ইমবিউ | বৈশাখের পর স্কিনের যত্ন হবে ৫টি দারুণ প্রোডাক্টে ইমবিউ | বৈশাখের পর স্কিনের যত্ন হবে ৫টি দারুণ প্রোডাক্টে

ইমবিউ | বৈশাখের পর স্কিনের যত্ন হবে ৫টি দারুণ প্রোডাক্টে

এপ্রিল ১৩, ২০১৯

আগামীকাল পহেলা বৈশাখ। সবাই বৈশাখের জন্য রেডি হচ্ছেন নিশ্চয়ই! বর্ষ বরণের খুশিতে সেদিন সবাই আমরা মনের মত সাজাই নিজেদের। তাই বৈশাখকে কেন্দ্র করে এখনতো মেকআপ গেটআপ রেডি করা নিয়ে ব্যস্ত সবাই। কি, ঠিক বলেছি না? হুম! আমিও আপনাদের মতই আমার বৈশাখের প্রস্তুতি নিচ্ছি! তবে, সাজগোজ করার সাথে কিন্তু আমার রেগ্যুলার স্কিন কেয়ার (regular skin care)-এর কথাও ভাবছি। কারণ, আমি চাই না একদিনের মেকআপ (makeup)-এর জন্য পরে আমার ত্বকে কোনো ব্রেক আউট (break out) হোক। আচ্ছা, আপনারা কিভাবে সাজগোজের পর স্কিন (skin)-এর যত্ন নেন? আমার অনেক ফ্রেন্ড আছে যারা বৈশাখে সারাদিনের মেকআপ-এর পর শুধু ফেইস ওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়েই ক্ষান্ত থাকে। পরে দেখা যায় মুখে ব্রণ নিয়ে গোমড়া মুখে বসে থাকে আর বলে- “ধুর! একদিন একটু সারাবেলা মেকআপ নিয়ে বাহিরে থাকলেই আমার ব্রণ হয়ে যায়!” আসলে কারণটা কী বলুনতো? ওদের স্কিন কেয়ার-এই ভুল থেকে যায়। তাহলে ত্বককে ব্রণের ঝামেলাতো নিতেই হবে, তাই না? প্রোপার স্কিন কেয়ার (proper skin care) ছাড়া পারফেক্ট স্কিন (perfect skin) কখনই পাওয়া সম্ভব নয়। আমি আবার সাজগোজ করার চেয়ে স্কিন কেয়ার-এর উপর বেশি জোর দেই। কেননা, স্কিন ভালো না থাকলে, মেকআপও ভালো বসবে না। অনেক বেশি কথা বলছি বোধ হয়। থাক, আর কথা বাড়াবো না। আমি সাজগোজ-এর পরে কিভাবে ত্বকের যত্ন নেই ইমবিউ দিয়ে, তাই আজ আপনাদের সাথে শেয়ার করব।

 

সাজগোজ-এর পর স্কিন কেয়ার হবে ইমবিউ দিয়ে

প্রথমেই বলি ত্বকের যত্ন শুধু একদিন ভালোভাবে করলে হয় না, প্রতিদিনই ভালোভাবে করতে হয়। আমি অনেকদিন ধরে ইমবিউ-এর প্রোডাক্ট (product) দিয়ে আমার ত্বকের যত্ন নেই। এই প্রোডাক্ট-গুলো আমার ভীষণ ভালো লেগেছে বলেই ভাবলাম এগুলো নিয়ে ছোটখাটো রিভিউ-এর মত লিখেই ফেলি।

স্টেপ ১ – ইমবিউ বাম টু অয়েল টু ফোম

বৈশাখের পর স্কিনের যত্নে ইমবিউ বাম টু অয়েল টু ফোম - shajgoj.com

বৈশাখের এই গনগনে রৌদ্রে আপনি অবশ্যই সানস্ক্রিন (sun screen) ইউজ না করে বাহিরে বের হবেন না! আর তার উপর বসবে কয়েক পরত মেকআপ প্রোডাক্ট। এই মেকআপ উঠাতে আমি প্রথমেই ইউজ করি ইমবিউ বাম টু অয়েল টু ফোম (Imbue balm to oil to foam)। এটি খুব ভালোভাবে আমার মেকআপ উঠে যেতে সাহায্য করে। আমি প্রথমেই শুকনো মুখে অল্প একটু বাম নিয়ে মুখে ম্যাসাজ করতে থাকি আর তা মুখের সংস্পর্শে এসেই বাম থেকে তেলের মতো হয়ে যায়, যা মেকআপ খুব ভালোমতো গলিয়ে ফেলে।

