রাইস ওয়াটার স্ক্রাব | স্মুথ ও ক্লিয়ার স্কিনের ইনস্ট্যান্ট সল্যুশন!

রাইস ওয়াটার স্ক্রাব | স্মুথ ও ক্লিয়ার স্কিনের ইনস্ট্যান্ট সল্যুশন!

1

সাপ্তাহিক স্কিনকেয়ার রুটিনে এক্সফোলিয়েশন একটি ইম্পরট্যান্ট স্টেপ। স্কিনের ডেড সেলস ও ইমপিওরিটিস রিমুভ করে ফেইসে হেলদি গ্লো ফিরিয়ে আনে চটজলদি! কিন্তু হার্শ বিডস এর জন্য স্ক্রাবিং করতে অনেকেই ভয় পায়। সঠিক এক্সফোলিয়েটর বা স্ক্রাব চুজ করা কিন্তু জরুরি, যেটা হবে স্কিনের জন্য একদম মাইল্ড। আজ এমনই একটি ব্রাইটেনিং রাইস ওয়াটার স্ক্রাব এর রিভিউ শেয়ার করবো, যা অল স্কিন টাইপেই ইজিলি স্যুট করবে। চলুন দেখে নেই তাহলে!

Rajkonna Rice Water Facial Scrub with Tangerine Extract

রিসেন্টলি আমি ট্রাই করলাম Rajkonna Rice Water Facial Scrub with Tangerine Extract। আসলে আমি একটি বাজেট ফ্রেন্ডলি অপশন খুঁজছিলাম! আমার এক কলিগ এটি ইউজ করেছে, বেশ ভালো রিভিউ দিয়েছে সে। তাই ভাবলাম এবার নিউ প্রোডাক্ট ট্রাই করা যাক! সাজগোজ অ্যাপে এই প্রোডাক্টটি দেখে অর্ডার করে ফেলি। যেকোনো প্রোডাক্ট পারচেজের আগে আমি ব্র্যান্ড ও ইনগ্রেডিয়েন্ট- এই দুটো বিষয় খেয়াল রাখি। রাজকন্যা একটি দেশীয় ব্র্যান্ড। অরগানিক ও ন্যাচারাল ইনগ্রেডিয়েন্টযুক্ত প্রোডাক্টের জন্য এই ব্র্যান্ডটি অলরেডি বেশ হাইপড। বাজেটের মধ্যেই বেস্ট কোয়ালিটি ইনশিওর করে রাজকন্যা, তাই ব্র্যান্ড নিয়ে কোনো কনফিউশন ছিল না।

Rajkonna Rice Water Facial Scrub with Tangerine Extract

এই স্ক্রাবের মেইন ইনগ্রেডিয়েন্টস কী কী?

নাম দেখে এতক্ষণে তো বুঝতে পেরেছেন যে এতে আছে রাইস গ্রেইন ওয়াটার আর কমলার নির্যাস। যেকোনো প্রোডাক্ট কেনার আগে সেটার উপাদান সম্পর্কে জেনে নেওয়া ভালো। কারণ স্কিনের ব্যাপারে কোনো রিস্ক নিবেন না। জেনে ও বুঝে সঠিক প্রোডাক্টটি বেছে নিন।

রাইস ওয়াটার স্কিনের জন্য কতটা বেনিফিসিয়াল?

জাপানিজ ও কোরিয়ান স্কিনকেয়ার রেঞ্জে এই উপাদানটি প্রায়ই দেখা যায়। রাইস ওয়াটারের কিছু অ্যামেজিং স্কিনকেয়ার বেনিফিটস আছে, যেটা আমাদের অনেকেরই অজানা। প্রোডাক্ট রিভিউতে যাওয়ার আগে চলুন এই ইনগ্রেডিয়েন্টটি সম্পর্কে জেনে নেই।

১) এজিং প্রসেস ডিলে করে

রাইস ওয়াটারে আছে অ্যামিনো অ্যাসিড, মিনারেলস আর ভিটামিনস, যা স্কিনের কোলাজেন আর ইলাস্টিন প্রোডাকশন বুস্ট করে। প্রিম্যাচিউর এজিং প্রিভেন্ট করে, রিংকেলস বা ফাইন লাইনস থাকলে সেটা কমিয়ে আনে। ওপেন পোরসের ভিজিবিলিটি থাকলে সেটাও রিডিউস করবে।

২) স্কিনটোন ব্রাইট করে

সানবার্ন, রেডনেস কমিয়ে স্কিনকে ন্যাচারালি ব্রাইট ও গ্লোয়ি করে তুলতে রাইস ওয়াটারের তুলনা নেই। আনইভেন স্কিনটোন ইভেন করে তুলতেও এটি বেশ কার্যকরী।

ন্যাচারালি ব্রাইট

৩) স্কিন ব্যারিয়ার ইম্প্রুভ করে

এতে আছে স্টার্চ কনটেন্ট যা স্কিনের আপার ব্যারিয়ারকে সুরক্ষিত রাখে। অনেকেরই ত্বক ড্রাই ও রাফ হয়ে যায় অল্প বয়সেই। এই প্রবলেমগুলো ফিক্স করে স্কিন ব্যারিয়ার বা স্কিন টেক্সচার ঠিক রাখতে দারুণ কার্যকরী এই রাইস ওয়াটার। সেই সাথে স্কিনে দেয় সুদিং ও কুলিং ইফেক্ট।

