বাজেটের মধ্যে চোখের মেক-আপ সামগ্রী - Shajgoj

বাজেটের মধ্যে চোখের মেক-আপ সামগ্রী

eye makeup

চোখ মুখের একটি অংশ। মেক-আপের ক্ষেত্রে চোখের সাজটি সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। পার্লারে সাজতে গেলে চোখের সাজে অর্ধেক সময় চলে যায়। আজকের পোস্টটি হলো কম দামে ভালো আই প্রোডাক্ট অথবা বলতে পারেন নাম করা কস্মেটিক্স ব্র্যান্ড এর মত কাজ করে এমন কিছু ড্রাগস্টোর আই মেক-আপ সামগ্রী নিয়ে। বাংলাদেশে এখনও খুব ভালো কোন কস্মেটিক্স ব্র্যান্ড সেভাবে গড়ে উঠেনি বলে আমরা পুরোপুরি বাইরের দেশের কস্মেটিক্সের উপর নির্ভরশীল। বাংলাদেশ অনেক বিদেশি ব্র্যান্ড এর আই প্রোডাক্ট পাওয়া যায়। কিন্তু আজকাল সুপার স্টোর গুলোতেও নকল প্রোডাক্ট বিক্রি করে। একটি ব্যক্তিগত ঘটনা শেয়ার করি আপনাদের সাথে। একটি সুপার স্টোর থেকে আমি Revlon এর আই পেন্সিল কিনেছিলাম। যেটার USA তে দাম $৭+ (প্রায় সব মিলে ৮০০ টাকার মত), কিন্তু আমি কিনেছি শুধু ২৫০ টাকায়। আই পেন্সিলের গায়ে লেখাও ছিলও made by USA! বুঝতেই পারছেন আই পেন্সিলটি নকল ছিল। এবার আসা যাক আই মেক-আপ করতে কি কি লাগবে?? প্রাথমিক ভাবে অথবা শেখার জন্য আই প্রাইমার অথবা আই শেড বেস, আই শেড, মাস্কারা, আই লাস কারলার, আই লাইনার, কয়েকটা আই শেড পেন্সিল কিনলে ভালো হয়।

আই প্রাইমারঃ

অনেক সময় আই শেড পিগমেন্টেড হয় না, চোখে ঠিক মত বসে না, অনেক পাওডারি হয়। এসব থেকে মুক্তির জন্য আই প্রাইমার। আই প্রাইমার অল্প একটু দিয়ে চোখের সাজ করলে উপরের সমস্যা তো থাকবেই না, বরং সাজটা অনেকক্ষণ থাকবে ( প্রায় ৫-১০ ঘণ্টা) এবং ছড়িয়ে যাবে না। কম দামের মধ্যে ২/৩ টা ভালো ব্র্যান্ডের আই প্রাইমার আছে, যেগুলো MAC, URBAN DECAY এর মত নাম করা ব্র্যান্ডের আই প্রাইমারের মত কাজ করে।

০১. MUA EYE PRIMER ( দাম ৩০০-৬০০)

০২. ELF eyelid primer ( দাম ১৬০-২৫০)

০৩. NYX Base (দাম ৭০০-৯০০)

elf

আই বেসঃ

আই বেস অনেকটা আই প্রাইমারের পরিপূরক হিসেবে কাজ করে। যাদের, আই প্রাইমার নেই অথবা স্মোকি আই অথবা পার্টি আই মেক-আপ করতে চান তারা আই বেস কিনতে পারেন। আই বেস বলতে আমি প্রধানত আই পেন্সিল কেই বোঝাচ্ছি। স্মোকি আই এর জন্য কালো আই পেন্সিলের কোন তুলনা নেই। তাছাড়া মেরুন, নীল, সবুজ, সাদা এসব রঙের আই পেন্সিল আপনার সংগ্রহে রাখতে পারেন।

০১. Nyx jumbo pencil Milk ( আই বেস যেকোনো রঙের জন্য )

০২. Nyx jumbo pencil ( অনেক রঙ আছে, পছন্দ মত নিতে পারেন )

jumbo

দাম ৬০০-৮০০ টাকা

আই শেডঃ

আই শেডের কথা বলতে গেলে অনেক অপশন আছে কম দামের মধ্যে। ELF, NYX, REVLON, LOREAL, Maybelline, MUA,WET n Wild, Coastal Scents, BH। আপনি চাইলে একটি আই শেড কিনতে পারবেন, আবার ৩, ৪, ৮ এমনকি ১২০ টি আই শেডেরও পেলেট কিনতে পারবেন। আমি মনে করি এক্সপেরিমেন্ট করার জন্য অথবা সব রঙ এক সাথে পাওয়ার জন্য একটি ১২০ কালার আই শেড পেলেট কেনা উচিত। আই শেড গুলো বেশি পিগ্মেন্টেড না হলেও আই প্রাইমার দিয়ে কাজ ভালোই চালানো যায়।

