গ্রিন টি ও থানকুনি পাতার নির্যাস দিয়ে একনে প্রন স্কিনের যত্ন

গ্রিন টি ও থানকুনি পাতার নির্যাস দিয়ে একনে প্রন স্কিনের যত্ন

2 (59)

ব্রণ, সবার কমন শত্রু! সব বয়সের মানুষেরই এই এক শত্রু পিছু ছাড়তেই চায় না। আমাদের দেশের মতো গরমকাল প্রধান দেশগুলোতে সোয়েটিং খুব কমন একটি বিষয়। ঘাম থেকে তেল আর গরমের কারণে তৈলাক্ত বা শুষ্ক ত্বকের সমস্যার মধ্যে অন্যতম হল ব্রণ বা একনে। কোনো পার্টি, কনফারেন্স বা বিয়ের অনুষ্ঠানে যাবেন? লাইভ বা শ্যুটের জন্য ক্যামেরা রেডি ফেইস দরকার? কোথাও ঘুরতে যাওয়ার প্ল্যান আছে? কিন্তু ঘুম থেকে উঠে আয়নায় চেহারা দেখেই মন খারাপ হয়ে যাওয়ার কারণ এই ব্রণ! এই ব্রণের উপদ্রব থেকে বাঁচতে আমরা যে কিছু যে করি! কিন্তু যেমন রোগ না বুঝে রোগের সঠিক চিকিৎসা হয় না, ঠিক তেমনই স্কিন টাইপ না জেনে বা সঠিক কারণ না বুঝে ব্রণের বিরুদ্ধে লড়াই করাও কিন্তু পণ্ডশ্রম! গ্রিন টি ও থানকুনি পাতার নির্যাস দিয়ে যদি ত্বকের যত্ন নেওয়া যায়, তাহলে কেমন হয় বলুন তো?

“থানকুনি পাতা” ব্রণের নিরাময়ে একটি কার্যকরী ভেষজ প্রাকৃতিক উপাদান। “গ্রিন টি” আরেকটি পরিচিত উপাদান যেটা একনে প্রন স্কিনের জন্য খুবই উপকারী। এই দুইটি উপাদানের এমন কিছু গুণাগুণ আছে যার জন্য ত্বকের সুস্থতায় ও বিভিন্ন সমস্যার সমাধানে সহজেই ভরসা করা যেতে পারে! ব্রণমুক্ত ত্বকের জন্য রিজেনেবল প্রাইসে ভালোমানের ফেইস ওয়াশ খুঁজছেন? গ্রিন টি ও থানকুনি পাতার নির্যাস দিয়ে একনে প্রন স্কিনের যত্ন নিতে কোন প্রোডাক্টটি বেছে নিতে হবে, চলুন সেটা এখনই জেনে নেই।

ব্রণমুক্ত ত্বকের জন্য গ্রিন টি ও থানকুনি পাতার নির্যাস

গ্রিন টি এর উপকারিতা সম্পর্কে মোটামুটি ধারণা আমাদের সবারই আছে। কিন্তু ত্বকের জন্য থানকুনির কার্যকারিতা সম্মন্ধে আমাদের অনেকেরই অজানা। থানকুনি বা Centella Asiatica একটি ঔষধি প্রাকৃতিক উপাদান হিসেবে যুগ যুগ ধরে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। ত্বকের সুস্থতা বজায় রাখতে আর ত্বককে দূষণ থেকে রক্ষায় থানকুনি পাতার উপকারিতাগুলো জেনে নেই চলুন।

থানকুনি পাতার গুণাগুণ 

১) স্কিন ব্যারিয়ারের ক্ষতি হলে খুব সহজেই মুখে ব্রণ ও বিভিন্ন স্কিন প্রবলেমের উৎপাত ঘটে। থানকুনিতে আছে ক্ষত বা আঘাত নিরাময় ঔষধি ক্ষমতা যা আমাদের স্কিন ব্যারিয়ারকে প্রোটেক্ট করে আর ড্যামেজড স্কিন ব্যারিয়ারকে হিল করে।

২) আশেপাশের পরিবেশের ক্ষতিকর সব উপাদানের সাথে অর্থাৎ পল্যুশনের সাথে ফাইট করতে আপনার স্কিনের আপার লেয়ার বা ব্যারিয়ারকে আরও শক্তিশালী করে তোলে।

৩) কোলাজেন উৎপাদন বাড়িয়ে ত্বকের দাগ বা রোদে পোড়ার কালো ছাপ দূর করতে থানকুনির জুড়ি নেই।

৪) মেছতা এবং ব্রণের দাগ দূর করতে থানকুনি পাতার কার্যকারিতার তুলনা হয় না।

৫) ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখতে আর হাইড্রেশন লক করে ত্বককে হেলদি রাখতেও দারুণ কাজ করে এই উপাদানটি।

