পারফেক্ট ব্রেস্ট শেইপ পাওয়া যাবে কমফোর্টেবল ইনারওয়্যার দিয়ে

পারফেক্ট ব্রেস্ট শেইপ পাওয়া যাবে কমফোর্টেবল ইনারওয়্যার দিয়ে

5

বাইরে যাওয়াই হোক বা ঘরে থাকা- মেয়েদের জন্য ইনারওয়্যার কেমন কমফোর্ট দিবে সেটা সব সময় খেয়াল রাখতে হয়। ব্রা’র তো অনেক ধরন আছে। কিন্তু ঠিক কোন ব্রা টি আপনি আপনার জন্য চুজ করবেন সেটা নিয়ে কি কিছুটা হলেও কনফিউশন ক্রিয়েট হয়? কিছু ব্রা আছে যেগুলো ব্যবহারে কমফোর্ট তো পাওয়া যায়ই না, বরং ব্রা পরলে ব্রেস্ট শেইপ নিয়ে পড়তে হয় অস্বস্তিতে। এদিক থেকে টি শার্ট ব্রা ব্যবহার করলে আপনি বেশ আরাম পাবেন। এই ব্রা ব্যবহারে পারফেক্ট ব্রেস্ট শেইপ তো পাবেনই, সেই সাথে কমফোর্টও পাবেন লং টাইম। আজ আপনাদের সুপার কমফোর্টেবল একটি টি শার্ট ব্রা সম্পর্কে জানাবো যেটি আপনাকে দিবে পারফেক্ট ব্রেস্ট শেইপ এবং আউটলুক করে তুলবে আরও অ্যাট্রাক্টিভ।

টি শার্ট ব্রা কী?

অনেক ব্রা আছে যেগুলো পরলে আউটফিটের নিচে ভিজিবল হয়ে থাকে। এই ব্রাগুলো পরলে আউটফিটের নিচে ভিজিবল হবে না। যে কোনো সিজনের আউটফিটের সাথেই এটি বেশ মানিয়ে যায়। এই ব্রাগুলোতে ওয়্যার থাকে না। প্যাডেড বা মোল্ডেড কাপ যুক্ত হওয়ায় এবং এর সিমলেস ডিজাইনের কারণে ব্রেস্টকে দেয় পারফেক্ট শেইপ। এই ব্রাগুলো পরলে একদমই হেভি ফিল হয় না বরং বেশ লাইট লাগে।

পারফেক্ট ব্রেস্ট শেইপের জন্য ব্রা

টি শার্ট ব্রা কেমন হয় সেটা তো জানা হলো। কিন্তু কোন ব্র্যান্ডের ব্রা এই সবগুলো ফিচার কভার করবে? Valene ব্র্যান্ডের Comfy Wireless T-Shirt Bra তে পেয়ে যাবেন এই সবগুলো ফিচার। চলুন এ সম্পর্কে বিস্তারিত আরও কিছু তথ্য জেনে নেই-

পারফেক্ট ব্রেস্ট শেইপ পেতে কমফোর্টেবল ইনারওয়্যার

Valene Comfy Wireless T-Shirt Bra

  • এর লাইট প্যাডেড কাপ ব্রেস্টকে দেয় পারফেক্ট শেইপ
  • ওয়্যার না থাকার পরও ফুল সাপোর্ট দিবে
  • ৯৫% কটন ফেব্রিক দিয়ে তৈরি বলে পরতেও কমফোর্টেবল
  • অ্যাডজাস্টেবল স্ট্র্যাপ থাকায় স্লিপ অফ হওয়ার চান্স নেই
  • অলমোস্ট ফুল কভারেজ দেয়
  • ব্রা’র পেছনে হুক থাকায় ফিটিং নিয়ে চিন্তা নেই
  • ৩২-৩৮ সাইজ পর্যন্ত পাওয়া যায়
  • যে আউটফিটই পরুন না কেন ব্রা ভিজিবল হওয়া নিয়ে চিন্তা নেই
  • কমফোর্টেবল ফেব্রিক দিয়ে তৈরি বলে সারাদিন আপনিও থাকবেন কনফিডেন্ট

পারফেক্ট ব্রেস্ট শেইপ এর জন্য ইনারওয়্যার

ব্রা’র সাইজ কীভাবে মেজার করা যায়?

এতক্ষণ তো জানালাম বেস্ট কোয়ালিটির একটি টি শার্ট ব্রা’র ফিচার সম্পর্কে। কিন্তু কেনার পর যদি সাইজই ঠিক না থাকে তাহলে কি কোনো লাভ হবে বলুন? তাই সবার আগে কোন ব্রা টি আপনার জন্য সেই সাইজ মেজার করে নেয়া জরুরি। চলুন তাহলে মেজারমেন্ট প্রসেসটি জেনে নেই-

১) সোজা হয়ে আয়নার সামনে দাঁড়ান। এবার একটি ইঞ্চি ফিতা নিয়ে ব্রেস্টের ঠিক নিচ বরাবর শরীরের চারপাশ ঘুরিয়ে মাপ নিন। ফিতা একদম টাইট করে ধরা যাবে না। একটি আঙুল ঢোকানো যায় এই পরিমাণ ফাঁকা রেখে সঠিক মাপ নিন।

