প্রিয়জনের কাছে এই ভালোবাসা দিবসকে করে তুলুন স্মরণীয়! - Shajgoj প্রিয়জনের কাছে এই ভালোবাসা দিবসকে করে তুলুন স্মরণীয়! - Shajgoj

প্রিয়জনের কাছে এই ভালোবাসা দিবসকে করে তুলুন স্মরণীয়!

ফেব্রুয়ারী ৯, ২০১৬

 এ বছর দেখতে দেখতে ভালোবাসা দিবস চলে আসছে। ১৪ ফেব্রুয়ারি; দিনটি যেন সারা বিশ্বকে লাল ভালোবাসার রঙে রাঙিয়ে দিয়ে যায়। তবে ভালোবাসার দিন কিন্তু প্রতিদিন। আবার কারো কাছে অনেক প্রতীক্ষার পর একটি দিন। তাই অনেকে তার ভালোবাসা প্রকাশের জন্য বিশেষ করে এই দিনটি বেছে নেয়।

সারা পৃথিবীতে এই দিনটি ব্যাপকভাবে পালিত হয়। এই দিনটি নিয়ে সবারই অনেক চিন্তা ভাবনা থাকে। কোন ছেলে বা মেয়ে চায় তার প্রিয় মানুষটিকে সবচেয়ে সুন্দর উপহার দিয়ে চমকে দিতে! কিন্তু এসব ভাবতে ভাবতে দুশ্চিন্তায় পড়ে যান অনেকেই। মানুষটি সেই উপহার পছন্দ করবে কিনা, তা নিয়ে ভাবনার শেষ থাকে না! তাই চলুন জেনে নিই কিছু টিপস, কীভাবে আপনি এই বিশেষ দিনটিকে সবচেয়ে সুন্দর করে তুলতে পারবেন –

  • প্রথমেই ভেবে নিন আপনি আপনার প্রিয় মানুষটিকে কোথায় নিয়ে যাবেন। জায়গা ঠিক করার পরই আপনার বাকি চিন্তা। তবে মোটামোটি নীরব হলে ভালো হয়। এতে আপনি বিব্রত কম হবেন। তাছাড়া বিব্রত হবার কোন কারণ নাই, আপনি অপরিচিত কাউকে না বরং আপনার সবচেয়ে পছন্দের মানুষকেই আপনার মনের কথা বলছেন।
  • আপনি যা উপহার দিতে চান দিবেন। তবে এলোপাথাড়ি অনেক কেনাকাটা করলে সব চিন্তা গুলিয়ে ফেলতে পারেন।
  • নিজে কিছু বানিয়ে দিন। এতে আপনার প্রিয় মানুষটি অবশ্যই অনেক বেশি খুশি হবেন।love 2
  • আজকাল কেউ চিঠি লিখে না। ফেসবুক আর মোবাইলে উইস করে ফেলেন অনেকেই। তবে কিছু কথা বলার থেকে লিখে দিলে কথার মানে ভালো বুঝা যায়।
  • যদি কমন কিছু করতে না চান তাহলে আগে এটা ভাববেন যে আপনার প্রিয় মানুষটি কি পছন্দ করেন। তাহলেই সব উত্তর পেয়ে যাবেন।
  • অনেকে সাধারণভাবে দিবস পালন করা পছন্দ করেন। যেমন- গিফট হিসেবে চকলেট সবাই পছন্দ করেন। টেডি,চকলেট অথবা কোন একটা ব্যবহারের জিনিস নিজে পছন্দ করে কিনে দিতে পারেন।
  • গল্পের বই দিতে পারেন।আবার কার্ড বানিয়েও দিতে পারেন অথবা কিনেও দিতে পারেন। কিনে দিলে সেখানে অবশ্যই নিজে কিছু লিখে দিবেন। চাইলে আপনার বা আপনার প্রিয় মানুষটির পছন্দের কথা বা কবিতার দুটি লাইন লিখে দিতে পারেন।
  • খুব বড়সড় করে দিনটি পালন করতে চাইলে আপনার কাছের কয়েকটি বন্ধু-বান্ধব কে নিয়ে প্ল্যান করে ফেলেন। এতে আপনার সুবিধা হবে।
  • বিবাহিত দম্পত্তিরাও এই দিনটি বাদ দেন না। সংসারের ব্যস্ততায় হয়তো সময় বের করা হয় না খুব একটা। তাই তাদের জন্য এই দিনটিতে একটু সময় বের করে নেয়াই ভালো। আপনার প্রিয় মানুষটি হয়তো তাহলে অনেক দিন পর অনেক আনন্দ একসাথে পাবেন।

love 1

  • যদি আপনি প্রথমবারের মতো আপনার প্রিয় মানুষটিকে আপনার মনের কথা বলতে চান। তাহলে একটু রয়ে সয়ে বলাই ভালো। তা নাহলে হিতের বিপরীতও হতে পারে। তাই সময় নিয়ে ভেবে দেখেন যে অপর পক্ষ থেকে কিছুটা সম্মতি পাওয়ার সম্ভাবনা আছে কিনা। এরপর ভাববেন আপনি কিভাবে তাকে এই কথা বলতে চান; খুব সাধারণ ভাবে অথবা একটু ভিন্ন ভাবেও বলতে পারেন।

 

  • ভালোবাসা দিবস আর ফুল দেবেন না। তা কি হয়! কিছু না হলেও ফুল তো লাগবেই। আর তা হতে হবে লাল গোলাপ। সাথে অন্য ফুলও নিতে পারেন। তবে ভালোবাসা রঙই তো লাল রঙ। অন্য সময় ফুল দিয়ে থাকলেও এই দিনটিতে চাইলে অনেকগুলো গোলাপ একসাথে সাজিয়ে দিতে পারেন।
  • অনেকে ফোনে কথা বলতে পারেন অথচ সামনে আসলে গলা দিয়ে আওয়াজই আসে না। তাই হাত ধরে কথা বলুন,আপনার প্রিয় মানুষটির সাথে কাটানো সময়গুলো মনে করে কথা বলুন। দেখবেন সহজে মনের কথা বলতে পারছেন।
  • রিকশায় ঘুরতে পারেন বা কোন রেস্তোরাতে অল্প কিছু সুন্দর সময় কাটাতে পারেন।
  • একা কিছু করতে চাইলে কারো পরামর্শ না নিয়ে নিজেই এই দিনটির জন্য সব প্ল্যান করা ভালো। কারণ আপনার প্রিয় মানুষটির পছন্দ শুধু আপনিই বুঝবেন।
  • মনে রাখবেন আপনার প্রিয় মানুষটি আপনার দেয়া যে কোন কিছুই পছন্দ করবেন। তাই খুব বেশি চিন্তার কোন কারণ নেই।
  • কারও মতো না, নিজের মতো করে দিনটি পালন করুন। আপনার ভালবাসার মানুষটির সামনে সুন্দরভাবে কথা বলুন, একসাথে হাসুন, মোটকথা … ভালোবাসুন।

আপনাদের আনন্দময় মুহূর্তগুলো ছবি করে রাখতে ভুলবেন না। এই বিশেষ দিনটি আনন্দে কাটান।

লিখেছেন – সোহানা  মোরশেদ

ছবি – ফটোগ্রাফারস.ক্যানভেরা.কম