প্রাইভেট পার্টের যত্ন নিতে ৫টি সিম্পল ও ইফেক্টিভ সল্যুশন!

প্রাইভেট পার্টের যত্ন নিতে ৫টি সিম্পল ও ইফেক্টিভ সল্যুশন!

Untitled-2-Recovered-Recovered-Recovered-Recovered-Recovered

আমরা মেয়েরা রেগুলার লাইফে আমাদের ফেইস, চুল বা হাত-পায়ের যতটা যত্ন নেই, আমাদের প্রাইভেট পার্ট বা ভ্যাজাইনার যত্ন নিতে তার ১% সময়ও রাখি না! কিন্তু প্রাইভেট পার্ট আমাদের শরীরের সবথেকে সেনসিটিভ পার্ট। আমাদের অসচেতনতার জন্য এই গুরুত্বপূর্ণ অংশে হতে পারে ইনফেকশন, ইচিং সহ বিভিন্ন রকম সমস্যা। তাই প্রাইভেট পার্টের যত্ন নিতে আমাদের একটু বেশি কেয়ারফুল থাকতে হবে। ফিমেল হাইজিনের এই ইম্পরট্যান্ট টপিক নিয়ে আজকের ফিচার।

প্রাইভেট পার্টের যত্ন কীভাবে নিবো?

অনেকেই জানেন না কী করা উচিত এবং কী করা উচিত না! কীভাবে টেককেয়ার করতে হবে প্রাইভেট পার্টের, এটা নিয়ে অনেকেরই ধারণা নেই যেহেতু এই টপিক নিয়ে খুব বেশি কথা হয় না৷ সারাদিন আন্ডারগার্মেন্টস পরে থাকা, ঘাম, মেন্সট্রুয়াল ব্লাড সবকিছুর কারণে অনেক সময় এই এরিয়াতে ইচিং বা বিভিন্ন প্রবলেম হতে পারে। কী করলে ফিমেল ভ্যাজাইনা এরিয়া বা প্রাইভেট পার্ট থাকবে সেইফ ও হেলদি, সেটা জেনে নিন তাহলে।

১. ইন্টিমেট ওয়াশ দিয়ে ক্লিন করা

আমরা ফেইসের ত্বকের জন্য যেমন ফেইস ওয়াশ, চুলের জন্য শ্যাম্পু আবার বডির জন্য বডি ওয়াশ ব্যবহার করি, ঠিক তেমনই প্রাইভেট পার্টের জন্য ভালো একটা ইন্টিমেট ওয়াশ ব্যবহার করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। খুব বেশি পারফিউম ও অ্যালকোহলযুক্ত প্রোডাক্টস আমাদের প্রাইভেট পার্টের পিএইচ ব্যালেন্স নষ্ট করতে পারে। আর এটা থেকে ইনফেকশন ও ইচিং হতে পারে। ইন্টিমেট ওয়াশ নিয়ে যদি আমার অভিজ্ঞতা শেয়ার করি, তাহলে আমার পারসোনালি ভালো লাগে Sebamed Intimate Wash PH3.8, এই ইন্টিমেট ওয়াশটি ১৫ বছর বয়স থেকেই ব্যবহার করা যাবে৷ এটি প্রাইভেট পার্টকে জেন্টলি ক্লিন করে এবং ময়েশ্চারাইজড রাখে।

 

সাবান ব্যবহার করা যাবে না?

নরমালি আমাদের প্রাইভেট পার্টের পিএইচ ৩.৫-৪.৫ পর্যন্ত হয়। তাই এমন প্রোডাক্টস বেছে নিতে হবে যার পিএইচ কম। অনেকে খুব বেশি পারফিউমযুক্ত ও উচ্চ মাত্রায় ক্ষার আছে, এমন সাবান ব্যবহার করেন। এতে প্রাইভেট পার্টের উপকারী ব্যাকটেরিয়া নষ্ট হয়ে গিয়ে ইনফেকশন হতে পারে৷ তাই এই ধরনের হার্শ সোপ ব্যবহার না করে সেনসিটিভ বডি পার্টের জন্য ব্যবহার করতে হবে পারফিউম ফ্রি লো পিএইচ সমৃদ্ধ ইন্টিমেট ওয়াশ।

২. সঠিক আন্ডারগার্মেন্টস সিলেকশন

আন্ডারগার্মেন্টস তো একটা হলেই হলো, এটাতে আবার এত সিলেকশনের কি আছে!’ এটাই ভাবছেন, তাই তো? আল্টিমেট কমফোর্টের জন্য অবশ্যই রাইট আন্ডারগার্মেন্টস সিলেক্ট করতে হবে৷ পেন্টি সিলেক্ট করার সময় কয়েকটা জিনিস খেয়াল রাখতে হবে। যেমন-

  • ফেব্রিকস কেমন ও সেটা আরামদায়ক কিনা সেটা বুঝে নিন
  • পারফেক্ট সাইজ কিনছেন কিনা, সেটাও দেখে নিন
  • খুব বেশি লুজ অথবা খুব বেশি টাইট আন্ডারগার্মেন্টস ব্যবহার না করাই ভালো
  • কটন বেইজড পেন্টি রেগুলার ব্যবহারের জন্য বেশ ভালো অপশন
  • সফট ম্যাটেরিয়াল ও সহজেই ওয়াশ করা যায় এমন পেন্টি কিনুন

