বিশ্ব ভালোবাসা দিবস ও বসন্তকে বরণের প্রস্তুতি - Shajgoj বিশ্ব ভালোবাসা দিবস ও বসন্তকে বরণের প্রস্তুতি - Shajgoj

বিশ্ব ভালোবাসা দিবস ও বসন্তকে বরণের প্রস্তুতি

ফেব্রুয়ারী ৮, ২০১৫

দক্ষিণী হাওয়া জানান দিচ্ছে বসন্ত বার্তা মানে এবার শীতের পালা শেষ, আসছে বসন্ত। এই বসন্তকে বরণ করবে পহেলা ফাল্গুন। বসন্ত মানেই প্রেমের মাস, প্রকৃতি সাজতে শুরু করে এক নতুন রূপে। প্রকৃতি থেকে শুরু করে সর্ব জীবের মধ্যে বিরাজ করে প্রেমের বার্তা। ভালোবাসা প্রকাশের দিন ১৪ই ফেব্রুয়ারী মানে বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। এই দিনটি শুধু ভালোবাসা দেওয়া-নেওয়ার দিন। এই দিনটি তরুণ-তরুণী থেকে শুরু করে প্রবীনদের কাছেও গুরুত্বপূর্ণ একটি দিন। আর পর পর এই দুটি দিন বাঙালিরা মনের মত করে উদযাপন ও উপভোগ করে। হাতে আর বেশি সময় নেই। পহেলা ফাল্গুন ও ১৪ই ফেব্রুয়ারী দোরগোড়ায়। আপনি অবশ্যই চাইবেন এই বিশেষ দুই দিনে আপনাকে আকর্ষনীয় এবং পারফেক্ট লাগুক। তাই পহেলা ফাল্গুন ও ১৪ই ফেব্রুয়ারী জন্য আজই নিজেকে প্রস্তুত করে ফেলুন। যাতে আপনারা আগে থেকে প্রস্তুত হতে পারেন, তাই একটু সুবিধার জন্য আজকের এই লেখাটি।

পোশাক বাছাইঃ

আগে থাকতেই পোশাক নির্বাচনের কাজটি করে ফেলতে হবে। ঋতু পরিবর্তনের কথা মাথায় রেখে দেশীয় ফ্যাশন হাউসগুলো তৈরি করেছে নানা রঙের বসন্তের পোশাক ও ভ্যালেন্টাইনের উপযোগী পোশাক। এতে রয়েছে শাড়ি , সালোয়ার-কামিজ, ফতুয়া, পাঞ্জাবি, টি-শার্ট ইত্যাদি। এসব পোশাকে রয়েছে যেন বসন্তের ছোঁয়া। ফাল্গুনকে ঘিরে পোশাকগুলোতে কাজ করা হয়েছে নানা ব্লক, টাইডাই, স্প্রে ব্লক, কারচুপি ইত্যাদি। যেহেতু আমরা বাঙালী তাই আমাদের কাছে শাড়িটাই বেশি প্রাধান্য পায়। আর শাড়িতেই বাঙালি নারীদের আসল সৌন্দর্য ধরা দেয়। তাই আপনি চোখ বুজে শাড়ি বেছে নিতে পারেন। সুতি থেকে শুরু করে তাঁত, কোটা, সিল্ক, হাফ সিল্ক, শিফন এমনকি কাতানের শাড়ি বা জামদানি শাড়িতেও পাবেন বসন্তের ছোয়া আর তার সাথে ট্রাডিশন লুক।

গয়না বাছাইঃ

পোশাকটা বাছাই হয়ে গেলে চিন্তা আসে গয়না নিয়ে। পোশাকটা বাছাই হয়ে গেলে চিন্তা আসে গয়না নিয়ে। চিন্তার কোন কারণ নেই আছে সহজ সমাধান।পহেলা ফাল্গুনের জন্য নিতে পারেন বাসন্তী রঙের তাজা ফুলের গয়না। কিন্তু ফুলের গয়না খুব বেশি পরতে যাবেন না। অযথা বেশি ফুলের গয়না খুব বেশি ভালো লাগবে না। খোঁপায় গুঁজে নিন কিছু ফুল এবং হাতে পেঁচিয়ে নিতে পারেন একটি মালা। কিন্তু এই সব গয়না আগে থাকতে নিজের পছন্দ অনুযায়ী অর্ডার করিয়ে বানিয়ে নিলে ভালো হবে। আপনি চাইলে মাটির কিংবা এন্টিক গয়না বেছে নিতে পারেন নিজের জন্য। ভ্যালেন্টাইন ডে তে রাতের বেলার জন্য নিতে পারেন স্টোন বা পার্লের গয়না।

