ফরমাল লুকের জন্য পারফেক্ট মেকআপ ও আউটফিট কেমন হতে পারে?

ফরমাল লুকের জন্য পারফেক্ট মেকআপ ও আউটফিট কেমন হতে পারে?

IMG_4281 edited

বিয়ে কিংবা দাওয়াতের মতো অকেশনগুলোতে নিজেকে সুন্দরভাবে সাজিয়ে তুলতে এখন কম-বেশি সবাই জানেন। কিন্তু বিপত্তি বাঁধে ফরমাল লুকের ক্ষেত্রে! ইন্টারভিউ, প্রেজেন্টেশন বা রেগুলার অফিসের জন্য কীভাবে ফরমাল লুক ক্রিয়েট করা যায় তা নিয়ে আমাদের কনফিউশনের কোনো শেষ নেই। তাই আজকের ফিচারে আপনাদের জানাবো যেকোনো ফরমাল লুকের জন্য পারফেক্ট মেকআপ ও আউটফিট কেমন হতে পারে তা সম্পর্কে বিস্তারিত।

ফরমাল লুকের জন্য পারফেক্ট মেকআপ ও আউটফিট কেমন হতে পারে?

অনেকেই রয়েছেন যারা খুব গর্জিয়াস ড্রেস, জুয়েলারি পরে এবং হেভি মেকআপ করে অফিসে যান অথবা জব ইন্টারভিউ অ্যাটেন্ড করেন। আসলে অফিসের এনভাইরনমেন্টের সাথে এ ধরণের গেটআপ কিন্তু একদমই মানানসই নয়। ফরমাল লুক যতটুকু সম্ভব সিম্পল ও মিনিমাল রাখতে হয়। কারণ যেহেতু অফিসে আমাদের অনেকটা সময় থাকতে হয়, তাই পোশাক যদি কমফোর্টেবল না হয় আর মেকআপ যদি সিম্পল না হয়, তাহলে সারাদিনের কাজে ফোকাস করতে স্ট্রাগল হতে পারে।

চলুন আর দেরি না করে জেনে আসা যাক ফরমাল লুকের জন্য উপযোগী কিছু দারুণ স্টাইলিং টিপস।

ফরমাল লুকের জন্য পারফেক্ট মেকআপ ও আউটফিট

কেমন আউটফিট পরবেন?

অফিস বা ইন্টারভিউ যেটিই হোক না কেন, সবসময় এমন ম্যাটেরিয়ালের আউটফিট পরুন যা আরামদায়ক এবং যার ভেতর দিয়ে বাতাস চলাচল করতে পারে। যদি অফিসের ড্রেসকোড শার্ট-প্যান্ট হয়, তাহলে অবশ্যই কটনের শার্ট পরুন। আর যদি দেশীয় আউটফিট পরতে চান তাহলে কটন, লিলেন বা তাঁতের আউটফিট পরতে পারেন। এক্ষেত্রে হালকা সুতা, জরির কাজ অথবা এমব্রয়ডারি করা কুর্তি, টিউনিক কিংবা সালোয়ার কামিজ বেছে নিন। আবার এখন কো-অর্ড সেট বেশ ট্রেন্ডি। চাইলে সেটিও পরতে পারেন নিশ্চিন্তে!

যদি প্রেজেন্টেশন বা ইন্টারভিউতে শাড়ি পরতে চান, তাহলে তাঁত, সুতি, জর্জেট, ভেজিটেবল ডাই অথবা হালকা কাজ করা জামদানী শাড়িও পরতে পারেন। তবে যদি শাড়ি পড়েন, তাহলে শাড়ির আঁচল ভাঁজ করে রাখতে ভুলবেন না। আউটফিটের রঙয়ের ক্ষেত্রে হালকা নীল, ল্যাভেন্ডার, পিচ, গোলাপী, অ্যাশ, অফ হোয়াইটের মতো হালকা রঙগুলোকে প্রাধান্য দিন। কারণ এ রঙগুলোই ফরমাল লুকে সবচেয়ে বেশি স্যুট করে।

মেকআপ রাখুন ন্যাচারাল

কীভাবে মেকআপ করবেন?

অফিসের জন্য মেকআপ করা একটু ট্রিকি। কারণ এমনভাবে মেকআপ করতে হয়, যাতে করে দেখতে প্রেজেন্টেবল লাগে এবং একইসাথে এটিও মনে না হয় যে আপনি অনেক মেকআপ করেছেন। অর্থাৎ “নো-মেকআপ” মেকআপ লুক এক্ষেত্রে একদম পারফেক্ট। কীভাবে এই মেকআপ লুক ক্রিয়েট করবেন? বলছি!

ফেইস মেকআপ

১) প্রথমেই ফেইস ভালোভাবে ক্লিন করে ময়েশ্চারাইজার ও সানস্ক্রিন অ্যাপ্লাই করে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন।

২) অফিসের জন্য মেকআপের বেইজ হতে হবে একদম ন্যাচারাল। তাই আপনার স্কিনটোনের সাথে ম্যাচ করে এমন একটি কনসিলার নিয়ে চোখের নিচে এবং আপনার ফেইসের যে এরিয়াগুলোতে পিগমেন্টেশন অথবা একনে মার্ক রয়েছে, শুধুমাত্র সেসব এরিয়াতে অ্যাপ্লাই করুন এবং একটি ভেজা বিউটি স্পঞ্জ অথবা ব্রাশের সাহায্যে ভালোভাবে ব্লেন্ড করে নিন। ফাউন্ডেশন ইউজ না করে শুধুমাত্র এভাবে কনসিলার অ্যাপ্লাই করলে মেকআপের বেইজ লাইটওয়েইট এবং অনেক লং-লাস্টিং হয়।

