ফ্যাশনে হিজাব | মার্জিত ও ট্রেন্ডি লুক একসাথেই!

ফ্যাশনে হিজাব | মার্জিত ও ট্রেন্ডি লুক একসাথেই!

hijab

হিজাব করলে মন মত ফ্যাশন বা ট্রেন্ড ফলো করা যায় না! এমনটা আমরা অনেকেই ভাবি। তাই না? অথচ এ ধারনাটি কিন্তু একদমই ঠিক নয়। পর্দা করার জন্য মুলত হিজাব ব্যবহার করা হলেও চুল এবং ত্বকের সুরক্ষায়ও হিজাবের উপকারিতার শেষ নেই। বিশেষ করে এই গরম কালে হিজাব ব্যবহারে বাইরের রোদ, ধুলাবালি, সূর্যরশ্মি থেকে পাওয়া যায় লম্বা সময়ের জন্যে সুরক্ষা। কিন্তু সুরক্ষার পাশাপাশি এ সময় হিজাবিদের চুলের সমস্যাও কিন্তু বেড়ে যায় অনেক বেশি। তাই আজকের লিখায় আমরা জেনে নিব, এই গরমেও মার্জিত ও ট্রেন্ডি লুক এর পাশাপাশি চুলকে কীভাবে রাখা যাবে ড্যামেজ ফ্রি সেটা নিয়ে।

এই গরমে হিজাবের সাথেও কীভাবে ক্যারি করবেন মডেস্ট লুক?

এই গরমের মধ্যে সারাদিন হিজাব পরে কাটানোই বেশ কষ্ট সাধ্য ব্যাপার। তাই, হিজাবের সাথে সাথে বাকি কাপড় চোপড়ও হতে হবে আরামদায়ক। হিজাবিদের মধ্যে অনেকেই হিজাবের সাথে আবায়া পরতে পছন্দ করেন। পাশাপাশি, মডেস্ট স্টাইলটকেও গুরুত্ব দেয়া জরুরি। তাই চলুন জেনে নেই এই অসহনীয় গরমে হিজাবের সাথে কী ধরণের লুক মেইনটেইন করলে এই গরম একটু হলেও সহনীয় হবে।

• হিজাবের সাথে “আবায়া” অথবা “কিমোনো” হতে পারে রাইট চয়েজ

হিজাবিদের মধ্যে অনেকেই এই ড্রেস দুটির নামের সাথে পরিচিত। স্পেশালি যারা একটু ওয়েস্টার্ন লুক প্রেফার করেন, এই গরমে আবায়া অথবা কিমোনো হতে পারে একদম বেস্ট চয়েজ।

• সিলেক্ট করুন লং শার্ট, কটি, সুতি বা লিনেন ফ্যাব্রিক

হিজাবিদের মধ্যে অনেককেই নানা কাজে এই গরমে বাইরে বের হয়। তাছাড়া অফিস থাকলেতো কথাই নেই। এই সময় মডেস্ট লুকের পাশাপাশি আরামদায়ক পোশাক হবে, লং শার্ট, সুতি বা লিনেন ফ্যাব্রিক। সাথে কটিও পরতে পারেন, দেখতে ভালোই লাগবে।

• হারেখ, হাই ওয়েস্ট বা জেগিংস হতে পারে মানানসই ও স্টাইলিশ 

লং শার্ট, সুতি বা লিনেন ফ্যাব্রিক এর সাথে মানানসই প্যান্ট হিসেবে, হারেখ, হাই ওয়েস্ট বা জেগিংস চয়েজ করতে পারেন। এ ধরনের পোশাক এই গরমে একি সাথে যেমন হবে কাজের জন্য আরামদায়ক তেমনি দিবে স্টাইলিশ লুকও।

• হিজাবের কাপড় হিসেবে বেছে নিন লিনেন, সিল্ক বা ফ্রিঙ্কেল এর কাপড়

এই গরমে লিনেন, সিল্ক বা কিংবা ফ্রিঙ্কেল এর হিজাব হতে পারে বেশ আরামদায়ক। গরমের মধ্যে এমন কাপড় বাছাই করা ভাল যা দিয়ে সহজেই বাতাস চলাচল করতে পারবে।

• পোশাক এবং হিজাবের কালার রাখুন ভিন্ন ভিন্ন

হিজাবের সাথে পরিধেয় পোশাকটি যদি একটু হালকা কালারের হয় তাহলে হিজাবের কালার একটু ডিপ রাখুন। একই ভাবে যদি হিজাবের সাথে পরিধেয় পোশাকটির কালার ডিপ বা ডার্ক হয় তবে তার সাথে হালকা কালারের হিজাব পরার চেষ্টা করুন।

