ত্বকের যত্নে ঘি কতটা কার্যকর? - Shajgoj

ত্বকের যত্নে ঘি কতটা কার্যকর?

ghee

ধোঁয়া ওঠা, গরম গরম ভাতে ঘি, সঙ্গে বেগুন ভাজা খেতে যতটা ভাল লাগে, ততটাই উপকার মেলে মুখে ঘি লাগিয়ে ম্যাসাজ করলেও। একাধিক স্টাডিতে ইতিমধ্যেই একথা প্রমাণিত হয়ে গেছে যে মুখে এবং হাতে-পায়ে ঘি লাগিয়ে ম্যাসাজ করলে ত্বকের অন্দরে বেশ কিছু উপকারি উপাদানের মাত্রা এত মাত্রায় বৃদ্ধি পায় যে ত্বকের সৌন্দর্যতো বৃদ্ধি পায়ই, সেই সঙ্গে ত্বকের স্বাস্থ্যেরও উন্নতি ঘটে। ফলে নানাবিধ ত্বকের রোগের প্রকোপ কমতে সময় লাগে না। এখানেই শেষ নয়, ত্বক বিশেষজ্ঞদের মতে রাতে শুতে যাওয়ার আগে মুখে ঘি লাগিয়ে ম্যাসাজ করলে মেলে আরও অনেক উপকার। যেমন ধরুন-

[picture]

Sale • Day/Night Cream, Eye Gel, Eye Roller

     

    ত্বকের বয়স কমবে

    একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে কর্মক্ষেত্র সম্পর্কিত স্ট্রেস এবং পরিবেশ দূষণের কারণে ত্বকের স্বাস্থ্যের এত মাত্রায় ক্ষতি হয় যে ত্বক বুড়িয়ে যায় সময়ের আগেই। সবথেকে ভয়ের বিষয় হল, এমন ঘটনা যে শুধু মুষ্টিমেয় কয়েকজনের সঙ্গেই ঘটছে, এমন নয়! বরং সিংহভাগই কিন্তু এমন পরিস্থিতির শিকার। তাই আপনার ত্বকের সঙ্গেও একই ঘটনা ঘটুক, এমনটা যদি না চান, তাহলে নিয়মিত ঘি ম্যাসাজ করুন। দেখবেন নিমেষে ত্বকের বয়স কমে যাবে প্রায় কয়েক বছর। এক্ষেত্রে ভাল করে মুখ ধুয়ে নিতে হবে প্রথমে। তারপর কয়েক ফোঁটা ঘি হাতে নিয়ে মুখে লাগিয়ে কয়েক মিনিট মাসাজ করতে হবে। এমনটা নিয়মিত করতে পারলেই দেখবেন কেল্লা ফতে!

    ত্বকের প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজার

    ত্বকে আর্দ্রতা আনতে নানা ধরনের উপকরণ ব্যবহার করা হয়। এবার ঘি ব্যবহার করে দেখুন। প্রাকৃতিকভাবেই আপনার ত্বক আর্দ্র হয়ে যাবে। কোনো কারণে যদি আপনার ত্বক শুষ্ক হয়ে পড়ে, তাহলে খাদ্যতালিকায় ঘি রাখুন। ত্বকে নিয়মিত ঘি ব্যবহার করলেও হাতেনাতে ফল পাবেন কিছুদিনের মধ্যেই।

    ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে

    ঘি ত্বকের জন্য প্রয়োজনীয় ভিটামিন ‘ই’ ও ‘কে’ সরবরাহ করে। ফলে ত্বক হয় আরও উজ্জ্বল।

    বুড়িয়ে যাওয়া ঠেকাতে

    বয়সের কারণে শরীর ও ত্বক বুড়িয়ে যেতে থাকে। তবে প্রতিদিন যদি আপনার খাদ্যতালিকায় কিছুটা ঘি রাখেন, তাহলেই তার প্রভাব পড়বে ত্বকে। সমবয়সীদের তুলনায় আপনার ত্বক দেখাবে উজ্জ্বল।

    ঠোঁট কোমল ও গোলাপি রাখতে

    শুষ্ক ও ফাটা ঠোঁটের যন্ত্রণা এড়াতেও ঘি ব্যবহার করুন। ঠোঁট ভালো রাখার জন্য লিপবাম-এর চেয়ে কার্যকর ঘি। অল্প একটু ঘি আঙুলে নিয়ে তারপর সেটা ঠোঁটে লাগান। কয়েকবার ব্যবহারের পরই দেখবেন, আপনার ঠোঁট কোমল হয়ে উঠবে আর ফুটিয়ে তুলবে গোলাপি আভা।

    ঠোঁটের দাগ মিলিয়ে যায়

    আপনার ঠোঁটে কি কালো ছোপ ছোপ দাগ হয়েছে? নো টেনশন! প্রতিদিন অল্প পরিমাণ ঘি নিয়ে ঠোঁটের পরিচর্যা করুন। দেখবেন এক সপ্তাহের মধ্যে সব দাগ মিলিয়ে যাবে। শুধু তাই নয়, ঠোঁট বেজায় পিংক হয়ে উঠবে। ফলে আকর্ষণীয় লিপস-এর অধিকারী হয়ে উঠতে দেখবেন সময় লাগবে না!

    চোখের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পাবে

    আপনাকে কতটা সুন্দর দেখতে, তা কিন্তু শুধু স্কিন টোন-এর উপর নির্ভর করে না। আপনার ঠোঁট এবং চোখ কতটা সুন্দর, তার উপরও কিন্তু সার্বিক সৌন্দর্য অনেকাংশে নির্ভর করে থাকে। তাই নিয়মিত চোখের পরিচর্যা করতে ভুলবেন না যেন! আর মজার বিষয় হল, এক্ষেত্রেও কাজে লাগাতে পারেন ঘিকে। কীভাবে? প্রতিদিন শুতে যাওয়ার আগে চোখের তলায় ভাল করে ঘি লাগিয়ে মাসাজ করুন। এমনটা কয়েক দিন করলেই দেখবেন চোখের ক্লান্তি ভাব দূর হবে। সেই সঙ্গে ডার্ক সার্কেলও মিলিয়ে যেতে শুরু করবে। ফলে চোখের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পাবে চোখে পড়ার মতো!

    তাই ত্বকের যত্নটা শুদ্ধতার সাথে সযতনেই হোক।

     

    লিখেছেন- লিন্নি

    ছবি- কালিনারিনিউট্রিশন.কম

    9 I like it
    0 I don't like it
    পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...