অয়েলি স্কিনের জন্য পারফেক্ট ময়েশ্চারাইজার সিলেক্ট করবেন কীভাবে?

অয়েলি স্কিনের জন্য পারফেক্ট ময়েশ্চারাইজার সিলেক্ট করবেন কীভাবে?

2-4

আমরা সবাই জানি, বেসিক স্কিনকেয়ারের একটি গুরুত্বপূর্ণ স্টেপ হচ্ছে ময়েশ্চারাইজিং। ত্বকের ধরন বুঝে ময়েশ্চারাইজার সিলেক্ট করলে সেটা আপনার স্কিনকে রাখবে হেলদি ও গ্লোয়ি। সেই সাথে অকালে বয়সের ছাপ পড়া থেকেও আপনার স্কিনকে সুরক্ষিত রাখবে। কিন্তু আমাদের যাদের স্কিনের ধরন তৈলাক্ত বা অয়েলি, তাদেরই সবচেয়ে বেশি কনফিউশন থাকে ময়েশ্চারাইজার সিলেকশন নিয়ে। অয়েলি স্কিনের জন্য পারফেক্ট ময়েশ্চারাইজার সিলেক্ট করবেন কীভাবে, চলুন জেনে নেই।

তৈলাক্ত ত্বকেও ময়েশ্চারাইজার প্রয়োজন?

আমাদের অনেকেরই ধারণা অয়েলি স্কিনে যেহেতু তেল নিঃসরণ হয় বেশি, তাই ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করার কোনো প্রয়োজন নেই। এই ধারণাটি কিন্তু সম্পূর্ণ ভুল। অয়েল আর ময়েশ্চার দু’টা ভিন্ন জিনিস! ত্বক তৈলাক্ত হয় ত্বকের সেবাসিয়াস গ্ল্যান্ড থেকে অতিরিক্ত সেবাম নিঃসরণের ফলে। এই সেবাম তেল জাতীয় পদার্থ যা ত্বককে বাহ্যিক ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করে, স্কিনকে হেলদি রাখে। কিন্তু সুস্থ ত্বকের জন্য এর পাশাপাশি দরকার আর্দ্রতা বজায় রাখা। ত্বকের ওয়াটার লেভেল বা হাইড্রেশন ঠিক রাখতে ময়েশ্চারাইজার ইউজ করা উচিত।

ময়েশ্চারাইজারের আরেকটি কাজ হচ্ছে ত্বকের ন্যাচারাল অয়েল ব্যালেন্স করা। স্কিন অয়েলি হলেও তা অনেক সময় ডিহাইড্রেটেড হয়ে যায়। তাই অয়েলি স্কিনেও ময়েশ্চারাইজার অ্যাপ্লাই করা কিন্তু মাস্ট!

কীভাবে বাছাই করবেন অয়েলি স্কিনের জন্য পারফেক্ট ময়েশ্চারাইজার?

অয়েলি স্কিনে যেহেতু অন্য স্কিন টাইপের থেকে বিভিন্ন প্রবলেমস (যেমন- ওপেন পোরস, পিম্পল বা একনে, তেলতেলেভাব) একটু বেশি দেখা যায়, তাই এই ধরনের স্কিনের জন্য প্রোডাক্ট সিলেক্ট করা বেশ কঠিনই বটে! অয়েলি স্কিনের জন্য ময়েশ্চারাইজার বেছে নিতে কোন বিষয়গুলো খেয়াল রাখতে হবে, চলুন জেনে নেই।

ময়েশ্চারাইজারের উপাদান

১) অয়েল বেইজড প্রোডাক্ট না ব্যবহার করে বেছে নিতে হবে ওয়াটার বেইজড প্রোডাক্ট। এতে ত্বকে তৈলাক্তভাব কম হবে, চিটচিটে ফিল হবে না। ওয়াটার বেইজড প্রোডাক্টের উপাদানগুলোর মধ্যে প্রথমেই থাকে হায়ালুরোনিক অ্যাসিড যা ত্বকের তৈলাক্তভাব কমাতে সাহায্য করে এবং স্কিনকে হাইড্রেটেড রাখে।

২) ল্যাকটিক, গ্লাইকোলিক ও স্যালিসাইলিক অ্যাসিডযুক্ত প্রোডাক্ট ব্যবহার করতে পারেন। স্যালিসাইলিক অ্যাসিড অয়েল কন্ট্রোলের সাথে সাথে ব্রণ বা একনেও রিডিউস করে।

৩) ওয়্যাক্স বা পেট্রোলিয়ামযুক্ত প্রোডাক্টের বদলে Dimethicone যুক্ত ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে পারেন। Dimethicone হচ্ছে সিলিকন বেইজড স্কিন প্রোটেকট্যান্ট, যেটা স্কিনকেয়ার প্রোডাক্টে পরিমিত পরিমাণে থাকলে স্কিন সফট ও ময়েশ্চারাইজড থাকে।

