সুন্দর ত্বক ও চুল পেতে ক্যাস্টর অয়েলের ৫টি বিউটি বেনিফিটস

সুন্দর ত্বক ও চুল পেতে ক্যাস্টর অয়েলের ৫টি বিউটি বেনিফিটস!

6 (1)

সুন্দর ত্বক ও চুল পেতে ক্যাস্টর অয়েল যে কতটা উপকারী তা জানা আছে কি? এ নিয়ে বলার পূর্বে চলুন ক্যাস্টর অয়েল নিয়ে কিছু তথ্য জেনে নিই। ক্যাস্টর অয়েল মূলত ক্যাস্টর বিন থেকে তৈরি এক ধরনের ভেজিটেবল প্রেসড অয়েল। এই তেলে আছে নানা উপকারী উপাদান। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি রয়েছে ৮৫-৯৫% রিসিনোলিক (Ricinoleic acid), ২-৫% অলিক এসিড (Oleic acid), ১-০.৫% লিনোলিক (Linoleic acid), ০.৫-১% স্টিয়্যারিক এসিড (Stearic acid), ০.৫-১% পালমিটিক এসিড (Palmitic acid)। ক্যাস্টর অয়েল হালকা হলদে রঙের বেশ ভারি তেল, যার বিশেষ গন্ধ রয়েছে। একটু ভারি বলে যেকোনো ক্যারিয়ার অয়েলের সাথে এটি মিক্স করে ব্যবহার করা হয়।

ক্যাস্টর অয়েল-এর উপকারিতা

১) হেয়ার ফল ট্রিটমেন্ট-এ এটি ভালো উপকার দেয়।

২) চুলের গোড়া মজবুত করে এবং চুল ঘন করতেও হেল্প করে।

৩) চুল ও স্ক্যাল্পের ন্যাচারাল ময়েশ্চার রিস্টোর করে।

৪) স্ক্যাল্পে নারিশমেন্ট প্রোভাইড করে।

৫) ইমিউনিটি ফাংশন ইম্প্রুভ করে, ত্বকের ফাইন লাইন ও রিংকেল দূর করে।

সুন্দর ত্বক ও চুল পেতে ক্যাস্টর অয়েল

উপকারিতা তো জানা হলো, এবার এটি কীভাবে ব্যবহার করলে ত্বক ও চুলের যত্নে সবচেয়ে ভালো উপকার পাবেন চলুন জেনে নেই।

১. ঠোঁটের যত্নে

সফট ও সুন্দর ঠোঁট আমরা সকলেই চাই। ক্যাস্টর অয়েল ঠোঁটকে খুব ভালোভাবে হাইড্রেট করে বলে আপনি পাবেন আকাঙ্ক্ষিত সেই নরম, প্লাম্পি ঠোঁট। খুব সহজ কিন্তু, রাতে ঘুমানোর আগে ঠোঁটটাকে একটু স্ক্রাব করে নিয়ে এই অয়েল লাগিয়ে ঘুমিয়ে পড়ুন, অল্প কয়েকদিনের মধ্যেই পেয়ে যাবেন সফট ও হাইড্রেটেড লিপস।

২. আইব্রো ঘন করতে 

অনেকেরই ভ্রূ খুব পাতলা, তারা সব সময়ই ঝামেলায় পড়েন মেকআপের সময় ভ্রূ ঠিকঠাকমতো আঁকা নিয়ে। কিন্তু ঘরে যদি থাকে ক্যাস্টর অয়েল, তাহলে এই সমস্যা থেকে রিলিফ পাবেন খুব সহজে। রোজ রাতে দু’ফোঁটা ক্যাস্টর অয়েল ভ্রূতে লাগিয়ে নিবেন। আইব্রো ঘন ও কালো হয়ে উঠবে কিছুদিনের মধ্যে।

৩. বডির স্কিন ডিপলি ময়েশ্চারাইজ করতে 

ক্যাস্টর অয়েল ও অলিভ অয়েলের মিশ্রণ - shajgoj.com

কয়েক ফোঁটা ক্যাস্টর অয়েল অলিভ অয়েলের সাথে মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি পুরো হাত-পা ও বডিতে লাগিয়ে হালকা হাতে ম্যাসাজ করুন কয়েক মিনিট। এরপর একটি পাতলা ছোট তোয়ালে কুসুম গরম পানিতে ভিজিয়ে পানিটা চিপে নিয়ে স্কিনের ওপর রেখে দিন এক মিনিট। এরপর ভালোভাবে ঐ তোয়ালে দিয়েই বডি মুছে নিন। একই প্রসেস আরেকবার করুন, তবে দ্বিতীয় বারে আরেকটি তোয়ালে নিবেন। এরপর ভালোভাবে শাওয়ার নিন। যাদের স্কিন অনেক বেশি ড্রাই, তারা এটি অবশ্যই ট্রাই করবেন।

৪. চুল পড়া ও ভেঙে যাওয়া বন্ধ করতে

নারকেল তেল ও সামান্য ক্যাস্টর অয়েল একসাথে মিক্স করে একেবারে চুলের গোড়া থেকে আগা পর্যন্ত ভালো করে লাগিয়ে আঙুলের সাহায্যে ম্যাসাজ করুন। যেহেতু ভার্জিন ক্যাস্টর অয়েল অনেক ঘন হয়ে থাকে, তাই এটি নারকেল তেলের সাথে মিশিয়ে অ্যাপ্লাই করবেন।

৫. নতুন চুল গজাতে

চুলে হাত দিয়ে দেখাচ্ছে একজন মেয়ে পিছে বাদামি ব্যাকগ্রাউন্ড

সমপরিমাণ ক্যাস্টর অয়েল, অলিভ অয়েল, তিলের তেল মিশিয়ে একটু গরম করে স্ক্যাল্পে লাগিয়ে রাখুন এক ঘণ্টা। তারপরে শ্যাম্পু করে ফেলুন। ব্যস, চুলের গ্রোথ বাড়বে এবং চুল পাকাও রোধ হবে।

এছাড়াও এই তেল নিয়মিত ব্যবহারে চুল পড়া বন্ধ হবে, নতুন চুল গজাবে, চুল ঘন হবে, চুলের রঙ ডার্ক হবে, আগা ফেটে যাওয়া কমবে, হেয়ার ড্যামেজ কমাবে। তাহলে দেখলেন তো এক ক্যাস্টর অয়েলের কত উপকার। অথেনটিক প্রোডাক্ট কেনার জন্য সাজগোজ আমার ভরসার জায়গা। অনলাইনে শপ.সাজগোজ.কম অথবা সাজগোজের চারটি ফিজিক্যাল শপ যমুনা ফিউচার পার্ক, সীমান্ত সম্ভার, বেইলি রোডের ক্যাপিটাল সিরাজ সেন্টার এবং উত্তরার পদ্মনগর (জমজম টাওয়ারের বিপরীতে) থেকেও কিনতে পারেন আপনার পছন্দের প্রোডাক্টটি।

ছবি- সাজগোজ

55 I like it
7 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...