চুল পড়া কমাতে সঠিক চিরুনি ব্যবহার করছেন তো? জেনে নিন!

চুল পড়া কমাতে সঠিক চিরুনি ব্যবহার করছেন তো?

চুল পড়া কমাতে সঠিক চিরুনি ব্যবহার করছে তিন জন ব্যানার

চুল পড়ার সমস্যা শুরু হতে পারে যে কোন বয়স থেকেই। ছেলে হোক বা মেয়ে হোক, এ সমস্যার ভুক্তভোগী যেন কমবেশি আমরা সবাই। চুলের যত্নে যে চিরুনিটি আপনি প্রতিদিন ব্যবহার করছেন এ ব্যাপারে আপনি কতটুকু কনসার্ন? একটু উদাসীন-ই বটে! তাই না? চুল পড়া কমাতে সঠিক চিরুনি ব্যবহার না করলে, এ সমস্যা সমাধানে প্রতিনিয়ত আমরা যে ধরণের সল্যুশন গুলো ট্রাই করি, যেমনঃ নতুন নতুন হেয়ার প্রোডাক্টের ব্যবহার থেকে শুরু করে ডেইলি লাইফস্টাইলে নানা বিধি নিষেধ মেনে চলা এমন আরও কত কিছু। সব কষ্ট কিন্তু বিফলে যাবে।

ছোট্ট এই প্রোডাক্ট ব্যবহারে অসতর্কতা থেকে রেগুলার হেয়ার ফলের পাশাপাশি আরও অনেক ধরণের জটিল সব সমস্যা দেখা দিতে পারে । তাই আপনার কাছে আমাদের আবার একই প্রশ্ন! একটু ভেবে দেখুন, চুল পড়া কমাতে সঠিক চিরুনি ব্যবহার করছেন তো? আর আপনিও যদি অনেকের মত সঠিক চিরুনি ব্যবহার নিয়ে অনিশ্চিত থাকেন, তাহলে আজকের লেখাটি আপনার জন্যেই।

চুলের যত্নে কোন ধরণের চিরুনির কী কাজ?

চুলের জন্য দুই ধরণের চিরুনি দেখাচ্ছে একজন

আপনি যখন চিরুনি কিনতে যাবেন, মার্কেটে নানা ধরণের চিরুনি পাবেন। চুলের ধরণ বুঝে একেকটির কাজ একেক রকম হয়ে থাকে। কোন ধরণের চিরুনির কাজ কী তা না জানা থাকলে কোন চিরুনিটি আপনার জন্য আপনি জানতে পারবেন না এবং মনের অজান্তেই নিজের চুলের ক্ষতি করবেন। তাহলে চলুন জেনে নেই মার্কেটে পাওয়া যায় এমন ৮ টি চিরুনি এবং এগুলোর কাজ নিয়ে।

ওয়াইড টুথ কম্ব (Wide Tooth Comb)

নাম না জানলেও, এই চিরুনিটি ব্যবহার করে থাকি কম বেশি আমরা সবাই। বিশেষ করে যাদের লম্বা ঘন চুল, তাদের জন্যে এটি একটি মাস্ট হ্যাভ হেয়ার কম্ব

  • এটি খুব দ্রুত চুলের জট ছাড়াতে সাহায্য করে।
  • যাদের কার্লি হেয়ার, তাদের চুলের শেইপ ঠিক রাখতে এবং প্রোপারলি চুলকে মেইনটেইন করতে হেল্প করে।
  • পাশাপাশি ওয়াইড টুথ কম্ব চুল আঁচড়ানোর সময় অতিরিক্ত হেয়ার ফল হওয়া থেকে চুলকে রক্ষা করে।

মার্কেটে সাধারণত দুই ধরণের ওয়াইড টুথ কম্ব পাওয়া যায়।

  • প্লাস্টিকের ওয়াইড টুথ কম্ব এবং
  • কাঠের ওয়াইড টুথ কম্ব।

তবে জেনে রাখা ভালো, প্লাস্টিক ওয়াইড টুথ কম্বের প্রাইজ তুলনামূলক ভাবে কম হলেও চুলের যত্নে কাঠের ওয়াইড টুথ কম্বের অনেক বেশি বেনিফিটস আছে।