• শার্ট বা টি-শার্ট এর সাথে বেছে নিন কালারফুল স্কার্ট

গরমের সময় খুবই ট্রেন্ডি এবং সহজে পরিধানযোগ্য পোশাক হতে পারে শার্ট বা টি-শার্ট এর সাথে কালারফুল কোন স্কার্ট। হিজাবের সাথে কালারফুল স্কার্ট একি সাথে যেমন দিবে খুব ট্রেন্ডি লুক তেমনি এই গরমে হবে খুব আরামদায়কও।

• হিজাবের সাথে স্নিকার বা হাই হিল পরতে চেষ্টা করুন

হিজাব লুকের সাথে যে যার পছন্দ অনুযায়ী হাই হিল বা স্নিকার পরতে পারেন। এতে একি সাথে পাবেন ডিফারেন্ট এবং কনফিডেন্ট লুক।

• মেকআপ ঠিক রাখতে ময়েশ্চারাইজার, প্রাইমার এবং সেটিং পাউডার মাস্ট 

এই গরমে এমনিতেই মেকআপ ঠিক থাকে না। তার উপর যারা হিজাব পরেন তাদের কষ্ট আরও বেশি। অন্যান্য সময় মেকআপ করার আগে প্রাইমার বা ময়েশ্চারাইজার স্কিপ করলেও গরমের এ সময়টায় মেকআপ লুক ঠিকঠাক রাখতে অবশ্যই ময়েশ্চারাইজার, প্রাইমার এবং সেটিং স্প্রে ব্যবহার করতে হবে। সেটিং পাউডার ব্যবহারে অয়েল-ফ্রি লুক থাকবে দিনভর।

এইতো, জেনে নিলাম এই গরমেও হিজাবের সাথে কীভাবে ক্যারি করা যায় মডেস্ট লুক তা নিয়ে। পাশাপাশি হিজাবের সাথে কেমন ড্রেসআপ এবং গেট আপ ভাল মানাবে তা নিয়েও।

সেলফ কনফিডেন্স ঠিক রাখতে হেলদি স্কিন এবং হেলদি চুল

তবে যেকোনো প্রোপার ড্রেসআপ আর গেটআপের পাশাপাশি আরও সবচেয়ে বেশি যেটা প্রয়োজন তা হল, সেলফ কনফিডেন্স। সেলফ কনফিডেন্স ঠিক না থাকলে যতই ট্রেন্ডি কিংবা আরামদায়ক পোশাকই পরা হোক না কেন দেখতে ভাল লাগবে না।

আর এই সেলফ কনফিডেন্স  ঠিক রাখতে হেলদি চুল এবং হেলদি স্কিনের কোন তুলনা নেই। হিজাবিদের মধ্যে অনেকের মাঝেই এই সেলফ কনফিডেন্স এর ঘাটতি দেখা যায়। এর কারণ, সঠিক ভাবে হিজাবিরা তাদের চুল এবং ত্বকের যত্ন নিতে অনীহা করেন। তবে ত্বকের তুলনায় অনেক বেশি ঝামেলায় পরতে হয় চুল নিয়ে। যেহেতু, হিজাব পরার ফলে লম্বা সময়ের জন্যে চুল এবং মাথা ঢাকা অবস্থায় থাকে ফলে, এই গরমে স্বাভাবিক ভাবেই মাথার স্ক্যাল্পের তাপমাত্রা বেড়ে যায়। এতে করে, চুলের গোঁড়া ঘেমে তেল চিটচিটে ভাব দেখা দেয়া সহ ইচিং, খুশকির মত সমস্যাও বেড়ে যায় অনেক। তাই সবার জন্যেতো বটেই তবে, স্পেশালি যারা হিজাব পরেন তাদের জন্যে প্রয়োজন চুলের এক্সট্রা যত্ন। তাই, ছোট্ট করে চলুন একটু জেনে নেই হিজাবিদের হেয়ার কেয়ার কেমন হতে পারে তা নিয়ে।

হেলদি হেয়ার পেতে হিজাবিদের করনীয় কী?