তারপর এতে অল্প করে পানি নিয়ে আলতো করে ঘষতে থাকলেই তেল থেকে ফোম-এর মতো হয়ে যায়, যেটা আপনার মুখ ধোবার জন্য অনেক সহজ! আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক যেটি তা হলো, যেহেতু সান স্ক্রিন শুধু ফেইস ওয়াশ দিয়ে মুখ ধুলে উঠে না, সেখানে ইমবিউ বাম আমার ফেইস ক্লিন করতে খুব ভালো কাজ করে! এতে ওট-এর নির্যাস আছে, যা ত্বক এক্সফলিয়েট (exfoliate) করে, হাইড্রেট ( hydrate) রাখে ও ওয়েল কন্ট্রোল ( oil control) করে ত্বককে আরও ব্রাইট (bright) করে তোলে। এই বাম অল্প একটু নিয়ে মুখে সার্কুলার মোশন-এ ম্যাসাজ করতে হয় আর তারপর কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলতে হয় বা আলতো করে ফেসিয়াল ওয়াইপস বা টাওয়েল দিয়েও মুখ পরিষ্কার করে নিতে পারেন।  সবচেয়ে ভালো দিক হচ্ছে এই বাম স্কিন-কে শুষ্ক করে না!

স্টেপ ২ – ইমবিউ সোয়েপ্ট অ্যাওয়ে গ্রিন টি ফোমিং ওয়াশ পিউরিফাইং

স্কিনের যত্নে ইমবিউ সোয়েপ্ট অ্যাওয়ে গ্রিন টি ফোমিং ওয়াশ পিউরিফাইং - shajgoj.com

ফেইস প্রোপারলি ক্লিঞ্জিং (properly cleansing)-এর দ্বিতীয় ধাপ হলো ফেইস ওয়াশ দিয়ে মুখ ধোয়া। ফেইস ওয়াশ-এর জন্য আমি ইমবিউ সোয়েপ্ট অ্যাওয়ে গ্রিন টি ফোমিং ওয়াশ পিউরিফাইং (Imbue swept away green tea foaming wash purifying) ইউজ করে থাকি। এর গ্রিন টি ত্বকে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে। তাছাড়াও এটি স্কিন-এর পোর প্রবলেম দূর করে, ত্বককে ম্যাট একটা ফিল দেয়ার সাথে সাথে পরিষ্কার ও আর্দ্র রাখে। ভেজা মুখে পরিমাণমতো ফেইস ওয়াশ নিয়ে, তা হালকা ম্যাসাজ করে পরে কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ  ধুয়ে ফেলুন!

স্টেপ ৩ – ইমবিউ ইজি ব্রিজি স্কিন ট্রান্সফরমিং ইলিক্সির ফর গ্লোয়িং স্কিন

ইমবিউ ইজি ব্রিজি স্কিন ট্রান্সফরমিং ইলিক্সির ফর গ্লোয়িং স্কিন - shajgoj.com

ফেইস ওয়াশ দিয়ে ফেইস ক্লিন করার পরে ফেইস-এ এবার টোনার ইউজ-এর পালা। দেখতে পানির মতো ইমবিউ-এর ইমবিউ ইজি ব্রিজি স্কিন ট্রান্সফরমিং ইলিক্সির ফর গ্লোয়িং স্কিন ( Imbue eazzy breezy skin transforming elixir for glowing skin) টোনার-এ রয়েছে এসেনশিয়াল এসেন্স, যা ত্বককে আর্দ্র রাখে, ফর্সা করে, বয়সের ছাপ কমায় আর সেই সাথে আপনাকে উপহার দিবে একটি গ্লোয়িং স্কিন! ফেইস ওয়াশ দিয়ে মুখ ধোবার পর আলতো করে প্যাট করে করে স্কিন-এ লাগাতে হবে আর ত্বক যেন ভালোভাবে এই টোনার (toner) শুষে নেয়, তার জন্য অপেক্ষা করতে হবে!