৩) একটি কমপ্যাক্ট পাউডারের সাহায্যে ফেইসে কনসিলার সেট করে নিন। তবে খুব বেশি পাউডার অ্যাপ্লাই করবেন না, কারণ এতে ফেইস কেকি হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

৪) নিজের পছন্দের যেকোনো হালকা রঙের ব্লাশ নিন এবং ব্রাশের সাহায্যে দুই গালে অ্যাপ্লাই করুন।

৫) হালকা পিংক, ম্যভ বা ব্রাউন টোনের ম্যাট লিপস্টিক ঠোঁটে অ্যাপ্লাই করুন।

ন্যুড বা হালকা লিপস্টিক চুজ করুন

আই মেকআপ

১) শুরুতেই একটি আইব্রো পেন্সিলের সাহায্যে আপনার আইব্রোর শেইপ ডিফাইন করে নিন। এতে করে আপনার পুরো ফেইস অনেক আপলিফটেড মনে হবে।

২) হালকা ব্রাউন কালারের ম্যাট আইশ্যাডো নিয়ে একটি ফ্লাফি ব্লেন্ডিং ব্রাশের সাহায্যে আই লিডে অ্যাপ্লাই করে ভালোমতো ব্লেন্ড করে নিন। এতে চোখের শেইপ আরো সুন্দরভাবে বোঝা যাবে। তবে শিমারি বা গ্লিটার আইশ্যাডো ইউজ করা থেকে বিরত থাকাই ভালো।

৩) ফরমাল লুকের সাথে ড্রামাটিক আইলাইনার একেবারেই মানায় না। তাই যদি আইলাইনার দিতে চান, তাহলে যতটুকু সম্ভব চিকন করে দেয়ার চেষ্টা করুন।

৪) সবশেষে চোখের পাঁপড়িগুলো সুন্দরভাবে ফুটিয়ে তুলতে দুই কোট ওয়াটারপ্রুফ মাশকারা ইউজ করতে ভুলবেন না।

ওয়াটার প্রুফ মাশকারা ব্যবহার করুন

কোন ধরনের জুয়েলারি পরা উচিত?

যেকোনো ফরমাল লুককে কমপ্লিট করতে আউটফিট ও মেকআপের পাশাপাশি মানানসই জুয়েলারি পরাও খুব গুরুত্বপূর্ণ। অফিসে কখনোই খুব ভারী কোনো জুয়েলারি পরবেন না। বরং ওজনে হালকা ও একদম সিম্পল ডিজাইনের জুয়েলারি সিলেক্ট করুন।

যেকোনো ফরমাল লুকের সাথেই পার্ল জুয়েলারি খুব ভালো ম্যাচ করে। আবার মিনিমাল ডিজাইনের গোল্ড, সিলভার অথবা স্টোনের জুয়েলারিও মানিয়ে যায় সহজেই। ফরমাল লুকে জুয়েলারি হিসেবে আপনারা কানে ছোট্ট একজোড়া টপ বা ইয়ার স্টাড পরতে পারেন। গলায় একটি সিম্পল পেনডেন্ট পরলেও এলিগ্যান্ট লাগবে। সেই সাথে এক হাতে ঘড়ি পরুন এবং যদি ব্রেসলেট পরার অভ্যাস থাকে, তাহলে অন্য হাতে সিম্পল ডিজাইনের একটি ব্রেসলেটও পরতে পারেন।

মনে রাখবেন, ফরমাল লুকের জন্য পারফেক্ট মেকআপ ও আউটফিট এর পাশাপাশি নিজেকে পারফেক্টলি প্রেজেন্ট করার জন্য কনফিডেন্সের কিন্তু কোনো বিকল্প নেই। তাই ইন্টারভিউ, প্রেজেন্টেশন বা অফিস যেটিই থাকুক না কেন, সবসময় কনফিডেন্ট থাকুন।

ও হ্যাঁ, কাজের এই ব্যস্ত দিনগুলোতে নিজের স্কিন ও হেয়ার ভালো রাখতে চাইলে অবশ্যই হাই কোয়ালিটির অথেনটিক প্রোডাক্টস পারচেজ করুন। আমি আমার কেনাকাটার জন্য সাজগোজকে বরাবরই ভরসা করি। আপনারাও ভিজিট করুন সাজগোজের ওয়েবসাইট, অ্যাপ বা ফিজিক্যাল স্টোর। সাজগোজের বেশ কয়েকটা ফিজিক্যাল শপ রয়েছে। এ শপগুলো যমুনা ফিউচার পার্ক, সীমান্ত সম্ভার, বেইলি রোডের ক্যাপিটাল সিরাজ সেন্টার, ইস্টার্ন মল্লিকা, ওয়ারীর র‍্যাংকিন স্ট্রিট, বসুন্ধরা সিটি, উত্তরার পদ্মনগর (জমজম টাওয়ারের বিপরীতে), মিরপুরের কিংশুক টাওয়ারে ও চট্টগ্রামের খুলশি টাউন সেন্টারে অবস্থিত। এই শপগুলোর পাশাপাশি চাইলে অনলাইনে শপ.সাজগোজ.কম থেকেও কিনতে পারেন আপনার দরকারি বা পছন্দের সব প্রোডাক্ট।

 

ছবিঃ সাজগোজ।

3 I like it
0 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...