সন্তান ধারণে প্রতিবন্ধকতা- ইনফার্টিলিটি (বন্ধ্যাত্ব) - Shajgoj সন্তান ধারণে প্রতিবন্ধকতা- ইনফার্টিলিটি (বন্ধ্যাত্ব) - Shajgoj

সন্তান ধারণে প্রতিবন্ধকতা- ইনফার্টিলিটি (বন্ধ্যাত্ব)

অক্টোবর ১৪, ২০১৩

খুব কম মানুষই আছেন যারা এ সম্পর্কে অবগত নন। কিন্তু এটি কি শুধুই একজন নারীর সন্তান জন্ম না দিতে পারা কে বোঝায়? অবশ্যই নয়, নারী বা পুরুষ উভয়েই এ সমস্যায় পড়তে পারেন। আভিধানিক ভাবে এর মানে হচ্ছে সন্তান ধারণের অক্ষমতা ( নারী কিংবা পুরুষ )। কিন্তু মেডিকেল সায়েন্স অনুযায়ী কোন প্রতিরোধ ব্যাবস্থা ব্যবহার না করা সত্ত্বেও এক বা ততোধিক বছর বাচ্চা ধারণ করতে না পারলে তাকে ইনফার্টিলিটি (বন্ধ্যাত্ব) বলে। ২ ধরনের হতে পারে।

প্রাইমারী ইনফার্টিলিটি – যে সব রোগী কখনোই বাচ্চা ধারণ করেন নি।

সেকেন্ডারি ইনফার্টিলিটি – যারা অতীতে কোন এক সময় বাচ্চা ধারণ করেছিলেন।

এর অনেক কারণ হতে পারে। নীচে গুরুত্বপূর্ণ কারণ গুলো দেয়া হলঃ

পুরুষ জনিত কারণ –

• আন্ডিসেন্ডেড টেস্টিস(undescended testis)

• হাইপোস্পেডিয়াস(hypospadias)

• কার্টাজেনার সিন্ড্রোম(kartagener’s syndrome)

• ভেরিকোসিল(varicocele)

• বিগ হাইড্রোসিল(big hydrocele)

• ফাইলেরিয়াসিস(filariasis)

• মাম্পস অরকাইটিস(mumps orchitis)

• ব্রোঙ্কিয়েক্টেসিস(bronchiectasis)

• হাইপোথেলামিক ডিসফাংশন(hypothalamic dysfunction)

• পিটুইটারি ফেইলিউর(pituitary failure)

• ম্যালনিউট্রিশন(malnutrition)

• হেভি স্মোকিং(heavy smoking)

• থাইরয়েড ডিসফাংশন(thyroid dysfunction)

নারী জনিত কারণ –

• এনঅভুলেশন(anovulation)

• ডিক্রিজড অভারিয়ান রিজার্ভ(decreased ovarian reserve)

• লুটিয়াল ফেজ ডিফেক্ট(luteal phase defect)

• পেলভিক ইনফেকশন(pelvic infection)

• প্রিভিয়াস টিউবাল সার্জারি( previous tubal surgery)

• ইউটেরাইন হাইপারপ্লাসিয়া( uterine hyperplasia)

• ফাইব্রোয়েড ইউটেরাস(fibroid uterus)

• এন্ডোমেট্রাইটিস(endometritis)

• কঞ্জেনিটাল মেলফরমেশন(congenital infection)

• ইউটেরাইন সিনাশিয়া(uterine synechiae)

• ভেজাইনাল এট্রেসিয়া( vaginal atresia)

• নেরো ইন্ট্রইটাস কজিং ডিসপেরিউনিয়া (narrow intoitus causing dyspareunia)

• কঞ্জেনিটাল ইলঙ্গেশন অফ সারভিক্স (congenital elongation of cervix)

নারীজনিত কারণ অনুসন্ধানের কিছু টেস্ট-

• অভুলেশন হচ্ছে নাকি তা জানতে (যাদের পিরিয়ড হয় না তাদের জন্যে, কারণ পিরিয়ড হওয়া মানেই অভুলেশন হচ্ছে)- বেসাল বডি টেম্পারেচার, সারভাইকাল মিউকাস টেস্ট, এন্ডোমেট্রিয়াল বায়োপ্সি, সিরাম প্রজেস্টেরন টেস্ট

• হিস্টেরোসাল্পিঙ্গোগ্রাফি(hysterosalpingography)

• ল্যাপারোস্কপিক ডাই টেস্ট

• টিউবাল ইন্সাফ্লেশন টেস্ট(tubal insufflation test)

• পোস্ট কয়টাল টেস্ট(post coital test)

• হিস্টেরোস্কপি(hysteroscopy)

পুরুষ জনিত কারণ অনুসন্ধানের জন্যে কিছু টেস্ট-

• সিমেন এনালাইসিস(semen analysis)

• প্রস্টেটিক স্মিয়ার অ্যান্ড কালচার(prostatic smear and culture)

• হরমোন এনালাইসিস- FSH, LH, Testosterone, TSH, T3, T4

• কেরিওটাইপিং ফর ক্লাইনফেলটার সিনড্রোম(karyotyping)

• স্পার্ম এগ্লুটিনেটিং অ্যান্ড স্পার্ম ইম্মবিলাইজিং এন্টিবডিজ

চিকিৎসা-

উভয়ের জন্যে( নারী ও পুরুষ )-

• সহবাসে যে সব সমস্যা হচ্ছে তা দূর করা।

• স্বাস্থ্যের উন্নতি করা।

• দুশ্চিন্তা পরিহার করা, নেশাজাতীয় খাবার বর্জন করা ও পর্যাপ্ত বিশ্রাম নেয়া।

নারীর চিকিৎসা-

(মেডিকেল ট্রিটমেন্ট)

• হরমোন থেরাপি

• ব্রোমোক্রিপ্টিন

(সার্জিকেল ট্রিটমেন্ট)

• সারভাইকাল ডাইলেটেশন

• টিউবাল ইন্সাফ্লেশন

• হিস্টেরোসাল্পিঙ্গোগ্রাফি

• ল্যাপারোস্কপি

• রিকন্সট্রাকশন অপারেশন

• ইমপ্লান্টেশন অফ ওভারি ইন ইউটেরাস

• কারেকশন অফ ইউটেরাইন পজিশন

• আরটিফিশিয়াল ইন্সেমিনেশন

পুরুষের চিকিৎসা-

(মেডিকেল ট্রিটমেন্ট)

• ভিটামিন ই, সি, ডি, বি১২, ফলিক এসিড ( এগুলো এন্টি অক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে )

• hCG 5000 IU IM সপ্তাহে এক বা দুই বার , hMG, dopamine agonist

• clomiphene citrate 25-30 mg মুখে প্রতিদিন করে ২৫ দিন

• Antibiotic for genital tract infection

(সার্জিকেল ট্রিটমেন্ট)

• ভেসোএপিডিডাইমোস্টমি বা ভেসোভেসোস্টমি

• অর্কিডোপেক্সি

• আরটিফিশিয়াল ইন্সেমিনেশন

বিঃ দ্রঃ ইংরেজি শব্দ গুলোর ব্যাখা স্থান সঙ্কুলান না হওয়ায় দেয়া সম্ভব হল না, কিন্তু বানান করে দেয়া হল যাতে সহজেই নেট থেকে জেনে নেয়া যায়।

লিখেছেনঃ শারমিন আখতার চৌধুরী

ছবিঃ জেজবেল.কম