খুশকিমুক্ত লম্বা চুল পেতে পারফেক্ট ১টি হেয়ার অয়েল

খুশকিমুক্ত লম্বা চুল পেতে পারফেক্ট ১টি হেয়ার অয়েল

খুশকিমুক্ত লম্বা চুল - shajgoj.com

সুস্থ সুন্দর চুলের আকাঙ্ক্ষা সকল নারীর। কিন্তু চুলের একটি বড় সমস্যা হচ্ছে খুশকি। এর ফলে স্ক্যাল্পে প্রচুর চুলকানি হয়, চুল পড়ে এমনকি অনেক ক্ষেত্রে মুখে ব্রণও দেখা দেয়। তবে খুশকি যত বিব্রতকর সমস্যাই হোক না কেন, এর জন্যেও রয়েছে সহজ সমাধান। খুশকি থেকে নিস্তার লাভের জন্য আপনি নিজেই ঘরে তৈরি করুন হেয়ার অয়েল। যা আপনার খুশকির সমস্যা দূরীকরণের পাশাপাশি আপনার চুলকে আরও দীঘল আর ঘন করে তুলবে। আজ খুশকিমুক্ত লম্বা চুল পেতে তেমনই এক হেয়ার অয়েল রেসিপি নিয়ে আলোচনা করব।

খুশকিমুক্ত লম্বা চুল পেতে পারফেক্ট ১টি হেয়ার অয়েল

প্রয়োজনীয় উপকরণ

১. নারিকেল তেল

২. মেথি দানা

৩. কারিপাতা

৪. অ্যালোভেরা

পরিমাণ

নারিকেল তেল ১০০ মি. লি. , ২০ গ্রাম মেথি দানা, এক মুঠো কারিপাতা (সুপার শপ গুলোতে পাবেন), ২০ গ্রাম সমপরিমাণ অ্যালোভেরা।

পদ্ধতি

১. প্রথমে একটি অ্যালোভেরা পাতা ভালভাবে ধুয়ে নিয়ে চারপাশের সবুজ অংশ ফেলে দিয়ে ভেতরের নরম পিচ্ছিল ট্রান্সপারেন্ট অংশটি কেটে ছোটো ছোটো করে টুকরো করে নিন।

২. এক মুঠো কারিপাতা নিয়ে পানি দিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে নিন। তারপর পানি ঝরিয়ে নিন। অথবা পরিষ্কার কাপড় দিয়ে মুছে নিন।

৩. তারপর চুলোয় একটি পাত্র বসিয়ে মধ্য আঁচে গরম করুন। সামান্য গরম হয়ে তাতে নারিকেল তেল দিয়ে দিন। তিন মিনিটের জন্য গরম করুন।

৪. নারিকেল তেল গরম হয়ে গেলে এতে সম্পূর্ণ মেথি দানা দিয়ে দিন। চুলায় খুব অল্প আঁচে দিয়ে রাখুন যেনো মেথি দানা পুড়ে না যায়। চাইলে চামচ দিয়ে কিছুক্ষণ পর পর নেড়ে দিতে পারেন। এভাবে কিছু সময়ের জন্য রাখুন।

৫. এবার কারিপাতা দিয়ে দিন। চাইলে অল্প অল্প করে দিতে পারেন। আমি একসাথেই সবগুলো পাতা দিয়ে দিই।

৬. অ্যালোভেরা টুকরোগুলোও তেলে দিয়ে নাড়তে থাকুন। আস্তে আস্তে টুকরোগুলো ছোট হতে থাকবে। এভাবে নাড়তে থাকুন যতক্ষণ পর্যন্ত না কারিপাতা ড্রাই হয়ে যায় এবং অ্যালোভেরার টুকরা ছোটো হয়ে যায়। তবে পুড়ে ফেলবেন না।

৭. তেল হয়ে গেলে তা ঠান্ডা করে নিন। তারপর ভালভাবে ছেঁকে নিয়ে কাঁচের বোতলে সংরক্ষণ করুন। কাঁচের বোতলে তেলের গুণগত মান বজায় থাকে। প্লাস্টিকের বোতলে রাখলে অল্প দিনেই তেল নষ্ট হয়ে যায়।

ব্যবহার পদ্ধতি

সপ্তাহে দুই থেকে তিনবার রাতে স্ক্যাল্পসহ পুরো চুলে এই তেলটি ব্যবহার করুন। পরের দিন কোনো ভালোমানের শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। কন্ডিশনার লাগান। ম্যাসাজ অয়েল হিসেবেও এই তেল ব্যবহারযোগ্য। বাচ্চাদের জন্যও এই হেয়ার অয়েলটি উপযোগী।

উপকারিতা

  • কারিপাতায় রয়েছে আয়রন, ভিটামিন সি, ফসফরাস। তাই এই তেল ব্যবহারে আপনি পাবেন ঘন চুল। তাছাড়া চুল গোড়া থেকে মজবুত হয় বিধায় চুল পড়া কমে। ফিরে পাওয়া যায় স্বাস্থ্যৌজ্জ্বল ঘন চুল।
  • অ্যালোভেরা খুশকি দূর করে। এতে যেই গ্লাইকোপ্রোটিন নামক এন্টি ইনফ্ল্যামেটোরি কম্পাউন্ডস রয়েছে, তা খুশকি জনিত চুলকানি দূর করে।
  • মেথি দানা নিকোটিনিক এসিড ও প্রোটিনের ভালো উৎস হিসেবে কাজ করে। চুলে ফিরিয়ে আনে প্রাকৃতিক উজ্জ্বলতা।

সতর্কতা

১. এই তেলটিতে ব্যবহৃত উপাদানে এলার্জি থাকলে, তেলটি ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন।

২. চুল ধোয়ার সময় উপযুক্ত শ্যাম্পু বেছে নিন। যাদের খুব চুল পড়ে খুশকির সমস্যায় এন্টি ড্যানড্রাফ শ্যাম্পু ব্যবহারে সতর্কতা অবলম্বন করুন। কেননা অনেক ক্ষেত্রে এন্টি ড্যানড্রাফ শ্যাম্পু ব্যবহারে আরও বেশি পরিমাণে চুল পড়তে পারে।

এই তো জেনে ফেললেন খুশকিমুক্ত লম্বা চুল পেতে পারফেক্ট ১টি হেয়ার অয়েল এর ব্যবহার ও উপকারিতা নিয়ে বিস্তারিত। এখন থেকে চুলের যত্ন হোক আর ভালো ভাবে।

ছবি – সংগৃহীতঃ সাজগোজ.কম

4 I like it
0 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...