স্ট্র্যাপলেস ব্রা দিয়ে এবার ফ্যাশন ও কমফোর্ট হবে একসাথে

স্ট্র্যাপলেস ব্রা দিয়ে এবার ফ্যাশন ও কমফোর্ট হবে একসাথে

4

আউটফিট যেটাই সিলেক্ট করা হোক না কেন, ইনারওয়্যারে কমফোর্ট হচ্ছে কিনা সেটা খেয়াল রাখা সবচেয়ে বেশি জরুরি। কারণ ব্রা যদি আরামদায়ক না হয়, তাহলে যে কোনো ড্রেস পরলেই অস্বস্তি লাগবে। অফিসে, পার্টিতে বা জিমে বিভিন্ন ধরনের আউটফিটের সাথে পরার জন্য রয়েছে নানা ধরনের ব্রা। রেগুলার এই ব্রাগুলো সাধারণত স্ট্র্যাপযুক্ত হয়। তবে স্ট্র্যাপযুক্ত ব্রাতে অনেকেরই শোল্ডার পেইন, ইচিনেস অথবা ব্যাকপেইনের মতো সমস্যা হয়। আবার অফ শোল্ডার বা ডিপ নেকলাইনের আউটফিট চুজ করলেও স্ট্র্যাপের কারণে পরা হয় না। এই প্রবলেমগুলোর সল্যুশন দিতে পারে স্ট্র্যাপলেস ব্রা। ইনারওয়্যার হিসেবে এই ব্রা বেছে নিলে পছন্দের আউটফিট দিয়ে কমফোর্টের সাথে সাথে ফ্যাশন নিয়ে মোটেও কম্প্রোমাইজ করতে হবে না।

কী কী বেনিফিটস দিবে স্ট্র্যাপলেস ব্রা?

রিমুভেবল স্ট্র্যাপ থাকায় যে কোনোভাবেই পরা যায়

বিভিন্ন ব্র্যান্ডের স্ট্র্যাপলেস ব্রা’র সাথে রিমুভেবল স্ট্র্যাপ থাকে যেগুলো আলাদা করে অ্যাটাচ করা যায়। চাইলে স্ট্র্যাপ লাগিয়েও পরা যায়। অর্থাৎ একটি ব্রা দিয়েই ট্র্যাডিশনাল, ক্রস টাইপ বা স্ট্র্যাপলেস সবভাবে পরার অপশন আছে।

রিমুভেবল স্ট্র্যাপ

র‍্যাশ বা ইচিনেস হবে না

অনেকক্ষণ ব্রা পরে থাকার জন্য অনেকের শোল্ডারে র‍্যাশ, ইচিনেস বা শোল্ডারে দাগ দেখা দেয়। স্ট্র্যাপলেস ব্রা তে এ ধরনের কোনো সমস্যা নেই। এগুলো ব্যবহারে স্কিনে কোনো দাগ হবে না, সেই সাথে বাস্টেও কমফোর্ট হবে। শোল্ডারে বাড়তি চাপ পড়ে না বলে সারাদিন বেশ রিল্যাক্স লাগে।

ব্রা পরা ও মেনটেইন করা ইজি

রেগুলার ব্রা’র মতো স্ট্র্যাপলেস ব্রা পরাও খুব ইজি। ব্রা’র পেছনে হুক থাকে। বডি সাইজ অনুযায়ী হুক লাগানো যায়। স্ট্র্যাপ না থাকায় বারবার শোল্ডারে হাত দিয়ে স্ট্র্যাপ ঠিক করার ঝামেলা নেই। তাই মেনটেইন করাও ইজি হয়।

ব্যাক পেইন হয় না 

স্ট্র্যাপের কারণে ব্রা যদি টাইট লাগে তাহলে ব্যাকপেইন বা মাসল পেইন হতে পারে। এই সমস্যা কমাতে স্ট্র্যাপলেস ব্রা খুবই হেল্পফুল। স্ট্র্যাপ না থাকায় শোল্ডারে বা ব্যাক সাইডে কোনো প্রেশার পড়ে না। তাই ব্যাকপেইন হওয়ার সম্ভাবনাও কমে যায়।

কমফোর্ট দেয় 

অফ শোল্ডার বা ডিপ নেকলাইনের আউটফিট পরতে চাচ্ছেন কিন্তু ব্রা’র স্ট্র্যাপের কারণে পারছেন না? নো ওরিস! পছন্দসই কালার অনুযায়ী কিনে ফেলুন স্ট্র্যাপলেস ব্রা। বডিকে পারফেক্ট শেইপ দেয়ার সাথে সাথে এই ব্রা দেয় আল্টিমেট কমফোর্ট। এতক্ষণ তো জানলাম উপকারিতা নিয়ে, এবার চলুন একটি স্ট্র্যাপলেস ব্রা’র ফিচার জেনে নেই-