ত্বকের যত্নে ট্যাঞ্জেরিন বা কমলা

ট্যাঞ্জেরিন বা কমলাতে আছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি। আর ভিটামিন সি মানেই স্কিন ব্রাইটেনিং। তাহলে দেখে নিন এর স্কিনকেয়ার বেনিফিটস।

১) পিগমেন্টেশন ও দাগ কমিয়ে আনে

ভিটামিন সি স্কিনের যেকোনো ধরনের স্পট বা দাগ কমিয়ে আনে একদম ম্যাজিকের মতো। যাদের পিগমেন্টেশনের সমস্যা আছে, তাদের জন্য ভিটামিন সি যুক্ত স্কিনকেয়ার প্রোডাক্ট সাজেস্ট করা হয়।

 

২) স্কিন হেলদি রাখে

ট্যাঞ্জেরিন স্কিনকে ন্যাচারালি ব্রাইট করে এবং নিউ সেলস রিজেনারেট করতে হেল্প করে। তাই স্কিন হেলদি ও ফ্রেশ দেখায়। এতে আছে অ্যান্টি ইনফ্ল্যামেটরি প্রোপারটিজ, যা একনে ও র‍্যাশ প্রিভেন্ট করতেও বেশ কার্যকরী।

রাইস ওয়াটার স্ক্রাব কেন আলাদা?

আচ্ছা, বাজারে তো কত ধরনের স্ক্রাব আছে, তাহলে আলাদা করে এটা সাজেস্ট করছি কেন? জানি, এই প্রশ্নটা সবার মাথায় ঘুরপাক খাচ্ছে। মেইন ব্যাপারে আসি তাহলে।

রাইস ওয়াটার স্ক্রাব

  • ডেড সেলস, ডার্ট, পল্যুশন, মেকআপ পার্টিকেলস রিমুভ করে কোনো ইরিটেশন ছাড়াই
  • এতে থাকা বিডস এতটাই মাইল্ড যে সব ধরনের স্কিনেই মানিয়ে যায় সহজে
  • এর টেক্সচার ক্রিমি তাই ইজিলি ফেইসে ম্যাসাজ করা যায়
  • সেই সাথে এর সুইট ফ্রেগ্রেন্স প্রতি ওয়াশে দেয় রিফ্রেশিং ফিলিংস

প্যাকেজিং

এটি ১০০ মি.লি. টিউবে পাওয়া যায়। প্যাকেজিংটা আমার কাছে বেশ ভালো লেগেছে, অরেঞ্জ কালারের একটি টিউব। একদমই লাইট ওয়েট, ব্যাগেও ক্যারি করতে পারবেন। কারণ লিকেজের কোনো চান্স নেই।

কীভাবে ইউজ করবেন?

হাতের আঙুলে পরিমাণমতো স্ক্রাব নিয়ে ভেজা ফেইসে ম্যাসাজ করে নিন। আলতো হাতে সার্কুলার মোশনে ১০-১৫ সেকেন্ড ম্যাসাজ করুন। এবার ভালোভাবে ফেইস ধুয়ে নিন। ব্যস, একদম ইজি প্রসেস! তবে স্ক্রাবিং ডেইলি করার দরকার হয় না। যেহেতু রাজকন্যা রাইস ওয়াটার স্কাব একদমই মাইল্ড, কোনো হার্শ বিডস নেই; তাই উইকে ২/৩ দিন ব্যবহার করতে পারেন নিশ্চিন্তে। টিনেজ থেকে শুরু করে সব বয়সের সবাই ব্যবহার করতে পারবেন।

রাইস ওয়াটার স্ক্রাব

রাইস ওয়াটার স্ক্রাব এবং আমার এক্সপেরিয়েন্স 

ওভারঅল বেশ ভালোই ছিল আমার এক্সপেরিয়েন্স। দাম অনুযায়ী রাইস ওয়াটার স্ক্রাব এক কথায় অ্যামেজিং! খুবই মাইল্ড কিন্তু স্কিন প্রোপারলি ক্লিন করে। মুখ ধোয়ার পরও স্কিন ড্রাই ফিল হয় না। বেশ ব্রাইট ও ফ্রেশ দেখায় স্কিন, যেটা আমার কাছে খুবই ভালো লাগে। স্মুথ ও ক্লিয়ার স্কিনের ইনস্ট্যান্ট সল্যুশন বলা যায়। শুধুমাত্র ফেইস ওয়াশ ব্যবহার করলে তো স্কিনের ডিপ লেয়ার থেকে ডার্ট, ইমপিওরিটিস এগুলো ভালোভাবে ক্লিন হয় না, তাই স্ক্রাব বা এক্সফোলিটর স্কিনকেয়ার রুটিনে ইনক্লুড করা জরুরি। আমি যেহেতু বাজেট ফ্রেন্ডলি একটি অপশন পেয়েছি, তাই আপনাদেরকেও এটা সাজেস্ট করছি! তাহলে ট্রাই করুন আজই।

এই ছিল আজকের রিভিউ! সেলফ কেয়ার প্রোডাক্টসের জন্য আমার ভরসার জায়গা সাজগোজ। অনলাইনে অথেনটিক প্রোডাক্ট কিনতে পারেন শপ.সাজগোজ.কম থেকে অথবা সাজগোজের ৪টি শপ- যমুনা ফিউচার পার্ক, বেইলি রোডের ক্যাপিটাল সিরাজ সেন্টার, উত্তরার পদ্মনগর (জমজম টাওয়ারের বিপরীতে) ও সীমান্ত সম্ভার থেকেও বেছে নিতে পারেন আপনার পছন্দের প্রোডাক্টটি।

 

 

ছবি- সাজগোজ

3 I like it
0 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...