শীতের রুক্ষতায় ত্বককে করে তুলুন সতেজ এবং প্রাণবন্ত - Shajgoj শীতের রুক্ষতায় ত্বককে করে তুলুন সতেজ এবং প্রাণবন্ত - Shajgoj

শীতের রুক্ষতায় ত্বককে করে তুলুন সতেজ এবং প্রাণবন্ত

নভেম্বর ২, ২০১৫

আসছে শীত। শীত আসলেই কেমন যেন একটা ছুটির আমেজ চলে আসে। ঠাণ্ডা আবহাওয়ায় একটু বেড়ানো, পিকনিক করা, ভোরের কুয়াশা দেখা, পিঠা-পুলি খাওয়া এসব যেন শীতের নিত্য দিনের কাজ। কিন্তু দিন শেষে ঘরে ফিরে দেখা যায় রুক্ষ-শুষ্ক ত্বক। যাদের ড্রাই স্কিন তারা তো সমস্যায় পড়েনই, এমন কি যাদের তৈলাক্ত ত্বক তাদের ক্ষেত্রেও ত্বক শুষ্ক হয়ে যাওয়ার সমস্যা দেখা যায়। এই সমস্যা থেকে বাঁচতে তাই অনেককেই দেখা যায় গাদা গাদা কোল্ড ক্রিম ব্যবহার করতে। তৈলাক্ত ত্বক হলে আবার অনেকের ক্ষেত্রে কোল্ড ক্রিম ঠিকভাবে কাজ করে না, ব্রণের সমস্যা তৈরি করে। কিন্তু এতো এতো টাকা খরচ না করেও ঘরে বসেই প্রাকৃতিক উপাদানে তৈরি ফেসপ্যাক ব্যবহার করে আপনি পেতে পারেন সতেজ ত্বক। সেরকমই কয়েকটি ফেসপ্যাকের কথা বলব আজ।

মালাই ও মধুর ফেসপ্যাক- এক চা চামচ মালাই বা দুধের ক্রিমের সাথে এক চা চামচ মধু মিশিয়ে পুরো মুখে ভালোভাবে লাগিয়ে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপর ঈষদুষ্ণ গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ঠাণ্ডা পানির ঝাঁপটা দিন মুখে। ড্রাই স্কিন এর জন্য খুব উপকারী একটা প্যাক এটি। নরমাল ত্বকের অধিকারীরাও এটি ব্যবহার করতে পারবেন।

দইয়ের ফেস প্যাক- ২ চা চামচ টক দইয়ের সাথে মেশান এক চামচ মধু ও আধা চা চামচ চন্দন গুঁড়া। মুখে লাগিয়ে রাখুন ১৫ মিনিট,  তারপরে ধুয়ে ফেলুন। শীতে অনেকেরই ত্বক কালো হয়ে যায়। এই ফেসপ্যাকটি ত্বকের কালো ভাব কাটিয়ে তুলতে সাহায্য করবে। নিয়মিত করলে অল্প কয়েকদিনেই চোখে পড়ার মত পরিবর্তন পাবেন।

কলা ও  গুঁড়া দুধ/গোলাপজলের ফেসপ্যাক-  ছোট একটি কলার অর্ধেকটা (বাকিটা খেয়ে ফেলুন J) চটকে নিয়ে তাতে এক চা চামচ গুঁড়া দুধ মেশান। তৈলাক্ত ত্বক যাদের তারা দুধের পরিবর্তে গোলাপজল মেশান। এর সাথে মিশিয়ে নিন এক চামচ মধু। পুরো মুখে লাগিয়ে রাখুন ১৫ মিনিট। এরপরে ঈষদুষ্ণ গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ঠাণ্ডা পানির ঝাঁপটা দিন মুখে।

