বাংলা প্রেমের সিনেমা | ছুটির দিনটি আনন্দে কাটুক সেরা ৩টি মুভি দেখে বাংলা প্রেমের সিনেমা | ছুটির দিনটি আনন্দে কাটুক সেরা ৩টি মুভি দেখে

বাংলা প্রেমের সিনেমা | ছুটির দিনটি আনন্দে কাটুক ৩টি সেরা মুভিতে

লিখেছেন - মোহছেনা দেওয়ান পৃথিল এপ্রিল ২০, ২০১৯

আপনার কাছে সেরা বাংলা প্রেমের সিনেমা কোনগুলো? আচ্ছা কয়েকটা গানের লাইন বলি…

“তুমি এসেছিলে পরশু, কাল কেন আসো নি, তুমি কি আমায় বন্ধু কাল ভালবাসো নি…”

“সব সখীরে পার করিতে নেবো আনা আনা, তোমার বেলায় নেবো সখী তোমার কানের সোনা সখী গো…”

“আকাশ টা কে কাগজ করে, হৃদয়ের ই আবেগ ভরে চিঠি লিখে দিলাম…তোমার ই আছি থাকব তোমার…”

পুরনো কিছু বাংলা সিনেমার গান। । কিন্তু আবেগ ও অনুভুতি একদম একই রয়ে গেছে।। ভালবাসার মানুষের জন্য মন থেকে গাওয়া গান, যা সবাইকেই কল্পনার জগতে নিয়ে যায়। তারমধ্যে যদি আপনি একজন রোম্যান্টিক মানুষ হয়ে থাকেন তাহলে তো কথাই নেই। রোম্যান্টিক মানুষেরা অন্যদের চেয়ে একটু বেশিই আবেগপ্রবণ হয়ে থাকেন। এজন্য বাস্তব জীবনে অনেকেই তাদের মনের খোরাক যোগাতে ব্যর্থ হয়। তাই বলে তো আর নিজে মুখ গোমড়া করে বসে থাকলে চলবে না, নিজেকে ভাল রাখতে নিজেকেই কোমরে আঁচল বেঁধে নেমে যেতে হবে। সেই ভাল থাকার লড়াই শুরু করার আগে ও পরে ভাল কিছু গান, কবিতা, বই আর সিনেমাই পারে তাদের মনে অনুপ্রেরণা যোগাতে। আর সেইগুলো যদি রোম্যান্টিক কিছু হয় তাহলে তো কথাই নেই।

তাই সেইসব মানুষদের জন্য তিনটি মিষ্টি এবং আবেগভরা বাংলা প্রেমের সিনেমা সম্পর্কে জানাতেই আজকের এই লিখার আয়োজন।

সেরা বাংলা প্রেমের সিনেমা

১. গহীন বালুচর

বাংলা প্রেমের সিনেমা গহীন বালুচর - shajgoj.com

ইদানিংকালের কোন বাংলা প্রেমের সিনেমা ও এর নাম বলতে গেলে প্রথমেই এই সিনেমার নাম মুখে আসে। এক নায়ক দুই নায়িকা, এই ত্রিভুজ প্রেমের গল্পে শুধুমাত্র প্রেম ই মুখ্য বিষয় নয়। বরং রয়েছে চরের জেগে ওঠা জমি নিয়ে দুই পক্ষের তুমুল বিরোধ, অতীত শত্রুতা আর বিশ্বাসঘাতকতার গল্প। দুই পরিবার, দল আর গ্রামের মানুষের নিজস্ব প্রতিপত্তি নিয়ে যুদ্ধের মাঝে দুটি প্রেমিক মন নিজেদের একটা ছোট্ট ঘর বাঁধার স্বপ্ন দেখে, ভালবাসার নদীতে সাঁতরে একটা আশ্রয়ে পৌঁছাতে চায়। কিন্তু অপরদিকে এসব সম্পর্কে কিছুই না জেনে এক রূপসী ঘর বাঁধতে চায় এই গল্পের নায়কের সঙ্গে। স্বপ্ন দেখে সাদা ফুলের, পড়তে চায় বেনারসি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত কি হবে এই ত্রিমুখী প্রেমের পরিণতি তা জানতে হলে সিনেমা টি দেখতে হবে।

সিনেমায় অভিনয় করেছেন সুবর্ণা মুস্তাফা, ফজলুর রহমান বাবু, জিতু আহসান, রাইসুল ইসলাম আসাদ, আবু হুরাইরা তানভীর, নীলাঞ্জনা নীলাসহ আরো অনেক অভিনয়শিল্পী।

