অনলাইনে আন্ডার গার্মেন্টস কেনার সময় খেয়াল রাখুন ৩টি বিষয়

অনলাইনে আন্ডার গার্মেন্টস কেনার সময় খেয়াল রাখুন ৩টি বিষয়

bra

বয়ঃসন্ধিকালে যখন শারীরিক পরিবর্তন আসে, তখনই অন্তর্বাস ব্যবহার করা শুরু করতে হয়। মা, বড় বোন কিংবা ভাবী, প্রথম এই ব্যাপারে তারা-ই এগিয়ে আসে। ব্রা সাইজ মেজারমেন্ট, ম্যাটেরিয়াল, টাইপ এসব নিয়ে আমার তো কোনো ধারণা-ই ছিল না সেই সময়ে! জানি, ঐ বয়সে এই ব্যাপারগুলো একটু সেনসিটিভ লাগে। কিন্তু এখন তো সামাজিক ট্যাবু নিয়ে বসে থাকলে হবে না! জানতে হবে, বুঝতে হবে। আন্ডারগার্মেন্টস বা ব্রা বা অন্তর্বাস কেনার সময় মোটামুটি সব মেয়েরাই ভোগান্তি ও অস্বস্তিতে পরে। অনলাইন শপিং তো এখন খুবই জনপ্রিয়। অনলাইনে আন্ডার গার্মেন্টস কিনতে কোন কোন বিষয়গুলো খেয়াল রাখা প্রয়োজন, সেটা জানেন কি? চলুন আজকে জেনে নেই অনলাইনে আন্ডার গার্মেন্টস বা লঞ্জেরি কেনার সময় কোন ৩টি বিষয় প্রথমেই দেখে নিতে হবে।

অনলাইনে আন্ডার গার্মেন্টস কিনতে চাচ্ছেন?

বেশিরভাগ ক্ষেত্রে পেন্টি তো ফ্রি সাইজের হয়, তাই পেন্টি কিনতে ঝামেলা না হলেও ব্রা সিলেকশনের ক্ষেত্রে আমরা অনেকেই কনফিউসড থাকি! অন্তর্বাস আমাদের শরীরের বিশেষ অংশকে সুরক্ষা দেয়, সেই সাথে পেশী সুগঠিত রাখতেও ভূমিকা রাখে। ব্রা-পেন্টি কেনার জন্য এখন অনেকেরই অনলাইন প্ল্যাটফর্ম বেছে নিচ্ছেন। কিছু বেসিক ইনফরমেশন আমাদের জানা জরুরি যাতে আমরা ঝামেলা ছাড়াই প্রয়োজনীয় এই জিনিসটি ঘরে বসে কিনতে পারি।

(১) অন্তর্বাস এর সঠিক সাইজ নির্ধারণ

সবথেকে ইম্পরট্যান্ট বিষয় হচ্ছে ঠিকঠাক সাইজের ব্রা কেনা। বাসায় বসে আপনি সহজেই মাপ দিয়ে নিতে পারেন। ব্যান্ড সাইজ এবং কাপ সাইজ সম্পর্কে আগে জেনে নিতে হবে। অন্তর্বাস বা ব্রা-এর সাইজ নির্ধারণ করার নিয়মটা জেনে নেই চলুন।

১) ব্যান্ড সাইজ বা ঘের নির্ধারণ করতে অনাবৃত অবস্থায় একটি ফিতা নিয়ে ব্রেস্টের ঠিক নীচ বরাবর শরীরের চারপাশে ঘুরিয়ে ইঞ্চির মাপে মাপ নিন। ফিতা যেন সমান্তরাল থাকে অর্থাৎ নীচে যেন না ঝুলে যায় বা উপরে উঠে না যায়, তা খেয়াল রাখতে হবে। টাইট করে ধরা যাবে না।

২) আপনার আন্ডার বাস্ট সাইজ (under bust size) যদি জোড় সংখ্যা হয় তাহলে আপনি এর সাথে যোগ করবেন ৪, আপনার আন্ডার বাস্ট সাইজ যদি বিজোড় সংখ্যা হয় তাহলে আপনি এর সাথে যোগ করবেন ৫। ধরুন আপনার আন্ডার বাস্ট সাইজ ২৯, তাহলে এর সাথে আপনি যোগ করবেন ৫। তাহলে আপনার ব্যান্ড সাইজ (band size) হচ্ছে ২৯+৫=৩৪। আবার, যদি মাপ ৩০ হয় তাহলে এর সাথে আপনি যোগ করবেন ৪। তাহলে আপনার ব্যান্ড সাইজ হলো ৩০+৪=৩৪।

৩) কাপ সাইজ জানতে হলে ব্রেস্টের স্ফিত অংশের মাপ নিয়ে নিন। সেইমভাবে মেজারমেন্ট টেপ নিয়ে আপনার আপার বাস্ট (upper bust) মেপে বের করুন। এবার এই সাইজ থেকে ব্যান্ড সাইজ বাদ দিন। অর্থাৎ বাস্ট সাইজ ৩৫ ইঞ্চি আর ব্যান্ড সাইজ ৩২ ইঞ্চি। তারমানে ব্রা সাইজ হবে ৩২সি (৩৫-৩২)। ( বিয়োগফল ১ অর্থে এ, ২ অর্থে বি, ৩ অর্থে সি, ৪ অর্থে ডি, ৫ অর্থে ই ইত্যাদি)। অর্থাৎ ডিফারেন্স ১ হলে কাপ সাইজ A, ২ হলে B এভাবে কাউন্ট করতে হবে।

