চুলের আগা ফাটা প্রতিরোধ হবে এখন খুব সহজে ৫টি উপায়ে! চুলের আগা ফাটা প্রতিরোধ হবে এখন খুব সহজে ৫টি উপায়ে!

চুলের আগা ফাটা প্রতিরোধ হবে এখন খুব সহজে ৫টি উপায়ে!

লিখেছেন - এ্যনি মে ১৪, ২০১৩

চুলের আগা ফেটে যাওয়া (split end) একটি বড় সমস্যা। কি করলে আমরা এর থেকে পরিত্রাণ পেতে পারি? অনেকে বলেন যে চুল ফেটে গেলেই তা না কেটে বড় হতে দেওয়ার জন্য! এতে নাকি ফাটা চুল জোড়া লেগে যায়। কি আজব কথা যে মানুষ বলতে পারে! চুলের আগা একবার ফেটে গেলে তা আর কখনো জোড়া লাগে না। তাই ফাতা চুল জোড়া লাগবে এই আশাই বসে থাকবেন না। বরং চুলের আগা ফাটা প্রতিরোধ করতে তা কেটে ফেলবেন। নিচে পাঁচটি টিপস দেয়া হল যার মাধ্যমে আপনি পাবেন সুস্থ, split ends বিহীন সুন্দর চুল।

চুলের আগা ফাটা প্রতিরোধ করতে করনীয়

১. গোসলের পর আমরা অনেকেই তোয়ালে দিয়ে চুল পেচিয়ে বেধে রাখি শুকানোর জন্য। চুল থেকে পানি দূর করার জন্য সবচেয়ে ভাল উপায় হচ্ছে গোসলের সময়ই হাত দিয়ে চিপে পানি বের করে ফেলা। এরপর তোয়ালের পরিবর্তে কোন নরম কাপড় (টি-শার্ট বা সুতি কাপড়) দিয়ে চিপে অতিরিক্ত পানি শুকিয়ে ফেলা। ভেজা চুল কখনোই পেচিয়ে বাধা উচিত নয়।

২. চুলে হেয়ার ড্রায়ার বা আয়রন ব্যবহার করার আগে অবশ্যই হিট প্রটেক্টর স্প্রে করে নিন। আপনার চুলের আগা যদি অলরেডি ফেটে গিয়ে থাকে তবে মনে রাখবেন যে চুলে হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করা আপনার জন্য নিষিদ্ধ।

চুলের আগা ফাটা প্রতিরোধে আয়রন ব্যবহার করার আগে হিট প্রটেক্টর স্প্রে ব্যবহার - shajgoj.com

৩. কখনোই ভেজা চুল ইলাস্টিক রাবার ব্যন্ড দিয়ে বাধবেন না। এমন হেয়ার ব্যন্ড বা ক্লিপ ব্যবহার করুন যেটা আপনার চুলে আটকে যাবে না।

৪. কন্ডিশনার কেনার সময় এমন কন্ডিশনার বেছে নিন যেটা আপনার চুলকে ময়েশ্চারাইজ করে চুলকে শুষ্কতা থেকে রক্ষা করবে।

৫. শুকনো চুলে নিয়মিত অয়েল মেসেজ করুন, এতে চুলের আর্দ্রতা বজায় থাকবে এবং চুল শুষ্ক ও রুক্ষ হয়ে যাবে না।

চুলের আগা ফাটা প্রতিরোধে তেল ব্যবহার - shajgoj.com

এই সাধারণ টিপসগুলোর পাশাপাশি মাঝে মাঝে পার্লার এ গিয়ে চুলের আগা ট্রিম করে আসুন, তাহলে আপনি রক্ষা পাবেন আগা ফাটা থেকে আর আপনার চুল হবে সুস্থ, সুন্দর। তাছাড়া চুলে গরম পানি ব্যবহার করবেন না, এতে চুলের তন্তুগুলো তাদের আদ্রতা হারাতে থাকে। ফলাফল হয় এই যে, আপনার চুল লালছে হয়ে যায় এবং চুলের আগা ফাটা বাড়তে থাকে।

 

ছবিঃ ইমেজেসবাজার.কম