ঘরে বসেই হেয়ার স্পা করে নিন স্বল্প খরচে ও অল্প সময়ে!

ঘরে বসেই হেয়ার স্পা করে নিন স্বল্প খরচে ও অল্প সময়ে!

6hb

ঘন, কালো ও লম্বা চুল পেতে আমরা কতো কিছুই না করি। অনেক সময় এক্সপেন্সিভ হেয়ার ট্রিটমেন্টও নেই। সবসময় পার্লার বা বিউটি সেল্যুনে যেয়ে হেয়ার ট্রিটমেন্ট নেওয়া তো সম্ভব হয় না। তাতে কী! ঘরে বসেই হেয়ার স্পা করে নিন মাত্র ৩টি ধাপে। আজকে শেয়ার করবো মাত্র ৩টি বেসিক স্টেপস যেগুলো ফলো করে পার্লারে না যেয়েও কম খরচে আপনি নিজেই হেয়ার স্পা করতে পারবেন। চলুন দেরি না করে এখনই জেনে নেই।

ঘরে বসেই হেয়ার স্পা

হেয়ার স্পা এমন একটি প্রসেস যেখানে কয়েকটি স্টেপস ফলো করে হেয়ারের টোটাল কেয়ার করা হয়। এক্সট্রা নারিশমেন্ট পেতে বা ড্যামেজ হেয়ার রিপেয়ারের জন্য এই ট্রিটমেন্টটি খুবই কার্যকরী। এই প্রসেসের বেসিক ৩টি ধাপ হচ্ছে-

  • অয়েল ম্যাসাজিং
  • স্টিমিং
  • হেয়ার মাস্ক অ্যাপ্লাইয়িং

এই ৩টি স্টেপস ফলো করার মাধ্যমে রাফ হেয়ার রিপেয়ার করা যায় ইনস্ট্যান্টলি! যাদের হেয়ার টোটালি ফ্রিজি আর ড্যামেজড, তাদের জন্য এই হেয়ার স্পা ম্যাজিকের মতো কাজ করবে। তাই হেলদি ও শাইনি হেয়ার পেতে চাইলে ঘরে বসেই করে নিন হেয়ার স্পা। স্টেপগুলো দেখে নিন তাহলে।

চুলে তেল দেওয়া

অয়েল ম্যাসাজিং

ঘরে বসেই হেয়ার স্পা করতে চাইলে এর প্রথম ধাপ হচ্ছে স্ক্যাল্প ও চুলে অয়েল ম্যাসাজ করা। ৩ টেবিল স্পুন কোকোনাট অয়েল এর সাথে ১ টেবিল স্পুন আমন্ড অয়েল নিয়ে ওভেনে হালকা গরম করে মিক্স করে নিন। কোকোনাট অয়েল চুলকে ময়েশ্চারাইজড রাখে এবং স্ক্যাল্পে নিউট্রিয়েন্টস প্রোভাইড করে। আর আমন্ড অয়েল হেয়ারকে সফট অ্যান্ড স্মুথ করে। এতে আছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ই, যা চুলকে করে তোলে শাইনি। প্রথম ধাপে চুলের গোড়া থেকে শুরু করে পুরো চুলে ভালোভাবে অয়েল ম্যাসাজ করে ফেলুন। এতে স্ক্যাল্পে ব্লাড সারকুলেশন ইম্প্রুভ হয়, ফলে হেয়ার ফল কমে।

স্টিমিং

হেয়ার স্টিম করার জন্য একটা তোয়ালে গরম পানিতে ভিজিয়ে ভালোভাবে পানি ঝরিয়ে চুলে পেচিয়ে রাখুন ৫ থেকে ১০ মিনিট। স্টিমিং আপনার হেয়ার কিউটিকলকে ওপেন করে যেন প্রোডাক্ট হেয়ার শ্যাফটের ভেতর ভালোভাবে পেনিট্রেট হয়ে নেক্সট স্টেপের জন্য হেয়ারকে প্রিপেয়ার করতে পারে।

 

