স্কিনের pH লেভেল মেনটেইন করা কেন ও কতটা জরুরি?

স্কিনের pH লেভেল মেনটেইন করা কেন ও কতটা জরুরি?

13-04-2022 Edited

স্কিন বা হেয়ার কেয়ার প্রোডাক্টে বর্তমানে pH শব্দটি বেশ পরিচিত। প্রোডাক্ট কিনতে গেলে সেখানে স্কিনের pH লেভেল মেনটেইন করতে সাহায্য করে এমন লেখা চোখে পড়ে। কিন্তু এই pH আসলে কী? পিএইচ (pH) শব্দটি শুনলে শুরুতেই একটি রাসায়নিক সাংকেতিক চিহ্নের কথা আমাদের মাথায় আসে। এই চিহ্নটি অ্যাসিডিটি বা ক্ষারের মাত্রা নির্দেশ করে। শব্দটি যতটা ছোট দেখায়, দৈনন্দিন জীবনে এর গুরুত্ব কিন্তু ততটাই বেশি। এই pH আমাদের স্কিনেও কিন্তু বেশ ভূমিকা রাখে। স্কিনে যদি pH লেভেল মেনটেইন করা না হয় তাহলে নানা সমস্যা হতে পারে। আজকের লেখায় আলোচনা করবো স্কিনের pH লেভেল মেনটেইন করা কেন ও কতটা জরুরি সেগুলোসহ খুঁটিনাটি বিভিন্ন তথ্য।

স্কিনের pH লেভেল এর রেঞ্জ

আমাদের কার ত্বক কতটুকু অ্যাসিডিক বা ক্ষারীয় তা আমাদের স্কিনের পিএইচ (pH) বলে দেয়। অনেকেই হয়তো pH স্কেলটা জানেন, তবু আমি আরেকবার একটু বলে দিচ্ছি।

pH স্কেল

 

  • পিএইচ লেভেলের রেঞ্জ ০-১৪ পর্যন্ত। এই রেঞ্জের ৭ নম্বর সংখ্যাকে নিউট্রাল ধরা হয়।
  • ৭ এর নিচে অ্যাসিডিক/অম্লীয় এবং ৭ এর উপরে হলো ক্ষারীয় বা অ্যালকালাইন। সে অনুযায়ী সবচেয়ে অ্যাসিডিক হলো ১ এবং ১৪ হলো সর্বোচ্চ অ্যালকালাইন।
  • আমাদের শরীরের ওভারঅল pH প্রায় ৭। আর আমাদের ফেইসের যে স্কিন তার pH ৫.৫ অর্থাৎ হালকা অ্যাসিডিক।
  • একটি শিশু জন্মের পরে তার pH একদম নিউট্রাল থাকে। কয়েক সপ্তাহের মাঝে ধীরে ধীরে সেটি কমে অ্যাসিডিক হতে থাকে। বয়স বাড়ার সাথে pH বাড়তে থাকে।

pH কীভাবে আমাদের স্কিনে প্রভাব ফেলে?

আমাদের শরীরে সবচেয়ে বড় অর্গান হলো ত্বক বা স্কিন। এর যে কোনো ইনফেকশন বা রেগুলার লাইফের স্ট্রেসকে ফাইট করার অ্যাবিলিটি আছে। আর এই কাজে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে pH। যদি pH লেভেল ব্যালেন্সড না থাকে তখন আপনার স্কিনের যে ডিফেন্স ব্যারিয়ার সেটা ধীরে ধীরে ড্যামেজ হতে শুরু করে।

ড্রাই স্কিনের pH লেভেল 

যখন pH এর লেভেল বেড়ে যায় অর্থাৎ ৭ এর উপরে চলে যায়, তখন স্কিন যথেষ্ট পরিমাণে সিবাম প্রোডিউস করতে পারে না। ফলাফল সেনসিটিভ, ড্রাই, ইরিটেটেড স্কিন।

অয়েলি স্কিনের pH লেভেল

pH এর লেভেল কমে গিয়ে যখন বেশি অ্যাসিডিক হয়, তখন প্রয়োজনের বেশি সিবাম প্রোডাকশন করায় স্কিনে একনে ব্রেকআউটস হয় এবং স্কিন অয়েলি, গ্রিজি হয়ে যায়। শুধু তাই নয়, pH ইমব্যালেন্স হলে স্কিনে এজিং প্রসেস দ্রুত বেড়ে যায় অর্থাৎ আপনার ফাইন লাইনস, রিংকেলস, স্কিন স্যাগিং এর এক্সপেরিয়েন্স হবে। এজন্য স্কিনের pH ঠিক রাখা খুব জরুরি। আর সেটা ৫.৫ এর কাছাকাছি থাকলে হেলদি স্কিন বলা চলে।

অয়েলি স্কিন

কেন স্কিনে pH লেভেল বাড়ে কমে?