রেগুলার ইউজের জন্য আমার পছন্দ Valene Classic Panty, Valene All Weather Super Soft Cotton panty, Valene Summer Day Breathable Lacy Panty। আমি অনলাইনে সাজগোজ থেকেই ইনার ওয়্যার কিনি, ওয়েবসাইটে বিভিন্ন ভ্যারাইটির পেন্টি আছে, আপনারাও দেখে নিতে পারেন! Valene এর আন্ডারগার্মেন্টস সারাদিন ব্যবহার করলেও আনকমফোর্টেবল ফিল হয় না৷ খুবই সফট আর আরামদায়ক অনুভূতি পাবেন। পেন্টি লাইন বোঝা যায় না, তাই জিন্স বা লেগিংস দিয়ে ইজিলি পরা যায়।

৩. প্রাইভেট পার্টের যত্ন নিতে বেসিক ক্লিনিং

প্রাইভেট পার্টের হাইজিন মেনটেইনের জন্য কয়েকটা বিষয় মাথায় রাখতে হবে। যেমন- আন্ডারগার্মেন্টস ভালোভাবে শুকানো এবং পরিস্কার রাখা যাতে কোনো ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণ না হয়, পিরিয়ডের সময় ৪-৬ ঘণ্টা পর পর স্যানিটারি ন্যাপকিন বদলানো, ডেইলি আন্ডারগার্মেন্টস চেঞ্জ করা, এক্সারসাইজের পর কাপড় চেঞ্জ করা। প্রাইভেট পার্টের যত্ন নিতে বেসিক ক্লিনিং রুটিন মেনে চলা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

৪. ডায়েটের দিকেও ফোকাস দিন

মেয়েদের ভ্যাজাইনাতে অনেক উপকারী ব্যাকটেরিয়া থাকে যা এই এরিয়াকে প্রোটেক্ট করে৷ এমন কিছু খাবার ডায়েটে অ্যাড করা যেতে পারে যেগুলো এই উপকারী ব্যাকটেরিয়ার প্রোডাকশন বাড়িয়ে আমাদের প্রাইভেট পার্টকে রাখবে হেলদি৷ আয়রন সমৃদ্ধ গ্রিন ভেজিটেবল যেমন পালং শাক, বাঁধাকপি প্রাইভেট পার্টের রক্ত সঞ্চালন বাড়াতে সাহায্য করে। লেবু, কমলা প্রয়োজনীয় পরিমাণে ভিটামিন সি সরবরাহ করে, যা ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করে। এছাড়াও কাঠবাদাম খেলে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ই পাওয়া যায় যা প্রাইভেট পার্টের ড্রাইনেস প্রিভেন্ট করে।

৫. ঘরে বসে করে নিন এক্সারসাইজ

কেগেল এক্সারসাইজ আমাদের ভ্যাজাইনার পেলভিক ফ্লোর মাসলকে শক্তিশালী করতে সাহায্য করে। এছাড়াও এই এক্সারসাইজগুলো ইউটেরাস, ওভারিকে ভালো রাখতে বেশ হেল্পফুল। তাই রেগুলার এক্সারসাইজের সাথে কেগেল করার অভ্যাস করতে হবে। ইন্টারনেটে বিগেনারদের জন্য অনেক টিউটোরিয়াল আছে, সেগুলো দেখে বাসাতেই প্র্যাকটিস করে নিতে পারেন।

বডির অন্যান্য অংশের মতো প্রাইভেট পার্টও আমাদের নরমাল একটা বডি পার্ট। কিছুটা লজ্জা বা অবহেলার কারণে আমরা এই সেনসিটিভ বডি পার্টের যত্ন নিতে প্রায় ভুলেই যাই। যার ফলে ব্যাকটেরিয়াল বা ইস্ট ইনফেকশনের ঝুঁকি বাড়ে। তাই নিজের প্রাইভেট পার্ট নিয়ে নিজেকেই সচেতন থাকতে হবে এবং পারসোনাল হাইজিন মেনটেইন করতে হবে৷ ফিমেল হাইজিনের জন্য বিভিন্ন প্রোডাক্ট ও বেস্ট কোয়ালিটির ব্রা-পেন্টি কিনতে পারেন সাজগোজ থেকেই। অনলাইনে অথেনটিক প্রোডাক্ট কিনতে পারেন শপ.সাজগোজ.কম থেকে অথবা সাজগোজের ৪টি শপ- যমুনা ফিউচার পার্ক, বেইলি রোডের ক্যাপিটাল সিরাজ সেন্টার, উত্তরার পদ্মনগর ( জমজম টাওয়ারের বিপরীতে) ও সীমান্ত সম্ভার থেকেও বেছে নিতে পারেন আপনার পছন্দের প্রোডাক্টটি।

ছবি- সাটারস্টক, সাজগোজ, হেলথলাইন

24 I like it
0 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...