হেয়ার মাস্ক অ্যাপ্লাইয়িং

সবচেয়ে ইম্পরট্যান্ট স্টেপ হলো হেয়ার মাস্ক অ্যাপ্লাই করা। সবসময় যে ক্রিমি টেক্সচারের ডিপ কন্ডিশনিং হেয়ার মাস্ক (পার্লারে নরমালি এগুলো অ্যাপ্লাই করা হয়) ইউজ করতে হবে তা কিন্তু না। আমরা ন্যাচারাল ইনগ্রেডিয়েন্টস দিয়েও হেয়ার মাস্ক বানাতে পারি। প্রাকৃতিক উপাদানের তো কোনো সাইড ইফেক্ট নেই, সব ধরনের চুলেই ইজিলি মানিয়ে যায়। কিন্তু সব উপাদান কালেক্ট করে গুঁড়ো করা, আবার সেগুলো মিক্স করা, এতো সময় কোথায়?! তাই আমার পছন্দ “রাজকন্যা হেয়ার রিপেয়ার মাস্ক’’। এই মাস্কে আছে এমন কিছু ন্যাচারাল ইনগ্রেডিয়েন্টস যা চুলের যত্নে ব্যবহৃত হয়ে আসছে যুগ যুগ ধরে। চলুন তাহলে সেই উপাদানগুলো নিয়ে একটু কথা বলা যাক। ১০০% ন্যাচারাল, পিওর ও অরগানিক এই মাস্কে আছে-

  • আমলা– যা হেয়ার ফল কমায় এবং হেয়ার রিগ্রোথ করতে হেল্প করে
  • নিম– খুশকি দূর করে, স্ক্যাল্প একনে কমায়
  • ব্রাহ্মী– চুলের আগা ফাটা প্রিভেন্ট করে
  • হেনা– চুলকে ডিপলি কন্ডিশনিং করে
  • রিঠা– চুল ডিপলি ক্লিন করতে দারুণ কাজ করে
  • ভৃঙ্গরাজ– প্রাকৃতিকভাবে চুলকে কালো করে এবং প্রিম্যাচিউর হেয়ার গ্রেয়িং প্রিভেন্ট করে

ঘরে বসেই হেয়ার স্পা

হেয়ার প্রবলেমের সল্যুশন হবে একটি মাস্ক দিয়েই

হেয়ার মাস্ক রেডি করার জন্য রাজকন্যা হেয়ার রিপেয়ার মাস্কের সাথে টকদই আর মধু ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। টকদই ড্যানড্রাফের প্রবলেম রিডিউস করে। আর মধু চুলে এক্সট্রা শাইন প্রোভাইড করে। স্ক্যাল্প থেকে চুলের আগা পর্যন্ত ভালোমতো অ্যাপ্লাই করে নিয়ে অপেক্ষা করুন ৪৫ মিনিট। প্যাকটি শুকিয়ে আসলে শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে নিন। ভেজা চুলে কন্ডিশনার অ্যাপ্লাই করুন। এবার ভালোভাবে চুল ধুয়ে নিলেই হেয়ার স্পা এর বেসিক স্টেপগুলো কমপ্লিট হয়ে যাবে। আপনারা চাইলে চুল ড্রাই করে হেয়ার সিরাম অ্যাপ্লাই করে নিতে পারেন।

চুলের হাত দিলে এবার ডিফারেন্সটা নিজেই বুঝতে পারবেন। সপ্তাহে একবার এই প্রসেস ফলো করে চুলের যত্ন নিতে পারলে চুল হবে হেলদি আর শাইনি। ঘরে বসেই হেয়ার স্পা করার টেকনিক জানা হয়ে গেলো। রাজকন্যা হেয়ার রিপেয়ার মাস্ক আমি নিয়েছি সাজগোজ থেকে। অনলাইনে অথেনটিক প্রোডাক্ট কিনতে পারেন শপ.সাজগোজ.কম থেকে অথবা সাজগোজের ৪টি শপ- যমুনা ফিউচার পার্ক, বেইলি রোডের ক্যাপিটাল সিরাজ সেন্টার, উত্তরার পদ্মনগর (জমজম টাওয়ারের বিপরীতে) ও সীমান্ত সম্ভার থেকেও বেছে নিতে পারেন আপনার পছন্দের প্রোডাক্টটি।

 

 

ছবি- সাজগোজ

7 I like it
3 I don't like it
পরবর্তী পোস্ট লোড করা হচ্ছে...