ঘরোয়া পদ্ধতিতে ভ্রু গজানোর ৬ টি উপায় - Shajgoj ঘরোয়া পদ্ধতিতে ভ্রু গজানোর ৬ টি উপায় - Shajgoj

ঘরোয়া পদ্ধতিতে ভ্রু গজানোর ৬ টি উপায়

জুন ২৭, ২০১৩

চেহারার মধ্যে চোখের ভ্রু হলো অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি ব্যাপার। একে সঠিক ভাবে, সঠিক শেইপে না রাখলে পুরো চেহারায় ভ্রু ২টি হয়ে উঠে বেমানান আর যতই সৌন্দর্য চর্চা করিনা কেন ভ্রু আকর্ষণীয় না হলে পুরো সাজটাই নষ্ট। সাধারণত হরমোনের ভারসাম্যহীনতা, পুস্টির অভাব এবং অতিরিক্ত পরিমাণে চিকণ করে ভ্রু প্লাক করার কারণে আমাদের মধ্যে অনেকেরই ভ্রু পাতলা হতে দেখা যায়। চিকণ করে ভ্রু প্লাক করলে সাধারণত সেটা ঠিক পর্যায়ে আসতে ৬ থেকে ৮ মাস পর্যন্ত সময় লাগে। ঘরে বসে একটু যত্ন নিতে পারলেই কিন্তু অনেক দ্রুত এই সমস্যার সমাধান হয়ে যায়। তাই ঘরে বসেই কিভাবে আপনার রান্নাঘরের জিনিস দিয়ে আপনি এই সমস্যা থেকে মুক্ত হতে পারেন তা দেখে নিন নীচে –

০১. ক্যাস্টর অয়েলঃ

ক্যাস্টর অয়েলে এমন কিছু অসাধারণ রাসায়নিক মিশ্রণ আছে যা অন্যান্য বীজ ও তেলে খুব কমই লক্ষ্য করা যায়। ক্যাস্টর অয়েল আঙ্গুলে মাখিয়ে আলতো করে ম্যাসাজ করুন ভ্রুতে এবং কিছুক্ষনের জন্য রেখে দিন। ৩০ মিনিট পরে ঈষদুষ্ণ পানি দিয়ে এবং ফেইস ক্লিনজার দিয়ে ধুয়ে ফেলুন এবং পরপর কয়েকদিন এই প্রসেসটা চালিয়ে যান, ভাল ফল পাবেন তবে ইরিটেশন হলে বন্ধ করে দিবেন।

castor oil

০২. নারকেল-লেবুর মিশ্রনঃ

চার ভাগের ১ ভাগ নারকেল তেলের সাথে খোসা ছাড়ানো পাতলা করে কাটা লেবুর স্লাইস একটা পরিষ্কার পাত্রে রেখে দিন সারা রাত। এই মিশ্রণটি তুলোয় লাগিয়ে ব্যবহার করতে পারেন রাতে ঘুমানোর আগে তবে সূর্যের আলোতে কখনই নয়।

lemon and coconut

০৩. (Aloe vera) ঘৃত কুমারীঃ

যদি আপনার ভ্রু বেশি প্লাক করার কারণে পাতলা হয়ে গিয়ে থাকে তাহলে ঘৃত কুমারীর রস আপনার ভ্রু গজাতে সাহায্য করবে। ঘৃত কুমারীর পাতা ছেঁচে সেটার রস লাগান ভ্রুর উপরে। এর ভেষজ প্রভাব আপনার ভ্রু গজাতে সাহায্য করবে।

al

০৪. পেঁয়াজঃ

পেয়াজের ঝাঁঝালো উপাদানটাই কিন্তু আপনার ভ্রু গজানোতে অনেক দ্রুত সাহায্য করবে। পেঁয়াজ ছেঁচে এর রস ভ্রু এর নীচে তুলো দিয়ে লাগিয়ে নিন এবং শুকাতে দিন। শুকিয়ে গেলে আরও কয়েক প্রলেপ দিন।

mighty-onion

০৫. মেথিঃ

কয়েকদানা মেথি পেস্ট করে লাগাতে পারেন। সেক্ষেত্রে মেথির সাথে almond oil মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন তাতে আপনার স্কিন আর্দ্রতা পাবে। এই মিশ্রণ লাগাবেন রাতে ঘুমের আগে এবং সকালে ধুয়ে ফেলবেন।

methi

০৬. দুধঃ

দুধ এমন একটি জিনিস যার পুষ্টি ও উপকারিতার শেষ নেই। দুধে তুলোর বল ডুবিয়ে ম্যাসাজ করুন ভ্রুতে। এর প্রাকৃতিক উপাদান আপনার ভ্রু এর চুলের গোঁড়া পর্যন্ত গিয়ে একে পুষ্টি যোগাবে এবং সেই সাথে দ্রুত বৃদ্ধিতে সাহায্য করবে।

milk cotton ball

এই ৬ টি পদ্ধতির সবগুলোই যে একসাথে ট্রাই করতে হবে এমন কোন কথা নেই, আপনি আপনার সুবিধা মত একটি একটি করে ট্রাই করে দেখেন কোনটি আপনার ভ্রু এর বৃদ্ধিতে সবচেয়ে বেশি কার্যকর, কারণ একেক জনের ত্বক একেক রকম হবার কারণে একেকটা জিনিসের প্রভাব একেকভাবে পড়ে। আপনার ত্বক আপনার চেয়ে ভাল কেউ বুঝবেনা তাই নিজের ত্বক বুঝে যত্ন নিন- আপনার জন্য শুভকামনা।

লিখেছেনঃ ফোয়ারা ফেরদৌস

ছবিঃ ইন্টারনেট