২. তাঁরকাটা

বাংলা প্রেমের সিনেমা তাঁরকাটা - shajgoj.com

যারা আরেফিন শুভকে খুব পছন্দ করেন তাদের এই সিনেমা না দেখাই ভাল! কারণ সম্পূর্ণ সিনেমা জুড়েই নায়কের যে কষ্ট দেখানো হয়েছে তা আরেফিন শুভর ফ্যানদের জন্য সহ্য করা সত্যিই বেশ কঠিন। জীবনের অনেক পরিস্থিতিতেই লোকে আমাদের অবিশ্বাস করে, কষ্ট দেয় কিন্তু সেই অবিশ্বাস যদি নিজের সবচাইতে প্রিয় মানুষের কাছে পাওয়া হয় তাহলে তা নিয়ে বেঁচে থাকাটা চ্যালেঞ্জ এর ব্যাপার। নাহ, এখানে প্রিয় মানুষটি নায়কের মা বা প্রেমিকা নন। এত জায়গায় আঘাত পাওয়া সত্ত্বেও নায়কের কোমল হৃদয় পচে যায়নি। আড়ালে থেকেও সে ভালবাসার মানুষটিকে জনপ্রিয়তার তুঙ্গে তুলতে সমস্ত চেষ্টাই করে যায়। কিছু মানুষ যে সারাজীবনই ত্যাগ করে যায় তার প্রমাণ সম্পূর্ণ গল্পে বিশেষ করে শেষে যেয়ে অনুধাবন করা যায়।

যারা অভিনয় করেছেনঃ আরেফিন শুভ, বিদ্যা সিনহা মীম, মৌসুমি, এজাজুল ইসলামসহ আরো গুণী শিল্পীরা।

৩. কৃষ্ণপক্ষ

বাংলা প্রেমের সিনেমা কৃষ্ণপক্ষ - shajgoj.com

কালজয়ী গল্পকার, ঔপন্যাসিক এবং পরিচালক হুমায়ুন আহমেদ এর বই ‘কৃষ্ণপক্ষ’ থেকে বানানো সিনেমা, যা পরিচালনা করেছেন তাঁর স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন। পরিচালনায় তিনিও দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন। শিল্পী নির্বাচন থেকে শুরু করে চিত্রনাট্যের গাঁথুনি সম্পূর্ণ সিনেমাতেই ছিল রুচির পরিচয়। সিনেমা পুরোটাই মূল বইয়ের সাথে মিল রেখে করা হলেও শেষটায় পরিচালক নিজের সৃজনশীলতার ছাপটুকু একটু ভিন্নভাবে রেখে দিয়েছেন।

ছোটবেলা থেকেই বড় বোনের সংসারে অবহেলায় বড় হওয়া সহজ সরল মুহিবের প্রেম হয় অতি রূপবতী তরুণী অরুর সাথে। তারপর পরিবারের কাওকে না জানিয়ে কাজি অফিসে গিয়ে বিয়ে করে তারা। মুহিবের দুলাভাই এর কল্যাণে চিটাগং এ একটা ভাল চাকরী হয় মুহিবের। কিন্তু সেই চাকরীতে যাওয়াই কাল হয়ে দাড়ায় মুহিব আর অরুর জীবনে। শেষ পর্যন্ত একসাথে সংসার করা কি হয়ে উঠবে তাদের? কখনোই সুখ না পাওয়া মুহিব কি পারবে এবার সুখী হতে? মুহিব কি জানতে পারবে অরু বাসর রাতের পরদিন সকালে ঘুমন্ত মুহিবের চুলে হাত বুলাতে বুলাতে কি এমন  অসহ্য সুন্দর এক কথা বলেছিল?

চমৎকার এই গল্পে অভিনয় করেছেন তানিয়া আহমেদ, আজাদ আবুল কালাম, ফেরদৌস আহমেদ, রিয়াজ এবং মাহিয়া মাহি।

বাংলা প্রেমের সিনেমা নিয়ে শেষকথা

বাংলা সিনেমা মানেই যে গাঁজাখুরি গল্প, ফালতু নাচ-গান আর উদ্ভট পোশাক নয়, তা এই সিনেমা তিনটি দেখলেই বুঝতে পারবেন। সবগুলো সিনেমাই রুচিকর গল্প, অভিজ্ঞ অভিনয়শিল্পী, সুদক্ষ পরিচালকের হাতে তৈরি। দেখে নিরাশ হবেন না এবং খুব সুন্দর কিছু সময় কাটাবেন তার নিশ্চয়তা দিচ্ছি কারণ প্রতিটা সিনেমাই রিলিজ হবার পর হলে যেয়ে দেখা আমার। আপনারা চাইলে এখন ইউটিউব এবং অন্যান্য মাধ্যমেও দেখতে পারেন।

 

আজ এই পর্যন্তই। পরবর্তী পর্বে আরো কিছু ভাল ভাল সিনেমার গল্প নিয়ে লিখবো। সাজগোজের সঙ্গেই থাকুন ।

 

ছবি- সংগৃহীত: সাজগোজ