প্যানকেক মেকাপ সমাচার - Shajgoj

প্যানকেক মেকাপ সমাচার

mf1

প্যানকেক মেকাপ, অসম্ভব রকমের পরিচিত প্রসাধনী, অন্তত পক্ষে বাংলাদেশে। বিউটি সেলুন গুলো থেকে শুরু করে নিজেদের কাছেও কমপক্ষে একটা প্যানকেক থাকেই। অনেককেই দেখা যায় মেকাপ বলতে প্যানকেক-কেই বুঝেন। কেউ কেউ হয়তো এমন ও আছেন যিনি জীবনের প্রথম মেকাপ শুরু করেছেনই প্যানকেক দিয়ে। এক কথায় আমাদের দেশে প্যানকেকের ব্যবহার ও প্রচলন ব্যাপক। কিন্তু প্রশ্ন হল, প্যানকেক কে আমরা যেভাবে চিনি ব্যবহার করি সেটা কি ঠিক আছে, নাকি আমাদের কোথাও ভুল হচ্ছে ???

সহজ ভাষায় বলতে গেলে, প্যানকেক মেকাপ সাধারণত প্লাস্টিক অথবা টিনের প্যানে কেকের মত ফর্মে বাজারজাতকারীরা বাজারজাত করে থাকেন। তাই এর নাম প্যানকেক মেকাপ। এটি ওয়াটার বেইসড হয় যা শুধুমাত্র পানির সাথে মেশানোর মাধ্যমেই ব্যবহার করতে হয় বা করা যায়। মজার ব্যাপার হল প্যানকেক পানি মিশিয়ে ব্যবহার করলেও মেকাপ সেট হওয়ার পর তা মোটামুটি ওয়াটারপ্রুফ মেকাপে রূপ নেয়। এছাড়াও প্যানকেক দিয়ে ইচ্ছেমত কাভারেজ তৈরি করা যায় যা দীর্ঘস্থায়ী।

প্যানকেক প্রথম যে জন্য তৈরি করা হয় তা হলো থিয়েটার মেকাপ। ব্যাপক অর্থে , নাট্‌ সিনেমা, মডেলিং, ফটোশুট ইত্যাদি যেসব কাজে অত্যাধিক মেকাপ কখনও বা কল্পিত মেকাপের প্রয়োজন হয়। সাধারণত এসব ক্ষেত্রে যারা কাজ করেন তাঁদের হাই ভোল্টেজ লাইট ও হিটের নিচে অথবা পানিতে থাকতে হয় যার কারণে মেকআপও হতে হয় সেরকম শক্ত-পোক্ত। শুরু থেকে এখন পর্যন্ত প্যানকেকের কাজ এ ধরনের কাজেই ব্যবহার করা হয় আর এজন্যই থিয়েটার মেকাপে প্যানকেকের বিকল্প নেই।

আমাদের দেশের বিউটি সেলুন গুলোতে বিয়ের মেকাপে প্যানকেক অনিবার্য প্রোডাক্ট, সেটা মেনে নেয়া যায় কারণ বিয়ের কনে কে বেশ কিছুটা কঠিন পরিবেশ সামাল দিতে হয় বিয়েতে, কান্না-কাটি আর ছবি তোলা তো আছেই। কিন্তু আপনি যদি আপনার দৈনন্দিন মেকাপের জন্য প্যানকেক ব্যবহার করেন তাহলে সেটা মোটেও ঠিক নয়। প্রথমত, প্যানকেক আপনার ত্বকের পুরোটা স্বাভাবিক রূপ ঢেকে ফেলে। দ্বিতীয়ত, প্যানকেক এক ধরনের সাদা শেড দেয় তা আপনি যত দক্ষতার সাথেই ব্যবহার করুন না কেন যা সাধারণ আলোতে এবং ক্যামেরায় অস্বাভাবিক দেখায়। সুতরাং, যদি আপনার দৈনন্দিন মেকাপ তালিকায় প্যানকেক থেকে থাকে তাহলে তা আজই বাদ দিন। প্যানকেকের ব্যবহারকে এখনকার সময়ে ‘ওল্ড স্কুল’ মেকাপ হিসেবে নেয়া হয় কারণ এখন বাজারে আপনার ত্বকের স্বাভাবিক ভাব বজায় রেখে এবং সব ধরনের অসামঞ্জস্যতা ঢেকে ফেলার মত প্রোডাক্টের অভাব নেই।

যাই হোক, যেহেতু আজকের লেখা প্যানকেক নিয়ে তাই প্যানকেক সম্পর্কেই বলি… বাজারে প্যানকেকের ব্র্যান্ড ও শেডের অভাব নেই। সাদা থেকে শুরু করে গোলাপি, সবুজ, হলুদ, পীচ, কালো, কমলা এরকম ১০০+ শেডের প্যানকেক পাওয়া যায় যেহেতু একজন মেকাপ আর্টিস্টই জানেন তার কী ধরনের শেডের প্রয়োজন হতে পারে। যেকোনো ধরনের এক্সট্রীম মেকাপের জন্য সব রঙের প্যানকেক বাজারে পাওয়া যায়। ইদানীং কালে অয়েল বেসড প্যানকেকও পাওয়া যাচ্ছে। প্যানকেক কিনতে হলে আপনাকে যেতে হবে সেসব দোকানে যারা থিয়েটার মেকাপের সামগ্রী বিক্রি করেন। ভালো প্যানকেক ব্র্যান্ডের তালিকায় নাম রয়েছে Kryolan, Mehron, Ben Nye, Cinema Secrets, Graftobian, Max Factor ইত্যাদির।