স্টেপ ৪ ইমবিউ উইচিং আওয়ার ময়েশ্চারাইজিং নাইট ক্রিম

ইমবিউ উইচিং আওয়ার ময়েশ্চারাইজিং নাইট ক্রিম - shajgoj.com

স্কিন টোনিং শেষে এখন ময়েশ্চারাইজিং-এর সময়। সারাদিনের যত অত্যাচার স্কিন-এর উপরে দিয়ে গিয়েছে তার যত্ন নেই আমি রাতে। আর ইমবিউ উইচিং আওয়ার ময়েশ্চারাইজিং নাইট ক্রিম (Imbue witching hour moisturising night cream) আমার কাছে খুব প্রিয়। রাতে ঘুমাবার আগে এই ময়েশ্চারাইজার ইউজ করলে পরদিন সকালে নরম তুলতুলে গাল পেয়ে আপনার মনটাই খুশি হয়ে যাবে। এই সাদা রঙের ক্রিম-টি ময়েশ্চারাইজিং-এর সাথে সাথে অ্যান্টি-এজিং (anti-aging) ক্রিম হিসেবেও কাজ করে।

স্টেপ ৫ – ইমবিউ উইংকিং আওয়ার এজ রিওয়াইন্ডিং ইমালশন

ইমবিউ উইংকিং আওয়ার এজ রিওয়াইন্ডিং ইমালশন - shajgoj.com

সবশেষে চোখের যত্ন না নিলে কিভাবে হবে? বয়সের ছাপ সবার যে সব জাগায় প্রকাশ পায়, চোখ তার মধ্যে একটি জায়গা। তাই, চোখের যত্ন নিতে আমি ইমবিউ উইংকিং আওয়ার এজ রিওয়াইন্ডিং ইমালশন ক্রিম (Imbue winking hour age rewinding emulsion cream)-টি আঙ্গুলে অল্প করে নিয়ে চোখের চারপাশে আলতো করে প্যাট করি। আর এই ক্রিম-টি আমি সকালে ও রাতে দুবার ব্যবহার করে থাকি। ইমবিউ আই ক্রিম আমার চোখের চারপাশকে হাইড্রেট করে ও রিংকেল-এর প্রবলেম থেকে দূরে রাখে! ছোট্ট একটি কনটেইনার (container)-এ থাকা এই হলুদ রঙের ক্রিম-টি ছড়ায় চোখের যাদু!

 

একই ব্র্যান্ড-এর বাম, ফেইস ওয়াশ, টোনার, নাইট ক্রিম ও আই ক্রিম সহজে পাওয়া যায় না।  সেখানে ইমবিউ  স্কিন কেয়ার-এর এই সবগুলো প্রোডাক্ট-ই মার্কেট-এ পাওয়া যায়। আর যারা আমার মতো খুব উগ্র গন্ধ পছন্দ করেন না, তাদের বলছি- ইমবিউ-এর সবগুলো প্রোডাক্ট-এর স্মেল উগ্রতো নয়ই বরং আমার এর হালকা ঘ্রাণ বেশ ভালো লেগেছে! তো, বৈশাখের সাজগোজ করে ব্রণ নিয়ে আর কোনো চিন্তাই থাকলো না! আমি ইমবিউ এর প্রোডাক্ট-গুলো কিনি শপ.সাজগোজ.কম থেকে। আপনি চাইলে  সীমান্ত স্কয়ার ও যমুনা ফিউচার পার্ক-এ সাজগোজ-এর ফিজিক্যাল শপ থেকেও ইমবিউ-এর এই স্কিন কেয়ার প্রোডাক্ট-গুলো কিনতে পারেন। আজ এ পর্যন্তই! আর  সবার জন্য রইলো, অগ্রিম পহেলা বৈশাখ-এর শুভেচ্ছা!

 

ছবি- সাজগোজ