হিজাবিদের জন্য চুলের এক্সট্রা কেয়ার নেওয়াটা খুবই প্রয়োজন। খুব সহজে ঘরোয়াভাবে সাপ্তাহিক হেয়ার কেয়ার করে নিতে পারেন। যেমন,

১) স্ক্যাল্পে রক্ত সঞ্চালন বাড়াতে সপ্তাহে ১-২ দিন নারকেল তেলের সাথে কয়েক ফোঁটা ক্যাস্টর অয়েল বা আমন্ড অয়েল দিয়ে মাথার তালু আলতোভাবে ম্যাসাজ করে নিন।

২) সাপ্তাহিক হেয়ার কেয়ার রুটিনে অ্যাড করুন হোমমেড হেয়ার প্যাক। যেমন, মেহেদি, টকদই, লেবুর রস দিয়ে প্যাক বানিয়ে চুলে লাগাতে পারেন সপ্তাহে ১ থেকে ২বার। এর ফলে ইচিং এবং খুশকির সমস্যা অনেকটাই কমে আসবে।

৩) এছাড়াও হিজাবিদের সপ্তাহে অন্তত তিন থেকে চার দিন বা প্রয়োজন বুঝে নিয়মিত ভালো মানের শ্যাম্পু ব্যবহার করতে হবে। মার্কেটে এখন একেক সমস্যাকে টার্গেট করে পাওয়া যায় নানা ধরণের শ্যাম্পু। হিজাবিরা নিশ্চিন্তে ব্যবহার করতে পারেন ক্লিয়ার হিজাব পিওর অ্যান্টি ড্যানড্রাফ এন্ড অ্যান্টি লিম্প শ্যাম্পুটি।

চলুন ছোট্ট করে জেনে নেয়া যাক ক্লিয়ার হিজাব পিওর অ্যান্টি ড্যানড্রাফ এন্ড অ্যান্টি লিম্প শ্যাম্পুটি নিয়ে।

ক্লিয়ার হিজাব পিওর অ্যান্টি ড্যানড্রাফ এন্ড অ্যান্টি লিম্প শ্যাম্পুর উপকারিতা

১) ক্লিয়ার হিজাব পিওর অ্যান্টি ড্যানড্রাফ এন্ড অ্যান্টি লিম্প শ্যাম্পুতে থাকা সোডিয়াম ক্লোরাইড বা লবণ আমাদের মাথার স্ক্যাল্পের ডেডসেল বা মৃতকোষগুলো ক্লিন করতে দারুণ কার্যকরী।

২) আমাদের অনেকের মাথার স্ক্যাল্প ড্রাই হয়ে থাকে। এই শ্যাম্পুতে থাকা সোডিয়াম স্যালিসাইলেট, মাথার ত্বকের অতিরিক্ত শুষ্কতা এবং রুক্ষতার সল্যুশন দিতে হেল্প করে। এবং ময়েশ্চার লেভেল ঠিক রেখে মাথার স্ক্যাল্পকে হাইড্রেটেড রাখে।

৩) এছাড়াও ক্লিয়ার হিজাব পিওর অ্যান্টি ড্যানড্রাফ এন্ড অ্যান্টি লিম্প শ্যাম্পুতে রয়েছে মাইসেলার ওয়াটার ও মিন্ট। আরও রয়েছে শিয়া সিড অয়েল এবং সানফ্লাওয়ার অয়েল। যা আমাদের স্ক্যাল্পে জমে থাকা খুশকি দূর করার পাশাপাশি চুলকে রাখে হেলদি।

৪) প্রোটিনসমৃদ্ধ এই শ্যাম্পু মাথার ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রেখে চুলকে কোমল ও মসৃণ করতে অনেকটাই হেল্প করে।

আশেপাশে একটু নজর দিলেই দেখা যাবে, হিজাবের সাথেও চলতি ফ্যাশনে নিজেকে সাজিয়ে নিচ্ছে যে যার মন মত। আশা করছি আজকের এই লেখাটি পরে যারা হিজাবের সাথে সুন্দর মার্জিত এবং ট্রেন্ডি লুক প্রেফার করেন তাদের কিছুটা হলেও উপকার হবে। পাশাপাশি যারা হিজাব পরেন এবং হেয়ার কেয়ারের জন্যে ভাল একটি শ্যাম্পু খুঁজছিলেন তারাও একটি ভালোমানের শ্যাম্পু নিয়ে জানতে পারলেন। আজ তাহলে এ পর্যন্তই। সবাই ভাল থাকবেন এবং ফ্যাশন ট্রেন্ড মেইনটেইন করার পাশাপাশি নিজের যত্ন নিতে অবশ্যই ভুলবেন না।

স্কিন ও হেয়ার কেয়ারের জন্য অথেক্টিক প্রোডাক্ট আপনারা চাইলে সাজগোজের দুটি ফিজিক্যাল শপ ভিজিট করতে পারেন, যার একটি যমুনা ফিউচার পার্ক ও অপরটি সীমান্ত স্কয়ারে অবস্থিত। আর অনলাইনে কিনতে চাইলে শপ.সাজগোজ.কম থেকে কিনতে পারেন।

ছবি- সাজগোজ, সাটারস্টক

15 I like it
2 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...