মেকআপ বেকিং কিভাবে করবেন?

মেকআপ বেকিং কিভাবে করবেন?

makeup brush use

কেক বা পিজ্জা বেকিং এর কথা বলছি না! বলছি, মেকআপ বেকিং এর কথা। যারা জানেন না মেকআপ বেকিং কী, তাদের কাছে একটু অন্যরকমই লাগবে শুনতে। মেকআপ বেকিং হচ্ছে মেকআপেরই একটা অংশ, যা বর্তমানে খুব প্রচলিত। চলুন জেনে নেয়া যাক মেকআপ বেকিং কী, কেন করা হয় এবং কীভাবে করা হয়! 

মেকআপ বেকিং নিয়ে যত কথা

মেকআপ বেকিং কেন করা হয়?  

অনেক সময় মেকআপ করার কিছুক্ষন পর দেখা যায়, চোখের নিচে যে কনসিলার ব্যবহার করেছি তা থেকে চোখের নিচে ছোট ছোট লাইন দেখা যাচ্ছে, স্মাইল লাইন (আমরা হাসি দিলে ঠোটে ও চোখের দু’পাশে যে লাইন দেখা যায় তেমন) এর মেকআপ ফেটে ফেটে যাচ্ছে, মুখের বিভিন্ন স্থানের মেকআপ দ্রুত নষ্ট হয়ে যাচ্ছে, বিশেষ করে অয়েলি স্কিন যাদের। এসব সমস্যা সমাধান করে মেকআপ বেকিং।

মেকআপ বেকিং করতে লুজ পাউডার ও ব্রাশ - shajgoj.com

কী লাগবে মেকআপ বেকিং করতে?

এবার আসা যাক, কী দিয়ে মেকআপ বেকিং করা হয় সে প্রসঙ্গে। মেকআপ বেকিং এর জন্য আপনার যেটা লাগবে, সেটি হল একটি ট্রান্সলুসেন্ট লুজ পাউডার, একটি মেকআপ স্পঞ্জ, একটি বড় পাউডার ব্রাশ। আপনি যে কোন লুজ পাউডার ব্যবহার করতে পারবেন যদি তা ফেইস-এ ব্যবহারের জন্য উপযোগী হয়ে থাকে। বেকিং এর জন্য পাউডারগুলো লুজ ধরনের হয়ে থাকে।এগুলোর বেশীরভাগ ব্রান্ডের পাউডারগুলো কালারলেস হয়। যার ফলে আপনার স্কিন শেড যা-ই হোক না কেন, আপনার স্কিনের সাথে মানিয়ে যাবে।

কীভাবে বেকিং করবেন?

মেকআপ বেকিং করা - shajgoj.com

প্রথমে ফাউন্ডেশন, কনসিলার লাগিয়ে নিবেন। এবার একটি  বিউটি স্পঞ্জ পানি দিয়ে ভিজিয়ে নিয়ে পানি চিপে নিন। এবার অনেকখানি ট্রান্সলুসেন্ট লুজ পাউডার নিবেন, এবং পাউডারটি স্পঞ্জের সাহায্যে চেপে চেপে চোখের নিচে, স্মাইল লাইনে লাগাবেন। যাদের অয়েলি স্কিন, তারা অল্প একটু কপালে এবং নাকেও লাগিয়ে নিতে পারেন।

অনেক সময় কনট্যুরিং করার পর দেখা যায় কনট্যুরিং ছড়িয়ে গিয়েছে, শার্প হয় নি। এক্ষেত্রেও একইভাবে লুজ পাউডার নিয়ে কনট্যুরিং- এর নিচের দিকে লাগিয়ে নিবেন। এরপর ৫-১০ মিনিট অপেক্ষা করুন। এই সময়টাকেই বেকিং বলা হয়। ৫-১০ মিনিট পর একটি পাউডার ব্রাশের সাহায্যে অতিরিক্ত পাউডারগুলি ঝেড়ে ফেলে দিন। ব্যস, আপনার বেকিং হয়ে গেল!

টিপস

(১) মেকআপের আগে অবশ্যই আই এরিয়া এবং পুরো ফেইস ভালোভাবে ময়েশ্চারাইজ করে নিবেন।
(২) যাদের ড্রাই স্কিন, তারা বেকিং ৩-৪ মিনিট এর বেশী রাখবেন না। তাহলে স্কিন আরো বেশী ড্রাই ফিল হবে।

এই পদ্ধতি অনুসরণ করলে আপনার মেকআপ নষ্ট হবে না, সারাদিন মেকআপ ঠিক থাকবে। আর আপনি যদি অথেনটিক মেকআপ প্রোডাক্টস কিনতে চান, তাহলে সাজগোজ হতে পারে আপনার নির্ভরযোগ্য অপশন। সাজগোজের দু’টি ফিজিক্যাল শপ থেকে কিনতে পারেন আপনার প্রোডাক্ট। যার একটি যমুনা ফিউচার পার্ক ও অপরটি সীমান্ত স্কয়ারে অবস্থিত। অনলাইনেও কিনতে পারেন শপ.সাজগোজ.কম থেকে। আজ তাহলে এ পর্যন্তই! ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন!

 

ছবি- সংগৃহীত: সাজগোজ

2 I like it
0 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...