২) মাপ নেয়ার পর যে সংখ্যাটি পাওয়া গেলো সেটি আপনার আন্ডারবাস্ট নম্বর। যদি এই সংখ্যাটি জোড় হয়, তাহলে এর সাথে ৪ যোগ করুন। যদি বিজোড় হয়, তাহলে যোগ করুন ৫। এবার প্রাপ্ত যোগফলটি আপনার ব্যান্ড সাইজ।

৩) এবার আসুন আপার বাস্ট সাইজ মেজারের ক্ষেত্রে। এই মাপ নেয়ার জন্য ফিতা ব্রেস্টের ফুলার অংশে ধরুন।

৪) আপার বাস্ট সাইজ থেকে ব্যান্ড সাইজ বাদ দিলে যে সংখ্যাটি পাওয়া যাবে সেটি হবে কাপ সাইজ।

৫) ধরা যাক, আপনার আন্ডারবাস্ট নম্বর ২৯। বিজোড় বলে এর সাথে ৫ যোগ করা হলো। ব্যান্ড সাইজ হলো ৩৪। আপারবাস্ট সংখ্যা হলো ৩৭। তাহলে, কাপ সাইজ হবে (৩৭-৩৪=৩)। এই সংখ্যাটি রেফার করছে কাপ সি। অর্থাৎ আপনার ব্রা’র মাপ হবে ৩৪ সি। (বিয়োগফল ১ অর্থে A, ২ অর্থে B, ৩ অর্থে C, ৪ অর্থে D, ৫ অর্থে E ইত্যাদি)। অর্থাৎ ডিফারেন্স ১ হলে কাপ সাইজ A, ২ হলে B এভাবে কাউন্ট করতে হবে।

৬) ব্রা এর সাইজের ক্ষেত্রে ৩০AA, ৩২AA, ৩৪AA দেখা যায়। AA হচ্ছে সবচেয়ে ছোট কাপ সাইজ। যদি বাস্ট সাইজ ও ব্যান্ড সাইজের ডিফারেন্স ১ ইঞ্চির কম হয়, তাহলে এই সাইজটি সিলেক্ট করতে হয়।

এখনও কি সাইজ বোঝা নিয়ে কোনো কনফিউশন হচ্ছে? আপনাদের বোঝার সুবিধার জন্য আমি এখানে একটি চার্ট ইনক্লুড করে দিচ্ছি-

ব্রা'র সাইজ মেজারমেন্ট

কিছু সতর্কতা

  • ড্রাই ওয়াশ বা ব্লিচ করার কোনো প্রয়োজন নেই
  • শুধুমাত্র ডিটারজেন্ট দিয়ে হ্যান্ডওয়াশ করবেন
  • একবার পরার পর অবশ্যই ধুয়ে ভালোভাবে শুকিয়ে নিয়ে পরবর্তীতে ইউজ করুন
  • আয়রন করার প্রয়োজন নেই
  • ডার্ক কালারের ব্রা আলাদা ওয়াশ করুন
  • ৩/৪ মাস পর পর ইনারওয়্যার বদলে ফেলুন

কোথায় পাওয়া যাবে?

দোকানে গিয়ে ইনারওয়্যার কিনতে অনেকের কাছেই হ্যাসেল লাগে। আবার সাইজ ঠিকঠাক হলো কিনা তা নিয়েও কনফিউশন থেকে যায়। এই হ্যাসেল ছাড়াই অনলাইনে লঞ্জেরি আইটেম কেনার জন্য ভিজিট করুন সাজগোজ অ্যাপ বা ওয়েবসাইট। বেস্ট কোয়ালিটির লঞ্জেরি পাওয়া যাচ্ছে শপ.সাজগোজ.কম এ। টি শার্ট ব্রা ছাড়াও বিভিন্ন ডিজাইনের ও সাইজের ব্রা ও পেন্টি এখানে অ্যাভেলেবল। যদি সাইজ মেজারমেন্ট নিয়ে কোনো প্রবলেম ফেইস করেন তাহলে সাজগোজের ফেইসবুক পেইজে ইনবক্স করতে পারেন। এখানে বেশ কয়েকজন ফিমেল কনসালটেন্ট আছেন, যারা আপনাদের এই ব্যাপারে হেল্প করবেন।

 

আজকের আর্টিকেলে জানিয়ে দিলাম পারফেক্ট ব্রেস্ট শেইপ পাওয়া যাবে এমন একটি টি শার্ট ব্রা’র ফিচার এবং কোথায় পাওয়া যাবে সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানিয়ে দিলাম। এবার নিশ্চয়ই আর কনফিউশন থাকবে না। একটি ব্রা বেশ লং টাইম পরে থাকতে হয় বলে ভালো লঞ্জেরির পেছনে ইনভেস্ট করাটাই বেস্ট। আজ তাহলে এই পর্যন্তই। সবাই ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন।

ছবিঃ সাজগোজ

4 I like it
0 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...