ভালো ঘুমের জন্য ও বিউটি সল্যুশনে ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েল!

ভালো ঘুমের জন্য ও বিউটি সল্যুশনে ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েল!

5

সেলফ কেয়ারের ক্ষেত্রে আজকাল অ্যাসেনশিয়াল অয়েল বেশ পপুলার। আমাকে যদি বলা হয় কোন অ্যাসেনশিয়াল অয়েল আমার সবচেয়ে বেশি পছন্দের, তাহলে আমি বলবো ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েল! ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েলকে কিন্তু “ইউনিভার্সাল অয়েল” বলা হয়, কারণ এর রয়েছে মাল্টিপল বেনিফিটস। শুধুমাত্র অ্যারোমাথেরাপিতেই নয়, এটি বিউটি সল্যুশনে, ভালো ঘুমের জন্য আর টেনশন কমাতেও বেশ উপকারী। কিন্তু কীভাবে, সেটা জানতে চান? আজকের আর্টিকেলটি তাহলে আপনার জন্যেই। চলুন আর কথা না বাড়িয়ে জেনে নেই, সেলফ কেয়ারে ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েল কীভাবে ইউজ করবেন।

কী কী বেনিফিটস দিবে ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েল? 

১. একনে দূর করতে

ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েলে রয়েছে অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল ও অ্যান্টি ইনফ্ল্যামেটরি বৈশিষ্ট্য, যা একনে দূর করতে বেশ হেল্পফুল। ল্যাভেন্ডার অয়েল একনে কজিং ব্যাকটেরিয়া/জার্মস গ্রো করতে দেয় না, তাই একনে প্রন স্কিনের জন্য এই উপাদানটি দারুণ কার্যকর। এছাড়াও এটি ফেইসের যেকোনো দাগ বা স্পটস হালকা করে।

ক্লিয়ার স্কিন

একনে প্রিভেন্ট করার জন্য আপনার রেগুলার টোনারের মধ্যে ১ ফোঁটা ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েল যোগ করে স্কিনে ড্যাব ড্যাব করে নিন। স্কিন টাইপ ড্রাই হলে এতে কয়েক ফোঁটা জোজোবা অয়েল মিক্স করে অ্যাপ্লাই করতে পারেন।

২. ভালো ঘুমের জন্য

রাতে সহজে ঘুম আসে না? অনেকেই আছেন যারা ঘুমের সমস্যায় ভুগছেন বা ইনসমনিয়া আছে। তাদের জন্য ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েল কিন্তু বেশ হেল্পফুল। এটি ডিপ্রেশন কমাতেও ভালো কাজ করে। কয়েক ফোঁটা ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েল হাতের তালুতে নিয়ে আপনার পিলো কভারে রাব করুন। রাতে যেকোনো ক্যারিয়ার অয়েলের সাথে ২/৩ ফোঁটা ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েল মিক্স করে স্ক্যাল্প ম্যাসাজ করে নিন, শান্তিতে ঘুমাতে পারবেন।

 

৩. স্কিনের ড্রাইনেস প্রিভেন্ট করতে

ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েল স্কিনের ড্রাইনেস দূর করে, এটি স্কিন সেলস রিজেনারেশনে সাহায্য করে এবং স্কিনকে স্মুথ রাখে। তবে সরাসরি ফেইসে অ্যাসেনশিয়াল অয়েল না লাগাতে বলা হয়, কিন্তু স্কিন কেয়ার প্রোডাক্টের সাথে মিক্স করে অ্যাপ্লাই করতে পারবেন। ২ ফোঁটা অ্যাসেনশিয়াল অয়েল আপনার ফেইস ক্রিম, ময়েশ্চারাইজার বা বডি লোশনে যোগ করে অ্যাপ্লাই করুন। এছাড়া আপনার যদি স্কিনে একজিমা থাকে, সেটাও খুব তাড়াতাড়ি দূর হবে এই ম্যাজিকাল ইনগ্রেডিয়েন্ট দিয়ে।

অ্যাসেনশিয়াল অয়েল

৪. রিংকেলস কমাতে 

আমরা অনেকেই কিন্তু জানি না যে ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েল স্কিনের এজিং সাইনস যেমন- ফাইন লাইনস, রিংকেলস ইত্যাদি দূর করতে বেশ কার্যকর। কারণ এতে আছে অ্যান্টি অক্সিডেন্টস যা আমাদের স্কিনের জন্য বেনিফিসিয়াল এবং প্রাকৃতিকভাবেই এটি প্রিম্যাচিউর এজিং বা বয়সের ছাপ দূর করতে সাহায্য করে। ফেসিয়াল স্টিম নেওয়ার সময় পানিতে ২-৩ ফোঁটা ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েল মিক্স করে ভাপ নিন। চাইলে গোসলের পানিতে কয়েক ফোঁটা ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েল যোগ করতে পারেন। এতে বিউটি সল্যুশনের সাথে সাথে রিফ্রেশিং ফিলও পাবেন।