স্ট্র্যাপলেস ব্রা’র রিভিউ

Armela Cinderella Strapless Convertible Push Up Bra

  • এই ব্রা’র ফেব্রিক ৮৫% নাইলন ও ১৫% স্প্যানডেক্স (স্ট্রেচেবল ফেব্রিক)
  • ব্রা টি খুবই সফট, ব্রিথেবল ও কমফোর্টেবল
  • ওয়্যার না থাকার পরও ফুল সাপোর্ট দিবে
  • স্মুথ ও সফট রিমুভেবল স্ট্র্যাপ থাকায় ট্র্যাডিশনাল, ক্রস টাইপ বা স্ট্র্যাপলেস- যে কোনোভাবেই পরা যাবে
  • ব্যাক সাইডে হুক আছে
  • অলমোস্ট ফুল কভারেজ দেয়
  • ব্রা’র কাপগুলো বডি মুভমেন্টের সাথে ফুল সাপোর্ট দিবে
  • সব বয়সী মেয়েরা এই ব্রা পরতে পারবেন
  • ৩২ থেকে ৩৮ সাইজ পর্যন্ত পাওয়া যাবে
  • ফেব্রিক বেশ কমফোর্টেবল বলে যে কোনো সময় পরা যাবে

স্ট্র্যাপলেস ব্রা

ব্রা’র সাইজ মেজার করবেন যেভাবে

এবার আসছি ব্রা এর সাইজ সিলেকশন নিয়ে। ব্রা কেনার সময় সবার আগে মেজারমেন্টের বিষয়টি খেয়াল রাখতে হবে। যদি সঠিক মাপের ব্রা না হয়, তাহলে বেশ অস্বস্তি হয়। স্ট্র্যাপলেস ব্রা’র মেজারমেন্টও রেগুলার ব্রা’র মতোই। চলুন জেনে নেই ব্রা’র সাইজ যেভাবে মেজার করবেন-

১) আয়নার সামনে সোজা হয়ে দাঁড়িয়ে একটি ইঞ্চি ফিতা নিয়ে ব্রেস্টের ঠিক নিচ বরাবর শরীরের চারপাশে ঘুরিয়ে ইঞ্চিতে মাপ নিন। খেয়াল রাখবেন ফিতা যেন একদম টাইট ফিটিং না হয়। একটি আঙুল ভিতরে ঢুকতে পারে এতটুকু পরিমাণ জায়গা রাখবেন।

২) মাপ নেয়ার পর যে সংখ্যাটা পাওয়া যাবে সেটি আপনার আন্ডারবাস্ট নম্বর। সংখ্যাটি যদি জোড় হয়, তাহলে তার সাথে যোগ করুন ৪। যদি আন্ডারবাস্ট নম্বর বিজোড় সংখ্যা হয়, তাহলে যোগ করতে হবে ৫। যোগফল যেটা আসবে সেটাই আপনার ব্যান্ড সাইজ।

ব্রা'র সাইজ মেজারমেন্ট

৩) এবার আপার বাস্ট সাইজ মেজার করার জন্য ফিতাটি ব্রেস্টের ফুলার অংশে ধরুন। আপার বাস্ট সাইজ থেকে ব্যান্ড সাইজ বাদ দিলে যে সংখ্যাটি পাওয়া যাবে সেটি হবে কাপ সাইজ।

৪) ধরা যাক, আপনার আন্ডারবাস্ট নম্বর পাওয়া গেলো ২৯। বিজোড় এই সংখ্যার সাথে যোগ করা হলো ৫। এবার ব্যান্ড সাইজ হলো ৩৪। আর আপারবাস্ট সংখ্যা হলো ৩৭। তাহলে, কাপ সাইজ হবে (৩৭-৩৪=৩)। এই সংখ্যাটি রেফার করছে কাপ C। অর্থাৎ আপনার ব্রা এর মাপ হবে ৩৪ সি। (বিয়োগফল ১ অর্থে A, ২ অর্থে B, ৩ অর্থে C, ৪ অর্থে D, ৫ অর্থে E ইত্যাদি)। অর্থাৎ ডিফারেন্স ১ হলে কাপ সাইজ A, ২ হলে B এভাবে কাউন্ট করতে হবে।

৫) ব্রা এর সাইজের ক্ষেত্রে ৩০AA, ৩২AA, ৩৪AA দেখা যায়। AA হচ্ছে সবচেয়ে ছোট কাপ সাইজ। যদি বাস্ট সাইজ ও ব্যান্ড সাইজের ডিফারেন্স ১ ইঞ্চির কম হয়, তাহলে এই সাইজটি সিলেক্ট করতে হয়।

 

এই তো জেনে নিলেন, স্ট্র্যাপলেস ব্রা’র বেনিফিটস ও ফিচার সম্পর্কে। এই ব্রাগুলো কমফোর্টেবল হওয়ায় পছন্দসই আউটফিটের সাথে ইজিলি ক্যারি করতে পারবেন। লঞ্জেরি আইটেমগুলো পেয়ে যাবেন সাজগোজে। শপ.সাজগোজ.কম এ অনলাইনে অর্ডার দিলে ঘরে বসেই পেয়ে যাবেন আপনার পছন্দের লঞ্জেরি আইটেমটি।

ছবিঃ সাজগোজ, victress.pk

20 I like it
0 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...