ত্বকের যত্নঃ

অনুষ্ঠানের আগে পার্লারে বা ঘরে বসে আপনার ত্বকের উপযোগী ফেসিয়াল করিয়ে ফেলুন। ফর্সা ও দাগ বিহীন ত্বকের জন্য করিয়ে নিতে পারেন ব্লিচ বা ফেস পলিশ। ঘরোয়া উপায়ে কয়েকটি কার্যকারী ফেস প্যাক করে নিতে পারেন।

-এক চা চামচ লেবুর রস, এক চিমটি হলুদ গুঁড়া, আধা চা চামচ বেসন মিশিয়ে ত্বকে লাগান, দশ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

 -একটি ছোট আলুর অর্ধেক বেটে নিন, এর সাথে আধ চিমটি হলুদ গুঁড়া, ১ চা চমচ মধু যোগ করে মুখে লাগান। শুকিয়ে গেলে তুলার প্যাড দিয়ে মুছে ধুয়ে ফেলুন।

 -এক চা চামচ লেবুর রস, এক চিমটি হলুদ গুঁড়া, আধা চা চামচ তাজা শশার রস মিশিয়ে মুখে লাগান। পনের মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

 হাত-পায়ের যত্নঃ

হাত-পায়ের যত্নের জন্য করিয়ে নিন ম্যানিকিউর -প্যাডিকিউর। অনুষ্ঠানের আগের দিন নেলপলিশ পরে রাখুন। হাত পায়ের কালো দাগ দূর করতে নিচের দেওয়া প্যাক টি ব্যবহার করুন।

 প্রথমে এক চামচ হলুদ গুঁড়ার সাথে ১ চা চামচ লেবুর রস ও এলোভেরা কেটে জেলো বের করে মিশিয়ে পেস্ট করে নিন। এটি হাত পায়ের লাগিয়ে ৩০ মিনিট অপেক্ষা করুন।৩০ মিনিট পর লেবুর রস দিয়ে ঘষে তুলে নিয়ে ঠান্ডা পানিতে হাত পা ধুয়ে নিন।

চুলঃ

চুলে যদি কোন নতুন হেয়ার কাট করানোর ইচ্ছা থাকে তাহলে আজি করিয়ে ফেলুন , কারণ চুলটা সেট হতে সময় লাগে। বা যদি চুল বেশি কাটা হয়ে যায় তাহলেও এই কয়দিনে বড় হয়ে যাবে। আবার অনেকে চুলে কালার করার ইচ্ছাটাও মনে পুষে রেখেছেন। তাহলে আর দেরি কেন? নিজের পছন্দ অনুযায়ী কালার করে ফেলুন। প্রতিবার কালার করার আগে মনে রাখতে হবে অনুষ্ঠানের কমপক্ষে ৪-৫ দিন আগে কালার করাটাই ভালো। কারণ আমরা যখন কালার করি তখন কালারটা খুব ডিপ থাকে। এটা আস্তে আস্তে বা কয়েক বার ধোয়ার পর কালারের সঠিক শেড আসে বা কালারটি আপনার পছন্দ না হলে রিমুভ করার সময়ও হাতে পাবেন।

সঙ্গে রাখুনঃ

যেহেতু এই দুদিন আউটডোর প্ল্যানটাই বেশি থাকে, তাই বাইরে যাওয়ার আগে অবশ্যই ব্যাগের ভিতর পানির বোতল রাখুন কারণ বাইরের রোদের তাপও প্রচুর। আপনার শাল বা সোয়েটারটি মনে করে রাখুন। আর নিজেকে সব সময় পারফেক্ট রাখার জন্য কিছু টুকিটাকি নিজের সাথে রাখুন। যেমন কমপ্যাক্ট পাউডার, কাজল, লিপস্টিক, চিরুনি, ছোট একটি আয়না, পাঞ্চ ক্লিপ, টিস্যু পেপার। কেউ যদি প্রিয়জনকে কোন Surprise Dinner এ নিয়ে যেতে চান তাহলে আগে থাকতে আপনার পছন্দের রেস্তোরায় বুকিং দিয়ে রাখুন।

লিখেছেনঃ  জুঁই শতাব্দী

ছবিঃ গুডফন.এসইউ