গরুর মাংস খাচ্ছেন? জেনে নিন মুদ্রার এপিঠ-ওপিঠ! - Shajgoj

গরুর মাংস খাচ্ছেন? জেনে নিন মুদ্রার এপিঠ-ওপিঠ!

beef

সামনেই আসছে কোরবানির ঈদ। কোরবানির ঈদ মানেই হল কিছুদিন টানা মাংস খাওয়া। কারো কারো কাছে এই খাবারটা অনেক আনন্দের আবার একই জিনিস কারো কাছে ভয়ংকর হয়ে উঠে। ঠিকই ধরেছেন, আমি কথা বলছি যারা মুটিয়ে গেছেন। চোখের সামনে সবাই মজা করে  মাংস খাচ্ছে আর আপনি তাকিয়ে তাকিয়ে দেখছেন, ব্যাপারটা ভাবতেই অনেকের মন খারাপ হয়ে যায়। কিন্তু আপনাদের জন্য সুসংবাদ হল মাংস খেলেই মানুষ মুটিয়ে যায়, এই কথাটা ঠিক নয়। একটু বুঝে শুনে, রয়ে সয়ে খেলে আপনিও কোরবানি উপভোগ করতে পারবেন।

প্রথমেই জেনে নিন মাংসের কিছু উপকারী দিক-

জিঙ্কঃ

লাল মাংস জিঙ্ক এর ১ টি ভালো উৎস। দেহের জিঙ্ক এর সম্পূর্ণ চাহিদা পূরণ করতে পারে এই মাংস। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে, যে টিন এজাররা বা শিশুরা সপ্তাহে ২ দিন এর কম সময় লাল মাংস খায়, তাদের শরীরে জিঙ্ক এর ঘাটতি দেখা যায়।

আয়রনঃ

লাল মাংস আয়রন এর জন্য অতি প্রয়োজনীয়। চর্বি ছাড়া গরুর মাংসে ২.৭ মিঃগ্রাম আয়রন থাকে। এই আয়রন আমাদের শরীরের জন্য অনেক উপকারী এবং রক্তশূন্যতা হ্রাস করে এবং প্রতিরোধ করে।

প্রোটিনঃ

আমিষের সবচেয়ে প্রধান উপাদান লাল মাংস। যা পেশীর গঠন এবং বৃদ্ধির জন্য দরকার। মাংসে সকল রকম অত্যাবশক এমাইনো এসিড সমূহ রয়েছে যা আমাদের শরীর তৈরি করতে পারে না। এগুলো আমাদের শারীরিক গঠন ও রোগ প্রতিরোধ করে থাকে।

ওজন কমানোঃ

উচ্চ প্রোটিনজাত খাবারের মাধ্যমে ওজন কমানো যায়। দেখা গেছে যারা মাছ-মাংস বেশি খায় কিন্তু শর্করা কম গ্রহন করেন, তারা অতি দ্রুত ওজন কমাতে পারে। তাছাড়া এটি অত্যাবশ্যকীয় ভিটামিন সেই সাথে বি ভিটামিন এবং মিনারেলস এর উৎকৃষ্ট উৎস।

এখন জানা যাক ক্ষতিকর দিকগুলো। কোনও খাবারই অতিরিক্ত গ্রহন করা উচিত নয়। তেমনি মাংস প্রয়োজনের তুলনায় বেশি খেলে নানা সমস্যা দেখা দিতে পারে। লাল মাংস অতিরিক্ত খেলে বিভিন্ন রকম ক্যান্সার হতে পারে, কোলেস্টেরল বেড়ে হৃদরোগ হতে পারে, এবং আরো নানা রকম সমস্যা হতে পারে।

গরুর মাংস সারা দিনে  ৪-৫ টুকরা মাঝারি সাইজের খাওয়া যায়। যে অংশে চর্বির পরিমাণ কম সেই অংশটুকু খান। আর যারা একটু মোটা তারা দিনে ১-২ টুকরা মাংস খেতে পারবেন। সপ্তাহে ৩ দিন এভাবে খাওয়া যাবে। তবে চর্বি সরিয়ে খেতে হবে।

মাংস থেকে চর্বি সরানোর ১ টি চমৎকার নিয়ম হল মাংসকে ফুটানো গরম পানিতে চুবিয়ে নিন। দেখবেন চর্বি সরে গেছে। সেটা কম তেলে রান্না করে খান।

অনেকেই মাংস রেখে ঝোল খেয়ে থাকেন, কিন্তু ঝোলে মাংসর টুকরার চেয়ে বেশি চর্বি থাকে। তাই যতদুর সম্ভব মাংসের টুকরো খান, ঝোলটা কম খান।

ঘাস খায় এমন গরুর মাংসে চর্বি কম থাকে। তাই কেনার আগে চর্বি কম এরকম মাংস কেনা উচিত। এতে প্রায় ২৫ শতাংশ চর্বি কম থাকে এবং ওমেগা ৩ থাকে যা শস্য পালিত গরুর মাংস থেকে ভালো।

একটু বুঝে শুনে খেলে সকল ক্ষেত্রেই শারীরিক অবস্থা ঠিক রাখা যায়। তাই খাবার আগে আপনার খাবারের পরিমানটা জেনে নিন, এবং সেই পরিমাণ মত খান। সুস্থ থাকুন আর সুন্দর ১ টি ঈদ পালন করুন।

লিখেছেনঃ ফারিয়া ইসলাম

ছবিঃ পিউরবিফ.সিএ

1 I like it
0 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...