গ্রিন টি ও থানকুনি পাতার নির্যাস সমৃদ্ধ ফেসিয়াল ওয়াশ

ব্রণের জন্য প্রাকৃতিক উপাদান সমৃদ্ধ আর শক্তিশালী সব কেমিক্যালের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছাড়া একটি ভালো প্রোডাক্ট খুঁজছেন? “রাজকন্যা একনে ফাইটিং ফেসিয়াল ওয়াশ” এ থানকুনি ছাড়াও আছে গ্রিন টি, হোহোবা (Jojoba) বিডস এর মতো সব উপকারী প্রাকৃতিক উপাদান যার কারণে এর উপর সহজেই ভরসা করা যায়। একনের মত নাছোড়বান্দা সমস্যার সমাধান হিসেবে এই প্রোডাক্টটি বেশ ভালো কাজ করবে। চলুন জেনে আসি কেন এই ফেসিয়াল ওয়াশটি আপনার অয়েলি স্কিনের জন্য আশীর্বাদস্বরূপ।

১) এতে থাকা গ্রিন টি এক্সট্র্যাক্ট ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণ দমন করে ব্রণের সংক্রমণ থামিয়ে দেয়।

২) গ্রিন টি ও থানকুনি পাতার নির্যাস ত্বকের গভীরে আর্দ্রতা পৌঁছাতে আর ত্বকের পোরগুলো ভেতর থেকে পরিষ্কার করতে সাহায্য করে। এতে ব্রণ সৃষ্টিকারী সব দূষনীয় পদার্থ ভালোভাবে রিমুভ হয়।

৩) সিবাম হলো আপনার ত্বকের নিচের সিবাসিয়াস গ্ল্যান্ড থেকে উৎপন্ন হওয়া এক ধরনের পদার্থ (তেলজাতীয়) এবং এটি ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখতে সাহায্য করে। কিন্তু অতিরিক্ত সিবাম তৈরি হওয়ার ফলে অয়েলি থেকে কম্বিনেশন স্কিন অতিরিক্ত তৈলাক্ত হয়ে যায় ও ব্রণের উপদ্রব বেড়ে যায়। রাজকন্যা একনে ফাইটিং ফেসিয়াল ওয়াশ উইথ জোজোবা বিডস এটি আপনার ত্বক শুষ্ক না করেও অতিরিক্ত সিবাম প্রোডাকশন কন্ট্রোল করতে খুবই কার্যকরী।

৪) এতে থাকা জোজোবা (উচ্চারণ- হোহোবা Jojoba) বিডস ত্বকের পোরসকে গভীর থেকে ন্যাচারালভাবেই এক্সফোলিয়েট করে আর মৃত কোষ দূর করে ত্বককে করে পরিষ্কার ও স্বাস্থ্যোজ্জ্বল।

একনে প্রন স্কিনের জন্যে বাজেট ফেন্ডলি ফেসিয়াল ওয়াশ

স্কিন টাইপ জেনে সমস্যার সমাধান করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। অয়েলি অ্যান্ড কম্বিনেশন স্কিনের প্রধান সমস্যা হলো অতিরিক্ত সিবাম প্রোডাকশন বা স্কিন অতিরিক্ত তৈলাক্ত হয়ে যাওয়া। এর ফলে ব্রণসহ আরও কিছু সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। একনে প্রন স্কিনের জন্য দরকার একটু বাড়তি যত্ন। কিন্তু স্কিনের সমস্যার সমাধান করতে গিয়ে আমরা অনেকেই ত্বকের জন্য স্যুইটেবল না, এমন প্রোডাক্ট সিলেক্ট করে ফেলি যা আমাদের ত্বকের ন্যাচারাল ময়েশ্চার ও হাইড্রেশন লেভেলকে নষ্ট করে দেয় খুব সহজেই। যার ফলে ত্বক রুক্ষ আর প্রাণহীন হয়ে পড়ে। রাজকন্যা একনে ফাইটিং ফেসিয়াল ওয়াশ উইথ জোজোবা বিডস এটি কিন্তু সিবাম প্রোডাকশন একদম থামিয়ে দেয় না। বরং এটি ত্বককে শুষ্ক না করে শুধুমাত্র অতিরিক্ত সিবাম ক্লিন করে ফেলে। যার ফলে স্কিনের ন্যাচারাল ময়েশ্চার বজায় থাকে, ব্রণের উপদ্রবও দূর হয় আর সহজেই মসৃণ, পরিষ্কার ও উজ্জ্বল ত্বক পাওয়া যায়।

ব্যবহারবিধি

যদিও আমরা সকলেই ক্লেনজারের বা ফেসিয়াল ওয়াশের ব্যবহার কম বেশি জানি কিন্তু কিছু বেসিক স্টেপ বা সতর্কতামূলক কাজ করতে ভুলে যাই। তাই চলুন আবারো সহজ ভাষায় ফেইস ক্লেনজিং এর প্রসেসটা জেনে নেই।