প্যানকেকের ব্যবহারের ক্ষেত্রে সবসময় দক্ষ হাতের প্রয়োজন। একজন দক্ষ মেকাপ আর্টিস্ট ছাড়া সঠিক ভাবে প্যানকেকও তার বিভিন্ন শেডের অ্যাপ্লাই কখনই সম্ভব না। তারপরও, মেকাপ কোন রকেট সাইন্স নয়, আপনিও অনুশীলনের মাধ্যমে প্যানকেকের ব্যবহার শিখতে পারেন, কিন্তু সেটা কমপক্ষে নিজের জন্য হলেও আপনার নিজের স্কিন টোন এর সাথে কালার ম্যাচিং নিয়ে বেশ কিছুটা এক্সপেরিমেন্ট আপনাকে করতে হবে। যদি এমন কোন সময় আসে যে আপনার প্রয়োজন পরে প্যানকেক ব্যাবহারের আর সেরকম পরিবেশ না থেকে থাকে যে আপনি কোন মেকাপ আর্টিস্টের সাহায্য নিতে পারছেন না, সেক্ষেত্রে কী করবেন ?? অবশ্যই সেরকম পরিস্থিতির জন্য আপনাকে তৈরি থাকতে হবে আগে থেকেই। আপনার জানা থাকতে হবে কী কী শেডের প্যানকেক আপনার দরকার।

প্যানকেক ব্যবহারে আগে ত্বক কে একটু সময় দিয়ে ব্যবহার উপযোগী করে নিতে হয়। প্রথমেই স্কিন এক্সফোলিয়েট করে নিন। এরপর ময়েশ্চারাইজার দিয়ে নিন। ত্বকে ময়েশ্চারাইজার সেট হওয়ার জন্য ২/৫ মিনিট সময় দিয়ে তারপর প্যানকেক এপ্লাই করুন। স্পঞ্জ পাফ পানিতে ভিজিয়ে প্যানকেক ব্যবহার করতে হয় সেক্ষেত্রে বরফ ঠাণ্ডা পানি হলে সবচেয়ে ভালো হবে, আপনার মেকাপ বেশিক্ষণ স্থায়ী হবে। স্পঞ্জ পানিতে ভিজিয়ে অতিরিক্ত পানি চিপে ফেলে ভেজা স্পঞ্জ দিয়ে প্যানকেক নিয়ে (যে যে শেড আপনার দরকার তা একসাথে প্যানেই মিশিয়ে নিবেন) সমান ভাবে পুরো মুখে লাগিয়ে নিন। একবারে পুরু করে না লাগিয়ে হালকা করে স্তরে স্তরে লাগান এবং প্রতি বার পাফ করার আগে মুখে পানি স্প্রে করে নিন, এতে এপ্লিকেশন সমান হবে। শেষে যেকোনো সেটিং পাউডার ডাস্ট করে নিন এবং আবার পানি স্প্রে করুন মুখে সব কিছু একসাথে সেট হওয়ার জন্য। বলা বাহুল্য, সমান ভাবে প্যানকেক ব্লেন্ড করতে হলে আপনার অনেকটা অনুশীলনের প্রয়োজন হবে। প্যানকেক সেট হতে ১০/১৫ মিনিট সময় নেয় তাই এর পরেই বুঝতে পারবেন যে আপনার অ্যাপ্লিকেশন আর কালার ম্যাচিং কতটা ভালো হয়েছে।

পরিশেষে বলতে চাই, যতটা পারবেন প্যানকেক এড়িয়ে চলুন আপনার দৈনন্দিন মেকাপের জন্য। প্যানকেক খুব সহজে ত্বকের লোমকূপ বন্ধ করে দেয় তাই নানা রকম ত্বকের সমস্যা দেখা দিতে পারে। আর যদি তা ব্যবহার করেই থাকেন তাহলে দিন /ইভেন্ট শেষে ভালো ভাবে পরিষ্কার করতে ভুলবেন না। প্যানকেক রিমুভ করতে বেবি অয়েল বা অয়েল বেসড ক্লিনজার ভালো কাজ করে। অয়েল /ক্লিনজার দিয়ে পরিষ্কার করে সবচেয়ে ভালো হয় যদি উষ্ণ পানি দিয়ে ভালো ভাবে গোসল সেরে নিতে পারেন তাহলে চুলের দিকে থেকে যাওয়া মেকাপও পরিষ্কার হয়ে যাবে।

এ ধরনের ভারী মেকাপ আপনার ত্বককে শুষ্ক করে তুলতে পারে তাই সম্ভব হলে ইভেন্ট এর পরদিন ত্বকের বাড়তি যত্ন নিন।

 লিখেছেনঃ তামান্না ইসলাম

ছবিঃ পিঙ্কলেডিবিউটি.কম

4 I like it
0 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...