ডিমের ফেসপ্যাক- খুব সহজ একটি প্যাক। যারা একদমই সময় পান না তাদের জন্য। ডিমের সাদা অংশটুকু একটা বাটিতে ফেটিয়ে নিন। গোসল করার আগে পুরো মুখে এটি মেখে রাখুন ১৫ মিনিট। তারপর ধুয়ে ফেলুন। ঠাণ্ডা বাতাস ত্বকে যে রুক্ষতা তৈরি করে তা থেকে রক্ষার জন্য এটি ত্বকে একটি প্রাকৃতিক সুরক্ষা আবরন তৈরি করে।

ওটমিল ফেসপ্যাক-  এক চামচ ওটমিল, একটি ডিমের কুসুম, এক চা চামচ মধু এক সাথে মিশিয়ে নিয়ে মুখে লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে আসলে হালকা গরম পানির ঝাঁপটা দিয়ে ঘসে ঘসে তুলে ফেলুন। এটা একসাথে ফেসপ্যাক ও স্ক্রাব হিসেবে কাজ করবে।  শেষে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিলেই পাবেন মোলায়েম ত্বক।

পাকা পেঁপের ফেসপ্যাক- ঘরে যদি থাকে পাকা পেঁপে তাহলে তো কথাই নেই। একটুখানি পাকা পেঁপে বেটে নিয়ে এর সাথে মেশান এক চামচ মধু। ত্বক নরম ও মোলায়েম করার পাশাপাশি ত্বকে আনবে দারুন উজ্জ্বলতা।

 বাদামতেল ও দুধের ফেসপ্যাক- এক চা চামচ বাদাম তেলের সাথে ২ চা চামচ কাঁচা দুধ মিশিয়ে পুরো মুখে লাগিয়ে রাখুন ১৫ মিনিট। এরপরে ঈষদুষ্ণ গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ঠাণ্ডা পানির ঝাঁপটা দিন মুখে। শীতে ত্বকের রুক্ষতা কাটাতে খুবই কার্যকর একটি প্যাক।

গাজরের ফেসপ্যাক- ২ টেবিল চাচামচ গাজর বাটার সাথে মেশান এক চামচ মধু ও ২ চা চামচ কাঁচা দুধ। মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপরে ধুয়ে ফেলুন। এই ফেসপ্যাকটিও ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

টমেটোর ফেসপ্যাক- টমেটোর পাল্প এর সাথে ২ চা চামচ মধু ও কয়েক ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে রাখুন ১৫ মিনিট। তারপরে ঈষদুষ্ণ গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ঠাণ্ডা পানির ঝাঁপটা দিন মুখে। এটি তৈলাক্ত ত্বকের জন্য খুবই উপকারি।

অনেকেই আছেন যাদের ত্বক খুবই সেনসিটিভ। বাজারের বেশির ভাব প্রোডাক্টই হয়তো মুখে স্যুট করেনা। সেক্ষেত্রে নিজের অভিজ্ঞতা থেকে বলব, প্রতিদিন রাতে ভালোভাবে মুখ ধুয়ে একটি টোনার লাগিয়ে কিছুক্ষন অপেক্ষা করুন। এরপরে ২ ফোঁটা বাদাম তেল বা জলপাই তেল হাতে নিয়ে মুখে হালকা ভাবে ম্যাসাজ করে নিন। ২০ মিনিট পরে একটা ভেজা তুলো দিয়ে হালকাভাবে মুখটা মুছে নিন। এতে অতিরক্ত তেলটা কেটে যাবে।

ওপরে যে ফেসপ্যাকগুলো দেয়া হয়েছে তার থেকে যেটা আপনার ত্বকের সাথে যায় সেটাই সপ্তাহে ২ বার ব্যবহার করুন। এলারজিক মনে হলে সেটা আর কখনোই ব্যবহার করবেন না। এর সাথে সাথে বেশি করে পানি খান যাতে আপনার ত্বক ভেতর থেকে আদ্রতা পায়।  ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন।

লিখেছেন: মাহবুবা বীথি

ছবি: ফিটনেসডিভান.কম