প্যারাসুট অ্যাডভান্সড এক্সট্রা কেয়ার চুল পড়া কমায় কি? - Shajgoj

প্যারাসুট অ্যাডভান্সড এক্সট্রা কেয়ার চুল পড়া কমায় কি?

parachute hair fall oil review

“প্যারাসুট” বাংলাদেশের সবচেয়ে ট্রাস্টেড ব্র্যান্ডগুলোর মধ্যে অন্যতম। আর আমরা সবাই জীবনে কোন না কোন সময় প্যারাসুটের নারকেল তেল ইউজ করেছি, তাই না? আমি তো বিভিন্ন হোমমেড স্কিন কেয়ার, যেমন, স্ক্রাব, সিরাম এগুলো তৈরিতেও প্যারাসুট নারকেল তেল ব্যবহার করি! নিয়মিত ‘সাজগোজ’ এর আর্টিকেল যারা পড়েন তারা নিশ্চয়ই খেয়াল করেছেন!!

তো আজ এই প্যারাসুটের হেয়ার কেয়ার রেঞ্জের নতুন সংযোজন- প্যারাসুট অ্যাডভান্সড এনরিচড কোকোনাট অয়েল নিয়ে লিখব। আপনারা নিশ্চয়ই খেয়াল করেছেন যে, আস্তে আস্তে বাজারে প্যারাসুট অনেকগুলো তেল এনেছে যেগুলো নারকেল তেল থেকেও একটু বেশি ভালো। এই প্রোডাক্টটিও তেমনি। প্যারাসুটের ভাষ্যমতে এতে আছে মেথি, আমলকী আর অ্যালোভেরা। যা চুলের যত্নে একদম সাধারন নারকেল তেল থেকে অনেক বেশি ভালোভাবে কাজ করবে।

চলুন দেখি এই বিশেষ প্রোডাক্টটি প্যারাসুটের বিখ্যাত ‘বিশুদ্ধ নারকেল তেল’ থেকে কতটা আলাদা-

উপাদানঃ

উপাদান লিস্টে দেখুন, নারকেল তেলের সাথে এক্সট্রা যে হারবাল এক্সট্রাকটগুলো যোগ করা হয়েছে তা উল্লেখ করা আছে। যদিও উপাদান লিস্টে ‘সুগন্ধি’ দেখে আমি একটু অবাক হয়েছি। কিন্তু ভয় পাবেন না। খুবই হালকা আর ন্যাচারাল ঘ্রান এই প্রোডাক্টের !

parachute 1

আমার অভিজ্ঞতাঃ

প্যারাসুট নারকেল তেলের বোতল কে চেনেনা বলুন! এমনকি অনেক লেসার কোন ব্র্যান্ড কখনও কখনও এমন প্যাকেজিং তৈরি করে যা দেখতে হুবুহু প্যারাসুটের মত! (আমি বেশ ককেকবার দেখেছি) কিন্তু এই প্রোডাক্ট প্যাকেজিং নরমাল নারকেল তেলের বোতল থেকে আলাদা। এবং পারসনালি, প্যারাসুটের নরমাল হেয়ার অয়েলের ডিসপেনসার থেকে আমার এই নতুন ডিসপেনসার অনেক শক্ত সামর্থ্য মনে হয়েছে। এটা আগের মত বোতল কাত হয়ে গেলে বা উলটে গেলে তেল চুইয়ে পড়তে দেয় না। আর তাই বোতলের বডি প্রায় দেড় মাসের দীর্ঘ ব্যবহারের পরেও তেল চিটচিটে হয়নি।

প্যারাসুটের উচিত এই হাই কোয়ালিটির ডিসপেনসার তাদের সব প্রোডাক্টে ইউজ করা। আমি এই প্রথম প্যারাসুটের কোন তেল ব্যবহার করলাম যেটা একেবারেই চুইয়ে পড়ে না!!

parachute 2

ভেতরের তেলটা একেবারে স্বচ্ছ এবং হালকা! যারা প্যারাসুটের নারকেল তেল ব্যবহার করেন তারা নিশ্চয়ই জানেন, নারকেল তেলের কনসিসটেনসি কেমন। আমার কাছে এই তেলটা নরমাল নারকেল তেল থেকেও অনেক বেশি হালকা আর কম চিট চিটে মনে হয়েছে। (রিভিউ লেখার জন্য আমি প্রায় দেড় দিন মাথায় চপচপে করে তেল দিয়ে রেখে বোঝার চেষ্টা করেছি তেলটা আসলে কতটা চিটচিটে)। আমি তেল দেয়া চুলে যখন শ্যাম্পু করেছি তখন দুইবার শ্যাম্পু করতে হয়েছে চুল থেকে তেল দূর করার জন্য। আমার মনে হয় প্যারাসুটের এবারের টার্গেট এমন মানুষেরা যারা চিটচিটে তেলতেলে ভাবের জন্য যেকোনো মূল্যে তেল দেয়া এড়িয়ে চলে!