স্কিনের pH লেভেল কমবেশি হওয়ার পেছনে কিছু ফ্যাক্টর আছে। এর মাঝে কিছু এক্সটার্নাল, কিছু ইন্টারনাল। চলুন দেখে নেই সেগুলো কী কী-

এক্সটার্নাল ফ্যাক্টরসমূহ
  • বিভিন্ন ধরনের কেমিক্যালস যেমন- সোডিয়াম লরাইল সালফেট, ইথানোল্যামাইনস (DEA MEA TEA), বোরিক এসিড
  • ধুলোবালি ও পল্যুশন
  • বারবার মুখ ক্লিন করা
  • ক্ষার জাতীয় কসমেটিকস যেমন- কিছু সোপ বারের ব্যবহার
  • হঠাৎ তাপমাত্রায় পরিবর্তন
  • কিছু নির্দিষ্ট মেডিকেল প্রসিডিওর বা মেডিকেশন

এছাড়াও আরও কিছু অ্যান্টি মাইক্রোবিয়াল কেমিক্যালস, যেমন- Triclosan এবং Triclocarban আছে যেগুলো স্কিনের pH ব্যালেন্সিং গুড ব্যাকটেরিয়াগুলোকে মেরে ফেলে। পিএইচ ব্যালেন্সের জন্য ইমপ্রোপার ডায়েটও অনেকাংশে দায়ী। যদিও বলা হয়ে থাকে আপনি যা খান, তার সাথে স্কিনের pH এর কোনো সরাসরি কানেকশন নেই। কিন্তু এটাও ঠিক যে, আপনি যা খান আপনার শরীর সেই অনুযায়ী রিয়্যাক্ট করে। তাই বলা হয়, স্কিন রিলেটেড যে কোনো প্রবলেম এমনকি সেটা যদি pH ইমব্যালেন্স হয় তাহলে হেলদি ডায়েট ফলো করুন, চিনি জাতীয় খাবার যথাসম্ভব এড়িয়ে চলুন।

ইন্টারনাল ফ্যাক্টরসমূহ

pH লেভেল কমবেশি হওয়ার জন্য ইন্টারনাল কিছু ফ্যাক্টর যেমন- জেনেটিক্স, হরমোনাল ইস্যু, বয়স ইত্যাদি ভূমিকা রাখে। এর মাঝে হরমোনের ভূমিকা একটু বেশি, কেননা মহিলাদের হরমোনাল চেঞ্জ সবচেয়ে বেশি হয়। মেনোপজ, পিউবার্টি, প্রেগনেন্সি সময়গুলোতে pH লেভেলের বেশ তারতম্য হয়। সেক্স হরমোনগুলো অর্থাৎ অ্যাস্ট্রোজেন, প্রজেস্টেরন যখন ফ্ল্যাকচুয়েট হয়, তখন স্কিনের অয়েল প্রোডাকশন খুব বেড়ে যায়। আবার ৫০ বছর বয়সের কাছাকাছি মানে মেনোপজের সময়টাতে pH চেঞ্জ হতে শুরু করে এবং একটা সময় গিয়ে নিউট্রাল হয়।

ক্লেনজিং

যেভাবে স্কিনের pH লেভেল ব্যালেন্স  করবেন

১) প্রতিদিন দুইবার একটি জেন্টল ক্লেনজার দিয়ে ভালোভাবে ফেইস ওয়াশ করবেন। আর ক্লেনজারের ইনগ্রেডিয়েন্টসগুলো অবশ্যই আগে চেক করে নেবেন। অতিরিক্ত অ্যাসিডিক বা ক্ষার জাতীয় প্রোডাক্ট ব্যবহার করবেন না। চেষ্টা করবেন এমন ক্লেনজার ইউজ করতে যেটার pH ৫.৫।

