যন্ত্রণা থেকে মুক্তি? তাই আজকে আমরা জেনে নিব ,মশার উপদ্রব থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার ৫টি কার্যকরী উপায় নিয়ে।

মশার উপদ্রব থেকে পরিত্রাণ পেতে ৫টি কার্যকরী উপায়

আপনার রুমের ফ্যানটি চালু রাখুন

মশাদের উড়বার গতিবেগ খুব সহজেই ফ্যানের স্পীড দিয়ে কমিয়ে আনা যায়। যেহেতু মশারা খুবই হালকা প্রকৃতির হয়ে থাকে, তাই ফ্যানের স্পীডে এদের গতিবেগ রোধ হয়। তাই মশার উপদ্রব কমিয়ে আনতে তাৎক্ষনিক কার্যকরী সমাধান হিসেবে আপনার বসার স্থানের ফ্যানটি চালু রাখুন।

হলুদ আলোয় কমে আসে মশার উপদ্রব

আমরা অনেকেই জানিনা, তবে মশারা সাধারণত হলুদ আলো দেখলে দূরে পালিয়ে যায়। যদি আপনার এলাকায় বা ঘরে মশার উপদ্রব খুব বেশি হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে ঘরের লাইট হিসেবে বেছে নিন এমন কিছু যা হলদে রঙের। আমাদের অনেকেরই ধারণা, মশা বা কীটপতঙ্গ লাইটের প্রতি বেশি আসক্ত হয়। অনেক ক্ষেত্রে এটি সত্যি হলেও মশারা কিন্তু সব রঙের আলোর কাছে যেতে চায়না। তাই মশার উপদ্রব কমিয়ে আনতে এলইডি লাইট, হলুদ বাগ লাইট বা সোডিয়াম লাইট হতে পারে কার্যকরী একটি উপায়।

তাৎক্ষনিক সমাধান দিবে মসকুইটো রিপেলেন্ট ক্রিম

মশার উপদ্রব কমিয়ে আনতে আমাদের অনেকের প্রথম পছন্দ মসকুইটো রিপেলেন্ট। আমরা অনেকেই কয়েলের ধোঁয়া বা অ্যারোসলের গন্ধ সহ্য করতে পারিনা। আবার কারো কাছে এটা অস্বস্তিকর লাগে। তাদের জন্যে প্রতিদিনের সঙ্গী হতে পারে মসকুইটো রিপেলেন্ট ক্রিম। এটি একটি টিউবের ভেতর থাকে, যা বিভিন্ন সাইজে কিনতে পাওয়া যায়। এর ব্যবহারবিধিও খুবই সহজ। পাশাপাশি এর স্মেলও কিন্তু খুবই সুন্দর। এই ক্রিমটি শরীরের খোলা অংশগুলোতে ময়েশ্চারাইজারের মতো মেখে নিলেই হবে। অনেকের মনে প্রশ্ন আসতে পারে, এটি কি স্কিনের কোনো ক্ষতি করবে? একদমই না! একবার শরীরে মেখে নিলেই মশার উপদ্রব থেকে ৭ থেকে ৮ ঘণ্টার জন্যে নিশ্চিত সুরক্ষা পাওয়া যাবে। তবে খেয়াল রাখবেন নাক, চোখ, ঠোঁটের মত সংবেদনশীল এরিয়াগুলোতে যেন না লাগে।

কালারফুল পোশাক এড়িয়ে চলুন

খুব গাঢ় রঙের পোশাকে মশারা সহজেই আকৃষ্ট হয়। আবার খুব কালারফুল কাপড়-চোপড় যেমন- লাল, নীল এগুলোও মশাদের খুবই পছন্দের রঙ। তাই কোথাও বের হলে বা বাসায় রুমে যদি মশার উপদ্রব বেশি থাকে তবে, এ ধরনের পোশাক না পরাই ভাল।

সুগন্ধি ব্যবহারে মশার উপদ্রব কমে আসে

আমাদের কাছে সুগন্ধি অনেক প্রিয় হলেও মশারা এটি থেকে যতটা সম্ভব দূরে থাকে। যাদের বাসায় অনেক বেশি মশার উপদ্রব তারা চাইলে ঘরে থাকা অবস্থায় সুগন্ধি ব্যবহার করতে পারেন। মশার উপদ্রব কমাতে পারফিউম, বডি স্প্রে, আঁতর, বা সুন্দর স্মেলের যেকোন ময়েশ্চারাইজার খুবই কার্যকরী হতে পারে।

ব্যাস! এই সহজ কিছু উপায় মেনে চললেই কিন্তু সহজেই পরিত্রাণ পাওয়া যাবে মশার উপদ্রব থেকে! দিন হোক বা রাত, মশার উপদ্রব কিন্তু বলতে গেলে সবসময়ই থাকে। সাধারণত ঠাণ্ডা ঘরের চেয়ে যে ঘরগুলো তুলনামূলক ভাবে একটু বেশি গরম থাকে সেখানে মশার উপদ্রবও বেশি থাকে। তাই চেষ্টা করবেন দুপুরের পর পরই ঘরের দরজা জানালা বন্ধ করে দিতে। এতে একদিকে যেমন ঘর থাকবে ঠাণ্ডা থাকবে, তেমনি মশার উপদ্রব কমে আসবে সহজেই। আজকে তাহলে এ পর্যন্তই।

স্কিন ও হেয়ার কেয়ারের জন্য অথেক্টিক প্রোডাক্ট আপনারা চাইলে সাজগোজের দুটি ফিজিক্যাল শপ যার একটি যমুনা ফিউচার পার্ক ও অপরটি সীমান্ত স্কয়ারে অবস্থিত, সেখান থেকে কিনতে পারেন আর অনলাইনে কিনতে চাইলে শপ.সাজগোজ.কম থেকে কিনতে পারেন। সবাই ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন, সুন্দর থাকবেন।

ছবি- সাটারস্টক

5 I like it
2 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...