০১. Wet n Wild color icon collection ( ৩ টা শেড , দাম ৩৫০-৫০০,৮ শেড ৬০০-৯০০ টাকা)

০২. BH অথবা Coastal Scents ১২০ পেলেট ( দাম ১৫০০-৩০০০ টাকা)

০৩. BH অথবা Coastal Scents স্মোকি পেলেট (দাম ১৫০০-৩০০০ টাকা)

০৪. Nyx single shadow ( দাম ৭০০-৮০০ টাকা )

০৫. Loreal infallible eye shadow ( দাম ৮০০-১০০০ টাকা)

০৬. MUA Pallet ( দাম ৬৫০-৮০০ টাকা)

০৭. ELF ব্র্যান্ড এর বিভিন্নও দামে পেলেট পাওয়া যায়। (দাম ১২০-৩০০০ টাকা)

০৮. Maybelline tattoo eye shadow ( দাম ৮০০-১০০০ টাকা)

plt

মাসকারাঃ

মাসকারা Maybelline, Covergirl , Loreal এর অনেক ভালো। তাছাড়া আরও কিছু ব্র্যান্ড আছে। এক একটা মাসকারা একেক রকম কাজ করে, কোনটা পাপড়ি বড় করে, কোনটা পাপড়ি ভলিউম করে।

০১. Covergirl LastBlast Volume mascara (দাম ৭০০-১০০০ টাকা)

০২. Maybelline Great Lash mascara (দাম ৫০০-৭০০ টাকা)

০৩. Covergirl professional all in one curved mascara (দাম ৫০০-৭০০ টাকা)

০৪. Maybelline Volume Express tha falsies (দাম ৭০০-১০০০ টাকা)

০৫. Loreal voluminous curved brush volume building mascara (দাম ১০০০ টাকার মত)

covergirl

আই লাইনারঃ

চোখের সাজের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ। চোখে লাইনিং করতে পারেন লিকুইড আই লাইনার, পেন্সিল আই লাইনার অথবা ক্রিম আই লাইনার দিয়ে। ক্রিম আই লাইনার দিয়ে দিলে ব্রাশ ব্যবহার করতে হয় এবং কাজলের রঙ গাঢ় হয়। যেভাবে খুশি সেইভাবে চোখ লাইনিং করা যায়।

লিকুইড আই লাইনারঃ

০১. Revlon Colorstay liquid eyeliner (দাম ৭০০-১০০০ টাকা)

০২ .Wet n Wild eye liner (দাম ৪০০-৫০০ টাকা)

পেন্সিল অথবা রোলার আই লাইনারঃ

০১. Revlon Colorstay eyeliner (দাম ৭০০-১০০০ টাকা)

০২. Loreal Infallible never fall eye liner (দাম ১০০০-১৪০০ টাকা)

০৩. Maybelline eye studio pencil eye liner (দাম ৭০০-৮০০ টাকা)

ক্রিম আই লাইনারঃ

০১. ELF cream eye liner (দাম ৪০০-৬০০ টাকা)

০২. Wet n Wild gel eye liner (দাম ৩৫০-৬০০ টাকা)

০৩. Maybelline eye studio lasting drama (দাম ৮০০-১১০০ টাকা)

Gel-Eyeliner

আইল্যাশ কার্লারঃ

আইল্যাশ কার্লার পাপড়িকে কার্ল করে, যাতে পাপড়ি বড় দেখায় এবং চোখের সাজটা সুন্দর হয়। Amazon, Ebay তে নন ব্র্যান্ড আইল্যাশ কার্লার পাওয়া যায়। যেগুলো মানে ভালো। তাছাড়া ELF এর আইল্যাশ কার্লারও অনেক ভালো। দাম ২০০-২৫০ টাকার মধ্যে।

eyelash curler

আই শেড পেন্সিলঃ

কয়েকটা আই শেড পেন্সিল অথবা রঙীন আই লাইনার কিনে ফেলুন। চোখ সাজাতে সুবিধা হবে।

০১. Nyx jumbo pencil (দাম ৬০০-৮০০ টাকা)

০২. Mua pencil eye liner (দাম ১৫০-২০০ টাকা)

০৩. Jordana or jackline eye pencil liner ( দাম ৭০-১০০ টাকা)

shadow-pencils

আই ব্রাশঃ

চোখের সাজ করতে প্রয়োজন পরবে ক্রিজ ব্রাশ, ব্লেন্ডিং ব্রাশ, স্পঞ্জ ব্রাশ, আই লাইনার ব্রাশ, এঙ্গেল আই লাইনার ব্রাশ। প্রথম অবস্থায় কাজ চালানোর জন্য ELF ব্রাশ ভালো। এক একটির দাম প্রায় ১২০-২০০ টাকা।

brushes 01

আশা করি পোস্টটি ভালো লাগবে। ধন্যবাদ সবাইকে।

লিখেছেনঃ তাপসী

ছবিঃ পাউটপারফেকশান.কম, মাইফ্রেন্ডসঅনলাইন.কম, টার্গেট.কম, টোটালবিউটি.কম, ড্রাগস্টোরপ্রিন্সেস.কম, ভ্যানিটিট্রোভ.কম, এপিটমিঅফগার্লস.ওয়ার্ডপ্রেস.কম, মিউজিংসঅফঅ্যামিউজিং.কম

4 I like it
3 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...