parachute 3

চুলে বেশ কিছুদিন ধরে ইউজ করার পর আমার মনে হয়েছে চুল তেল দিয়ে শ্যাম্পু করলে বেশ সিল্কি এবং শাইনি হয়। আর আমার চুলের রঙ করা অংশগুলোও নরমাল চুলের মত মুভ করে। এবং শ্যাম্পু করার পর চুলে কোন ছিপছিপেভাব থাকে না বরং হালকা বাউন্স আসে। সুতরাং আমার মনে হয় যাদের চুল অনেক ড্রাই, রিবনডিঙ করা অথবা অন্য কোন কেমিক্যাল প্রসিডিওর করা তারা রেগুলার ইউজের জন্য এই তেলটা ব্যবহার করলে বেশ ভালো ফল পাবেন।

আর যদি স্কাল্পে তেল নাও দিতে চান তবে শুধু চুলের আগায় ভালোভাবে তেল মালিশ করে রাখলেও চুলের রুক্ষ, নির্জীব ভাব কমাতে এটা ভালো কাজ করবে।

এবার আসি প্যারাসুটের চ্যালেঞ্জের কথায়- তারা বলে এই তেল রেগুলার ইউজ করলে হেয়ার ফল ডিউ টু ব্রেকেজ কমবে। মানে চুল দুর্বল হয়ে ভেঙ্গে যাওয়া আঁচড়ানোর সময় বা শ্যাম্পু করার সময় অতিরিক্ত হেয়ার ব্রেকেজের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে। কিন্তু আসলে এই দাবি কতটা সত্যি?

আমার চুলে হাইলাইট করানো আছে। কিন্তু রিবন্ডইং বা অন্য কোন কেমিক্যাল ট্রিটমেন্ট করানো নেই। কিন্তু হাইলাইটের পর শীতের সময় আমি চুলে সাধারন সময়ের চেয়ে অনেক বেশি ড্রাইনেস ফেস করেছি। আর এই সময়েই এই তেলটি ট্রাই করা শুরু করি। তাই প্রচুর উইক এবং ড্যামেজড চুলের ক্ষেত্রে না হলেও কেমিক্যালি ট্রিটেড চুলের জন্য হেয়ার ব্রেকেজ এই তেল কতটা কমাতে পারে সেটা কিছুটা হলেও বুঝতে পেরেছি।

ব্যবহারের ১ম সপ্তাহ-

প্যারাসুট চ্যালেঞ্জ (বলতে মজা লাগলো!!) নেয়ার কারণে নিয়মিত চুলে তেল দিচ্ছি। অন্যান্য সময়ের থেকে অনেক নিয়মিত! ১ম সপ্তাহে চুলের শাইন এবং বাউন্স লক্ষণীয়। হাইলাইটেড চুলের অংশগুলোও শাইনি থেকেছে। রুক্ষ হয়ে ফাটা শুরু করেনি। সাধারনত কালার করা চুল দ্রুত ফেটে যায়…

৩য় সপ্তাহ-

প্রথম দিকে চুলে তেল দিয়ে ১ দিন পুরো রেখে দিতাম। কিন্তু ইদানীং ব্যস্ততায় এবং শীতের প্রভাবে তেল দিয়ে ৩-৪ ঘণ্টা রেখে শ্যাম্পু করছি। চুলের শাইন কমেনি কিন্তু আগের থেকে বেড়ে যে শ্যাম্পু কমার্শিয়ালের চুল হয়েছে তাও বলব না। শীত বাড়তে থাকার পরেও খুশকির দেখা পাইনি। হয়ত রেগুলার তেল ম্যাসাজ করার জন্য এটা হয়েছে।

৬ষ্ঠ সপ্তাহ-

প্রায় দেড় মাসের কাছাকাছি তেলটা ইউজ করছি। বোতলের তিনভাগের ২ ভাগ খালি হয়েছে। এবং রিভিউ লেখার উদ্দেশ্যে খুব মনোযোগ দিয়ে হেয়ার ফলের পরিমান লক্ষ্য করেছি। এবং দেখেছি ইউজ করার শুরুর দিকে শ্যাম্পু করার সময় এবং অয়েল ম্যাসাজ করে চুল আঁচড়ানোর সময় যত চুল ভেঙ্গে পড়ে যেত তার পরিমান প্রায় ৩০-৪০% কমে গেছে।