২) সপ্তাহে অন্তত একবার স্কিনে এক্সফোলিয়েটর ব্যবহার করবেন। AHA ও BHA আছে এমন এক্সফোলিয়েটর ব্যবহার করা যেতে পারে। তবে বেশি স্ক্রাবিং করবেন না।

৩) স্কিন ক্লেনজিং ও এক্সফোলিয়েশনের পর স্কিন কিন্তু সঠিক pH লেভেলের কাছাকাছি আসে না। তাই টোনার ব্যবহার করা খুব জরুরি।

৪) টোনারের পর ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে ভুলবেন না। এটি ফেইস ক্লিনের পর স্কিন ড্রাই হতে দেয় না। সেই সাথে pH লেভেলও ব্যালেন্স করে। অ্যাপেল সিডার ভিনেগার কিন্তু pH মেনটেইনে সহায়ক। এর সাথে পরিমাণমতো পানি মিশিয়ে ঘরোয়াভাবে টোনার বানিয়ে ফেইসে ব্যবহার করতে পারেন।

৫) স্কিনের যে প্রটেক্টিভ লেয়ার আছে সেটি যেন ড্যামেজ না হয় সেজন্য দরকার অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যেমন- ভিটামিন এ, সি, ই এবং খুব ভালো একটি সানস্ক্রিন। অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট স্কিনের pH লেভেল মেনটেইন করে।

৬) সোপ বারে pH অনেক বেশি থাকে। তাই সাবানের বদলে স্কিন কেয়ার রুটিনে মাইল্ড সোপ ব্যবহার করুন।

৭) সবসময় হালকা কুসুম গরম পানি দিয়ে ফেইস ক্লিন করবেন।

কীভাবে বুঝবেন আপনার স্কিনের pH কেমন?

এখন নিশ্চয়ই আপনার মনে প্রশ্ন আসছে যে আপনার স্কিনের pH লেভেল কত? এজন্য আপনাকে কয়েকটি বিষয় খেয়াল করতে হবে-

১) যদি আপনার স্কিনের টেক্সচার সফট এবং কোনো ড্রাই প্যাচেস বা অয়েলি এরিয়া না থাকে তাহলে সেটি ব্যালান্সড। আর বেশি অয়েলি হলে লো pH। স্কিন যদি রাফ, ড্রাই থাকে তাহলে ধরে নিতে হবে স্কিন অ্যালকালাইন অর্থাৎ ক্ষারীয় অবস্থায় আছে। আর এখন ইন্টারনেটে pH কোয়েশ্চনারি আছে সেখান থেকে কিছু প্রশ্নের উত্তর দিয়ে আপনার স্কিনের pH সম্পর্কে তথ্য পাবেন।

pH স্ট্রিপ

২) ডার্মাটোলজিস্টের সাহায্যেও স্কিনের পিএইচ লেভেল জানতে পারবেন বা বাসায় বসে টেস্ট স্ট্রিপ ব্যবহার করতে পারেন। তবে সেটা একদম সঠিক রেজাল্ট নাও দিতে পারে। সেজন্য একজন ডার্মাটোলজিস্ট এর সাহায্যে আপনার স্কিন টাইপ, pH লেভেল জেনে সে অনুযায়ী প্রোডাক্ট ব্যবহার করাটা আপনার জন্য হেল্পফুল হতে পারে।

হেলদি ও সুন্দর ফ্ললেস স্কিনের জন্য pH ব্যালান্সিং কতটা ইম্পরট্যান্ট সেটা তো জানলেন। তাহলে দেরি না করে আপনার স্কিনের pH লেভেল সঠিকভাবে মেনটেইন করুন। pH লেভেল মেনটেইন করে এমন বিভিন্ন প্রোডাক্টসহ স্কিন কেয়ার, হেয়ার কেয়ার ও মেকআপের বিভিন্ন পণ্য পেয়ে যাবেন শপ.সাজগোজ.কম এ। এছাড়া সাজগোজের চারটি ফিজিক্যাল শপ রয়েছে। শপগুলো যমুনা ফিউচার পার্ক, সীমান্ত সম্ভার, বেইলি রোডের ক্যাপিটাল সিরাজ সেন্টার এবং উত্তরার পদ্মনগর (জমজম টাওয়ারের বিপরীতে) এ অবস্থিত। এই চারটি শপের যে কোনো একটি থেকেও আপনার পছন্দের প্রোডাক্টটি কিনতে পারেন।

 

ছবিঃ সাজগোজ, সাটারস্টক

8 I like it
0 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...