পুরো শরীরে ব্যথা! কীভাবে এই সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পাওয়া যাবে?

পুরো শরীরে ব্যথা! কীভাবে এই সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পাওয়া যাবে?

1

চেম্বারে প্রায়ই এমন কিছু রোগী আসেন, যারা প্রধান সমস্যা হিসেবে উল্লেখ করেন, ‘পুরো শরীরে ব্যথা!‘ এই কথা বলতেও তারা খুব বিব্রতবোধ করেন। অনেকেই জানান যে এই সমস্যা অনেকদিন ধরে চলছে! এমনিতেই ব্যথা ভালো হয়ে যাবে, এমনটা ভেবে কোনো চিকিৎসকের শরনাপন্ন হয়নি। জানতে পারলাম কিছু রোগী মাঝে মাঝে চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়াই ব্যথার মেডিসিন নিয়েছেন, কখনো ব্যথা কিছুটা কমেছে, পরবর্তীতে মেডিসিনের কার্যকারিতা শেষ হবার পর ব্যথা আবার ফিরে এসেছে।

কেস স্ট্যাডি করে দেখা গেছে, এমন সমস্যায় আক্রান্ত রোগীর মধ্যে নারীদের সংখ্যা প্রায় দ্বিগুণ। তার মানে হলো পুরুষদের চেয়ে নারীদের এই সমস্যা বেশি হচ্ছে। কিন্তু কেন? আসুন এবার আমরা জানার চেষ্টা করি, সারা শরীরে ব্যথা হওয়ার কারণ কী আর কীভাবে এই সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পাওয়া যাবে। ফিজিওথেরাপি কনসালট্যান্ট অ্যান্ড জেরোন্টলজিস্ট এর কাছ থেকে জেনে নিন এই বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য।

পুরো শরীরে ব্যথা কেন হয়?

এই সমস্যার অন্যতম কারণ হিসেবে দেখা যায় ভিটামিন ডি এর অভাব। ভিটামিন ডি এর অভাব কেন হয় সেটা আগে জেনে নিতে হবে।

পুরো শরীরে ব্যথা

১) স্থুলতার কারণে ভিটামিন ডি এর ঘাটতি হতে পারে কেননা স্থুলতা দেহের রক্ত প্রবাহকে ধীর করে দেয়।

২) সূর্যের সংস্পর্শে না আসার কারণে শরীরে ভিটামিন ডি এর অভাব ঘটে।

৩) সঠিক পরিমাণে ভিটামিন ডি জাতীয় খাবার না খেলে শরীরে এর ঘাটতি হয়।

৪) শরীরে যদি ভিটামিন ডি সঠিকভাবে শোষিত না হয়, তবে এটি অনেক রোগের ঝুঁকি বাড়ায়।

ভিটামিন ডি এর ঘাটতির লক্ষণগুলো কী কী?

  • ঘন ঘন শ্বাসকষ্ট
  • অবসাদ
  • মাথা ঘেমে যাওয়া
  • অতিরিক্ত ঘুম
  • হাড় ব্যথা
  • পেশীর দুর্বলতা
  • অকারণেই ক্লান্ত হয়ে পড়া

আর কী কী সমস্যা হতে পারে?

ভিটামিন ডি এর প্রধান উৎস সূর্যের আলো। এর অভাবে পুরো শরীরে ব্যথা হতে পারে, সাথে আরও নানা ধরনের অসুবিধা হতে পারে। যেমন-

১) ঘন ঘন সর্দি-কাশি হওয়া। ভিটামিন ডি এর অভাবে শ্বাসতন্ত্রে ঘন ঘন সংক্রমণ হতে পারে।

২) সকালবেলা হাড়ের গিঁটে গিঁটে ব্যথা ও আড়ষ্টতা অনুভব হতে পারে।

৩) শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়। এতে করে বিভিন্ন রোগে সংক্রমিত হওয়ার চান্স বেড়ে যায়।

