চোখের নিচের যত্ন করুন কোকোনাট মিল্কের সাহায্যে

চোখের নিচের যত্ন করুন কোকোনাট মিল্কের সাহায্যে

একজোড়া নজরকাড়া চাহনির মাধ্যমেই কিন্তু একটা মানুষের সৌন্দর্য অনেকখানি প্রকাশ পেয়ে যায়। কিন্তু চোখে যদি থাকে ডার্ক সার্কেল, ফোলা ভাব কিংবা বয়সের আগেই পড়ে যায় রিংকেল। তাহলে সেই সৌন্দর্য অধিকাংশই ভাটা পড়ে। এই সকল সমস্যার সমাধান যদি একটা প্রাকৃতিক উপাদান করে দিতে পারে, তাহলে তো খুবই ভালো হয় তাই না? ত্বকের পাশাপাশি ঘরোয়া উপায়ে আমরা নিতে পারি চোখের নিচের যত্ন ।

হ্যা, বলছিলাম কোকোনাট মিল্কের কথা। কোকোনাট অয়েলের গুণের কথা তো কমবেশী সবাই জানে। আর তেমনি কোকোনাট মিল্কও কিন্তু খুবই রিচ এবং অনেক গুণে ভরপুর। আজকে আমরা জানাবো কীভাবে কোকোনাট মিল্কের সাহায্যে চোখের নিচের যেমন- ডার্ক সার্কেল, ফোলা ভাব, রিংকেল দূর করা যাবে। তো চলুন জেনে নেই কোকোনাট মিল্কের সাহায্যে কিভাবে নিবেন  চোখের নিচের যত্ন ।

চোখের নিচের যত্ন 

ডার্ক সার্কেল 

খুব কম মানুষই আছে যারা ডার্ক সার্কেলের সমস্যায় ভোগেননি। সমাধান এখন যখন হাতের কাছেই আছে। তখন আর দেরি কিসে?

১. একটি বাটিতে কিছু কুড়ানো নারিকেল/কোকোনাট নিয়ে চিপে এর মিল্ক বের করে নিন। ২ টেবিল চামচ কোকোনাট মিল্কের সাথে ১ চিমটি হলুদ গুঁড়া যোগ করুন। উপকরণ দুটি ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। এবার আংগুলের সাহায্যে চোখের নিচে মিশ্রণটি লাগিয়ে নিন। ১৫ মিনিট অপেক্ষা করে কুসুম গরম পানিতে ধুয়ে ফেলুন এবং আই এরিয়া প্যাট ড্রাই (pat dry) করুন। এই প্রসেসটি প্রতিদিন করবেন।

২. একটি পরিষ্কার বাটিতে ১ টেবিল চামচ কোকোনাট মিল্ক, ১ চা চামচ লেবুর রস, মধু নিয়ে নিন। এর মধ্যে ১ টেবিল চামচ বেসন এবং ১ চিমটি হলুদ গুড়ো যোগ করুন। মিশ্রণটি যেন একটা থিক পেস্টে পরিণত হয়। প্রয়োজন পড়লে আর একটু কোকোনাট মিল্ক যোগ করা যাবে। মিশ্রণটি নিয়ে আন্ডারআই (under eye) তে হালকা হাতে ম্যাসাজ করুন। বেশী প্রেশার দিবেন না একদমই। এরপর ২০ মিনিট রেখে দিন এবং কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এই প্রসেসটি সপ্তাহে ৩-৪ দিন করবেন।

আপনি যদি এতোসব ঝামেলা এড়াতে চান অথবা সময় সল্পতা থাকে তবে, শুধুমাত্র কোকোনাট মিল্ক নিয়ে আন্ডারআইতে লাগিয়ে নিন। হালকা হাতে ক্লকওয়াইজ (clockwise) ম্যাসাজ করুন এবং সারারাত এটা রেখে দিন। পরদিন সকালে ধুয়ে ফেলুন।