ডিট্যাঙ্গলিং ব্রাশ (Detangling Brush)

ডিট্যাঙ্গলিং ব্রাশের ব্যবহার দেখাচ্ছে

দিনে একবার হলেও ভালোভাবে চুল আঁচড়ানো অনেক জরুরী। আর প্রতিদিনের ব্যবহারের জন্যে ডিট্যাঙ্গলিং ব্রাশও খুব ভালো একটি অপশন। ডিট্যাঙ্গলিং ব্রাশ ব্যবহারে,

  • আমাদের স্ক্যাল্পের রক্ত চলাচল বাড়ে।
  • হেয়ার ফলিকলস উদ্দীপিত হয়।
  • আর জট বেঁধে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে না।
  • যাদের চুলে সহজেই জট বেঁধে যায়, তাদের চুলের যত্নে এই চিরুনিটি একটি লাইফ সেভার সিলেকশন।
  • এছাড়াও এটি চুলের কোন রকম ড্যামেজ করবে না এবং চুলকে রাখবে হেলদি।

প্যাডেল ব্রাশ (Paddle Brush)

প্যাডেল ব্রাশ (Paddle Brush) এর ব্যবহার দেখাচ্ছে একজন

প্যাডেল ব্রাশ অনেকটাই চারকোণা বা আয়তাকার হয়ে থাকে। যাদের চুল মাঝারি বা অনেক বেশি ঘন এবং লম্বা তাদের জন্যে এটি বেশ ভাল একটি চয়েজ।

  • এই চিরুনি ব্যবহারে স্ক্যাল্পের রক্ত সঞ্চালন বাড়ে।
  • চুলের জট ছাড়াবার পাশাপাশি চুলকে হেলদি রাখে।
  • অনেক লম্বা সময়ের জন্যে চুলকে সেট রাখে।
  • চুলকে সেট রাখার পাশাপাশি স্ট্রেইট রাখতে হেল্প করে।

রেক কম্ব (Rake comb)

রেক কম্ব দেখাচ্ছে একজন

রেক কম্ব দেখতে অনেকটাই ওয়াইড টুথ কম্বের মত হলেও, তুলনামুলকভাবে রেক কম্ব এর দাঁতের মাঝামাঝি গ্যাপ একটু কম।

  • যাদের অনেক বেশি পাতলা চুল, তারা হেয়ার কেয়ারে ওয়াইড টুথ কম্বের পরিবর্তে রেক কম্ব সিলেক্ট করতে পারেন।
  • এটিও কোন রকম ড্যামেজ ছাড়া চুলের জট কমিয়ে আনতে দারুণ হেল্প করবে এবং
  • অতিরিক্ত হেয়ার ফল প্রতিরোধ করবে।

ফাইন টুথ কম্ব (Fine Tooth Comb) 

এখন আমরা জেনে নিবো ফাইন টুথ কম্ব নিয়ে। এই ধরণের কম্বের দাঁত ও দাঁতগুলোর মাঝে গ্যাপ দুটোই অনেক বেশি সরু এবং চিকন।

  • স্লিক হেয়ার স্টাইলের জন্যে মূলত এধরণের হেয়ার কম্ব ব্যবহার করা হয়।
  • অনেক সময় চুলে জট ছাড়ানোর পরও চুলে একটা রাফ ভাব থেকে যায়। চুলকে তখন সফট এবং স্মুথ করতে এই ফাইন টুথ কম্বটি ব্যবহার করতে পারবেন।
  • যারা রেগুলার বা কোন পার্টিতে যাওয়ার আগে নিজেদের চুলে নিজেরাই স্টাইল করতে ভালোবাসেন, তাদের জন্যে এটি ক্যারি করা মাস্ট।

র‍্যা টেইল কম্ব (Rat Tail Comb)

র‍্যাট টেইল কম্ব(rat tail comb) ব্যবহার করে চুলের স্টাইল করছে একজন

সাধারণত র‍্যাট টেইল কম্বে দুটি পার্ট হয়ে থাকে। এই দুটি পার্টের কাজও কিন্তু ভিন্ন ভিন্ন।