৪) প্যারাফিন, কোকোয়া বাটারযুক্ত ময়েশ্চারাইজার এড়িয়ে চলতে পারেন। কেননা এতে ত্বক আরও তৈলাক্ত হবে এবং লোমকূপ বা পোরস বন্ধ হয়ে দেখা দিবে একনে।

৫) যেহেতু অয়েলি স্কিনে ওপেন পোরস একটু বেশি পরিমাণে ভিজিবল হয়, তাই এমন ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে হবে যা নন-কমেডোজেনিক অর্থাৎ পোরস ক্লগ করে পিম্পলস বা ব্রণ সৃষ্টি করবে না।

৬) ক্রিমি বা হেভি লোশন জাতীয় ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার না করে লাইট টেক্সচারের জেল বেইজড ময়েশ্চারাইজার বেছে নিতে হবে। বাটারি টেক্সচারের হেভি ক্রিম গরমের সময়ে অ্যাপ্লাই করলে ঘাম হতে পারে, বিশেষ করে অয়েলি স্কিনের জন্য এগুলো স্যুইটেবল না।

প্রোডাক্টের ধরন

একনে বা পিম্পলের সমস্যা থাকলে এমন ময়েশ্চারাইজার বেছে নিতে পারেন যা একনে প্রবলেম কমাতে সাহায্য করবে, পোরস ক্লগ করবে না। একনে প্রন স্কিনের জন্য ফর্মুলেটেড কিনা সেটা আগেই চেক করে নিতে হবে। এসপিএফ যুক্ত ময়েশ্চারাইজার দিনের বেলা ব্যবহার করা যেতে পারে। রাতের বেলায় স্কিনকেয়ারে নারিশিং ময়েশ্চারাইজার বা নাইট ক্রিম রাখতে হবে। তবে দিনের বেলা কিন্তু আলাদা করে সানস্ক্রিন অ্যাপ্লাই করতে হবে, কারণ ডে ক্রিমে এনাফ এসপিএফ থাকে না!

ময়েশ্চারাইজার সিলেকশন

সিজনের ভিত্তিতে ময়েশ্চারাইজার সিলেকশন

১) গ্রীষ্মকালে ওয়াটার বা জেল বেইজড লাইট ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করা উচিত। কারণ এটি স্কিনে ইজিলি মিশে যায়, কোনো তেল চিটচিটেভাব থাকে না। বাইরে বের হলেও ঘামের সমস্যা হবে না।

২) শীতকালে ব্যবহার করতে হবে ডিপ ময়েশ্চারাইজার, যাতে স্কিন নারিশিং এলিমেন্টস থাকবে। এতে শুষ্ক আবহাওয়ায়ও ত্বক ভালো থাকে।

বয়স অনুযায়ী ময়েশ্চারাইজার 

আপনি যদি টিনেজার হন, তাহলে এমন ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন যা একনে থেকে সুরক্ষা দেয়, স্কিনকে হাইড্রেটেড রাখে লং টাইম ধরে। সেই সাথে এর টেক্সচার হতে হবে একদমই লাইট। ম্যাচিউরড বা প্রাপ্তবয়স্ক স্কিনে ব্যবহার করুন অ্যান্টি এজিং ময়েশ্চারাইজার। যেটা ত্বকের ময়েশ্চার ধরে রাখার সাথে সাথে রিংকেলস প্রিভেন্ট করবে।

অয়েলি স্কিনে ময়েশ্চারাইজার বেছে নিতে উপরের বিষয়গুলো মাথায় রাখতে পারেন, করতে পারেন প্রোডাক্ট নিয়ে এক্সপেরিমেন্ট! সবসময় যে খুব দামী প্রোডাক্ট ব্যবহার করতে হবে এমনটিও নয়। বরং আপনার ত্বকের প্রয়োজন অনু্যায়ী ঠিকঠাক প্রোডাক্ট ড্রাগস্টোর থেকেও নিতে পারেন। স্কিন টাইপ অনুযায়ী ডিফারেন্ট বাজেটের ময়েশ্চারাইজার পেয়ে যাবেন সাজগোজে।

অনলাইনে অথেনটিক প্রোডাক্ট কিনতে পারেন শপ.সাজগোজ.কম থেকে অথবা সাজগোজের ৬টি শপ- যমুনা ফিউচার পার্ক, বেইলি রোডের ক্যাপিটাল সিরাজ সেন্টার, উত্তরার পদ্মনগর (জমজম টাওয়ারের বিপরীতে), ইস্টার্ন মল্লিকা, ওয়ারী ও সীমান্ত সম্ভার থেকেও বেছে নিতে পারেন আপনার পছন্দের প্রোডাক্টটি।

 

ছবি- সাজগোজ, Shopify.com

47 I like it
11 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...