চোখের ফোলাভাব বা পাফিনেস

চোখের নিচের ফোলাভাব বা পাফিনেস - shajgoj.com

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যাদের চোখের দিকে যখনই তাকাবেন, তখনই মনে হবে তারা সবেমাত্র ঘুম থেকে উঠে এসেছে। চোখের ফোলাভাব বা পাফিনেস (Puffiness) এর জন্যে দায়ী। এর ফলে চোখ অনেক ক্লান্তও মনে হয়। কোকোনাট মিল্কেই আছে এর সমাধান।

১. একটি বাটিতে কোকোনাট মিল্ক নিন ১/৩ কাপ। এটি এবার নরমাল ফ্রিজে রেখে দিন ৩০ মিনিটের জন্যে। ৩০ মিনিট পর ২টি কটন প্যাড নিয়ে সেই ঠান্ডা কোকোনাট মিল্কে চুবিয়ে নিন। কটন প্যাড দুটি চোখের উপর রেখে চোখ বন্ধ করে শুয়ে পড়ুন।  ১৫ মিনিট এভাবে রিল্যাক্স করুন। এরপর ধুয়ে ফেলুন। এই প্রসেসটি প্রতিদিন করবেন।

রিংকেল

চোখের নিচের রিংকেল - shajgoj.com

একটা বয়সের পর চোখের নিচের দিকে ছোট ছোট ভাজ দেখা যায় যেটা হলো রিংকেল। কিন্তু বয়সের আগেই রিংকের পড়ে গেলে দেখতে খুবই বাজে লাগে এবং বয়স্ক মনে হয়। বয়সের আগে রিংকেল (wrinkles) পড়া দূর করতে পারে কোকোনাট মিল্ক। এটি স্কিনকে ময়েশ্চারাইজ রেখে স্কিন সেলসকে টাইট করে সাহায্য করে। স্কিন ড্যামেজ রিপেয়ার স্কিনকে আগেভাগে বুড়িয়ে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা করে।

১. প্রথমে একটি আন্ডারআই মাস্কের কথা বলবো। এজন্যে একটি বাটিতে ১ টেবিল চামচ কোকোনাট মিল্ক, ১ টি ডিমের সাদা অংশ, ১ চা চামচ মধু একসাথে ফেটিয়ে নিন।  ফিঙ্গারের সাহায্যে মাস্কটি আন্ডারআই এর চারদিকে লাগিয়ে নিন। ফিঙ্গারের সাহায্যেই হালকা ম্যাসাজ করে নিন। ৩০ মিনিট অপেক্ষা করে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ৩ দিন করে চালিয়ে যাবেন।

২. এবারে বানিয়ে নেওয়া যাক একটি অ্যান্টি রিংকেল লোশন। একটি ব্লেন্ডারে ১ কাপ কোকোনাট মিল্ক, হাফ কাপ অ্যালোভেরা  জেল এবং খোসা ছাড়ানো অর্ধেকটা শশা কেটে নিয়ে ভালোভাবে ব্লেন্ড করে নিন। ব্যস, আপনার লোশন রেডি। এই লোশনটি নরমাল ফ্রিজে সংরক্ষণ করবেন। দিনে দুইবার রিং ফিঙ্গারের সাহায্যে হালকা ম্যাসাজ করে ব্যবহার করবেন। ৩০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলবেন।

এই তো জেনে নিলেন, কীভাবে কোকোনাট মিল্কের সাহায্যে চোখের নিচের যত্ন নিবেন এবং সমস্যাগুলোর সমাধান করবেন। ঘরে বসেই খুব সহজে কোকোনাট মিল্ক দিয়ে তৈরি করুন এই প্যাকগুলো এবং দূর করুন চোখের ফোলাভাব, ডার্ক সার্কেল, রিংকেলের মতো সমস্যাগুলো এবং সহজেই ত্বকের পাশাপাশি নিন চোখের নিচের যত্ন।

 

ছবি- সংগৃহীত: সাজগোজ; ইমেজেসবাজার.কম

1 I like it
0 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...