মেক আপ শপিং গাইড - Shajgoj মেক আপ শপিং গাইড - Shajgoj

মেক আপ শপিং গাইড

জুন ২৭, ২০১৩

সময় নষ্ট না করে এবং অত্যন্ত স্মার্ট উপায়ে কী করে মেক-আপ কেনাকাটা করবেন ? প্রসাধনী ও ত্বকের যত্নে ব্যবহৃত প্রসাধনী কেনাটা একটু কঠিন, তবে চাইলেই আপনি তা সহজ করে নিতে পারেন যদি কিছু কৌশল আপনার জানা থাকে।

কেনাকাটার ধাপসমূহঃ

০১. চাহিদা নির্ধারণ করুনঃ

আপনার কি ত্বকের যত্নে কোন প্রসাধনী দরকার না কি আপনি মেক আপ সম্পর্কে জানতে চান? অথবা বিশেষ কোন কিছু কি খুঁজছেন ? এসব প্রশ্নের উত্তর আগে থেকে ভেবে রাখলে আপনার কেনাকাটায় সময়ের সাশ্রয় হবে।

০২. বাজেট নির্ধারণ করুনঃ

কেনাকাটায় কতটা খরচ করতে চান বা পারবেন, তা নির্ধারণ করুন। এরপর সেই অনুযায়ী আপনার কেনাকাটার স্থান নির্ধারণ করুন। যেমন – আপনি যদি দরকষাকষি করে কেনাকাটায় স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন, তবে নিউমার্কেট, চাঁদনী চক, গাউসিয়া, ইস্টার্ন মল্লিকা এসব জায়গায় চলে যেতে পারেন। আর এক দরের দোকান থেকে কিনে স্বস্তি পেলে চলে যান বসুন্ধরাসিটি, আলমাস কিংবা মলিক্যাপিটা সেন্টারে। আর ঘরে বসে পেতে চাইলে দেখে নিন অনলাইন স্টোরগুলোও।

০৩. পরামর্শ নিনঃ

মেক আপ সামগ্রী কেনাকাটার আগে মেক আপ করায় অভিজ্ঞ এমন কারো পরামর্শ নিয়ে নিন। যেমন – ত্বকের ধরণ অনুযায়ী কোন পণ্যটি ভাল, নতুন কী এসেছে, কোনটির ব্যবহার কিরূপ ইত্যাদি।

০৪. চর্মরোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শও নিনঃ

আপনার চর্মরোগজাতীয় কোন সমস্যা থাকলে চর্মরোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ অবশ্যই নেবেন কেনাকাটার আগে।

০৫. পরীক্ষা করে নিনঃ

লিপস্টিক, সুগন্ধি, কাজল, ফাউন্ডেশান, ব্লাশ অন, শ্যাডো ইত্যাদি মেক আপ সামগ্রী কেনার আগে হাতে মেখে পরীক্ষা করে নিন বর্ণ, গন্ধও, টেক্সচার ইত্যাদি।

০৬. পছন্দ হলে স্যাম্পল ব্যবহার করে দেখতে পারেনঃ

পরীক্ষা করার পর প্রসাধনী পছন্দ হলে অনেক জায়গাতেই কাস্টমারকে স্যাম্পল ব্যবহার করার সুযোগ দেয়া হয়। সেটি ব্যবহার করে দেখে নিন। সন্তুষ্ট হলে, এইবার পণ্যটি কিনে ফেলুন।

০৭. পণ্য ফেরত পদ্ধতি সম্পর্কে জানুনঃ

পণ্য কোন কারণে ফেরত দিতে চাইলে পদ্ধতিটি কেনার সময়ই জেনে নিন।

কিছু টিপসঃ

• দোকানে কেনাকাটার সময় আপনার সাথে কিন্তু বিশেষজ্ঞ হিসেবে কেউ থাকবেনা। কাজেই পণ্যের গায়ের লেবেলটি পড়ুন ভাল করে। প্রসাধনীর উপাদানের সাথে পরিচিত হোন এবং নিজের ত্বকের ধরণটিও জানুন।

shopping-for-makeup1

• সব পণ্য একসাথে কিনতে যাবেন না। যেমন – কিনতে চাইলে ফেইস ওয়াশ, টোনার ও ময়েশ্চারাইযার কিনুন আর স্ক্রাব, মাস্ক এগুলোর স্যাম্পল নিয়ে আসুন। মেক আপের ক্ষেত্রে একদম বেসিক জিনিসগুলো কিনুন।

• স্কিন কেয়ার পণ্যগুলোকে ঠিকঠাক কাজ করার সময় দিন। অনেকসময় একটি পণ্য কাজ করতে একটু বেশি সময় নেয়। ধৈর্য হারাবেন না যেন !

• মন মত একজন মেক আপ আর্টিস্টকে খুঁজে নিন, যিনি আপনার চাহিদা ও ধরণ বুঝে আপনাকে পরামর্শ দিতে পারবেন।

• একটি প্রসাধনী আপনি কেন ব্যবহার করছেন বা কিভাবে তা ব্যবহার করতে হবে, এটি যদি আপনার মনে না থাকে তবে যার কাছ থেকে পরামর্শ নিয়েছিলেন তাকে পুনরায় জিজ্ঞেস করতে দ্বিধাবোধ করবেন না।

• একটি আনকোরা নতুন পণ্যের ব্র্যান্ড, যার সম্পর্কে আপনি ম্যাগাজিনে পড়েছিলেন, তার নামটি লিখে রাখুন এতে করে মেক আপ কেনাকাটার সময় নামটি মনে থাকবে।

• দোকানে মেক আপ সামগ্রী কেনার সময় আপনি একটু হাতে মেখে পরখ করে দেখতেই পারেন। তবে দেখা শেষে অবশ্যই কন্টেইনারের মুখ ভাল করে আঁটকে দিতে ভুলে যাবেন না। বাড়িতে মেক আপ ব্যবহার করার সময়ও কথাটি খেয়াল রাখবেন। বাতাস লেগে তাহলে প্রসাধনীর বারটা বাজবে।

• কোন পণ্য ব্যবহারের অভিজ্ঞতা ভাল না হলে তা গঠনমূলক উপায়ে সমালোচনা করুন। ঢালাওভাবে বদনাম করতে যাবেন না, কারণ দুর্ভাগ্যবশত আপনার ক্ষেত্রে খারাপ অভিজ্ঞতা ঘটে থাকলেও অন্য কারো সাথে অমনটা নাও হতে পারে।

• কোন মেক আপ সেন্টারে কারো পরামর্শ নিতে চাইলে এবং সেই সাথে কেনাকাটার উদ্দেশ্য যদি না থাকে, তবে ঝটপট কাজ সারুন। কারণ পরামর্শ দেয়া তাদের পেশা, তবে তা অবশ্যই বিনামূল্যে নয়। আপনি পণ্য সম্পর্কিত প্রশ্ন করতেই পারেন, তবে প্রাসঙ্গিকতা রেখে।

আশা করি উপরের টিপসগুলো মেক আপ কেনার সময় আপনাদের কাজে দেবে । হ্যাপি শপিং !

লিখেছেনঃ নুজহাত