সঠিক মাপের ব্রা না পড়লে যেই অসুবিধাগুলো হতে পারে
  • ব্রা স্তনের ওজনকে ব্রেস্টলাইন এবং কাঁধের মধ্যে ভাগ করে দেয়, এই কারণে ঠিক সাইজের অন্তর্বাস না পরলে ব্যাক পেইনের সমস্যা হতে পারে
  • টাইট অন্তর্বাস সবসময় পরে থাকলে রক্ত চলাচলে ব্যাঘাত ঘটতে পারে
  • গবেষণায় উঠে এসেছে যে দীর্ঘদিন ধরে ভুল মাপের ব্রা পরার কারণে ব্রেস্ট ক্যান্সারের ঝুঁকি বেড়ে যায়
  • অন্তর্বাস সঠিক আকারের না হলে সেটা বেশ অস্বস্তিকর
  • দেখতে মানানসই লাগে না কিংবা নিজেও কনফিডেন্ট থাকা যায় না

(২) বয়স অনুযায়ী অন্তর্বাস

অনলাইন কিংবা অফলাইন, যেখান থেকেই অন্তর্বাস কিনুন না কেন, বয়সটা অবশ্যই খেয়াল রাখা উচিত। যেমন ১২-১৫ বছর বয়সে যেই মেয়েটা প্রথম অন্তর্বাস পরা শুরু করবে, তাকে যদি কাপ বা প্যাডেড ব্রা কিনে দেন, সে রীতিমতো অস্বস্তিতে পরবে। টিনেজে সুতির বা গেঞ্জি কাপড়ের সফট ও আরামদায়ক অন্তর্বাস সবচেয়ে মানানসই। স্পোর্টস ব্রা, বেসিক টিন ব্রা এগুলো টিনেজারদের জন্য ভালো অপশন হতে পারে। বয়সের সাথে সাথে বা পোশাকের সাথে সামঞ্জস্য রেখে পরবর্তীতে পুশআপ ব্রা, ফুল কভারেজ ব্রা এগুলো কিনতে পারেন। যেসব মায়েরা ব্রেস্টফিডিং করান, তাদের জন্য ম্যাটার্নিটি ব্রা একদম পারফেক্ট।

(৩) অনলাইনে আন্ডার গার্মেন্টস কিনতে ফেব্রিক ও কোয়ালিটি বুঝে নেওয়া

অন্তর্বাসের ক্ষেত্রে ফেব্রিক খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। বাসায় পরার জন্য সুতির নরম ব্রা বা আরামদায়ক কাপড়ের ব্রা কিনুন। ফেব্রিক ও কোয়ালিটি বুঝে নিয়ে তারপর আপনি অনলাইনে ব্রা পারচেজ করতে পারেন। অবশ্যই ভালো ভালো ওয়েবসাইটে ফেব্রিকস কেমন সেটা মেনশন করা থাকবে। হুক কেমন, সেটাও দেখে নিন। যেমন শপ.সাজগোজ.কম এ আপনি লঞ্জেরি সেকশনে গেলেই বিভিন্ন ধরনের আন্ডার গার্মেন্টস পেয়ে যাবেন। সেখানে ডেসক্রিপশনে প্রতিটা ব্রা/পেন্টির ফেব্রিকস টাইপ মেনশন করে দেওয়া আছে। সাথে প্রোডাক্টের রিয়েল পিকচার থাকছে, যাতে কোয়ালিটি বুঝতে আপনার সুবিধা হবে।

ঠিকঠাক ফেব্রিক সিলেক্ট না করলে যেই সমস্যাগুলো হতে পারে
  • আপনি অস্বস্তি বোধ করবেন, দেখতেও কটু লাগতে পারে
  • খুব বেশি মোটা কাপড়ের অন্তর্বাস পরলে ঘাম, ইচিনেস হতে পারে
  • খুব বেশি পাতলা অন্তর্বাস পরলে ব্রেস্ট ঠিকমতো সাপোর্ট পাবে না, ঝুলে যেতে পারে

অনলাইনে আন্ডার গার্মেন্টস কেনার সময় কোন ব্যাপারগুলো খেয়াল রাখা উচিত, সেটা আজ জেনে নিলেন। ব্রেস্টকে সঠিক আকৃতি দিতে, ঝুলে পরা রোধ করতে এবং শঙ্কাহীনভাবে চলাচলের জন্য সঠিক মাপের ব্রা পরা উচিত। বিব্রতকর পরিস্থিতি এড়াতে এবার অনলাইন থেকেই আপনার প্রয়োজনীয় জিনিসটি কিনে নিতে পারেন। এক্ষেত্রে আপনার ভরসার জায়গা হতে পারে শপ.সাজগোজ.কম। একবার ওয়েবসাইট বা অ্যাপ থেকে লঞ্জেরি ক্যাটাগরি ভিজিট করেই দেখুন, নিরাশ হবেন না আশা করি। আজ তাহলে এই পর্যন্তই। ভালো থাকবেন।

 

ছবি- সাজগোজ, সাটারস্টক

12 I like it
2 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...