৫. হেয়ার গ্রোথ বুস্ট করতে

চুল পড়ার সমস্যা নেই, এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া মুশকিল! আপনি যদি এই সমস্যার ভুক্তভোগী হন, তবে ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েল ট্রাই করুন। একবার ট্রাস্ট করেই দেখুন না! এই অ্যাসেনশিয়াল অয়েল স্ক্যাল্প ও চুলের হেলথ কন্ডিশন ইমপ্রুভ করে। এছাড়াও চুলে উকুনের সমস্যা যদি থাকে, সেটাও দূর করে। ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েল চুল পড়ারও সল্যুশন দেয়, বিশেষ করে যাদের alopecia রোগ রয়েছে তাদের জন্য খুবই বেনিফিসিয়াল।

বিউটি সল্যুশনে অ্যাসেনশিয়াল অয়েল

যেকোনো ক্যারিয়ার অয়েলের (নারকেল তেল, অলিভ অয়েল ইত্যাদি) সাথে ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েল কয়েক ড্রপস মিক্স করে চুলে ও স্ক্যাল্পে অ্যাপ্লাই করতে হবে। ৩০ মিনিট রেখে ভালোভাবে শ্যাম্পু করে নিন। এছাড়া আপনি যেকোনো হেয়ার প্যাকের সাথে ২/৩ ড্রপস ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েল মিশিয়ে নিতে পারেন, এতে আপনার হেয়ার প্যাক বা মাস্কটি আরও ইফেক্টিভ হবে। অনেকে ডিমের হেয়ার মাস্ক বা পেঁয়াজের রস চুলে অ্যাপ্লাই করেন, কিন্তু এগুলোর স্মেল বা গন্ধ ভালো লাগে না! সেক্ষেত্রে এর কুইক ফিক্স সল্যুশন হচ্ছে ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েল মিক্স করে নেওয়া।

৬. বডি পেইন, টেনশন ও স্ট্রেস দূর করতে

যুগ যুগ ধরে অ্যারোমাথেরাপিতে এই তেল ব্যবহৃত হয়ে আসছে, কারণ এতে রয়েছে স্ট্রেস রিলিফ করার বিশেষ গুণ! ভালো ঘুমের জন্য তো বটেই, এই অ্যাসেনশিয়াল অয়েল মাথা ব্যথা আর টেনশন দূর করে নিমিষেই। যাদের মাইগ্রেন পেইন আছে বা সব সময় দুশ্চিন্তা হয়, তাদের জন্য এটি কিন্তু মাস্ট হ্যাভ! ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েল পানিতে মিক্স করে শাওয়ার নিন। ব্যস, নিমিষেই আপনার মুড ভালো হয়ে যাবে। বডি ম্যাসাজের সময় বডি অয়েলের সাথেও ২ ড্রপ অ্যাসেনশিয়াল অয়েল মিশিয়ে নিন।

ল্যাভেন্ডার অয়েল

ল্যাভেন্ডারের সুগন্ধ তো সবারই পছন্দের। এর রিফ্রেশিং স্মেল আপনার শরীর ও মনে প্রশান্তি দিবে। এতে আপনি রিল্যাক্স ফিলও করবেন।এই তো জেনে নিলেন, সেলফ কেয়ারে ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েল কীভাবে ব্যবহার করবেন। স্ট্রেস কমানোর সাথে সাথে এয়ার ফ্রেশনার আর insect repellent হিসাবেও এটি ইউজ করা যেতে পারে।

আমি Skin Cafe 100% Natural Essential Oil – Lavender ব্যবহার করছি অনেক দিন ধরেই। সাজগোজে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের অ্যাসেনশিয়াল অয়েল পেয়ে যাবেন। অনলাইনে অথেনটিক প্রোডাক্ট কিনতে পারেন শপ.সাজগোজ.কম থেকে অথবা সাজগোজের ৪টি শপ- যমুনা ফিউচার পার্ক, বেইলি রোডের ক্যাপিটাল সিরাজ সেন্টার, উত্তরার পদ্মনগর (জমজম টাওয়ারের বিপরীতে) ও সীমান্ত সম্ভার থেকেও বেছে নিতে পারেন আপনার পছন্দের প্রোডাক্টটি।

 

ছবি- সাজগোজ

10 I like it
2 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...