স্কিন ও হেয়ার কেয়ারে সিসেমি অয়েল বা তিলের তেলের উপকারিতা জানেন কি?

স্কিন ও হেয়ার কেয়ারে সিসেমি অয়েল বা তিলের তেলের উপকারিতা জানেন কি?

2 (27)

সিসেমি অয়েল বা তিলের তেল রান্নার পাশাপাশি রূপচর্চায় ব্যবহার হয় বিভিন্নভাবে। স্কিন এবং হেয়ার কেয়ারে রয়েছে এর অনেক বেনেফিট, যেটা আমাদের অনেকেরই অজানা। অনেকটা ম্যাজিকের মতই আপনার ত্বক ও চুলের নানান সমস্যার সমাধান দেয় এটি, কিন্তু নারকেল তেল বা ক্যাস্টর অয়েলের মত তেমন প্রচলিত না এই তেলটি। প্রাচীন আয়ুর্বেদেও সিসেমি অয়েল বা তিলের তেল দিয়ে রূপচর্চার নানা টোটকা পাওয়া যায়। চলুন ত্বক ও চুলের জন্য সিসেমি অয়েলের ব্যবহার জেনে নেয়া যাক, সেই সাথে কী কী গুণাগুণ আছে এর সেটাও আমরা জেনে নিবো।

তিলের তেলের নানান গুণ

তিলের তেলে থাকা ভিটামিন এবং মিনারেলস শরীরের জন্য যেমন ভালো, তেমনি চুল আর ত্বকের যত্নে এর অনেক ধরনের উপকারিতা রয়েছে। তিলের তেলে আছে ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়াম, আয়রন, প্রোটিন, ভিটামিন ই, ভিটামিন বি কমপ্লেক্স। আর অ্যান্টি-অক্সিডেন্টে ভরপুর হওয়ায় এটা প্রাকৃতিকভাবেই আপনার ত্বক ও চুলের বিভিন্ন সমস্যার সল্যুশনে দারুন কার্যকরী ভূমিকা রাখে। কিন্তু এর বেনিফিটস আমরা অনেকেই জানি না!

ত্বকের জন্য তিলের তেল

স্কিনকে ময়েশ্চারাইজড রাখার পাশাপাশি একনে, রিঙ্কেল কমাতে দারুন কাজ করে এটি। ড্রাই স্কিনের যত্নে সিসেমি অয়েল মাস্ট হ্যাভ! চলুন স্কিন কেয়ারে এর বেনিফিটগুলো জেনে নেই।

• অ্যান্টি ইনফ্ল্যামেটরি ও অ্যান্টি ব্যাক্টেরিয়াল প্রোপারটিজযুক্ত হওয়ায় আমাদের ত্বককে বিভিন্ন ধরনের ইনফেকশন থেকে রক্ষা করে।
• নিয়মিত ব্যবহার করলে ত্বকের ড্যামেজ রিপেয়ার হয়। আর এটি ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখে।
• বডি ম্যাসাজ অয়েল হিসাবে দারুন কাজ করে, ম্যাসাজের ফলে শরীরে রক্ত চলাচল বৃদ্ধি পায়।
• একনের প্রাদুর্ভাব কমাতে হেল্প করে কেননা এতে অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল প্রোপারটিজ রয়েছে।
• এই তেল সানবার্ন, ফাইন লাইন্স আর রিঙ্কেলস কমানোর ন্যাচারাল সল্যুশন হিসাবে কাজ করে।
• গোসলের পর জাস্ট কয়েক ফোঁটা সিসেমি অয়েল হাত পায়ে লাগিয়ে নিলে স্কিন সফট থাকে।

চুলের যত্নে তিলের তেল

চুলের যত্নে তিলের তেল বেশ জনপ্রিয়। এই তেলে থাকা বিভিন্ন ধরনের ফ্যাটি অ্যাসিড চুলের যত্নে প্রয়োজনীয় ভূমিকা রাখে। বিভিন্ন হেয়ার প্যাকে ও অয়েল ম্যাসাজের সময় এই তেলটি ইউজ করা যেতে পারে। এর উপকারিতাগুলো কি জানা আছে? চলুন একনজরে দেখে নেই হেয়ার কেয়ারে সিসেমি অয়েলের ম্যাজিকগুলো কী কী!

• তিলের তেলে থাকা ফ্যাটি অ্যাসিড চুলের রুক্ষভাব কমিয়ে আনে।
• তিলের তেল চুলকে ন্যাচারালি কালো করে থাকে, অকালপক্কতা রোধ করতে দারুন কার্যকরী এটি।
• এই তেল হেয়ার গ্রোথ বাড়াতে হেল্প করে কেননা এতে আছে প্রয়োজনীয় মিনারেলস ও ভিটামিন।
• চুলের গোঁড়ায় ম্যাসাজ করলে হেয়ার ফলিকল মজবুত হয়, স্ক্যাল্পের রক্ত চলাচল বৃদ্ধি পায়।
• রাফনেস ও ড্রাই হেয়ারের সমস্যা দূর করে চুলকে শাইনি ও হেলদি রাখে।

জেনে রাখা ভালো

তিলের তেলে পাওয়ারফুল অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল অয়েল থাকায় ডেন্টাল হেলথের জন্যও এটি বেশ ভালো কাজ করে। দাঁত সাদা করতে এটি ইউজ করতে পারেন। আর সিসেমি সিড অয়েলের একটা প্রোপার্টিজ হচ্ছে এটা সানব্লকের কাজ করে, অর্থাৎ সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি থেকে ন্যাচারালি সুরক্ষা দিতে পারে, যদিও খুবই মাইল্ড।

তিলের তেল কোথায় পাবেন?

এই প্রশ্নটাই মাথায় ঘুরপাক খাচ্ছে, তাই তো? খাঁটি তিলের তেল কোথায় পাবো? তিলের তেল যেহেতু স্কিনে আর হেয়ারে অ্যাপ্লাই করবেন, তাই ১০০% ন্যাচারাল অয়েল ইউজ করাই ভালো। Skin Cafe 100% Natural Sesame Oil আমার খুবই পছন্দের যা ১০০% ন্যাচারাল উপাদান দিয়ে তৈরি। আমি হাত পায়ের যত্নে ও হেয়ার কেয়ারে মাস্কের সাথে বা অয়েল ম্যাসাজের সময় নারকেল তেলের সাথে মিক্স করে এই তেলটি ইউজ করছি অনেকদিন ধরেই। বেশ উপকার পেয়েছি, আপনারাও একবার ট্রাই করে দেখুন।

তাহলে জেনে নিলেন সিসেমি অয়েলের নানান গুণ সম্পর্কে! একনে প্রবলেম, সানবার্ন থেকে শুরু করে অকালে চুল পেকে যাওয়ার মত নানান সমস্যার সমাধান দেয় সিসেমি অয়েল। অথেনটিক প্রোডাক্ট কিনতে চাইলে আপনারা সাজগোজের দুটি ফিজিক্যাল শপ ভিজিট করতে পারেন, যার একটি যমুনা ফিউচার পার্ক ও অপরটি সীমান্ত সম্ভারে অবস্থিত। আর অনলাইনে কিনতে চাইলে শপ.সাজগোজ.কম থেকে কিনতে পারেন। বিউটি রিলেটেড যেকোনো সাজেশনের জন্য সাজগোজ সবসময়ই আপনার পাশে আছে। ভালো থাকবেন।

ছবি- সাজগোজ

5 I like it
0 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...