স্ম্যাজপ্রুফ লিপস্টিক পাওয়ার ইজি ও সিম্পল কয়েকটি স্টেপস

স্ম্যাজপ্রুফ লিপস্টিক পাওয়ার ইজি ও সিম্পল কয়েকটি স্টেপস

6

মেকআপ করা শেষে লিপস্টিক লাগানো না হলে পুরো লুকটাই ইনকমপ্লিট থেকে যায়। লিপস্টিক যেমন লুকটাকে পারফেক্ট করে তোলে, তেমনই সঠিকভাবে অ্যাপ্লাই না করার কারণে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে তা নষ্টও হয়ে যেতে পারে। লিপস্টিক ছড়িয়ে পড়লে বেশ বিড়ম্বনায় পড়তে হয়। স্ম্যাজপ্রুফ লিপস্টিক পাওয়ার জন্য তাই ফলো করতে পারেন কয়েকটি স্টেপস। চলুন জেনে নেই স্টেপগুলো সম্পর্কে।

স্ম্যাজপ্রুফ লিপস্টিক পাওয়ার ইজি স্টেপস

লিপস স্ক্রাব করে নিন

লিপস্টিক ভালোভাবে অ্যাপ্লাই করার প্রথম শর্তই হচ্ছে লিপস সফট ও ময়েশ্চারাইজড রাখা। এজন্য শুরুতে লিপস স্ক্রাব করে নিতে হবে। স্ক্রাব করার জন্য প্রথমে ঠোঁটে অল্প পরিমাণ ভ্যাসলিন লাগিয়ে নিন। এবার একটি ক্লিন টুথব্রাশ দিয়ে লিপস স্ক্রাব করে নিন। এতে ডেড সেলস উঠে আসবে এবং ঠোঁট হবে সফট ও ময়েশ্চারাইজড।

ফাউন্ডেশন বা কনসিলার অ্যাপ্লাই করে নিন

একটু খেয়াল করে দেখুন তো, আপনার আপার ও লোয়ার লিপসের কালার ডিফারেন্ট কিনা? তাহলে চলুন এই ডিফারেন্স ঢাকতে একটি হ্যাকস জেনে নেই। আমার লিপসের কালারও কিন্তু কিছুটা আলাদা। এ জন্য এই হ্যাকসটা আমার বেশ পছন্দের। লিপস্টিক লাগানোর আগে ঠোঁটে অল্প পরিমাণ ফাউন্ডেশন বা কনসিলার লাগিয়ে নিন। এতে ঠোঁটে হাইপারপিগমেন্টেশন বা প্যাচেস থাকলে সেটাও ঢেকে যাবে। লিপস্টিক অ্যাপ্লাইয়ের পর লুকটা দেখতেও বেশ ভাইব্রেন্ট লাগবে।

স্ম্যাজপ্রুফ লিপস্টিক পাওয়ার উপায়

লিপ পেন্সিল ইউজ করুন

লিপস্টিক যেন আন ইভেন না লাগে বা ছড়িয়ে না যায় সেজন্য লিপ পেন্সিল ইউজ করুন। একবার লিপে আউটলাইন করা হয়ে গেলে পুরো ঠোঁট পেন্সিল দিয়ে ফিল করে নিন। এবার পছন্দের লিপস্টিক লাগিয়ে নিন। লিপস্টিক বেইজ হিসেবে পেন্সিল/লাইনার খুব ভালো একটি চয়েস। লিপস্টিক শেইডের সাথে ম্যাচ করে অথবা শেইডের চেয়ে ডার্কার কোনো পেন্সিল চুজ করুন। এবার লিপস্টিক অ্যাপ্লাই করার পালা।

লুজ পাউডার দিয়ে সেট করে নিন

লিপস্টিক দেয়া শেষ? এবার যেন এটি ছড়িয়ে না যায় সেজন্য নেক্সটে এই স্টেপটি ফলো করুন। ঠোঁটের উপর একটি টিস্যু পেপার রেখে ব্রাশ দিয়ে লুজ পাউডার দিয়ে নিন। ৫/১০ সেকেন্ড অপেক্ষা করুন। এই টেকনিক ফলো করলে লিপস্টিকে আসবে ম্যাট ফিনিশ।

এক্সেস লিপস্টিকটুকু রিমুভ করুন

আগের স্টেপটি হয়ে গেলেই হাতে একটি টিস্যু পেপার ফোল্ড করে নিন। আপার ও লোয়ার লিপসের মাঝে পেপার প্লেস করুন। ছবির মতো করে এক্সেস লিপস্টিকটুকু রিমুভ করে ফেলুন। ভয় পাবেন না, এই টেকনিক ফলো করলে লিপস্টিক আন ইভেন বা ফেইড লাগলেও আবার রি অ্যাপ্লাই করতে পারবেন।