৪) ভিটামিন ডি শরীরে ক্যালসিয়াম শোষণে সাহায্য করে। তাই এর অভাবে হাড়ে, পিঠে ও কোমরে ব্যথা হয়ে থাকে।

৫) অনেকে হাড় শক্ত করার জন্য ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খান। কিন্তু যথেষ্ট ভিটামিন ডি শরীরে না থাকলে এই ক্যালসিয়াম খুব একটা কাজে আসে না। ফলে হাড় নরম ও ভঙ্গুর হয়ে যায়।

৬)  যেকোনো আঘাত বা অপারেশন হলে যদি রক্তে ভিটামিন ডি এর ঘাটতি থাকে, তবে সহজে ক্ষত শুকাতে চায় না।

৭) হাড়ের ক্ষয় মূলত ভিটামিন ডি এর অভাবের জন্য হয়ে থাকে। মেনোপজের পর বেশিরভাগ নারীরই হাড় ক্ষয় হয়ে যাওয়ার সমস্যা দেখা দেয়।

৮) শিশু ও প্রাপ্তবয়স্ক যেকোনো বয়সীদেরই ভিটামিন ডি এর অভাবে মাংসপেশীতে ব্যথা হতে পারে। ভিটামিন ডি এর অভাবে বাচ্চাদের রিকেটস এবং প্রাপ্তবয়স্কদের অস্টিওম্যালাশিয়া হতে দেখা যায়।

সারা শরীরে ব্যথা থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার উপায়

আগে আপনাকে অবশ্যই একজন বিশেষজ্ঞের সাথে কনসাল্ট করতে হবে। কারণটা খুঁজে বের করে সেই অনুযায়ী লাইফস্টাইলে চেঞ্জ আনতে হবে। হাইপোপ্যারাথাইরয়েডিসম, লিভারের রোগসহ আরও কিছু অসুখে শরীরে ভিটামিন ডি ও ক্যালসিয়ামের মাত্রা কমে যেতে পারে। সারা শরীরে ব্যথা থাকলে হুটহাট করে পেইন কিলার খেয়ে নিবেন না! ভিটামিন ডি এর ঘাটতি থেকে যেহেতু এই সমস্যাটা হয়, তাই ভিটামিন ডি এর উৎস সম্পর্কে আগে আপনাকে জানতে হবে এবং খাদ্যতালিকায় এই খাবারগুলো অবশ্যই রাখতে হবে।

ভিটামিন ডি এর উৎস

১. সূর্যের আলো ভিটামিন ডি এর প্রধান উৎস। ভিটামিন ডি এর অভাব পূরণের জন্য সকাল ৮টা থেকে দুপুর ৩টা পর্যন্ত ১০-২০ মিনিট রোদ গায়ে লাগান। সকালের হালকা রোদে সামান্য ব্যায়ামও করতে পারেন।

২. বিভিন্ন সামুদ্রিক মাছে রয়েছে ভিটামিন ডি, যেমনঃ স্যামন, টুনা ফিশ ইত্যাদি। এছাড়াও মাশরুম, ডিম, দুধ, কলিজা, গরুর মাংসে ভিটামিন ডি পাওয়া যাবে। দুধ ও দুগ্ধজাত খাবার (মাখন, পনির ইত্যাদি) ভিটামিন ডি এর ভালো সোর্স।

একটু জানিয়ে রাখছি, ফাইব্রোমায়ালজিয়া নামে একটি রোগ আছে যাতে শরীরের বিভিন্ন স্থানে ব্যথা হতে পারে। এছাড়া বাতের সমস্যা থেকেও সারা শরীরে ব্যথা হতে পারে। নিয়মিত ব্যায়াম করুন, সময়মতো ঘুমান, প্রয়োজনে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। সচেতনতা সুস্থতার প্রথম ধাপ। তাই সচেতন হোন, সুস্থ থাকুন।

 

ছবি- সাটারস্টক

24 I like it
3 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...