  • উপরের পার্টটি ফাইন টুথ কম্বের মতই চুলে অনেক রকমের স্টাইল করতে হেল্প করে এবং
  • নিচের পার্টটি চুলকে বিভিন্ন দিকে ডিভাইড বা পার্টিশান করতে হেল্প করে।
  • এর ফলে, সহজেই একি সাথে একটি চিরুনি দিয়েই অনেক রকমের হেয়ার স্টাইল করা যায়।

টিজিং কম্ব (Teasing Comb)

টিজিং কম্ব দেখতে অনেকটাই র‍্যাট টেইল কম্ব এর মতই। টিজিং কম্বেও রেট টেইল কম্বের মত দুটি পার্ট থাকে।

  • এর উপরের পার্টটি মূলত চুলের ফ্রিজি ভাব কমিয়ে স্টাইলিশ লুক দেয়।
  • চুলকে ফ্লাফি এবং পাফিনেস দিতে দারুণ কার্যকরী।
  • নিচের পার্টটি চুলকে বিভিন্ন দিকে ডিভাইড করতে বা পার্টিশান করতে হেল্প করে।
  • চুল লম্বা হোক কিংবা পাতলা, যে কোন ধরণের চুলে হেয়ার স্টাইলে হেল্প করবে এটি।

রাউন্ড ব্রাশ (Round Brush)

এবার আমরা যে চিরুনিটি নিয়ে জেনে নিব, তা হল রাউন্ড ব্রাশ। কম বেশি আমাদের সবার কাছেই এই ধরণের একটি চিরুনি থাকে।

  • বিভিন্ন ধরণের স্টাইলের পাশাপাশি চুলকে লম্বা সময়ের জন্যে সেট রাখতে এটি ব্যবহার করা হয়।
  • ব্লো-ড্রাই করার জন্যেও এটি বেষ্ট ।

তবে, এর একটি বাজে দিক হলো চুলের জট ছাড়ানো এবং স্ক্যাল্প ম্যাসেজের ক্ষেত্রে এটি একদমই ব্যবহার উপযোগী নয়। তাই, এটি দিয়ে শুধুমাত্র চুলের স্টাইল করবেন। হেয়ার কেয়ারে এটি ব্যবহার না করাই ভালো।

দেখলেন তো? একধরণের চিরুনি ব্যবহারে যেমন চুল পরার সমস্যা বেড়ে যেতে পারে বহুগুণ, আবার অন্য কোন ধরণের চিরুনি ব্যবহারে চুল পরার সমস্যা কমেও যায় অনেকটাই। তাই অন্যান্য হেয়ার কেয়ার প্রোডাক্ট সিলেকশনের পাশাপাশি চিরুনি সিলেক্ট করার সময়ও খেয়াল রাখতে হবে কোনটি আপনার জন্যে ভালো হবে।

যদি মনে হয়ে থাকে, মার্কেটে নানা রকম চিরুনি থাকলেই তা ব্যবহার করতে হবে? বিষয়টি কিন্তু একদমই তেমন নয়। এটি আমাদের একটি ভুল চিন্তাধারা মাত্র। বরং এক ধরণের চিরুনি দিয়ে সব সমস্যার সমাধান হবে না বিধায়-ই কিন্তু, মার্কেটে নানা রকম চিরুনি পাওয়া যায়। আশা করছি, আজকের লেখাটি পরে নিজের জন্যে সঠিক চিরুনিটি বাছাই করতে আপনাদের কিছুটা হলেও হেল্প হবে এবং চুল পড়া কমাতে সঠিক চিরুনি ব্যবহার করতে পারবেন। সবাই ভালো থাকবেন। আপনারা চাইলে সাজগোজের দুটি ফিজিক্যাল শপ, যার একটি যমুনা ফিউচার পার্ক ও অপরটি সীমান্ত সম্ভারে অবস্থিত, সেখান থেকে চিরুনিগুলো কিনতে পারেন আর অনলাইনে কিনতে চাইলে শপ.সাজগোজ.কম থেকে কিনতে পারেন।

ছবি- সাজগোজ

5 I like it
0 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...