আমার একমাত্র সমস্যা এই তেলের ঘ্রান নিয়ে। ঘ্রানটা অনেকটা- ‘হারবাল- ইস!!’ (সঠিক শব্দ খুজে পাচ্ছি না!) আমি হেয়ার কেয়ার প্রোডাক্টসে বেশি ঘ্রান পছন্দ করি না। কিন্তু এটা পুরই আমার পার্সোনাল ব্যাপার। ঘ্রাণটা এত তীব্র নয় যে কোন প্রবলেম ক্রিয়েট করবে।

এই প্রোডাক্টের যে পয়েন্টগুলো আমার ভালো লেগেছে-

-১৫০ মিলি তেলের দাম ১১০ টাকা। দেখতেই পাচ্ছেন প্যারাসুটের অন্যান্য প্রোডাক্টের মত এটাও খুবই সাশ্রয়ী।

–   সব মিলিয়ে যারা খুব ব্যস্ত থাকেন এবং সময়ের অভাবে চুলের যত্ন নিতে পারেন না তাদের জন্য বেশ ভালো প্রোডাক্ট। নিজে নিজে এই তেল, সেই তেল, তার সাথে আমার বিভিন্ন হার্বস মিশিয়ে তেল তৈরি করে ইউজ করার ধৈর্য যাদের নেই তারাও পেয়ে যাচ্ছেন একদম রেডিমেড হারবাল হেয়ার অয়েল।

–   দাম সাধ্যের ভেতরে

–   এই তেলের চিটচিটেভাব প্যারাসুট বিশুদ্ধ নারকেল তেল থেকে অনেক অনেক কম। সুতরাং তেলতেলে ভাবের ভয়ে যারা তেল দেন না চুলে তাদের পছন্দ হবে।

–   আমার লম্বা চুল থেকে তেল দূর করতে মাইলড শ্যাম্পু দিয়ে মাত্র দুবার শ্যাম্পু করতে হয়েছে। যেখানে নরমাল নারকেল তেল আর ক্যাস্টর অয়েল দূর করতে ৩-৪ বার শ্যাম্পু করতে হয়।

–   কালার করা অথবা রিবনডিং করা চুলের রেগুলার ইউজের জন্য বেশ ভালো হবে। যেহেতু এটা ড্যামেজড চুলের ব্রেকেজ জনিত হেয়ার ফলের জন্য স্পেশালাইজড হেয়ার অয়েল।

–   প্যারাসুটের নরমাল প্যাকেজিং থেকে এটার প্যাকেজিং আমার অনেক বেশি পছন্দ হয়েছে!

যা ভালো লাগে নি-

 

–‘ঘ্রান’- আমি ব্যক্তিগতভাবে পারফিউমড স্কিনকেয়ার আর হেয়ার কেয়ার একটু এড়িয়ে চলি তাই। যারা প্রোডাক্টে সুঘ্রান ভালবাসেন তাদের হয়ত ভালই লাগবে।

– চেষ্টা করছিলাম মিনারেল অয়েল যতদূর সম্ভব এড়িয়ে চলতে। আশা করি প্যারাসুট ভবিষ্যতে মিনারেল অয়েল ছাড়াই ফরমুলেশন তৈরি করবে।

-উপাদান লিস্টের উপাদানগুলোর সঠিক পারসেনটেজ দেখতে পেলে ভালো লাগত।

আমি কি এই প্রোডাক্ট আবারো কিনব?

কেন নয়? সপ্তাহের সব দিন তো আর মাথায় ঘন ক্যাস্টর অয়েল , অলিভ অয়েল নারকেল তেল দেয়া যায় না!! সুতরাং ক্লাস বা অফিসে যারা যান তাদের জন্য খুবি কম সময়ে চুলের যত্ন নেয়ার বেশ ভালো উপায় এটা! বলব না এটা কোন ম্যাজিকাল প্রোডাক্ট!! চুলে দিলে আপনার চুল যেমনি হোকনা কেন রেপানজেল লুকস পাবেন আপনি!!! কিন্তু বাজারে পাওয়া যায় এমন তেলগুলোর মধ্যে থেকে বেছে নিতে সমস্যা কি??

লিখেছেন – তাবাসসুম মুস্তারি মীম

14 I like it
1 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...