শিশুর অন্ধকারে ভয় দূর করতে ১০টি কার্যকরী টিপস জানেন কি?

শিশুর অন্ধকারে ভয় দূর করতে ১০টি কার্যকরী টিপস জানেন কি?

শিশুর অন্ধকারে ভয় পাওয়া ব্যাপারটি প্রায়ই দেখা যায়। সাধারণত ৩ থেকে ১১ বছরের শিশুদের মধ্যে এই ভয় খুব বেশি থাকে। অনেক ক্ষেত্রে এই ব্যাপারটি পূর্ণবয়স্ক হওয়ার পরেও তাদের মাঝে থেকে যায়। যা তাদের মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। অনেক শিশু রাতে অন্ধকারে ঘুমাতে পারে না। আলমারির ভেতরের কল্পিত দৈত্য দানব, আর খাটের তলার ভূত তাদের অনেক রাত পর্যন্ত ভয়ে কাবু করে রাখে। যা শিশুদের মানসিক বৃদ্ধিকে বাধাগ্রস্ত করে।

গবেষণায় দেখা গেছে একজন মানুষ অন্ধকারে সবচাইতে ভালো ঘুমাতে পারে। কারণ অন্ধকার মানুষের ইন্দ্রিয়গুলোকে নিষ্ক্রিয় করে, মস্তিষ্ক শান্ত করে। আর শিশুদের জন্য ভালো ঘুম অত্যন্ত অপরিহার্য। সুতরাং অভিভাবক হিসেবে আপনার শিশুর অন্ধকারে ভয় পাওয়ার ব্যাপারটি দূর করা অত্যন্ত জরুরী। আর বাচ্চাদের এই ভয় দূর করার জন্য আপনি কী করতে পারেন চলুন তাই দেখে নেই!

শিশুর অন্ধকারে ভয় দূর করতে ১০টি টিপস

১. নাইট লাইট

শিশুর অন্ধকারে ভয় দূর করতে ডিম লাইট - shajgoj.com

আপনার সন্তানের কক্ষে একটি নাইট লাইট লাগিয়ে দিন। বিভিন্ন ধরনের নাইট লাইট পাওয়া যায়, নানান রঙের বাল্ব লাইট এর অন্তর্ভুক্ত। যেগুলোকে আমরা সাধারণ ভাষায় ডিম লাইট বলি। তাতে শিশুর ঘরে আলো থাকবে, যার ফলে তার ভয়ও কম থাকবে।

২. আলো জ্বালিয়ে ভয় দূর করুন

আপনার সন্তান বিছানায় শোয়ার পর ঘুমিয়ে যাওয়া পর্যন্ত তাকে সময় দেয়ার চেষ্টা করুন। তাকে জিজ্ঞেস করুন সে কেন ভয় পায়। যদি কোন আসবাবপত্র, যেমন আলমারি বা খাটের তলার দিকে ইঙ্গিত করে তাহলে আলো জ্বালিয়ে তাকে দেখিয়ে দিন যে সেখানে কিছু নেই।

৩. আলো জ্বালিয়ে নিভিয়ে পরীক্ষা করান

শিশুকে সাথে নিয়ে লাইট জ্বালিয়ে এবং বন্ধ করে বোঝান যে ঘরে আলো থাকলে ঘর যেমন থাকবে, অন্ধকারেও ঠিক একই রকম থাকবে। প্রয়োজনে তাকে বলুন আলো জ্বালিয়ে নিভিয়ে পরীক্ষা করতে।

৪. রাতে বাইরের কক্ষে আলো রাখুন

রাতে বাইরের কক্ষ যেমন ড্রয়িং রুম বা হলওয়ের আলো জ্বালিয়ে রাখুন এবং শিশুর ঘরের দরজা খোলা রাখুন। এতে বাইরে থেকে আলো আসলে সে ভয় পাবে না। যদি সেইরকম ব্যবস্থা না থাকে তবে তার ঘরের বাথরুমের দরজার হালকা ভেজিয়ে রেখে আলো জ্বালিয়ে দিতে পারেন।

৫. কাউন্সিলিং করুন

শিশুকে অন্ধকারের ভয় দূর করার জন্য কাউন্সিলিং করুন। তাকে নিয়ে অন্ধকার ঘরে প্রবেশ করুন এবং বোঝান যে অন্ধকারকে ভয় পাওয়ার কিছু নেই।

৬. খেলনা কিনে দিন

 

শিশুকে নিশাচর প্রাণীদের পুতুল বা খেলনা কিনে দিন। যেমন – বিড়াল, পেঁচা কিংবা বাদুড়। যদি শিশুরা ভাবতে পারে যে “অন্ধকারে দেখতে পায়” এমন একটি প্রাণী তার বন্ধু তবে তার ভয় অনেকাংশেই কমে যাবে।

৭. ফোন রাখুন

শিশুর পাশে একটি ফোন বা ওয়্যারলেস ফোন রাখতে পারেন। যাতে বেশি ভয় পেলে সে আপনাকে ডাকতে পারে। সেসব সুবিধা না থাকলে আপনার শোবার ঘরের দরজা খোলা রাখুন।

৮. ছবি আঁকতে বলুন

 

আপনার শিশু অন্ধকারে যেসব জিনিসের ভয় পায় সেগুলোর ছবি আঁকতে বলুন, সেগুলোকে সুন্দর করে রঙ করতে বলুন। দেখবেন তার ভয় কমবে।

৯. ক্লান্ত হতে দিন

আপনার শিশুকে পরিস্থিতির মুখোমুখি হওয়ার শিক্ষা দিন। বা তাদেরকে ইচ্ছামত পড়াশোনা করতে দিন, খেলতে দিন। তারা ক্লান্ত হয়ে পড়লে দ্রুত বিছানায় যেতে চাইবে। ক্লান্ত অবস্থায় সে ঘুমাতে চাইবে, ভয় পেতে নয়!

১০. মুভির পেছনের প্রযুক্তি সম্পর্কে বোঝান

 

যদি আপনার শিশু কোন ভয়ের মুভি দেখার পর থেকে অন্ধকারে ভয় পেতে শুরু করে, তবে ওই ভয়ের মুভির পেছনে কী ধরনের প্রযুক্তি ব্যবহৃত হয়েছে সেগুলো বোঝান। দরকার হলে কিছু উদাহরণ দেখাতে পারেন।

একটা কথা মনে রাখবেন, কখনোই আপনার সন্তানকে এটা শেখাবেন না যে সে ভয় পেলে বাবা মা তার ভয় দূর করতে ছুটে আসবে। তাহলে শিশু নিজের ভয় দূর করতে শিখবে না। তার নিজের ভয় দূর করার ব্যাপারটি তার হাতেই ছেড়ে দিন। দেখবেন আপনার শিশুর ভয় এমনিই দূর হয়ে যাবে।

 

ছবি- সংগৃহীত: সাজগোজ; ইমেজেসবাজার.কম

3 I like it
0 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...