স্ম্যাজপ্রুফ লিপস্টিক পেতে করণীয়

লিপস্টিক অ্যাপ্লাই করার পর দাঁতে লেগে যাওয়া বেশ কমন একটি প্রবলেম। দাঁতে লেগে গেলে সবার মাঝে বেশ বিড়ম্বনায় পড়তে হয়। এই প্রবলেম যেন না হয় সেজন্য কমন একটি টিপস আপনাদের জানিয়ে দিচ্ছি। লিপস্টিক অ্যাপ্লাইয়ের পর দুই ঠোঁট ফোল্ড করে মাঝের আঙুল একবার ঢুকিয়ে বের করে নিন। এতে এক্সেস লিপস্টিকটুকু আঙুলে লেগে উঠে আসবে। এক্সেস লিপস্টিকটুকু রিমুভ করার জন্য এই দুটো পদ্ধতির যে কোনো একটি ফলো করতে পারেন।

লিপ ব্রাশ ইউজ করুন

অ্যাপ্লাই করা শেষে মনে হতে পারে লিপস্টিক হয়ত ইভেন হয়নি বা দেখতে ভালো লাগছে না। এমন মনে হলে একটি লিপ ব্রাশে সামান্য কনসিলার নিয়ে লিপসের চারপাশে অ্যাপ্লাই করে নিন। ভালোভাবে ব্লেন্ড করুন। এবার দেখুন অ্যাপ্লাই শেষে লিপস দেখতে একদম পারফেক্ট লাগছে!

আরও কিছু টিপস

১) স্ম্যাজপ্রুফ লিপস্টিক পাওয়ার জন্য লিপস্টিকের ফর্মুলা ঠিক থাকা সবচেয়ে বেশি জরুরি। ক্রিমি বা গ্লসি লিপস্টিক অ্যাপ্লাই করার বদলে লাইট ওয়েট ম্যাট লিকুইড লিপস্টিক ইউজ করতে পারেন।

২) লিকুইড লিপস্টিকে যে অ্যাপ্লিকেটর দেয়া থাকে সেটি দিয়ে আগে লিপসের আউটার লাইন ড্র করে নিতে পারেন। এতেও লিপস্টিক ছড়ানোর চান্স কম থাকে। সেই সাথে আপনি পাবেন পারফেক্টলি শেইপড লিপস।

৩) লিপসকে ফুলার দেখাতে চান? লিপস্টিক দেয়া শেষে ঠোঁটের আপার ও লোয়ার সেন্টারে হালকা করে হাইলাইটার অ্যাপ্লাই করে নিন। এবার ব্রাউন আইশ্যাডো দিয়ে লিপসের নিচের এরিয়াতে কভার করে নিন। এতে লিপসের লুক এনহ্যান্স হবে।

লিপস্টিক দেয়ার পর হাইলাইটার দেয়া

৪) ড্রাই ও ক্র্যাক লিপসে লিপস্টিক অ্যাপ্লাই করলে শুধু যে স্ম্যাজই হয় তাই না, বরং খুব অল্প সময়েই কালার ফ্লেকি হয়ে যায়। তাই লিপস সফট করে নেয়া জরুরি। লিপস সফট রাখার জন্য সপ্তাহে অন্তত একবার সুগার স্ক্রাব করে নিতে পারেন। এতে লিপসের ডেড সেলস রিমুভ হয়ে যাবে।

৫) লিপস্টিক দেয়ার সময় থিন লিপ ব্রাশ ইউজ করুন।

৬) কুইক টাচ আপের জন্য ব্যাগে সব সময় একটি লিপ কালার ক্যারি করতে পারেন।

এই তো জানিয়ে দিলাম, স্ম্যাজপ্রুফ লিপস্টিক পাওয়ার ইজি ও সিম্পল কয়েকটি স্টেপস সম্পর্কে। এবার থেকে লিপস্টিক ছড়িয়ে যাওয়া নিয়ে আর ভাবতে হবে না। অথেনটিক স্কিন কেয়ার, হেয়ার কেয়ার ও মেকআপ প্রোডাক্ট পেয়ে যাবেন সাজগোজে। সাজগোজের চারটি ফিজিক্যাল শপ রয়েছে। শপগুলো যমুনা ফিউচার পার্ক, সীমান্ত সম্ভার, বেইলি রোডের ক্যাপিটাল সিরাজ সেন্টার এবং উত্তরার পদ্মনগর (জমজম টাওয়ারের বিপরীতে) এ অবস্থিত। এই শপগুলোতে ঘুরে নিজের পছন্দমতো অথবা অনলাইনে শপ.সাজগোজ.কম  থেকে কিনতে পারেন আপনার দরকারি প্রোডাক্টগুলো।

ছবিঃ সাজগোজ

6 I like it
2 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...