  • শুকনো মুখে কখনো ক্লেনজার ব্যবহার করা উচিত নয়। তাই হাত ও পুরো মুখ আগে পানি নিয়ে ভিজিয়ে নিন।
  • আঙুলের ডগায় অল্প পরিমাণে রাজকন্যা একনে ফাইটিং ফেসিয়াল ওয়াশ নিয়ে নিন, দুই হাতের আঙুল দিয়ে হাতের মধ্যে ফোম তৈরি করে নিন।
  • গাল, নাক, কপাল ও ঠোঁটের নিচে অ্যাপ্লাই করুন।
  • আলতো করে আপওয়ার্ড সার্কুলার মোশনে ম্যাসাজ করে নিন। খেয়াল রাখবেন যাতে করে চোখ, নাক বা মুখের ভেতরে না যায়।
  • ঠান্ডা পানির বদলে হালকা কুসুম গরম পানিতে ধুয়ে নেওয়া ভালো।
  • আলতো করে পানিটা মুছে নিয়ে পর্যায়ক্রমে টোনার আর ময়েশ্চারাইজার অ্যাপ্লাই করে নিন।

রাজকন্যা একনে ফাইটিং ফেসিয়াল ওয়াশ কেন আমার প্রিয়?

আমার স্কিন বেশ অয়েলি। ভার্সিটি, অফিস, ট্যুর, আউটিং সবকিছুতেই স্কিনের এই তেলতেলেভাব বা এক্সেস অয়েলের জন্য বিপাকে পড়তে হয়। গরমকাল ছাড়াও মোটামুটি সারা বছরই মুখ তৈলাক্ত থাকে। মাঝে মাঝে ঘুম থেকে উঠে দেখি মুখ একদম তেলতেলে হয়ে আছে! মাঝে মধ্যে ফেইসে একনেও ওঠে। এই অস্বস্তি থেকে মুক্তির জন্য অনেক ধরনের ফেইস ওয়াশ ট্রাই করেছি কিন্তু বেশিরভাগ ফেইস ওয়াশই আমার ত্বককে একদম রুক্ষ করে দিচ্ছিলো বা ঠিকভাবে স্যুট করছিলো না। আমার এক বন্ধুর ভালো অভিজ্ঞতার কথা শুনে আমি “রাজকন্যা একনে ফাইটিং ফেসিয়াল ওয়াশ” ব্যবহার করতে শুরু করি।

আমার অভিজ্ঞতা

ব্যবহার করার পরই বুঝতে পারলাম এর কার্যকারিতা ঠিক কতটুকু। আরও বুঝতে পারলাম যে এত রিজেনেবল প্রাইসে এর মান বেশ সন্তোষজনক। নিয়মিত ব্যবহারের পর ব্রণ আর ব্রণের দাগ কমে গিয়ে মুখে ন্যাচারাল গ্লো আসে আর প্রতিবার ব্যবহারে আমি নিজেই বুঝতে পারি যে স্কিনটা আরও ফ্রেশ আর প্রাণবন্ত লাগে। এতে প্রাকৃতিক উপাদান থাকার কারণে ত্বকের আর্দ্রতা বজায় থাকে, আমার ত্বক অতিরিক্ত শুষ্ক হয়ে যাইনি, হাইড্রেশন আর ময়েশ্চার ছিল ইনট্যাক্ট! রাজকন্যা একনে ফাইটিং ফেসিয়াল ওয়াশ কেন আমার প্রিয় নিশ্চয় বুঝতে পেরেছেন এখন।

আমরা জেনে নিলাম ব্রণমুক্ত ত্বকের জন্য গ্রিন টি ও থানকুনি পাতার নির্যাস সমৃদ্ধ ফেসিয়াল ওয়াশ সম্পর্কে। যারা একনে প্রন স্কিনের জন্য ভালোমানের বাজেট ফ্রেন্ডলি প্রোডাক্ট কিনতে চাচ্ছেন, তাদের জন্য আজকের আর্টিকেলটি হেল্পফুল হবে আশা করি। আর হ্যাঁ, টিনেজাররাও কিন্তু নিশ্চিন্তে এই ফেসিয়াল ওয়াশ ইউজ করতে পারবেন। অথেনটিক স্কিন কেয়ার প্রোডাক্টস এর জন্য শপ.সাজগোজ.কম আমার ভরসার জায়গা। এছাড়াও তাদের দুটি ফিজিক্যাল স্টোর আছে সীমান্ত স্কয়ার আর যমুনা ফিউচার পার্কে, সেখানে গিয়ে দেখে শুনেও কিনে নিতে পারেন আপনার প্রয়োজনীয় স্কিন কেয়ার, হেয়ার কেয়ার বা মেকআপ প্রোডাক্ট।

ছবি- সাজগোজ, সাটারস্টক

4 I like it
2 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...